বাংলাদেশ টিম

বাংলাদেশটিম নিয়ে কি ভাবছো?

মোঃ হাবিবুর রহমান (হাবীব): একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ওয়ার্ল্ড কাপ টি-টুয়েনটি ২০১৬ সালে বাংলাদেশ টিম কতদূর পর্যণ্ত পৌছাতে পারবে ? আপনি কি আশা রাখেন ? ১) সেমিফাইনাল । ২) ফাইলান । এবং ৩) চাম্পিয়ন ।

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

*ওয়ার্ল্ডকাপ* *টি-টুয়েনটি* *২০১৬* *সাল* *বাংলাদেশটিম* *কতদূর* *পর্যণ্ত* *পৌছাতে* *আশা* *সেমিফাইনাল* *ফাইলান* *চাম্পিয়ন*
ছবি

আমানুল্লাহ সরকার: ফটো পোস্ট করেছে

যেভাবে এশিয়া কাপের ফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ!

শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ থাকবে পাকিস্তান। রান রেট ভালো রেখে পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশ যদি হেরেও যায় দুই ম্যাচের জয় নিয়েই ফাইনালে ওঠা সম্ভব। সেক্ষেত্রে ভারতকে জিততে হবে চারটি ম্যাচেই। অন্যদিকে, বাছাইপর্ব খেলে মূলপর্বে আসা আরব আমিরাতকে হারতে হবে সবগুলো ম্যাচেই। উপরের শর্ত অনুযায়ী ফলাফল হলে মহাগুরুত্বপূর্ন হয়ে উঠবে ৪ মার্চের পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা ম্যাচটি। শ্রীলঙ্কা জয় পেলে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের মধ্যে লড়াইটা হবে রান রেটের। যারা রান রেটে এগিয়ে থাকবে ভারতের সঙ্গে তারাই খেলবে ফাইনাল। আর পাকিস্তানের সঙ্গে যদি বাংলাদেশ জিতে যায় তাহলে ফাইনাল খেলতে বাধা থাকবে না।

*বাংলাদেশটিম* *এশিয়াকাপটি২০*

খেলার খবর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২০১৬ সাল বাংলাদেশ শুরু করবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়ে। আগামী ১১ জানুয়ারি ঢাকায় আসবে জিম্বাবুয়ে দল। এরপর আগামী ১৫, ১৭, ২০ ও ২২ তারিখ চারটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে সফরকারীরা।


এরপরই অনুষ্ঠিত হবে এশিয়া কাপ। টানা ‍তৃতীয়বারের মত এশিয়া কাপের আয়োজক দেশ বাংলাদেশ। এবারই প্রথমবারের মত এশিয়া কাপ হবে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। খেলা হবে ঢাকা ও ফতুল্লাতে। ঢাকায় অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি টুনামেন্টের যাত্রা শুরু হবে ২৪ ফেব্রুয়ারী; শেষ হবে ছয় মার্চ।


এশিয়া কাপ শুরুর পর থেকেই একেবারেই নিশ্বাস ফেলারও সময় থাকবে না বাংলাদেশ দলের। মার্চ-এপ্রিল বাংলাদেশ দল ব্যাস্ত থাকবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে। আটই মার্চ থেকে তিনই এপ্রিল পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ষষ্ঠ আসর অনুষ্ঠিত হবে ভারতে।


প্রথম রাউন্ড পার হয়ে বাংলাদেশকে দ্বিতীয় রাউন্ড খেলতে হবে। প্রথম রাউন্ড বাংলাদেশ বেশ সফলতার সাথেই পার হবে বলে আশা করা যায়। কেননা, বাংলাদেশ দলের প্রতিপক্ষ হিসেবে আছে নেদারল্যান্ডস, আয়ারল্যান্ডস ও ওম্যান। দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠে গেলে বাংলাদেশ পাবে তুলনামূলক কিছুটা শক্ত প্রতিপক্ষ ভারত, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়াকে ও নিউজিল্যান্ডকে।


এছাড়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাইরে আগস্টে ভারতে সফর আছে বাংলাদেশ দলের। আর সেখানে দীর্ঘ ২৫ বছর পর কলকাতার ইডেন গার্ডেনে খেলার সুযোগ পাবেন সাকিব-মুশফিকরা; তাও আবার টেস্টে।


এরপর লম্বা একটা বিরতি – দীর্ঘ ছয় মাসের। ২০০৯-১০ সেশনের পর এই প্রথম বারের মত বাংলাদেশে আসবে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল। সেটা হবে নভেম্বরে এ নিয়ে চতুর্থ বারের মত বাংলাদেশ সফরে আসছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষের সিরিজে টি-টোয়েন্টি দর্শকদের সম্পূর্ণ হতাশই হতে হচ্ছে। এরপর ২০১৬ সালের শেষের দিকে নিউজিল্যান্ডে সফরের কথা রয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। দুটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে এবং দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলা হবে এই সিরিজে। তবে নিউজিল্যান্ডের এই সফরটি শেষ হতে হতে ২০১৭ সালে পোঁছে যাবে সিরিজটি।


নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ মিলে বছরে মোট ছয়টি ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ। তবে, বছর জুন-জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ে বা অন্য কোনো দলের বিপক্ষে সীমিত ওভার ম্যাচের সিরিজ আয়োজন করা হতে পারে বলেও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) তরফ থেকে আভাস দেয়া হয়েছে।
*ক্রিকেট* *বাংলাদেশটিম* *ক্রিকেটসূচী*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★