বানান ভুল

বানানভুল নিয়ে কি ভাবছো?

Mahi Rudro: . "হঠাৎ হঠাৎ ইচ্ছে করে লিখি প্রথম থেকে লেখাপড়া শিখি .যা শিখেছি ছোট্টবেলায় সব ভুলেছি অবহেলায় যেটুক আছে মনে, মিলিয়ে দেখি সবই বেকার, সবই কেমন মেকি। . নতুন করে বর্ণমালা শিখে মনের ভাষা বানান করে লিখে আবার যদি প্রথম থেকে শিখতে পারি শেলেট এঁকে শুদ্ধ হবে তবেই জীবন বাকি ভুল-বানানের জীবন নচেৎ ফাঁকি।"

*বানানভুল* *গুঞ্জন-রহমান*

Mahi Rudro: . "হঠাৎ হঠাৎ ইচ্ছে করে লিখি প্রথম থেকে লেখাপড়া শিখি যা শিখেছি ছোট্টবেলায় সব ভুলেছি অবহেলায় যেটুক আছে মনে, মিলিয়ে দেখি সবই বেকার, সবই কেমন মেকি। . নতুন করে বর্ণমালা শিখে মনের ভাষা বানান করে লিখে আবার যদি প্রথম থেকে শিখতে পারি শেলেট এঁকে শুদ্ধ হবে তবেই জীবন বাকি ভুল-বানানের জীবন নচেৎ ফাঁকি।"

*বানানভুল* *ভুলবানান* *গুঞ্জন-রহমান*

মাসুম: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রথম পর্ব থেকে পড়তে অনুরোধ করছি। (খুকখুকহাসি)

উদাহরণস্বরুপ বেশতোর মজার ভাব (ইমোটিকন) আর বেশটুনগুলোর কথা বলব। এগুলোর ক্ষেত্রে ছ এর পরিবর্তে “স” এর ব্যবহার লক্ষণীয়। যেমন ভয়পাইছি’র জায়গায় ভয়পাইসি, ব্যাপক/বেশিটেনশনেআছি’র জায়গায় ব্যা,,,,আসি, খাড়াআইতাসি,,,,,তেমনি মাইরালা,,,! বেশটুনের ক্ষেত্রেও আছে-- ফুলকি-বড়ইসুন্দরজ্জ, এজে-চুপারজলিল্র(আসলে জলিলকে ফলো করা হয়েছে)বাঘমামা-উশটাখাইসি(ছি),বাঘমামা-আমিকিসুজানিনা, এইটাকিসুহইলো, গুল্লু-আমিকিকরসি, ভুত-আজকেরতোরেখাইসি,জ্বরেপড়সি, টি২০-ধরসিইইই, বইমেলা-কতবইকিনসি (ভাষাদিবস উপলক্ষের বইমেলার বেশটুনেও ভাষার অবমাননা)!! হতে পারে কোন কিছুর মজা বা আনন্দকে বৃদ্ধির জন্য এগুলো করা হয়েছে। কিন্তু মজার ছলে হোক আর অন্য কোন কারণেই হোক অবমাননা তো অবমাননাই তাই নয় কি? এছাড়া বেশতোর ইউজারদের অতি নিয়মিতভাবে বানানভুল লেখাও কিন্তু অনেকটাই চোখে পড়ার মত।(এক্ষেত্রে এডিট অপশনটা জরুরী যদিও অনেকে ইচ্ছা করলেই এগুলো এড়াতে পারেন যদি লেখাটা এক-দুইবার চোখ বুলিয়ে নিয়ে অতঃপর পোস্ট করেন।)

বেশতোকে সত্যিই ভালোবাসি, প্রত্যাশা করি বেশতো বাংলাদেশের জনপ্রিয় একটা শুদ্ধ বাংলা মাধ্যম হিসেবে আমাদের সামনে থেকে বাংলাকে প্রতিনিধিত্ব করবে। যেখানে শুদ্ধ বাংলার ইর্ষনীয় চর্চা হবে। অন্যসব সংবাদ মাধ্যম বেশতোকে ফলো করে নিজেদের বানানভুলে সচেতন হবে,,,
বেশতোর তো অনেক উন্নয়ন হয়েছে যা আমাদের মত দেশে এত অল্প সময়ে চোখে পড়ার মত! হোকনা আমাদের ভাষার জন্য মোলিক কিছু উন্নয়ন! মজার মজার ইমো আর বেশটুনগুলো যেমন আছে তেমনই থাক শুধু এগুলোর বানানগুলো শুদ্ধ করা হোক। আর আমরা যারা এই বেশতোর স্বনামধন্য ইউজারগন আছি তারাও এগিয়ে আসুন শুদ্ধ বাংলার প্রচলন করি, নির্ভুল বানান লিখে নিজেদের মনের ভাব প্রকাশ করি। 

আপনারা কোন কিছু গুগলে বাংলায় সার্চ দিয়ে দেখতে পারেন বেশতোর রেফারেন্সে অনেককিছুই এখন প্রথম পাতায় শো করে। সেখানে যদি আমার আপনার লেখাটা শো করে অথচ বানানভুলসহ শিরোনামটা কালো অক্ষরে দেখায় তাহলে নিজে কতটুকু তৃপ্ত হবেন, গর্বিত হবেন রক্তের বিনিময়ে ভাষা পেয়েছেন বলে?


*দুখোব্লগ* *বানানভুল* *সমালোচনা* *বাংলাভাষা*

মাসুম: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বেশতোকে সত্যিই ভালোবাসি। আর সেই ভালোবাসাকে আরও নিখাদ করার জন্য, আরও অকৃত্রিম করার জন্য, আরও সম্মৃদ্ধ করার জন্য, আমার মত যারা এই বাংলাদেশকে আর প্রিয় বাংলা ভাষাকে ভালবাসে তাদের কাছে আরও বেশি বেশতোকে গ্রহণযোগ্য করার জন্য, সর্বোপরি বেশতোকে কলুষমুক্ত রাখার অথবা করার জন্য আজকে একটু সমালোচনা করব। তবে হ্যা আমার এই সমালোচনা অবশ্যই গঠনমুলক হবে, এবং বেশতোটিমের কাছে আমার এমনকি আমার মত সমমনা সকলের চাওয়া থাকবে এই সমালোচনাকে গুরত্ব দিয়ে বিবেচনা করা।

এবার আসল কথায় আসি। ইদানিং কিছু নাটকে বাংলা ভাষাকে কথিতভাবে আকর্ষণীয় করার জন্য অনেকটাই বিকৃতভাবে বাংলাকে ব্যবহার করা হচ্ছে। শুনতে যেমন অদ্ভুত তেমনি শুদ্ধ বাংলার অবমাননাকর। এই যেমন—খেয়েছি কে খাইসি, করেছির বদলে করসি, পড়ছি বদলে পরসি ইত্যাদি!শুনলে মনে হয় উচ্চারণকারীর জিহ্বার গঠনে সমস্যা আছে। হুম আমাদের মাতৃভাষাকে আমরা আঞ্চলিকভাবে হয়তবা ভিন্ন আঙ্গিকে ব্যবহার করি, কিন্তু সেটার উচ্চারণ ভঙ্গিমা বা স্থানভেদে সুর বা টানের কম বেশি প্রয়োগের জন্য হয়তবা আমাদের কাছে ভালো লাগে এবং এইটা স্বাভাবিকভাবে অন্যান্য ভাষায় ও আছে। কারণ আঞ্চলিক ভাষাও ভাষার একটা প্রকারভেদের মাঝে পড়ে। কিন্তু বিকৃত ভাষা নামে কোন ভাষা আছে কিনা আমার জানা নেই।

হতে পারে ভাষার পরিবর্তনটা কাম্য। সেজন্য স্থান, কাল, পাত্রভেদে ভাষার পরিবর্তন বা পরিবর্ধন হয়েছে। কিন্তু সেক্ষেত্রে ভাষার মুলসুরকে অবহেলা করে হয়নি। বরং ভাষার কাঠিন্যতাকে বর্জন করা হয়েছে মাত্র।কিন্তু এখনকার পরিবর্তন সেই মুলসুরকে অবজ্ঞা করেই করা হচ্ছে। আর বেশতোর ক্ষেত্রেও এমনটা অনেক আগে থেকেই দেখছি। (বাকিটুকু ২য় পর্বে)

*দুখোব্লগ* *বানানভুল* *সমালোচনা* *বাংলাভাষা*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★