ফার্নিচার

ফার্নিচার নিয়ে কি ভাবছো?

আমানুল্লাহ সরকার: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 বেতের ফার্নিচার ঢাকার কোথায় কিনতে পাওয়া যাবে?

উত্তর দাও (০ টি উত্তর আছে )

*বেত* *ফার্নিচার* *কেনাকাটা*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রতিদিনের নিত্যনতুন আবিষ্কার মানুষের জীবনকে আরও রঙ্গিন ও আরামদায়ক করে তুলেছে। ব্যস্ত দুনিয়ায় সব কিছুই দ্রুত বদলে যাচ্ছে। ফ্যাশন থেকে ডেকোরেশন সব কিছুতেই কিছুতেই নতুনত্বের ছোঁয়া। নতুনত্ব এসছে ফার্নিচারেও। বাড়িতে নতুন লুক আনেত চাইলে আধুনিক ফার্নিচারের জুড়ি নেই। হালের সব ফার্ণিচারকে বিদায় জানিয়ে মানুষ স্মার্ট ফার্ণিচারে দিকে ঝুঁকে পড়েছে। স্মার্ট ও আনকমন কিছু ইউনিক ফার্নিচার আপনার ঘরের জায়গা বাঁচানোর পাশাপাশি রুম ডেকরেশন বাড়িয়ে দেবে দ্বিগুণ। তাই আর দেরি না করে আপনার বাড়ির জন্য নিয়ে নিন সেরা কয়েকটি ফার্নিচার।

শু র‌্যাক ও শু অরগানাইজারঃ


এলোমেলো ভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা জুতা স্যান্ডেল গুলোকে গুছিয়ে রাখার জন্য আপনার বাড়িতে রাখুন শু র‌্যাক ও শু অরগানাইজার। বাসার মূল ফটকের পাশে বা মূল ফটকের বাইরে অথবা ডুপ্লেক্স বাড়ির সিঁড়ির নিচে শু র‌্যাক রাখতে পারেন। জুতা, স্যান্ডেল যেমন প্রয়োজনীয় ঠিক তেমনই শৌখিন, জুতা সাধারণত একটু দাম দিয়ে, টেকসই দেখে কেনা হয়। বিশেষ করে যারা ম্যাচিং করে জুতা পরেন না, তারা জুতার ব্যাপারে একটু বেশিই নজর রাখেন। পয়েন্টেড হিল, স্নিকার বা ফর্মাল শু - যেকোনো ধরনের জুতা বেশিদিন টেকসই ও ভালো রাখতে পারে এই শু র‌্যাক। এতে যেমন জুতা থাকে যত্নে, ঠিক তেমনই বাড়ে ঘরের শোভা।

ওয়্যারড্রোব ও ক্যাবিনেটঃ

যাদের বাসায় কাপড়-চোপড় এদিক ওদিক ছড়িয়ে পুরো ঘরের বেহাল দশা হয়ে থাকে ওয়্যারড্রোবে তাদের সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে নিমেষেই। ঘরের যেকোনো এক জায়গায় রেখে পরিপাটিভাবে সব গুছিয়ে রাখতে ওয়্যারড্রোবের তুলনা নেই। কাপড় ছাড়াও যারা ছোট ছোট প্রয়োজনীয় জিনিসগুরো গুছিয়ে রাখতে চান তারা একটা ক্যাবিনেট নিয়ে নিতে পারেন।

সোফাঃ

সোফা যে শুধুই বসার ঘরের জন্য আর বেডরুমের জন্য তা নয়, চাইলে ঘরেও ছোট সোফা রাখা যায়। তবে তার ছোট রুমে ঢাউস আকৃতির চিরাচরিত সোফা না রাখাটাই ভালো, এক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন নান্দনিক ইনফ্লাটেবল সোফা। সব মিলিয়ে সোফা নির্বাচনের সময় রুমের দেয়ালের রঙ, রুমের আকৃতি ও রুমের অন্যান্য ফার্নিচারের রঙ খেয়াল রাখতে হবে। এই তিনটি বিষয়ের সমন্বয় আপনাকে তার জন্য মানানসই সোফা পেতে সাহায্য করবে।

এয়ার পাম্পিং বেডঃ

ইলেক্ট্রিক পাম্পারের সমন্বয়ে তৈরী এয়ার পাম্পিং বেড। সারা দিনের ক্লান্তি শেষে বাড়িতে গিয়ে একটু আরাম পরে রেস্ট নেওয়ার জন্য এটি বেশ উপযোগী। প্রয়োজন অনুযায়ী এটি ব্যবহার করতে পারবেন এবং প্রয়োজন শেষে পাম্প ছেড়ে দিয়ে গুছিয়ে রাখতে পারবেন। আবার পাম্পিং মেশিন দিয়ে সহজেই বেড পাম্প করা যায়। সাথে পাম্প দেবার জন্য পাচ্ছেন ইলেক্ট্রিক পাম্পার একদম ফ্রি!

ক্লথ হ্যাঙ্গিং স্ট্যান্ডঃ


বিশেষ করে ব্যাচেলররা যারা কাপড় রাখার জন্য অল্প টাকার মধ্যে স্ট্যান্ড কিনতে চান তাদের জন্য এটি বেশ উপযোগী। স্ট্যান্ডটি স্টেইনলেস স্টীলের তৈরী। এটিতে কাপড় রাখার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা রয়েছে একং জুতা রাখার জন্য নিচে একটি তাক রয়েছে। স্ট্যান্ডটি ফোল্ডেবল তাই ঘরের জায়গা বাঁচায়। অ্যাডজাস্টেবল হাইট ও যে কোনো জায়গায় মুভ করার জন্য স্ট্যান্ডটিতে চাকা রয়েছে।


আপনার বাড়ির জন্য দরকারি এসব ফার্নিচারের কালেকশন পাবেন আজকেরডিলে। এছাড়াও স্মার্ট ও এয়ার পাম্পিংসহ সব ধরনের ফার্নিচার রয়েছে আজকেরডিলের ওয়েবসাইটে। সাশ্রয়ী মূল্যে দেশের যেকোন প্রান্ত থেকে ঘরে বসেই ঘর সাজানোর ফার্নিচার যারা কিনতে চান তারা এখানে ক্লিক করুন

*ফার্নিচার* *সেরাকয়েকটিফার্নিচার* *স্পন্সরডকনটেন্ট* *আজকেরডিল* *স্মার্টশপিং*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ব্যাক পেইন থেকে রেহাই পেতে অফিসে কেমন চেয়ার বেছে নেবো ?

উত্তর দাও (০ টি উত্তর আছে )

.
*চেয়ার* *এক্সিকিউটিভচেয়ার* *অফিসেরচেয়ার* *লাইফস্টাইলটিপস* *ফার্নিচার* *আসবাবপত্র*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 কাঠের আসবাব থেকে পানির দাগ দূর করার উপায় কি?

উত্তর দাও (৩ টি উত্তর আছে )

.
*কাঠেরআসবাব* *ফার্নিচার* *পানিরদাগ*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 কাঠের তৈরি আসবাব যেমন টেবিল বা বেঞ্চে মার্কার পেনের কালি লেগে গেল, তুলবেন কীভাবে?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

*কাঠেরআসবাব* *ফার্নিচার* *মার্কারপেন* *মার্কারেরদাগ* *দাগদূর* *লাইফস্টাইলটিপস*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রতিদিনের নিত্যনতুন আবিষ্কার মানুষের জীবনকে আরও রঙ্গিন ও আরামদায়ক করে তুলেছে। ব্যস্ত দুনিয়ায় সব কিছুই দ্রুত বদলে যাচ্ছে। ফ্যাশন থেকে ডেকোরেশন সব কিছুতেই কিছুতেই নতুনত্বের ছোঁয়া। নতুনত্ব এসছে ফার্নিচারেও। বাড়িতে নতুন লুক আনেত চাইলে আধুনিক ফার্নিচারের জুড়ি নেই। হালের সব ফার্ণিচারকে বিদায় জানিয়ে মানুষ স্মার্ট ফার্ণিচারে দিকে ঝুঁকে পড়েছে। স্মার্ট ফার্ণিচার গুলো আপনার ঘরের জায়গা বাঁচানোর পাশাপাশি রুম ডেকরেশন বাড়িয়ে দেব দ্গিগুণ। তাই আর দেরি না করে আপনার বাড়ির জন্য নিয়ে নিন সেরা কয়েকটি ফার্নিচার আইটেম।

শু র‌্যাকঃ


মূল ফটকের প্যাসেজে বা মূল ফটকের বাইরে অথবা ডুপ্লেক্স বাড়ির সিঁড়ির নিচ হতে পারে একটি চমত্কার শু র‌্যাকের জায়গা ! এর কোণে বসিয়ে দিন একটি আকর্ষণীয় লম্বা ফুলদানি আর দেয়ালে ফ্যামিলি ফটোগ্রাফ বা চিত্রকর্ম । জুতা, স্যান্ডেল যেমন প্রয়োজনীয় ঠিক তেমনই শৌখিন, জুতা সাধারণত একটু দাম দিয়ে, টেকসই দেখে কেনা হয়। বিশেষ করে যারা ম্যাচিং করে জুতা পরেন না, তারা জুতার ব্যাপারে একটু বেশিই নজর রাখেন। পয়েন্টেড হিল, স্নিকার বা ফর্মাল শু - যেকোনো ধরনের জুতা বেশিদিন টেকসই ও ভালো রাখতে পারে এই শু র‌্যাক। এতে যেমন জুতা থাকে যত্নে, ঠিক তেমনই বাড়ে ঘরের শোভা।

 সোফাঃ


সোফা যে শুধুই বসার ঘরের জন্য আর বেডরুমের জন্য তা নয়, আর চাইলে আপনার সোনামনির ঘরেও ছোট সোফা রাখা যায়। তবে তার ছোট রুমে ঢাউস আকৃতির চিরাচরিত সোফা না রাখাটাই ভালো, এক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন নান্দনিক ইনফ্লাটেবল সোফা। সব মিলিয়ে সোফা নির্বাচনের সময় বাচ্চার রুমের দেয়ালের রঙ, রুমের আকৃতি ও রুমের অন্যান্য ফার্নিচারের রঙ খেয়াল রাখতে হবে। এই তিনটি বিষয়ের সমন্বয় আপনাকে তার জন্য মানানসই সোফা পেতে সাহায্য করবে।

এয়ার পাম্পিং সোফাঃ


ইলেক্ট্রিক পাম্পারের সমন্বয়ে তৈরী এয়ার পাম্পিং সোফা। সারা দিনের ক্লান্তি শেষে বাড়িতে গিয়ে একটু আরাম পরে রেস্ট নেওয়ার জন্য এটি বেশ উপযোগী। প্রয়োজন অনুযায়ী এটি ব্যবহার করতে পারবেন এবং প্রয়োজন শেষে পাম্প ছেড়ে দিয়ে গুছিয়ে রাখতে পারবেন। আবার পাম্পিং মেশিন দিয়ে সহজেই সোফা পাম্প করা যায়। সাথে পাম্প দেবার জন্য পাচ্ছেন ইলেক্ট্রিক পাম্পার একদম ফ্রি!

পকেট চেয়ারঃ


ঘরে আরাম বাইরে আরাম, আরাম এখন সবখানে! আরাম ছাড়া কেউ কি বসতে চায়? নিশ্চয় আপনি চাইবেন একটু আরাম করে বসতে। আপনার সে আরাম যেন শুধু ঘরের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থাকে সে জন্যই বিভিন্ন কোম্পানী তৈরী করেছে ফল্ডিং পকেট চেয়ার। স্পোর্টিং, ক্যাম্পিং, ফিশিং ও পিকনিকসহ অন্যান্য আউটডোর অ্যাক্টিভির জন্য সাথে রাখতে পারেন পকেট চেয়ার। এখন থেকে দাড়িয়ে থেকে আর কোমর ব্যাথা করতে হবেনা। ব্যাগ থেকে শুধু খুলবেন আর সেট করে আরাম করে বসবেন সবসময় সবখানে।

ডাইনিং টেবিলঃ


বাড়ির সবাই মিলে একসাথে খাওয়ার জন্য ডাইনিং টেবিল বেশ গুরুত্বপূর্ণ। দারুন ফিনিশিং ও কাঠে খোদাই এর কাজ করা ডাইনিং টেবিল আপনার ঘরের সৌন্দর্য্যকে বহুগুণে বাড়িয়ে দেবে। একটি ডাইনিং টেবিলের সাথে ৬টি নান্দনিক ডিজাইনের চেয়ার রয়েছে।

বন্ধুরা, ফার্নিচারের এই সবগুলো আইটেমই আপনি ঘরে বসে কিনতে পারবেন। অসংখ্য ফার্নিচারের মধ্যে থেকে আপনার পছন্দেরটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 

*ফার্নিচার* *গৃহসজ্জা* *স্মার্টফার্নিচার* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাচ্চাদের ঘর কিভাবে সাজানো যায় তা নিয়ে চিন্তায় থাকেন সকল বাবা না। বাসা হোক বা ফ্ল্যাট, বাচ্চাদের জন্য চাই আলাদা একটা ঘর। যত্নে আর ভালবাসায় সাজানো। বাচ্চার ঘর বলে কথা, সেটা তো যেমন তেমন করে সাজানো যায় না। মনের মাধুরি থেকে যত্ন সহকারে সাজাতে হবে সেই ঘর। ঘরের রঙ থেকে শুরু করে নজর দিতে হবে পাপশ পর্যন্ত। বাচ্চাদের ঘর ডিজাইন করার সময়ে খেয়াল রাখবেন- ঘর যেন বেশি ক্রাইডেড না হয়। শিশুর ঘরে ছোট আকৃতির দু-একটি সোফা অনায়াসে রাখতে পারেন। 

সোফা যে শুধুই বসার ঘরের জন্য আর বেডরুমের জন্য তা নয়,  আর চাইলে আপনার সোনামনির ঘরেও ছোট সোফা রাখা যায়। তবে তার ছোট রুমে ঢাউস আকৃতির চিরাচরিত সোফা না রাখাটাই ভালো, এক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন নান্দনিক ইনফ্লাটেবল সোফা। সব মিলিয়ে সোফা নির্বাচনের সময় বাচ্চার রুমের দেয়ালের রঙ, রুমের আকৃতি ও রুমের অন্যান্য ফার্নিচারের রঙ খেয়াল রাখতে হবে। এই তিনটি বিষয়ের সমন্বয় আপনাকে তার জন্য মানানসই সোফা পেতে সাহায্য করবে।

 

বর্তমানে ইনফ্লাটেবল সোফার ক্ষেত্রে রঙ, নকশা, আকৃতি সবকিছুতেই বেশ পরিবর্তন এসেছে।ঘরের ভেতরেই শিশু খেলবে, পড়বে, সে নিজের মতো সময় কাটাবে শিশুর কল্পনার মতো এমন একটা জগৎ গড়ে তোলা যেতে পারে। ঘরটা যে শিশুর নিজস্ব, সেই অনুভূতিটাও সে পাবে। তার বন্ধুবান্ধব আসলে তার রুমে তারা একে অপরের সাথে এমন সোফায় বসে খুনসুটিতে মেতে উঠবে। 

এই সব কিছুর সামঞ্জস্য রেখে যদি আপনি আপনার শিশুর ঘরটি ইন্টেরিয়র করতে পারেন তাহলে দেখবেন সেই ঘরটি শিশুর কাছে হয়ে উঠবে আকর্ষণীয় এবং সবচেয়ে পছন্দের জায়গা।

সোফাগুলো কিনতে ছবিতে আর এই লিংকে ক্লিক করুন।

*সোফা* *ইনফ্লাটেবলসোফা* *শিশুরঘর* *গৃহসজ্জা* *বাচ্চাদেরঘর* *ফার্নিচার* *আসবাবপত্র*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রতিদিন কাপড় বের করা এবং রাখার জন্য আলমারির ভেতরের কাপড় এলোমেলো হয়ে যায়। তারপর যদি হয় ছোট আলমারি আর ইঁদুর, তেলাপোকার উপদ্রব ? এতো এতো পোশাক কি আর ভালোভাবে ছোট আলমারিতে আটে ! আপনার চাই একটা বড় সড় পোক্ত সেগুন কাঠের টেকসই আলমারি। সেগুন কাঠের উপর কোনো কাঠ আছে নাকি আর। ঘরের নান্দনিকতা বাড়াতে কাঠের আসবাবের জুড়ি নেই। আপনার আলমারি যেমন গোছানো থাকবে ঠিক তেমনই আপনার ঘরের আভিজাত্যেও প্রকাশও এই কাঠের আসবাব থেকেই হবে, আর সেটা যদি হয় সেগুন কাঠের ফার্নিচার তাহলে তো কোনো কোথায় নেই। সেগুন কাঠ মানেই কাঠের মানের সঙ্গেও আপোষ চলবে না। হ্যাঁ মান ও নান্দনিকার চমৎকার মেলবন্ধনের নাম আজকের ডিল, সেখান থেকেই কিনুন হরেকরকম ফার্নিচার। আর দামও হাতের নাগালে। তাই ঘর সাজাতে পছন্দ আসবাব কিনতে ঘুরে আসতে পারেন আজকের ডিলে। খাট, ওয়ারড্রব, ড্রেসিং টেবিল, সোফা, ডাইনিং, চেয়ার থেকে শুরু করে ঘরের প্রায় সব আসবাব মিলবে এখানে। সুন্দর ও আকর্ষণীয় ফার্নিচারগুলো তৈরি করা হয়েছে কাঠ, ফ্লাই উড ও মেটাল দিয়ে। বিভিন্ন সাইজ ও ডিজাইনের সমাহারে তৈরি বোর্ড এবং ওক কাঠের আলমারি ১০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে বিভিন্ন দামে পাওয়া যাচ্ছে এখানে। আপনাদের জন্য রয়েছে স্বল্প দামে সেগুন কাঠের আলমারি, দেখে নিন এক ঝলক আর পছন্দ হলে ছবিতে ক্লিক করুন।

*সেগুনকাঠ* *কাঠেরআলমারি* *আলমারি* *ফার্নিচার* *আসবাবপত্র*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

শতকরা ৮০ ভাগ মানুষই তার জীবনকালে একবারের জন্য হলেও কোমরব্যথায় আক্রান্ত হয়ে থাকেন। ৪০ থেকে ৫০ বছর বয়সেই এই সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। তবে তরুণরাও আশঙ্কার বাইরে নন। ডাক্তারি ভাষার এই সমস্যাকে বলা হয় এলবিপি (লো ব্যাক পেইন)। বেশিরভাগই দৈনন্দিন জীবনযাত্রার বিভিন্ন অভ্যাসগত ভুলের কারণে এই রোগে আক্রান্ত হন। দীর্ঘ সময় চেয়ারে বসে থাকা কোমরব্যথা হওয়ার একটি বড় কারণ। অনেকেই মনে করেন শক্ত কাঠের চেয়ারে কিংবা নরম গদিযুক্ত চেয়ারে বসলে কোমরব্যথার হওয়ার সম্ভাবনা কমে। তবে এই ব্যথা এড়ানোর জন্য পিঠে হেলান দিয়ে বসাই বেশি জরুরি।

কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করার সময় কমফোর্ট ফিল করবেন এমন যেকোন চেয়ারই উপযোগি বলা যায়। তবে এমন চেয়ার ব্যবহার করবেন যেন সেটা বসে কাজ করার সময় আপনার মেরুদন্ড সোজা রাখে। কিছুটা হেলানো কিংবা হেলান দেয়ার মতো কিছু না থাকা টা মোটেও ঠিক নয়। কারণ চেয়ারে কাজ করার সময় যদি কমফোর্ট ফিল না করেন তবে সেটা আপনার পিঠ, ঘাড় ইত্যাদি স্থানে ব্যথা বা অস্বস্তি সৃষ্টি করবে। এক্ষেত্রে যেসব চেয়ারের হেলান দেওয়ার অংশটি বাঁকানো সেসব চেয়ার ব্যবহার করা দরকার। আর অতিরিক্ত নরম গদিযুক্ত চেয়ারে বসলেও কোমরের ক্ষতি হতে পারে। এজন্য পাতলা গদির চেয়ারে বসতে হবে। পিসির সামনে বসার চেয়ারটা কেমন হওয়া উচিৎ এটা নিয়ে একটা দারুণ ভিডিও আছে দেখে আইডিয়া নিতে পারেন।


https://www.youtube.com/watch?v=Whhf55No15U 

অভিজ্ঞরা চেয়ার কেনার সময় অনেকে কাঠের তৈরি চেয়ার কেনার পরামর্শ দেন পিঠের স্বাস্থর কথা ভেবে। তবে যেহেতু আপনি অনেকসময় ধরে কাজ করবেন সেক্ষেত্রে ফোম বা মেটাল বডির বিভিন্ন ফোল্ডিং চেয়ার থেকে পছন্দ করে কিনতে পারেন, সাথে কিনে নেবেন "সিট রাইট ব্যাক সাপোর্ট ফর অফিস চেয়ার"। ভালো চেয়ারগুলো ৪০০০ থেকে ৫০০০ টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন। শুধু তাই নয়, এক্সিকিউটিভ চেয়ার এখন পাওয়া যাচ্ছে আজকের ডিলেও। 

 

আজকের ডিলের এক্সিকিউটিভ চেয়ার ও সিট রাইট ব্যাক সাপোর্ট ফর অফিস চেয়ার সমন্ধে ছোট একটি রিভিউ দেখে নিতে পারেন এক ঝলকে। 

  • এক্সিকিউটিভ সুইভেল চেয়ার
    ব্যাক ম্যাটেরিয়াল: ব্ল্যাক মেস আপহোলস্ট্রি
    হাতল ম্যাটেরিয়াল: PP
    সিট ম্যাটেরিয়াল: স্ট্যান্ডার্ড মোল্ডেড ফোম উইথ ব্ল্যাক মেস আপহোলস্ট্রি
    টিল্ট এবং লকড ম্যাকানিজম, যা আরামদায়কভাবে পিছন দিকে হেলতে সহায়তা করবে
    হাই কোয়ালিটি গ্যাস লিফট, তাই চেয়ারকে স্মুদলি আপ-ডাউন করানো যায়
    ক্রোমিয়াম ধাতু এবং নাইলনের সমন্বয়ে তৈরি মজবুত চেয়ার
    অফিস, সেলুন বা VIP লাউঞ্জে অতিথীদের বসার জন্য আদর্শ একটি চেয়ার

 

  • সিট রাইট ব্যাক সাপোর্ট ফর অফিস চেয়ার
  • দীর্ঘ সময় কম্পিউটার সামনে বা পড়ার টেবিলে বসে থাকতে থাকতে কিংবা অফিসে চেয়ারে বসে অথবা গাড়ি চালাতে চালাতে পিঠ ব্যথার সমস্যা গুলোকে দূর করবে এবং আনন্দময় কাজের অনুভুতি দিবে- যাতে আপনি দীর্ঘক্ষণ কাজ করতে পারবেন
    এছারা যাদের মেরুদন্ডে ব্যথা তাদের জন্য অত্যন্ত কার্যকরি
    কাজের গতি বাড়াতে সাহায্য করে
    মেরুদন্ড / কোমর ও পিঠের ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে
    Adjustable যা আপনার সুবিধা অনুযায়ী Adjust করতে পারবেন
    মেরুদন্ডের শেপ অনুযায়ী ব্যবহার করা যায়
    যে কোন চেয়ারে ব্যবহার করা যায়

এগুলো পছন্দ হলে অর্ডার করতে পারেন সরাসরি ছবিতে ক্লিক করে।  

*চেয়ার* *এক্সিকিউটিভচেয়ার* *অফিসেরচেয়ার* *লাইফস্টাইলটিপস* *ফার্নিচার* *আসবাবপত্র*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

মূল ফটকের প্যাসেজে বা মূল ফটকের বাইরে অথবা ডুপ্লেক্স বাড়ির সিঁড়ির নিচ হতে পারে একটি চমত্কার শু র‌্যাকের জায়গা ! এর কোণে বসিয়ে দিন একটি আকর্ষণীয় লম্বা ফুলদানি আর দেয়ালে ফ্যামিলি ফটোগ্রাফ বা চিত্রকর্ম । জুতা, স্যান্ডেল যেমন প্রয়োজনীয় ঠিক তেমনই শৌখিন, জুতা সাধারণত একটু দাম দিয়ে, টেকসই দেখে কেনা হয়। বিশেষ করে যারা ম্যাচিং করে জুতা পরেন না, তারা জুতার ব্যাপারে একটু বেশিই নজর রাখেন। পয়েন্টেড হিল, স্নিকার বা ফর্মাল শু - যেকোনো ধরনের জুতা বেশিদিন টেকসই ও ভালো রাখতে পারে এই শু র‌্যাক।  এতে যেমন জুতা থাকে যত্নে, ঠিক তেমনই বাড়ে ঘরের শোভা। প্যাসেজে জুতার র‌্যাক বানাতে চাইলে দেয়ালের সঙ্গে মিলিয়ে শু র‌্যাক বক্স আকারে তৈরি করে নিন। ডেকোরেটিভ টেবিলের মতোই শু র‌্যাকের ওপরে কিছু ডেকোরেটিভ আইটেম রাখুন।

 

উঁচু বা পয়েন্টেড হিল রয়েছে এরকম জুতা র‌্যাকে রাখার সময় শুইয়ে রাখুন। জুতার দুটোর মুখ একে অপরের বিপরীত দিকে থাকবে। এইভাবে জুতার বাক্সেও জুতা ভরিয়ে র‌্যাকে রাখতে পারেন। বুটের  মতো ফ্যাশনেবল জুতা সব সময় ব্যবহার করা হয় না। তাই গরমে ও বর্ষার সময় বুট শু র‌্যাকে তুলে রাখার সময় বিশেষ খেয়াল রাখা দরকার। বুটের ভেতর কাগজ ভরে বা লম্বা প্লাস্টিকের বোতল উল্টে রাখুন। শেপ বজায় থাকবে। বুটের চামড়ায় ভাঁজ পড়বে না। তবে ভেতরে ভারী কোনো জিনিস রাখবেন না। ব্যবহার করার সময় বুটের ভেতর থেকে কাগজ বের করে কিছুক্ষণ রোদে রাখুন। কাগজের গন্ধ চলে যাবে। সুইডিশ লেদারের তৈরি বুট হলে ব্যবহার করার আগে ব্রাশ দিয়ে ঝেড়ে ফেলুন। সাধারণ লেদারের জুতা হলে শু পলিশ লাগিয়ে নিন। শু র‌্যাক কাঠেরই ভালো হয়ে থাকে আর দেখতেও নান্দনিক, তবে বেশি খরচ করতে না চাইলে বোর্ডের বা প্লাস্টিকের শু র‌্যাকও কিনতে পারেন। 

আজকের ডিলে বোর্ডের ও প্লাস্টিকের পোর্টেবল কিছু শু র‌্যাক পাওয়া যাচ্ছে, ছবি গুলো দেখে পছন্দ হলে এক্ষুনি ক্লিক করুন।

*শুর‌্যাক* *জুতারযত্ন* *ফার্নিচার* *আসবাবপত্র*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

টিভি রাখার জন্য ঢাউস একখানা ওয়াল ক্যাবিনেট বানালে স্টোরেজ স্পেস অনেকটা পাওয়া যায় ঠিকই, কিন্তু দেখতে বড় বেশি হযবরল লাগে। ট্রেন্ড কিন্তু এই ধরনের ক্যাবিনেটের বিপরীত। লো লাইং টিভি বা ওয়াল ক্যাবিনেট ছোট-বড় যে কোনও ড্রইং রুমের সঙ্গেই মানানসই। মাটি থেকে ক্যাবিনেট-এর স্টোরেজ স্পেসটির উচ্চতা হাতখানেকের একটু বেশি। ক্যাবিনেট-এর ওপরের দেওয়াল জুড়ে থাকতে পারে বিভিন্ন দৈর্ঘ্যের ছোট-বড় শেলফ, ডিভিডি, ছোটখাটো শো-পিস, বই রাখার জন্য। যদি মনে হয় যে, আপনার সাউন্ড সিস্টেম এই ক্যাবিনেট-এ রাখা সম্ভব হচ্ছে না, সে ক্ষেত্রে আস্ত একখানা সাউন্ড চেয়ারই কিনে নিতে পারেন। এতে বিল্ট ইন অডিয়ো সিস্টেম থাকে বলে ল্যাপটপে লাগিয়ে গান শোনা যাবে। তবে লো লাইং টিভি ক্যাবিনেট-এর সঙ্গে সিটিং অ্যারেঞ্জমেন্ট যেন মানানসই হয়, অবশ্যই সে দিকে খেয়াল রাখবেন। টিভি-র মুখোমুখি লো হাইটের সোফা কাম বেড রাখা যেতে পারে। লো হাইট-এর ফোম-এর বেঞ্চও থাকতে পারে, তবে এ ক্ষেত্রে রিল্যাক্স করার সুযোগ কম থাকবে। 

যারা ঘরের নকশায় পছন্দ করেন একটু অভিনবত্ব এবং লিভিং রুমটি সিঁড়ির পাশে করে নিতেও যাদের সমস্যা নেই, তারা এর নিচের কোণটিতে করে নিতে পারেন আধুনিক নকশার একটি টিভি ক্যাবিনেট। ফলে এটি হয়ে উঠবে আকর্ষণীয় ও প্রায়োগিক একটি ক্ষেত্র। ছোট্ট ড্রয়িং রুমের জন্য মানানসই স্টিলের টিভি ক্যাবিনেট  পাওয়া যাচ্ছে  আজকের ডিলে।

পণ্যটির বিবরণ :
সাইজ: হাইট-24”, লেন্থ-45”, ওয়াইড-15”
২টি ড্রয়ার
ম্যাটেরিয়াল: স্টেইনলেস স্টিল
বি:দ্র: অর্ডার করার পর পণ্য হাতের পাওয়ার জন্য ঢাকার ভিতরে ৫ এবং ঢাকার বাইরে ৭ কর্মদিবস পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

দাম মাত্র ৫,৯৯০ টাকা, এক্ষনি অর্ডার করুন। 

*টিভিক্যাবিনেট* *ফার্নিচার* *আসবাবপত্র*

kona: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 নরমাল স্টিলের খাটের দাম কেমন? কারো জানা আছে কি?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*স্টিলেরখাট* *রডেরখাট* *ফার্নিচার* *আসবাব*

সাদাত সাদ: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ফার্নিচারের জন্যে সবচেয়ে ভাল কাঠ কি, কোন কাঠ বেশি মজবুত?

উত্তর দাও (২ টি উত্তর আছে )

.
*আসবাবপত্র* *ফার্নিচার* *কাঠ*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ঢাকা শহরে সহ যে কোনো জেলা শহরেই অধিকাংশ ব্যাচেলর একা একটি ফ্ল্যাট কিংবা কয়েকজন বন্ধু কিংবা সহকর্মী মিলে থাকেন। ব্যাচেলর জীবন অন্য মানুষের মতো না। তাদের জীবন প্রণালী সবসময়ই অগোছালো ও অনিয়মতান্ত্রিক। তাদের খাবার, পোশাক, ঘর, কাজ কোনো কিছুতেই যেনো নেই কোনো নিয়ম কানুনের ছোঁয়া।ঘরের চেয়ার বা সোফা ধরনের যেকোনো কিছু হলো আলনা। দরজার ওপরের কোনাও আলনা। ফ্লোরিং বিছানার একপাশে পরে থাকে কাঁথা, বালিশ সহ এক পাল নোংরা কাপড়। বাথরুম ছাড়া যেন সব রকম কাজই ওই ফ্লোরিং বেডে করা সম্ভব, আর তাই এ জন্য নিত্যপ্রয়োজনীয় সবকিছু যেন বিছানার আশপাশেই রাখতে হবে। আর ঠিক সে কারণেই ব্যাচেলর জীবন মানেই যেন ছারপোকাময়। নোংরা বিছানায়, বিছানার পোকা যখন রাতের বেলা রক্ত চুষতে শুরু করে, তখন ঘুমের বারোটা বাজলেও তা সয়ে নেবার অভ্যাস করে থাকে ব্যাচেলর মহাপুরুষগণ, তবে এক পর্যায়ে সহ্যের সীমা পার হয়ে গেলে শেষ পর্যন্ত বিছানাপত্তর গুটিয়ে ফেলার উপক্রম হয়ে দাড়ায়। হা হা হা, সব মিলে ব্যাচেলরদের যাপিত জীবন বড়ই মজার আর চাঞ্চল্যকর। তারা চলে রাজার হলে, পুরাই বিন্দাস ! 

কিনতে ক্লিক করুন 

ব্যাচেলর মানুষটি যখন ফ্ল্যাটে ওঠেন তখন নিজের থাকার ঘরটি সুন্দরভাবে সাজানোর স্বপ্ন দেখেন। কিন্তু আসলে শেষ পর্যন্ত আর হয়ে উঠে না। ব্যাচেলরদের ঘরটি এমনভাবে সাজানো দরকার যা তার চাহিদা মেটাবে একইসঙ্গে তার ঘরের সৌন্দর্য প্রকাশ করবে আর ছারপোকা, তেলাপোকা আর ইঁদুরের মত উটকো ঝামেলাগুলোও থাকবে না। সুলভ মূল্যে গৃহস্থালি কিছু জিনিস বা ফার্নিচার ব্যাচেলরদের যেমন প্রয়োজন মেটায় তেমনি ঘরকে করে তুলবে অনন্য। এরমধ্যে খাট, পড়ার টেবিল আর একটা ওয়্যারড্রোব থাকলেই আপনার এলোমেলো ঘর অনয়াসেই হয়ে উঠবে আকর্ষনীয়, সুন্দর আর গোছালো। 

কিনতে ক্লিক করুন

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন পরিবেশ মনকে সতেজ রাখে। তাই ব্যাচেলরদের ঘরও পরিষ্কার রাখা প্রয়োজন। সাধারণত ব্যাচেলরদের ঘরগুলো অপরিষ্কার থাকে। আর এর মূল কারণ অলসতা। ঘর নোংরা থাকলে, ঘরের পরিবেশ যেমন নষ্ট হয়, তেমনি অপরের জন্যও অস্বস্তিকর। অথচ যে সময়ে আপনি লুঙ্গি ও শার্টটি খুলে টেবিলে ও চেয়ারে রেখেছেন, সেই সময়ের মধ্যেই তা আলনায় ভাজ করে রাখতে পারেন অবলিলায়। দেখবেন রুমের পরিবেশটা একটু সচেতনতায় অনেক পরিবর্তন হয়ে গেছে। আসলে জিনিসপত্র যত্রতত্র না রেখে যথাস্থানে রাখলেই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকবে আপনার ঘর। বিছানা ফ্লোরিং না করে যদি কষ্ট করে অল্পের মধ্যে একটা খাট কিনে নেয়া যায়, তাহলে অনেক সমস্যারই মুশকিল আসান হয়ে যায় কিন্তু। 

কিনতে ক্লিক করুন

তাই সকলে মিলে একটা বড় সড় খাট কিনে নিতে পারেন অনায়াসে। তবে যদি বেড শেয়ার করতে অসুবিধা থাকে, তাহলে আপনার জন্য সিঙ্গেল খাটই ভালো। তবে অনেকে মোটা টাকা গুনতে হয় বলে খাট কেনার প্রতি তেমন আগ্রহ প্রকাশ করেন না, তাদের জন্য সুখবর। আজকাল বাজারে বোধয় ব্যাচেলরদের কথা মাথায় রেখে বানানো হচ্চ্ছে নানা ম্যাটেরিয়ালের খাট (কাঠ,বোর্ড, স্টিল) এবং দামও হাতের নাগালে। এই তো সেদিন অনলাইন শপ আজকের ডিলেও চোখে পড়ল ব্যাচেলরদের জন্য খাট, টেবিল আর ওয়্যারড্রোব। আপনার জন্য সেগুলোর কিছু তথ্য দিলাম, ছবিতে ক্লিক করে দেখে নিতে পারেন এই আসবাবগুলো আর পছন্দ হলেই অর্ডার করে কিনে নিতে পারেন আপনার ব্যাচেলর সংসারের জন্য।

আসলে আপনার অগোছালো ব্যাচেলর জীবনটাও সুন্দর আর সতেজ করে তুলতে পারেন খুব সহজেই। শুধু প্রয়োজন আপনার নিয়মিত কয়েকটি কাজের পরিবর্তন। তাহলেই দেখবেন সব ঠিকটাক। আপনার ঘরে এসে কেউ বুঝুতেই পারবে না এটা ব্যাচেলর না ফ্যামিলি বাসা। আর হ্যা, সব থেকে বড় কথা এই যে ছারপোকার সমস্যা থেকে কিন্তু আপনি একেবারে মুক্ত থাকবেন।

*ব্যাচেলর* *ফার্নিচার*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রতিদিনের নিত্যনতুন আবিষ্কার মানুষের জীবনকে আরও রঙ্গিন ও আরামদায়ক করে তুলেছে। ব্যস্ত দুনিয়ায় সব কিছুই দ্রুত বদলে যাচ্ছে। ফ্যাশন থেকে ডেকোরেশন সব কিছুতেই কিছুতেই নতুনত্বের ছোঁয়া। নতুনত্ব এসছে ফার্নিচারেও। বাড়িতে নতুন লুক আনেত চাইলে আধুনিক ফার্নিচারের জুড়ি নেই। হালের সব ফার্ণিচারকে বিদায় জানিয়ে মানুষ স্মার্ট ফার্ণিচারে দিকে ঝুঁকে পড়েছে। স্মার্ট ফার্ণিচার গুলো আপনার ঘরের জায়গা বাঁচানোর পাশাপাশি রুম ডেকরেশন বাড়িয়ে দেব দ্গিগুণ। তাই আর দেরি না করে আপনার বাড়ির জন্য নিয়ে নিন সেরা কয়েকটি স্মার্ট ফার্নিচার।

রিডিং টেবিল ফর কিডসঃ

এটি বাচ্চাদের জন্য পড়ার টেবিল। টেবিলটি ঘরের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধির পাশা পাশি ছোট খাট ঘরগুলোর জায়গা বাড়িয়ে দিবে। পড়াশুনা শেষে টেবিলটি হোল্ড করে সরিয়ে রাখতে পারবেন।
বিস্তারিত-
-বাচ্চাদের লেখাপড়ার জন্য টেবিল
-আকর্ষণীয় ডিজাইন
-ইম্পোর্টেড ফ্রম চায়না
-দাম ২৮৮৬ টাকা

ফোল্ডিং পকেট চেয়ারঃ

ঘরে আরাম বাইরে আরাম, আরাম এখন সবখানে! আরাম ছাড়া কেউ কি বসতে চায়? নিশ্চয় আপনি চাইবেন একটু আরাম করে বসেতে চাইবেন। যদি তাই হয় তবে এই ফোল্ডিং পকেট চেয়ার ্আপনার জন্য।
বিস্তারিত-
-কমপ্যাক্ট ডিজাইন
-স্পোর্টিং, পিকনিক, ক্যাম্পিং, ফিশিং -এ আপনার বিশ্বস্ত সঙ্গী হবে এই পকেট গার্ডেন চেয়ার।
-আপনি এটাকে ভাঁজ করে সহজেই পকেটে বহন করতে পারেন
-ম্যাটেরিয়ালঃ নাইলন ও স্টিল
-হাল্কা কিন্তু মজবুত
-১০০ কেজি পর্যন্ত ওজন বহন করতে পারে।
-দাম ৪৭০ টাকা।

এয়ার পাম্পিং সোফাঃ

ইলেক্ট্রিক পাম্পারের সমন্বয়ে তৈরী এয়ার পাম্পিং সোফা। সারা দিনের ক্লান্তি শেষে বাড়িতে গিয়ে একটু আরাম পরে রেস্ট নেওয়ার জন্য এটি বেশ উপযোগী। প্রয়োজন অনুযায়ী এটি ব্যবহার করতে পারবেন এবং প্রয়োজন শেষে পাম্প ছেড়ে দিয়ে গুছিয়ে রাখতে পারবেন।
বিস্তারিত-
-এয়ার পাম্পিং সোফা
-পাম্পিং মেশিন দিয়ে সহজেই সোফা পাম্প করা যায়
-সাথে পাচ্ছেন ইলেক্ট্রিক পাম্পার একদম ফ্রি
-দাম-২৭৯৯ টাকা

ইনফ্লাটেবল সোফা



ঘরে বাইরে সব জায়গায় ধুমিয়ে ব্যাবহার করার জন্য এই সোফা বেশ উপযোগী। এটি আপনার ঘরের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধির পাশাপাশি জায়গা বাঁচাতেও সাহায্য করবে।
-দাম৬২০০ টাকা


এয়ার বেড সিঙ্গেল সোফা


সারা জীবন কাঠের খাটে যারা ঘুমিয়ে কাটাচ্ছেন তাদের কে বলছি একটু আরাম নিতে চাইলে এয়ার বেড সিঙ্গেল সোফা ব্যবহার করুন। প্রয়োজনের সময় ব্যবহার করে অন্য সময় পাম্প ছেড়ে দিয়ে গুছিয়ে রাখতে পারবেন।
-দাম ৪,৮০০ টাকা

সবধরনের ফ্যাশনেবল স্মার্ট ফার্নিচার ঘরে বসে কিনতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

*ফার্নিচার* *গৃহসজ্জা* *স্মার্টশপিং*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ইনফ্লাটেবল এয়ার সোফা কাম বেড কোথায় পাওয়া যেতে পারে? কি কি সুবিধা রয়েছে এতে? এবং কেমন দাম পড়বে?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*ইনফ্লাটেবলএয়ারসোফা* *ইনফ্লাটেবলএয়ারবেড* *ফার্নিচার*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★