বসন্ত ফ্যাশন

বসন্তফ্যাশন নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বসন্ত উৎসবে বাহারি সালোয়ার-কামিজপ্রকৃতিতে বইছে ফাল্গুনী বাতাস। জীবনকে বর্ণিল রঙে সাজাতে আসছে পহেলা ফাল্গুন। এদিনটিতে প্রকৃতির সাথে মিল রেখে যে যারমত সেজে উঠবে নুতন করে। কেউ শাড়ি, কেউবা ফতুয়া, কেউবা আবার সালোয়ার কামিজেই নিজেকে সাজিয়ে নিবেন। বর্তমান ফ্যাশনে লং হোক কিংবা শর্ট, মেয়েদের সালোয়ার-কামিজের আবেদন এতটুকু কমেনি। যেকোনো উৎসব-পার্বণে সব বয়সী মেয়েদের পছন্দের পোশাক সালোয়ার-কামিজ। চলুন ফাল্গুনের আকর্ষণীয় কিছু সালোয়ার-কামিজ দেখে নেই।

বাহারি সালোয়ার কামিজঃ
শাড়িতে সুন্দর নারী আর সালোয়ার কামিজে সতেজ ও মোহনীয় দেখায় তরুণীদের। তবে সালোয়ার কামিজের কাটিং ও ঢঙে অনেকটা বৈচিত্র্য এসেছে আর দারদামও এসেছে নাগালের মধ্যে । পহেলা ফাল্গুন উপলক্ষ্যে ফ্যাশন হাউসগুলো নতুন নতুন ডিজাইনের সালোয়ার কামিজের পসরা সাজিয়ে তুলেছে। নিচে দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইনশপ আজকের ডিলের আকর্ষণীয় কিছু সালোয়ার কামিজ কালেকশন তুলে ধরলাম।

ফাল্গুন উৎসবের আনস্টিচড কটন এমব্রয়ডারি থ্রি-পিস:

দাম মাত্র ৮৯৯ টাকা। কিনতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

ফাল্গুনী রঙের ব্লক প্রিন্টেড আনস্টিচড থ্রি-পিস:

দাম মাত্র ৫৬৫ টাকা। কিনতে এখানে ক্লিক করুন

ব্লক প্রিন্টেড আনস্টিচড রেপ্লিকা থ্রি-পিস:

দাম মাত্র ৭৫০ টাকা। কিনতে এখানে ক্লিক করুন

আনস্টিচড ব্লক প্রিন্টেড কটন থ্রি-পিস

আকর্ষণীয় এই থ্রি-পিসটির দাম মাত্র ৬৯৯ টাকা। কিনতে এখানে ক্লিক করুন

আনস্টিচড থ্রি-পিস:

থ্রিপিস টির দাম মাত্র ৯৫০ টাকা। কিনতে চািইলে এখানে ক্লিক করুন

সেমি স্টিচড কটন সালোয়ার কামিজ:

গর্জিয়াস এই সালোয়ার কামিজটির দাম ৩০০০ টাকা। কিনতে এখানে ক্লিক করুন

আনস্টিচড জর্জেট এমব্রয়ডারি থ্রি-পিস (রেপ্লিকা)

কিনতে ক্লিক করুন

ব্লক প্রিন্টেড আনস্টিচড থ্রি-পিস:

দাম মাত্র ৬৯৯ টাকা। কিনতে ক্লিক করুন

সেমিস্টিচড সানতুন থ্রি পিস

কিনতে ক্লিক করুন

কোথায় পাবেন ভালো মানের সালোয়ার কামিজঃ

দেশের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউস গুলোতেই সালোয়ার-কামিজ কিনতে পারবেন। সবধরনের সালোয়ার কামিজ কিনতে ঢুঁ মারতে পারেন নিউমার্কেট, গাউছিয়ায়। এই মার্কেটগুলোতে দামদর করে পছন্দমত সালোয়ার-কামিজ কিনে নিতে পারবেন। তাছাড়া এই ফাল্গুনে আকর্ষনীয় ও বাহারি ডিজাইনের স্টাইলিশ ও গর্জিয়াস সালোয়ার কামিজ কিনতে চাইলে নির্ভর করতে পারেন দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিলের উপর। আজকের ডিলে রয়েছে বাহারি সব সালোয়ার কামিজের সমাহার। নিজের জন্য অথবা প্রিয়জনকে উপহার হিসেবে দেয়ার জন্য এক্ষনি এই লিংকে ক্লিক করুন

*সালোয়ার-কামিজ* *বসন্তফ্যাশন* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাসন্তী শাড়িতে সেজে উঠুন নতুন করেআর ক’দিন বাদে শীত ঋতুকে ফাঁকি দিয়ে জীবনে আরও একটি বসন্ত উক্তি দেবে। শুরু হবে ফাল্গুনের রং এর ছড়াছড়ি। প্রকৃতিসহ সবাই সেজে উঠবে নতুন সাজে। কি চিন্তায় পড়ে গেলেন? পরিকল্পনা করেছেন কি এবারের বসন্তে কেমন শাড়ি পরবেন, কেমন করে সাজবেন ? চিন্তার কিছু নেই অন্যান্য বারের চেয়ে এবার আপনার ফাল্গুনী সাজে আনতে পারেন একটু ভিন্ন মাত্রা। এই বসন্তে নিজেকে ভিন্ন মাত্রায় উপস্থাপন করতে আপনার জন্য রইলো নিচের কয়েকটি আকর্ষণী শাড়ি।

বাসন্তী শাড়ি:

০১. হ্যান্ডলুম পিওর সিল্ক শাড়ি উইথ ব্লাউজ পিস

শাড়িটি কিনতে ক্লিক করুন

০২. পিওর জর্জেট শাড়ি

শাড়িটি কিনতে ক্লিক করুন

০৩. পিওর মসলিন সিল্ক উইথ হ্যান্ড এমব্রয়ডারি শাড়ি

শাড়িটি কিনতে ক্লিক করুন

০৪. ঐতিহ্যবাহী টাঙ্গাইলের কটন শাড়ি

শাড়িটি কিনতে ক্লিক করুন

০৫. ইন্ডিয়ান জ্যাকোয়ার্ড সিল্ক শাড়ি

 
০৬. পিওর জামদানী শাড়ি
 
০৭. হ্যান্ড এমব্রয়ডারি পিওর কটন শাড়ি
 
 
০৮.
 

যেমন শাড়ি তেমন ফ্যাশন:


শাড়িটা একরঙা, পাড়ে বর্ণিলতা। শাড়িটা যেহেতু এক রঙের, তাই ব্লাউজটা যেন বেশ বাহারি হয়। এই যেমন, হালকা হলুদ জমিন ও কমলা পাড়ের শাড়ির সঙ্গে লাল ব্লাউজ মানানসই। কমলা রঙের ব্লাউজ পরতে পারেন হালকা সবুজ জমিন হলুদ পাড়ের শাড়ির সঙ্গে। কম বয়সী মেয়েরা ব্লাউজের গলাটা বড় পরতে পারেন। স্লিভলেস ব্লাউজ পরলে শাড়িটা এক প্যাঁচে না পরাই ভালো।
অল্টারনেট করে, পেছনে কয়েক রঙের ফিতা দেওয়া স্লিভলেস ব্লাউজও পরা যেতে পারে। পয়লা ফাগুনে ঘটি হাতা, খাটো হাতার ব্লাউজের আবেদন তো আছেই। ব্লাউজে ছোট ঘণ্টা, কলকা ব্যবহার করা যেতে পারে। শাড়ির সঙ্গে কনট্রাস্ট করে ব্লাউজের রংটা বেছে নিন। স্লিভলেস ব্লাউজ পরলে শুধু তাজা ফুলের বাজুবন্ধ পরতে পারেন। গলায় বা হাতে যেকোনো একটি গয়না পরুন। এ ছাড়া মেটাল, কড়ির গয়না পরতে পারেন।

বন্ধুরা, বসন্তের বাহারি শাড়ি কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*শাড়ি* *বাসন্তীশাড়ি* *বসন্তফ্যাশন* *বসন্তউৎসব* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

দরজায় কড়া নাড়ছে বসন্তকাল। আর দু’দিন বাদেই প্রকৃতিতে আগমন ঘটবে ঋতুরাজ বসন্তের। বসন্তকে বরণ করে নিতে প্রকৃতির সাজে সাজতে চায় সবাই। সাজ সজ্জার এ ধারাবাহিকতায় পিছিয়ে নেই শিশুরাও। বাবা মা তাদের সোনামনিকে সাজিয়ে নিচ্ছেন তাদের মত করে, তাদের পোশাকের সাথে মিল রেখে পোশাকও কিনে দিচ্ছেন। (ছবির ড্রেসটি কিনুন)
ছোট্ট সোনামণিকে বসন্তের সাজে সাজিয়ে তুলতে দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল আজকের ডিল সেজে উঠেছে লাল, হলুদ ও বাসন্তী সাজে। সোনামণির রঙিন বসন্তের সাজে কি থাকছে আজকের ডিলে  চলুন দেখে নেই। (ছবির ড্রেসটি কিনুন)
 
আজকের ডিলে ছোটদের বসন্তের পোশাকে রয়েছে নানা রঙ আর ডিজাইনের সম্ভার। এ বছর শিশুদের বসন্তের পোশাকে হলুদ, কমলা, বাসন্তী আর লাল রঙকেই প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে। ডিজাইনে ফুল, লতা-পাতার ডিজাইনই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। 
কিডস টি-শার্টটি কিনতে ক্লিক করুন
শিশুদের বসন্তের পোশাককে আকর্ষণীয় করে তুলতে ফ্যাশন হাউসগুলো এরই মধ্যে প্রস্তুত। শপিংমল আজকের ডিল বসন্তকে সামনে রেখে শিশুদের জন্য এনেছে পাঞ্জাবি, ফ্রক, টি-শার্ট, শার্ট, ফতুয়াসহ নানা কিছু।  শিশুদের স্বস্তির কথা চিন্তা করে পোশাকগুলোতে ব্যবহার করা হয়েছে সুতি, তাঁত, ভয়েল, নিপ, মসলিন, অ্যান্ডিসহ নানা ধরনের আরামদায়ক কাপড়। 
 
দাম কেমন?
শিশুদের বসন্তের পোশাকগুলো ঘরে বসে আজকের ডিলের ওয়েব সাইটে গিয়ে অনলাইনে অর্ডার করে কিনে নিতে পারবেন। এর জন্য খুব একটা বেশি টাকা আপনাকে ফুরাতে হবে না। ২০০ টাকা থেকে শুরু করে ১৫০০ টাকার মধ্যেই পেয়ে যাবে সোনামনির পছন্দের বাসন্তী পোশাকটি।
শিশুদের সবগুলো পোশাকের কালেকশন দেখতে এখানে ক্লিক করুন

 

*শিশুদেরফ্যাশন* *বসন্তফ্যাশন* *শপিং* *অনলাইনশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাসন্তী পোশাক কিনতে ক্লিক করুনপ্রকৃতিতে নব আনন্দের সাজ সাজ রব বিরাজ করছে। আর মাত্র ক’দিন পরেই প্রকৃতিকে নতুন সাজে রাঙাতে ঋতুরাজ বসন্তের আগমন ঘটবে। বসন্ত মানেই বাসন্তী সাজে নিজেকে একটু বদলে নেওয়া। রাস্তার পাশে ফুটে থাকা পলাশ-শিমুল-কৃষ্ণচূড়া, কচি সবুজ পাতা আর লাল-হলুদ ফুলের রঙ্গিণ সাজের সাথে নিজেকে মানিয়ে না নিলে বসন্তের রঙ আপনাকে ফাঁকি দেবে এটাই স্বাভাবিক। তাই আসছে ফাগুনে স্টাইলিশ ফ্যাশনের ছোঁয়ায় নিজেকে সাজিয়ে নিন নতুন করে। কি কি রাখবেন বাসন্তী সাজে চলুন জেনে নেই।
 
নারীদের বাসন্তী শাড়ি
১লা ফাগুনে বসন্তকে বরণ করতে বেরিয়ে পড়বে সবাই। বাসন্তী রং শাড়ি পরে ললনারা ডাক দেবে মেলায় যাওয়ার। সে দিনের সাজটা কেমন হবে আপনার? বসন্তের প্রকৃতিতে রঙের ছড়াছড়ি। 
পয়লা ফাল্গুনের সাজে তাই রঙের ছোঁয়া তো থাকবেই। নতুন ফুল, পাতার রংগুলো তুলে আনুন পোশাকে। শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া যা-ই পরা হোক, তাতে তো বসন্তের উজ্জ্বল রংগুলোর ছোঁয়া থাকা চাই। বাসন্তী, কমলা, লাল, সবুজ, রানিং রং এগুলোই তো থাকবে শাড়িতে । শাড়িতে থাকতে পারে ব্লক ও জরির কাজ। ব্লাউজের কাটে ভিন্নতা আনতে পারেন ম্যাগি বা ঘটি হাতা দিয়ে। 
ললনাদের বাসন্তী শাড়ির কালেকশন দেখতে ও কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 
 
বাসন্তী ফ্যাশনে গয়না
 
হালকা সাজ পোশাকের সঙ্গে গয়নাও হালকা হওয়া চাই। সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে মাটি, কাঠ বা মেটালের দুল পরুন। গলায় পাতলা নেকলেস পরে নিতে পারেন। হাতে চুড়ি পরতে পারেন। এখানেও বেছে নিন কাঠ, মাটি, মেটাল বা কাচের রেশমি চুড়ি। শাড়ি পরলে কানের দুলের সঙ্গে গলায় লম্বা পুঁতির মালা পরুন। সঙ্গে হাতভর্তি চুড়ি। সাজের পূর্ণতা আনতে ব্যবহার করুন হালকা সুগন্ধি।
বাসন্তী সাজের গয়না কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
 
 
 
ছেলেদের  বাসন্তী ফ্যাশন
বসন্ত বরণে শুধু মেয়েরাই শাড়ি আর গহনায় নিজেকে সাজাবে তা কি হয়? ছেলেরাও ১লা ফাগুনে নিজেকে সাজিয়ে নিতে পারেন বাসন্তী সাজে।  বাসন্তী রংয়ের পাঞ্জাবি পরেই যে ফাল্গুন পার করতে হবে এমন কোনো কথা নেই। প্রকৃতির যেকোনো উজ্জ্বল রংয়ের সঙ্গে মিলিয়ে কমলা, লাল, সবুজ, হলুদ পাঞ্জাবি পরতে পারেন। এদিন কমলা রঙের পোলোশার্ট ও টিশার্টেও বেশ মানাবে। সঙ্গে চোজ-পায়জামা। পাঞ্জাবি পরতে না চাইলে উজ্জ্বল রংয়ের শার্টও পরতে পারেন। সেক্ষেত্রে জিন্স-প্যান্ট বেশ মানিয়ে যাবে।
ছেলেদের বাসন্তী ফ্যাশনে মন মাতানো পোশাক কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 
*বসন্তফ্যাশন* *ফ্যাশন* *সাজসজ্জা* *ফ্যাশনটিপস* *কেনাকাটা* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

কদিন বাদেই আসছে ঋতুরাজ বসন্ত। তাই এখনি তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে ফ্যাশনসচেতন নারী পুরুষের মাযে বসন্ত উৎসবে নিজেকে পরিপাটি আর আর স্মার্টলী উপস্থাপনের জন্য। সেক্ষেত্রে মানানসই পোশাক বাছাই করাটা খুবই জরুরী। তাই ফ্যাশনসচেতন তরুণ-তরুণীর কথা মাথায় রেখে দেশের সব বড় বড় ফ্যাশন হাউজগুলোসহ দেশের নামকরা অনলাইন শপিং মলগুলোতেও চলে এসেছে মনোমুগ্ধকর ডিজাইন আর  স্টাইলিশ সব বসন্ত পোশাক আশাক । চলুন তারই কিছু নমুনা দেখে নিই এই পোস্টে ।
 
 
এম্ব্রয়ডারি শাড়ি
 
ফেব্রিক- পিওর কটন 
আরামদায়ক ও স্টাইলিশ
নজরকাড়া ডিজাইন
প্রিমিয়াম কোয়ালিটি
এম্ব্রয়ডারির কাজ করাসাথে ব্লাউজ পিস
মুল্য ১,৮৫০ টাকা
 
 
 
 
ব্লক প্রিন্টেড কটন শাড়ি
 
আরামদায়ক ও স্টাইলিশ
ব্লক প্রিন্টের কালারফুল শাড়ি
ফেব্রিক: কটন 
প্রিমিয়াম কোয়ালিটি
নজরকাড়া ডিজাইন
মুল্য ১,১৯০ টাকা
 
 
পাঞ্জাবী
 
ফ্যাশনেবল ও আরামদায়ক পাঞ্জাবী
ফেব্রিক: ১০০% কটন
এমব্রয়ডারি কাজ রয়েছে
এমব্রয়ডারি কাজ ও বডিতে ভেলবেট বসানো রয়েছে
সাইজ:৩৮(চেষ্ট - ৪০, লেংথ - ৪০)
৪০(চেষ্ট - ৪২, লেংথ - ৪২)
মুল্য ২,০৫০ টাকা
 
 
 
সুতি বালুচরী শাড়ি
 
ফেব্রিক: কটন রেয়ন 
অাচলের সাথে ম্যাচিং আনস্টিচড ব্লাউজ পিস
সেফটি অরেঞ্জ রঙের শাড়ি; 
হাফ-সবুজ পাড়ে লতা-ফুল নকশা; 
আঁচলে আম বুটি নকশা সাথে ছোট-বড় বুটির ঘন সন্নিবেশে 
জমিন জুড়ে ড্রাই ওয়াশ
মুল্য ১,৫৩৫ টাকা
 
 
 
হ্যান্ডমেড চুড়ি সেট
ম্যাটেরিয়াল: স্টোন, 
রিবন লেস, জরি লেস ও রিবন ফ্লাওয়ার 
সম্পূর্ণ হাতে বানানো
বাহারী ডিজাইন
বিভিন্ন উৎসবে পোশাকের সাথে ম্যাচিং করে পরার জন্য
সব পোশাকেই মানানসই
২৫ পিসের সেট
মুল্য ৯৮০ টাকা
 
 
 
বসন্তের হিমু পাঞ্জাবী
 
ফেব্রিক- কটন
কম্ফোর্টেবল ইউজফুল স্লীভ
আরামদায়ক ও স্টাইলিশ
প্রিমিয়াম কোয়ালিটি
সাইজ-৩৮,৪০,৪২,৪৪
মুল্য ১,৬৯০ টাকা
 
 
বসন্ত উৎসবে নিত্য নতুন সব উপহার অার পোশাক কিনতে চাইলে উপরের ছবিতে ক্লিক করুন। 
*বসন্ত* *বসন্তফ্যাশন* *স্মার্টশপিং* *বাসন্তীশাড়ি* *বসন্তেরপোশাক*

শুভ্র আহাম্মেদ: *বসন্তফ্যাশন* শুধুই মেয়েদের জন্য আর ছেলেদের পকেট খালি করার দিন !!

mamunur rashid: *বসন্তফ্যাশন*

প্যাঁচা : *বসন্তফ্যাশন* আসছে বসন্তসাজের পরিবর্তে...হাহাহা...বসন্তের রং বলতে চকচকে সবুজ কিংবা কালচে খয়েরি,সোনা রঙা হলুদ (রাধাচূড়া,কৃষ্ণচূড়া),পলাশ-শিমুলের লাল,জারুল ফুলের বেগুনী,বসন্তের আকাশ পরিষ্কার নীল এইতো..গোলাপী কি বসন্তের রং?হাহাহা।এবার সাজুন বসন্তেরসাজ

আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আর মাত্র কয়েকদিন পরেই প্রকৃতি রাঙ্গাতে আসছে বসন্তকাল। বসন্তের সঙ্গী হয়ে একসাথে হাজির হচ্ছে বিশ্ব ভালবাসা দিবস। তাইতো বসন্ত ও ভ্যালেন্টাইন ডে উপলক্ষে ফ্যাশন সচেতন তরুণ-তরুণীদের পছন্দের কথা মাথায় রেখে ফ্যাশন হাউসগুলো ভিন্নমাত্রার ফ্যাশন আয়োজন নিয়ে হাজির হয়েছে। চলুন দেখে নেই বসন্ত ও ভ্যালেন্টাইনস ডে উপলক্ষে বিভিন্ন ফ্যাশন হাউজগুলো কি কি ফ্যাশনেবল পোশাক নিয়ে হাজির হয়েছে।

ফড়িংঃ
ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ফ্যাশন হাউস ফড়িং যুগল ছাড়াও পরিবারের সবার জন্য এনেছে নতুন ডিজাইনের পোশাক। এসব পোশাকের মধ্যে রয়েছে সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া, শাড়ি, পাঞ্জাবি, শার্ট, টি-শার্ট প্রভৃতি। রঙের ক্ষেত্রে প্রাধান্য পেয়েছে লাল, গোলাপি, নীল, হলুদ, টিয়া, সাদা, কমলা, কালো, সবুজ, আকাশি প্রভৃতি। পোশাকে কাজ করা হয়েছে এমব্রয়ডারি, অ্যাপ্লিক, ব্লক, হাতের কাজ, হ্যান্ডপেইন্ট, টাইডাই প্রভৃতি। বসন্তকে সামনে রেখেও তৈরি করা হয়েছে সব ধরনের পোশাক।

অঞ্জন’সঃ
বসন্ত ও ভ্যালেন্টাইন ডে সামনে রেখে অঞ্জন’স এর আয়োজনে যুক্ত হয়েছে ট্রেডিশনাল বা পাশ্চাত্য ঘরানার পোশাক। rupcare_anjan's1প্যাটার্ন বৈচিত্র্যে এবং সুতি কাপড়ে মাধ্যম হিসেবে প্রাধান্য পেয়েছে ব্লক-স্ক্রিন প্রিন্ট ও এমব্রয়ডারির কাজ। ঋতুভিত্তিক রঙ বৈচিত্র্যের কারণে ক্যাজুয়াল ও পার্টি ওয়ার হিসেবে অঞ্জন’স এর এই ট্রেন্ডি পোশাকগুলো দেবে ভাইব্র্যান্ট উইন্টার লুক। শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, পাঞ্জাবি, বড় ফতুয়া ও শিশু-কিশোরদের জন্য নানা পোশাক পাওয়া যাবে এ আয়োজনে।

এড্রয়েডঃ
ভ্যালেন্টাইনস ডে উপলক্ষে এড্রয়েট তৈরি করেছে সব বয়সীদের জন্য নতুন ডিজাইনের পোশাক। রঙের ক্ষেত্রে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে লাল, গোলাপি, সাদা, কমলা, কালো, হলুদ, সবুজ প্রভৃতি। শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া, পাঞ্জাবি, ফিউশন, শার্ট প্রভৃতি পোশাকে এমব্রয়ডারি, অ্যাপ্লিক, ব্লক, হাতের কাজ, হ্যান্ডপেইন্ট, টাইডাই প্রভৃতি কাজ করা হয়েছে।

নগরদোলাঃ
পিছিয়ে নেই নগরদোলা ফ্যাশন হাউজও।ফাল্গুন ও ভ্যালেন্টাইন উপলক্ষে ফ্যাশন হাউস নগরদোলা কাপড়ে এনেছে নতুন মাত্রা। বর্ণিল পোশাকের সমাহারে এখানে নারীদের জন্য রয়েছে শাড়ি, থ্রি পিস, সিঙ্গেল কামিজ, ফতুয়া আর পুরুষের জন্য রয়েছে শার্ট ও পাঞ্জাবি। ব্লক, স্ক্রিন প্রিন্ট, টাইডাই, এমব্রয়ডারি করা পোশাকগুলোতে রঙের ক্ষেত্রে প্রাধান্য পেয়েছে – লাল, মেজেন্ডা, হলুদ, সবুজ ও গোলাপি। পোশাকে ব্যবহার করা হয়েছে সুতি, তাত, ভয়েল, নিপ, মসলিন, এন্ডিসহ নানা ধরনের আরামদায়ক কাপড়।

অন্দিমঃ
বসন্ত ও ভালেন্টাইন ডে সামনে রেখে নানা রঙে রাঙাতে আকর্ষণীয় ডিজাইনের শাড়ি নিয়ে এসেছে ফ্যাশন হাউস অন্দিম। শাড়িগুলোতে রঙের ক্ষেত্রে প্রাধান্য পেয়েছে গোলাপি, নীল, হলুদ, সবুজ, প্রভৃতি। ব্লাউস পিস সহ এসব শাড়িতে সিল্ক ও জিওরগেট কাপড়ের। (সংকলিত)

বন্ধুরা, তাহলে দেরী না করে জলদি কিনে নিন আপনার পছন্দের পোশাক আর এই বসন্ত ও ভ্যালেনটাইন ডে উপলক্ষে নিজেকে রাঙ্গিয়ে তুলুন নতুন সাজে।

*বসন্তফ্যাশন* *ভ্যালেনটাইন* *ফ্যাশন* *ফ্যাশনহাউজ*
ছবি

আমানুল্লাহ সরকার: ফটো পোস্ট করেছে

৪/৫

"ফাগুনেরই মোহনায় মন মাতানো মহুয়ায় রঙ্গীন এ বিহুর নেশা কোন আকাশে নিয়ে যায়… ফাগুনেরই মোহনায়…!!

আর মাত্র কয়েকদিন পরেই প্রকৃতি বসন্তের সাজে মেতে উঠবে। সেই সাথে বসন্তের ফ্যাশনে মেতে উঠবে পুরো বাংলাদেশ।

*ফ্যাশন* *বসন্তফ্যাশন*

পূজা: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাঙালির নারীর পোশাক ঐতিহ্যে বরাবরই শাড়ি ছিল সবচেয়ে এগিয়ে। মসলিন, বেনারসী কিংবা কাতান, জামদানি এর সবই বাঙালির নারীর ফ্যাশন ঐতিহ্যে আদি অনুষঙ্গ। যুগে যুগে ফ্যাশন যেমন তার বেশ বদলিয়েছে তেমনি শাড়ির ফ্যাশনেও এসেছে পরিবর্তন। একসময় জর্জেটের ব্যাপক জনপ্রিয়তা প্রমাণ করে উন্নত বিশ্বেও শাড়ির কদর আছে। সে ধারাবাহিকতায় শাড়ির সারিতে যুক্ত হয়েছে বারিজা, জর্জেট, শিফন ও সিল্কের মতো আধুনিক কাপড়। শাড়ির ফ্যাশনে এখন নতুন সংযোজন লেসের শাড়ি। 

অনেকটা মসলিনের আদলে তৈরি এই লেসের শাড়ি দেখতে পাতলা ফিনফিনে হয়ে থাকে। কিন্তু তাই বলে একে শিফন কিংবা সফট সিল্ক ভাবলে ভুল হবে। জামদানির বুনটের মতো করে এই লেসের শাড়িতে কৃত্রিম উপায়ে ফুটিয়ে তোলা হয় ডিজাইন। আমাদের দেশি ফ্যাশনহাউসগুলোতে এই ধরনের শাড়ি তৈরি না হলেও রমনিরা থেমে নেই এই শাড়ি কিনতে। আর তাই এসব শাড়ি এখন ঢাকার বিভিন্ন শপিং সেন্টারগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে। ভারতে এই শাড়ি প্রবল ভাবে জনপ্রিয় আর তাই বাংলাদেশের ফ্যাশনেও লেগেছে তার বাতাস। তরুণ র্তুকী থেকে শুরু করে এসব শাড়ি জনপ্রিয়তা পাচ্ছে পৌঢ় বয়স্কাদের মাঝেও। লেসের এই ফ্যাশন এখন হাল ঢাকা থেকে শুরু করে কাপাচ্ছে পুরান ঢাকাকেও। 
এখানে বলে রাখা প্রয়োজন ফ্যাশনে লেসের আয়োজন অনেক আগে থেকেই জনপ্রিয় ছিলো। ঢাকাতে একটু একটু করে চাদনী চক ও গাউসিয়ার মতো ফ্যাশন পণ্য বিক্রি কেন্দ্রগুলোতে অনেকদিন থেকেই এই লেস জনপ্রিয়তা পাচ্ছিলো। কামিজ কিংবা শাড়ির পারে জরির জড়ানো কাজ করা লেস লাগিয়ে পড়ার প্রচলন ছিলো অনেকদিনের। ধীরে ধীরে এই লেস আর শুধু জামা কিংবা শাড়ির অংশে সীমাবদ্ধ না থেকে আজ হয়ে উঠেছে ফ্যাশনের পূর্নাঙ্গ অংশ। লেসের শাড়ি পড়ার জন্য সবচেয়ে উত্তম সময় হচ্ছে রাতের পার্টি। তবে চাইলে দিনের বেলাতেও এধরনের শাড়ি পড়তে পারেন। এমন শাড়িগুলো চেষ্টা করুন একটু হালকা রঙের পড়তে। নচেত পড়তে াপরেন কাল রঙের মতো কোনো গম্ভির অভিজাত রঙে। আর লেসের শাড়ির সঙ্গে গহনাও একটু হালকা গড়নের পড়লেই মানাবে ভাল। মুক্তা কিংবা গার্নেটের সেট, অথবা হিরে বসানো হালকা সেট পড়লে মানিয়ে যাবে যেকোনো লেসের শাড়ি। এর সাথে কোনো সুদৃশ্য ঝকঝকে পার্টিব্যাগ মানাবে দারুন। আর সাথে থাকা চাই হাই হিল জুতা। 
লেসের শাড়ি কিনতে ঢাকাতে যেতে পারেন মান্ত্রা ফ্যাশন হাউজে, অহং-এ, রুপাহালিতে। ঢাকার চাদনীচক মার্কেট খুজেও কিনতে পারেন এমন শাড়ি। যদি বহর মিলে যায় তাহলে নিউমার্কেট এলাকা থেকে গজ হিসেবে কাপড় কিনেও এই শাড়ি তৈরি নিতে পারেন। আর নিউমার্কেট এলাকাতে এমন অনেক দোকান আছে যেখানে এমন কাপড় কিনে নিজের পছন্দ সই জড়ি পুতির কাজ করে পেতে পারেন কম দামে দামি শাড়ির সাজ। (সংকলিত)
*শাড়ি* *ফ্যাশন* *বসন্তফ্যাশন*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★