বর্ষাকাল
বর্ষাকাল নিয়ে কি ভাবছো?

সুমন (দুষ্ট পাখির বাবা): ভেবেছিলাম *বর্ষাকাল* শেষ হলে *বিছানাকান্দি* যেয়ে *আষাঢ়েগল্প* শুনবো আর *খিচুড়ি* খাব কিন্তু হায়রে কপাল আপুর *শখেরবাগান* *বৃষ্টি*র কারণে নষ্ট হলে বাসার *পরিস্থিতি**গরম* হয়ে উঠে তাই *গ্যাঞ্জাম* থেকে বাঁচতে *টঙের-দোকান* বসে আছি.....

*বর্ষাকাল* *বিছানাকান্দি* *আষাঢ়েগল্প* *খিচুড়ি* *শখেরবাগান* *পরিস্থিতি**গরম* *গ্যাঞ্জাম*

3niR: *বর্ষাকাল* মাথায় উপর ছাদ থাকলে সুখই বটে...(চাখাই)

ঈশরাত জাহান ঈশিতা: *বর্ষাকাল* বৃষ্টি স্কুল থেকে ফিরছি রিকশা নাই, আমি আর আমার বান্ধবী এক ছাতার নিচে ভিজে শেষ ছাতা টানাটানি করছি পেছনে ২টা ছেলেও একই ছাতার নিচে কান্ড দেখে হেসে ফেললবান্ধবী রেগে একগাল শুনিয়ে দিল আমি পিছনেতাকিয়ে দেখি মহল্লার বড় ভাই বহুদিন কথাই বলি নি...(লজ্জা২)

সৌরভ আহমেদ: *বর্ষাকাল* পদ্মা নদীর মাঝখানে ছোট একটা ডিঙি নৌকায় বসে দোল খাচ্ছিলাম আর সুর্যাস্ত দেখছিলাম গোধূলি বেলায়। হঠাৎ আকাশ কালো করে বৃষ্টি এল। ছোট লঞ্চটা দুলছে; বৃষ্টির সাদা পর্দা ভেদ করে ১০ হাত দূরে দেখা যায় না। আর কোনো ঘটনা নেই।(খুশী২)

জুবায়ের নাইম: *বর্ষাকাল* ---- কারো সুখ আবার কারো দুখ ---- (মনখারাপ)

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

নারীদের সৌন্দর্য্যর অন্যতম একটি উপকরনণ হল গহনা। গহনা পরতে ভালবাসেনা এমন নারীদের সংখ্যা হাতে গোনা। গহনা যে ধরনের হোক না কেন নিয়মিত যত্ন নিতে হয় এর। বিভিন্ন ধরনের গহনার যত্নের ধরনটাও কিন্তু ভিন্ন ৷সোনা,রুপা,হীরা,মুক্তা গহনার উপকরণ হিসেবে বেশ জনপ্রিয়।তবে বর্তমানে স্বর্ণ, রুপা, হীরার বা রুপার গহনার পাশাপাশি নারীদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে অ্যান্টিক, মাটির গয়না, কাঠের গয়নাসহ বিভিন্ন ধরনের গহনা। তবে গহনা পরলেই হবেনা, নিতে হবে এসবের বিশেষ যত্ন। বর্ষায় গহনার বিশেষ যত্ন নেওয়া প্রয়োজন ৷গহনা এইসময় বিশেষ বাক্সে রাখবেন এবং তা পরিষ্কার করার জন্য কোনও পেপার টিস্যু ব্যবহার করা উচিত নয় ৷

থাকছে গহনার যত্ন নিয়ে বিশেষ কিছু টিপস।

সোনার গহনা: সোনা অনেক দিন পুরোনো হয়ে গেলে এর উজ্জ্বলতা কমে যায়। উজ্জ্বলতা বাড়াতে একটি পাত্রে পানির মধ্যে একটু ডিটারজেন্ট পাউডার মিশিয়ে তার মধ্যে স্বর্ণের গয়না একটু টুথপেস্ট লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে, টুথব্রাশ দিয়ে সাবধানে হালকাভাবে ঘষে নিন। দেখবেন আপনার স্বর্ণের গহনা আবার নতুনভাবে উজ্জ্বলতা ফিরে পেয়েছে। এরপরও যদি কালচে ভাব থেকে যায়, তাহলে স্বর্ণের দোকানে নিয়ে পলিশ করাতে পারেন। কিন্তু বারবার পলিশের ফলে স্বর্ণের স্বাভাবিক উজ্জ্বলতা হারিয়ে যায়। সোনার গহনা সামান্য আঘাতে বেঁকে যায়। তাই এ দিকটি বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। 

পাথরের গহনা: ভারী কুন্দন, পাথর বসানো গহনা গরম পানিতে নরম কাপড় ভিজিয়ে ঘষে পরিষ্কার করলে গয়না ঝকঝকে হয়ে উঠবে। দামি পাথর বসানো গয়না পড়ে খেলাধুলা বা ভারী কাজ করা ঠিক না।

গোল্ড প্লেটের গহনা: স্বর্ণের দাম বেড়ে যাওয়ায় বর্তমানে গোল্ড প্লেটের গহনার ব্যবহার বাড়ছে। এই গহনা ব্যবহার শেষে টিস্যু দিয়ে মুড়িয়ে যত্ন করে রাখতে হবে। গোল্ডপ্লেটের গয়না ব্যবহারের সুবিধা হচ্ছে কালো হয়ে গেলে স্বর্ণের দোকানে নিয়ে গেলে আবার রং করিয়ে নেওয়া যায়। রং করার পর নতুনের মতো দেখাবে।

অ্যান্টিক মেটালের গহনা: অ্যান্টিকের গহনা ব্যবহার না করলে বর্ণহীন দেখায়, তবে একফালি লেবু নিয়ে গয়না ঘষে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেললে গয়না ঝকঝক করবে।

হীরার গহনা: হীরার গহনা পরিষ্কার করতে হলে একটু টুথপেস্ট ব্রাশে নিয়ে ঘষে, পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। তারপর পরিষ্কার করে টিস্যু দিয়ে মুড়িয়ে রাখতে হবে। হীরার গহনার যত্ন নিলে নতুনের মতো দেখায়। স্বর্ণ, রুপা, হীরা ও মেটালের গহনা একই বাক্সে রাখা উচিত না। আলাদা আলাদা বক্সে টিস্যু দিয়ে মুড়িয়ে রাখতে হবে।

রুপার গহনা: রুপার গহনা তার ভৌত কারণে এমনিতেই ক্ষয়প্রবণ,তাই এর দরকার সময়ে সময়ে পরিস্কার করার৷রুপো আবহাওয়ার আদ্রতার কারণে অন্যান্য ধাতুর তুলনায় খুব তাড়াতাড়ি জেল্লা হারিয়ে ফেলে ৷ তাই রুপোকে সবসময় আদ্রতা প্রতিরোধকারী পাত্র বা কন্টেনারে মধ্যে রাখা উচিত ৷

প্রবাল ও মুক্তার গহনা: প্রবাল ও মুক্তার গহনার বিশেষ যত্নের দরকার হয়৷ হেয়ার স্প্রে ও পারফিউম থেকে প্রবাল ও মুক্তোর গহনাকে দূরে রাখবেন ৷ কারণ এইগুলোর স্প্রে এই গহনায় লাগলে তার জৌলুস নষ্ট হয়ে যায়,অনেকক্ষেত্রে গহনাটাও নষ্ট হয়ে যায় ৷ মুক্ত এমনিতেই খুব ডেলিকেট হয়, তাই এর ঠিকমতো দেখাশোনা করা না হলে খুব সহজেই এটার স্ক্যাচ পরে যায়৷ তাই মুক্তার গহনা ব্যবহার করার পর আপনারা নরম প্যাকেট বা প্ল্যাস্টিকের ব্যাগে যত্ন-সহকারে রাখবেন ৷


তবে সবচেয়ে ভালো হয় যদি আপনারা গহনার ধরণ অনুযায়ী বাক্স বাছাই করেন ৷ রপো, সোনা, হিরে, মুক্তার গহনা এক জায়গাতে না রাখাই ভালো ৷ এতে গহনাগুলির পরস্পর ঘষাঘষিতে উজ্জ্বলতা কমে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি ৷গহনা ব্যবহারের পর ভালভাবে পরিস্কার করে রাখুন। মেক আপ করার পর গহনা পরিধান করুন। যেন মেক আপের উপকরণ গহনায় না লাগতে পারে। একটু যত্ন নিলেই আপনার গহনা উজ্জল থাকবে অনেক দিন।

*বর্ষাকাল* *গহনা* *গয়না* *গহনারযত্ন*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 বর্ষাকালে কাপড় ঠিকমতো না শুকালে, ভেজা স্যাঁতস্যাঁতে কাপড় থেকে কেমন বিদঘুটে একটা গন্ধ আসে, এই গন্ধ কি উপায়ে দূর করা যেতে পারে?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*বর্ষাকাল* *বিদঘুটেগন্ধ* *স্যাঁতস্যাঁতেকাপড়* *কাপড়েরগন্ধ* *লাইফস্টাইলটিপস* *গৃহস্থালিটিপস*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 বর্ষাকালে চামড়ার জুতার যত্ন কিভাবে নেয়া যেতে পারে?

উত্তর দাও (২ টি উত্তর আছে )

.
*বর্ষাকাল* *চামড়ারজুতা* *গৃহস্থালিটিপস*

রানা মাসুদ: [শেয়ালপণ্ডিত-কিআছেজীবনে] বর্ষা (বৃষ্টি)(বৃষ্টি)(বৃষ্টি)(বৃষ্টি)কালে (নাআআআ) ছাতা না নিয়ে ঘর থেকে বের হওয়া মানে (মাইরালা২)(মাইরালা২)(মাইরালা২) (বৃষ্টিতেভেজা)(বৃষ্টিতেভেজা)(বৃষ্টিতেভেজা) ছাড়া (আম্মুউউউ) আর কি(প্রশ্ন)

*বর্ষাকাল*

রানা মাসুদ: [বেশবচন-ভাইথামেন] বর্ষায় রাস্তার সংস্কার কাজ চলিতেছে(থাম্বসআপ) (বৃষ্টি)(বৃষ্টি)(বৃষ্টি)র পানিতে রাস্তায় অনেক খাদ গর্ত ভরে গেছে, আপনি সাবধান হোন(চিন্তাকরি) তা(না)হলে ম্যানহোলে পড়ে যেতে পারেন(ব্যাপকটেনশনেআসি),দ্রুত গতির যানবাহনের পানির ছিটকা(রাগী) মন চাচ্ছে শহর ছেড়ে (ভাগোওওও) সমন্বিত পরিকল্পনার অভাবে রাস্তার দূর্ভোগ দিন দিন বেড়ে চলছে(মনখারাপ) দেশের অনেক সেক্টর উন্নত হয়েছে(খুকখুকহাসি)আমরা আশা করছি কর্তৃপক্ষ পরিকল্পিত উপায়ে সমাধান করবেন। শুভ সকাল(ভাষণ)(শুভেচ্ছাবিনিময়)(খুকখুকহাসি)

*বর্ষাকাল*

❤ তমা ❤: *বর্ষাকাল* আমার প্রিয় ঋতু l বর্ষাকালে হাতে কদমফুল নিয়ে সারাদিন বৃষ্টিতে ভেজার টার্গেট আমার প্রতি বছরই থাকে l দেখা যাক এই বছর টার্গেট পূরণ হয় কিনা (খুশী২) l

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বৃষ্টির দিনে স্যাঁতসেতে আবহাওয়ায় চুল অনেকটা নিস্তেজ হয়ে পড়ে। কাজের ব্যস্ততার জন্য পার্লারে যাওয়ার সময়ও মেলেনা অনেকের। তাই এই মৌসুমে ঘরে বসেই নিন চুলের বিশেষ যত্ন। ঈদের সময় শখ করে স্ট্রেইট চুল কার্লি, কেউ হাইলাইট, আবার কেউ কালার করেছেন। এসবের কারণে চুল রুক্ষ ও প্রাণহীন হয়ে গেছে অনেকের, তার উপরে আবার বর্ষাকাল, 'ফুটেছে বর্ষার প্রথম কদম ফুল।' গ্রীষ্মের গরম থেকে একটু প্রশান্তির জন্য আমরা আনন্দের সঙ্গে বরণ করছি বর্ষা। বর্ষাকালে বৃষ্টির দিনে মনটা যেন খুশি-খুশি হয়ে ওঠে। কিন্তু মন খুশি হলেও চুল কিন্তু একটুও খুশি হয় না। কারণ বৃষ্টির জল মাথায় পড়তেই চুল হয়ে যায় রুক্ষ, শুষ্ক ও অনুজ্জ্বল। বর্ষায় চুলের সমস্যা দূর করার জন্য রইল কয়েকটা সমাধান।

♦ ঈদের সময় করা চুলের কালার বহু দিন ভালো রাখতে সানস্ক্রিনের সঙ্গে কন্ডিশনার মিশিয়ে ব্যবহার করুন। কারণ অতিরিক্ত সূর্যরশ্মি কালার করা চুল আরো খারাপ করে দেয়। ও দ্রুত কালার নষ্ট হয়ে যায়।

♦ অতিরিক্ত স্টেইটনার ব্যবহারে চুল শুষ্ক ও ভঙ্গুর হয়ে গেলে, কুসুম-গরম নারিকেল তেল মাথার স্কাল্পে ম্যাসাজ করুন, যা চুলের গভীরে পৌঁছে ভেতর থেকে পুষ্টি জোগাবে। স্কাল্পের রক্ত প্রবাহ বৃদ্ধি করবে। সপ্তাহে অন্তত তিন দিন নারিকেল তেল ম্যাসাজ করতে হবে।

♦ চুলে প্রসাধনীতে কেমিক্যালের ব্যবহার থাকে , যা চুলের ক্ষতি করে। তাই ঘরে তৈরি হেয়ার প্যাক ব্যবহার করুন। এ ছাড়া স্টেটনার ব্যবহারের পর অবশ্যই হিট স্টাইলিং লোশন বা স্প্রে ব্যবহার করবেন।

♦ চুল থেকে হেয়ার মুজ ও হেয়ার স্প্রে চুলের সাজ থেকে ছাড়িয়ে নেওয়ার সময় চুলের অনেক ক্ষতি হয়। অনেক সময় চুল ছিঁড়ে যায়। কেমিক্যাল দূর করতে চুলে নারিকেল তেল ম্যাসাজ করে নিন। এর ফলে ক্ষতিকর কেমিক্যাল তেল শুষে নেবে এবং একই সঙ্গে চুল কন্ডিশনিং হবে। এরপর মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।

♦ ক্ষতিগ্রস্ত চুল ঠিক করতে প্রতিদিন চুল শ্যাম্পু করা থেকে বিরত থাকুন। কেননা স্কাল্পের প্রাকৃতিক তেল চুলের জন্য ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে। প্রতিদিন শ্যাম্পু করার ফলে ময়েশ্চারাইজার হারাবে। তাই সপ্তাহে তিন দিনের বেশি শ্যাম্পু ব্যবহার না করাই ভালো। তবে শ্যাম্পু ব্যবহারের সময় অবশ্যই সঙ্গে পানি মিশিয়ে চুলে ব্যবহার করতে হবে। এভাবে প্রায় প্রতিদিন শ্যাম্পু ব্যবহার করা যেতে পারে। 

♦ বর্ষাকালে অনেক সময় স্ক্যাল্প খুব অয়েলি হয়ে যায়। এর সমাধানের জন্য একটা পাতিলেবুর রস স্ক্যাল্পে ভাল করে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে নিতে হবে।

♦ মেথি চুলের জন্য খুব উপকারী। এর জন্য সারারাত একটা পাত্রে মেথি ভিজিয়ে রেখে সকালে ছেকে নেওয়া পানিটা আলাদা করে রাখযে হবে। এর পর শ্যাম্পু করে চুল ধোওয়ার পর সবশেষে ওই মেথি ভেজানো পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিতে হবে। এর ফলে চুল পড়া কমে, খুসকি দূর হয় এবং চুলের উজ্জ্বলতাও বাড়ে।

 

*বর্ষাকাল* *চুলেরযত্ন* *বিউটিটিপস*

খুশি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রায় রোজই বৃষ্টি হচ্ছে। কখনো মুশুল ধারে আবার কখনো টিপটিপ করে নামছে বৃষ্টি। এমন দিনেও যেতে হয় কাজে। আড্ডা, অনুষ্ঠানও বন্ধ নেই। ফ্যাশনে তাই বাঁধা হয়ে দাঁড়াতে পারি কি বৃষ্টি! কখনই নয়। এমন দিনে ফ্যাশন সচেতনরাই তাই খানিক বাড়তি সর্তকতা নেয় স্টাইল ঠিক রাখার ক্ষেত্রে। আজ আপনাদের কেউ বর্ষায় ফিটফাট থাকার কিছু কৌশল বাতলে দিতে চাই। নিচের প্রতিবেদনে জেনে নিন এই বর্ষায় ফিটফাট থাকার উপায়।

 


চুলের যত্ন

বৃষ্টি ভিজে সব চেয়ে বেশি ক্ষতি হয় চুলের। তাই যে কোনো ফ্যাশান সচেতন নারীরাই চুলের বাড়তি যত্ন নিয়ে থাকেন। কেননা এই সময় চুল শুষ্ক হয়ে যায়৷ চুল ওঠার প্রবনতাও বেড়ে যায়। প্রতি মাসে একবার করে চুল ট্রিম করিয়ে নিন৷ এতে চুল কম উঠবে।


চুলে হট অয়েল ম্যাসেজ করুন। তাতে চুল রুক্ষ হবে না৷ চুলে প্রোটিন সরবরাহ হবে।


আপনার চুলে বর্ষায় একটু উজ্জ্বল রঙ করতে পরেন। পুরো চুলে না করে এক একটা স্ট্রিপ হাইলাইট করে নিন। তাতে আপনাকে বেশ ফুরফুের লাগবে৷

 
নখের যত্ন

বর্ষায় ভিজে যায় হাত-পা। ভেজা থাকে আপনার নখ। তাই নখে যত্নে প্রয়োজন বাড়তি সর্তকতা। বিশেষ করে পায়ের নখের যত্ন নিন। বর্ষায় পেডিকিওর করাবেন অবশ্যই।
হাতের নখ সুন্দর শেপ করে কাটুন৷ এরপরে উজ্জ্বল রঙের নেল পালিশ লাগিয়ে নিন৷ সুন্দর নেল আর্ট করুন৷

 


মুখের মেকআপ

বর্ষায় মুখে বেশি চড়া মেকআপ নেওয়া উচিত নয়। এই সময় হল্কা মেকআপ করুন। বৃষ্টির সময় বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ বেশি থাকায় ঘামও বেশি হয়। তাতে আপনার মেকআপ নষ্ট হয়ে যেতে পারে।


মুখে অতি অবশ্যই ওয়াটার প্রুফ মেক আপ ব্যবহার করুন৷


ম্যাট ফিনিশের মেক আপ বর্ষায় ভালো লাগে৷

 


বর্ষায় পোশাক

বৃষ্টির সময় ভারি সাজ প্রয়োজন না থাকলে এড়িয়ে চলাই ভালো। এ সময়  ওয়েস্টার্ন কালেকশনকে ব্যবহার করুন। ন্যারো প্যান্ট, আঁটসাট পোশাক পরতে পারেন যাতে প্রয়োজনে সামলানো সহজ। তাতে দেখতেও ভালো লাগে৷
পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে স্টাইলিস্ট ছাতা ব্যবহার করতে পারেন৷

 
বর্ষার জুতো

দামি চমড়ার জুতা না পড়াই ভালো। কেননা এই বর্ষায় সবচেয়ে ক্ষতি করে চামড়ার। একের বেশি জুতো অবশ্যই সঙ্গে রাখুন৷ বর্ষায় প্লাস্টিক বা নন লেদার মেটিরিয়লের জুতো পরুন৷

(সংকলিত)

*বর্ষাকাল* *লাইফস্টাইল*

আজি ঝর ঝর, মুখর বাদল দিনে

৫৭৭ টি পোস্ট আছে

এত্ত গরম, আবহাওয়া দেখে মনে হচ্ছে দেশটা মরুভূমি হয়ে যাবে নাকি!

২৭৭ টি পোস্ট আছে

উদ্ভট গল্পের সমাহার

১১৯ টি পোস্ট আছে

আয় বৃষ্টি ঝেঁপে, ধান দিবো মেপে

১০৬ টি পোস্ট আছে

দেশের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা

৯৫ টি পোস্ট আছে

বৃষ্টির দিনে, শীতকালে কিংবা সারা বছর

৫২ টি পোস্ট আছে

ইট-পাথরে শখের বাগান!

৩১ টি পোস্ট আছে

গ্যাঞ্জাম ছাড়া আমাদের লাইফ- অসম্ভব!

২৬ টি পোস্ট আছে

সবসময় হিট

২৪ টি পোস্ট আছে

১৩ টি পোস্ট আছে