বসন্ত

বসন্ত নিয়ে কি ভাবছো?

Anwar Hossain: *বসন্ত*

রনি রহমান: [বসন্ত-একতোড়াফুল] সবাইকে বসন্তের শুভেচ্ছা

*পহেলাফাল্গুন* *বসন্ত*

ভালবাসা কবি..!!!: *বসন্ত* আহা আজি এ বসন্তের দিনে কতো কপোত-কপোতী রা রাস্তায় হাঁটাহাঁটি করে, বসন্ত আসিয়াছে!...

দীপ্তি: [বসন্ত-খোঁপায়ফুললাগাই] বসন্ত এসে গেছে (তালি) সকলের জীবন রঙিন হয়ে উঠুক (খুকখুকহাসি)

*পহেলাফাল্গুন* *বসন্ত*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: *বসন্ত* আমাদের সবার'ই দুঃখ-কষ্টের শেষ নেই। প্রতিদিন বেশ কয়েকবার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অপমানের ভেতর দিয়েও যেতে হয়। চারপাশে দুষ্ট লোকের অভাব নেই। রিদ্র একটা দেশে, বিশেষ একটা দিনে সবাই আনন্দ করছে। সবার মুখে হাসি- এটা আমার কাছে অনেক বড় একটা প্রাপ্তি।

শ্রীলা উমা: [বসন্ত-খোঁপায়ফুললাগাই]আজি বসন্ত জাগ্রত দ্বারে l শুভ *বসন্ত*

*শুভ-বসন্ত* *বসন্ত* *বসন্ত*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

মানুষের হাসি মুখ দেখতে আমার খুব ভালো লাগে।

আজ ঢাকা শহরের সব মেয়ে শাড়ি পড়েছে। যেন চারিদিকে শুধু হলুদ প্রজাপতি। সবাইকেই খুব সুন্দর লেগেছে। কেউ কেউ আবার মাথায় ফুল দিয়ে বানানো মুকুট পড়েছে। মেয়ে গুলো তার প্রিয় মানুষের সাথে হাঁটছে, রিকশায় করে ঘুরছে- গল্প করছে। সবার মুখে এক আকাশ হাসি আর আনন্দ।

শুধু আমার কেউ নেই যাকে নিয়ে ঘুরবো।  কেন আল্লাহ কেন হতভাগার দলে আমায় রেখেছেন  ?

আমার ও তো ইচ্ছে হয় ফালগুণের এই মিষ্টি রোদে কাউকে নিয়ে ঘুরতে ইচ্ছে হয় তার হাত ধরে তার সামনে হাটু গেরে বসি আর বলি বসন্ত যতোটা না সুন্দর তার থেকে তুমি অনেক সুন্দর ।।

ভালোবাসি তোমায় ।। ভালোবাসি তোমার ওই মুখের হাসি ।।

কিন্তু কি জানি সবার তো আর সব কিছু পূরন হয় না । কেউ একজন মায়ায় ও জড়ায় না ভালো ও বাসে না ।। আক্ষেপ রয়ে গেল ।।

আমাদের সবার'ই দুঃখ-কষ্টের শেষ নেই। আমরা প্রতিদিন রোদে পুড়ি, বৃষ্টিতে ভিজি, ধুলো-বালিতে সারা শরীর মাখি, ঘন্টার পর ঘন্টা জ্যামে বসে থাকি, প্রতিদিন বেশ কয়েকবার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অপমানের ভেতর দিয়েও যেতে হয়। চারপাশে দুষ্ট লোকের অভাব নেই।

দরিদ্র একটা দেশে, বিশেষ একটা দিনে সবাই আনন্দ করছে। সবার মুখে হাসি- এটা আমার কাছে অনেক বড় একটা প্রাপ্তি।

তাই নিজে এতো কষ্টে থেকেও  কাপলদের মুখের হাসি দেখে ভালোই লাগে ।। ভালো থাকুক ভালোবাসাগুলো ।।

*ভালোবাসা* *আক্ষেপ* *বসন্ত* *একা* *আবেগ*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

দিনপঞ্জীর শুকনো পাতা দেখে হিসেব মিলালাম আজ বসন্তের আগমন ঘটেছে। ঋতুরাজের সাক্ষাৎ লাভের আশায় বেরিয়েছিলাম রাস্তায়। গ্রামে ফেলে আসা বসন্তের অতীত স্মৃতি মনে মনে ভাবছিলাম- প্রকৃতি দক্ষিণা দুয়ার খুলে দিয়েছে। দুয়ারে বইছে ফাগুনের হাওয়া। বসন্তের আগমনে কোকিল গাইছে গান। ভ্রমরও করছে খেলা। গাছে গাছে পলাশ আর শিমুলের মেলা। ঋতুরাজকে স্বাগত জানাতে প্রকৃতির আজ এতো বর্ণিল সাজ।

মনে মনে আবৃত্তি করছিলাম রবিঠাকুরের সেই কবিতার লাইনগুলো-

ফাল্গুনে বিকশিত কাঞ্চন ফুল,
ডালে ডালে পুঞ্জিত আম্রমুকুল।
চঞ্চল মৌমাছি গুঞ্জরি গায়,
বেণুবনে মর্মরে দক্ষিণবায়

এতো কেবলই স্মৃতিগাথা। বাস্তবতা যা দেখলাম তা তো সম্পূর্ণ উল্টো। কোথাও পেলাম না বসন্তের ছোঁয়া। ফুলের সুবাস নেই, আছে নর্দমার দুর্গন্ধ। কোকিলের কুহু কলতান শুনতে পাইনি, কেবলই কর্কশ কাকা ধ্বনি আসছিলো কানে। পলাশ-শিমুলের গাছ কোথায়, কেবলই নতুন-পুরনো বিল্ডিং, সামান্য অক্সিজেন প্রদান করবার মতো সাধারণ বৃক্ষও খুঁজে পাওয়া যায় না। খাচায় বন্দী পাখির মতো কিছু ফুলগাছ দেখেছি বড় বড় বিল্ডিঙের বারান্দায়, ছাদে। খাচায় বন্দী পাখিকে কিছু দিয়ে কি আনন্দিত করা যায়? প্রকৃতি ক্রন্দন করছে মানুষের অত্যাচার থেকে বাঁচার জন্য। প্রকৃতিতে বসন্তের ছোঁয়া কোথায়?

দেখলাম বস্তির ছেলেগুলোকে ডাস্টবিনের নোংরা খাবার খেতে, ব্যস্তসমস্ত হয়ে গার্মেন্টস কর্মীদের ছোটাছুটি, দরিদ্র মানুষগুলোর করুণ দৃষ্টি, রিক্সাওয়ালাদের ঘামা শরীর আর খিটখিটে মেজাজ, ফেরিওয়ালাদের হাঁকডাক, খাদ্যের সন্ধানে ছুটেছে ক্ষুধার্ত কুকুরগুলো, সাথে মানুষও। বসন্ত শব্দটি তাদের কাছে হয়ত অপরিচিত। ফুল আর কোকিলের ডাক তাদের হৃদয় কাড়বে না, তারা চায় একটুখানি ভাত, এক টুকরো রুটি। গাছে গাছে যদি রুটি ধরত আর কোকিল যদি ভাত ছিটিয়ে বেড়াত তবে হয়ত তারা বসন্তের নামটা জানত ভালোমতোই।

মার্সিটিজ গাড়িতে ছুটে চলা মানুষকেও দেখলাম, সাথে কুকুরও। মসজিদ পানে দ্রুত পায়ে হেঁটে যাওয়া নির্বিকার মুসল্লিদের দেখলাম, বসন্তকে বরণ করতে বাসন্তীরং শাড়ি পরা রমণীদেরও দেখলাম, কপোত-কপোতীদের নির্লজ্জতা দেখলাম--- ফুল ফুটুক বা নাই ফুটুক বসন্ত হয়ত এদের জীবনে সবসময় লেগে থাকে কিন্তু সবার জীবনে বসন্ত কবে আসবে জানি না। আমি বসন্ত খুঁজে পাইনি, আমি যে ক্ষুধার্ত, হাড্ডিসার মানুষগুলোর দলে। তাদের দুঃখ-কষ্ট এখনো আমায় স্পর্শ করে। মার্সিটিজ গাড়িতে বসে থাকা সাহেববাবু, মসজিদে ছুটে চলা মুসল্লি, বাসন্তী রং এর পোশাক পরাদের দলে এখনো ভিড়তে পারিনি।

*বসন্ত* *বাস্তবতা* *ফালগুন* *শুভেচ্ছা*

দীপ্তি: [বসন্ত-খোঁপায়ফুললাগাই] বসন্ত এসে গেছে .... সকলের জীবন রঙিন হয়ে উঠুক

*বসন্ত*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: এই বসন্তের অনেক জন্ম আগে তোমায় প্রথম দেখেছিলেম আমি হেটেছিলেম নিরুদ্দেশের পানে হাতে হাত রেখে সেই বসন্ত এখন ভীষণ দামি আমার কাছে....

*বসন্ত* *জন্ম* *আবেগ* *ভালোবাসা*

Mamun Hossain: আগুনরাঙা *বসন্ত* আজ। প্রকৃতি আজ খুলে দেবে দখিন দুয়ার। সে দুয়ারে বইবে *ফাগুনে* এর হাওয়া। *বসন্তের* আগমনে কোকিল গাইবে গান। ভ্রমরও করবে খেলা। গাছে গাছে ছড়িয়ে পড়বে পলাশ আর *শিমুলের* মেলা। প্রকৃতি সাজবে নতুনরূপে। http://theholytimes.com/front/viewnews/12653

*TheHolyTimes* *বসন্ত* *ফাগুনে* *বসন্তের* *শিমুলের*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: আজ পহেলা বসন্ত সবাইকে বসন্তের শুভেচ্ছা ।। আসুন আমরা সবাই মিলে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করি ।। সবাইকে সচেতন করি ।। বসন্তের এই হোক প্রতিজ্ঞা ।।

*বসন্ত* *বাল্যবিবাহ*

আমানুল্লাহ সরকার: [বসন্ত-খোঁপায়ফুললাগাই]ফাগুনের রঙ ছড়িয়ে প্রকৃতিকে নতুন করে সাজাতে ঋতুরাজ বসন্তের আগমন... বাসন্তী হাওয়ায় সুবাসিত হোক সকলের জীবন। শুভ কামনা সকলের জন্য...

*বসন্ত* *বসন্তবরণ*
ছবি

রামিম অচিন: ফটো পোস্ট করেছে

শিমুল ফুটেছিলো বসন্তে

শিমুল ফুল যেন বসন্ত কে রাঙ্গিয়ে তুলে অন্যরকম ভাবে

*অন্যরকম* *বসন্ত*
ছবি

খুশি: ফটো পোস্ট করেছে

ঝিঁঝিপোকা: গ্রীষ্মের দাবদাহে পোড়ে সে বর্ষার বৃষ্টিতে ভিজে যায় শরতের সাদা মেঘ হয়ে সে হেমন্তে বিরহের গান গায় শীতকালে কুয়াশাতে হারিয়ে আকাশে হাতটা দেয় বাড়িয়ে বোশেখের কালোমেঘ গর্জায় ফাগুন আসে না তার দরজায় __ ঝিঁঝিপোকা

*গ্রীষ্ম* *বর্ষা* *শরৎ* *হেমন্ত* *শীত* *বসন্ত*

শারমিন বীথি: . এসো ভাই তোলো হাই, দলবেঁধে গান গাই --- বসন্ত এসে গেছে। (খিকখিক)

*বসন্ত*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★