বৈশাখী খাবার

বৈশাখীখাবার নিয়ে কি ভাবছো?

এস.এম.মুন্না: *বৈশাখীখাবার* দুঃখিত ভাই পান্তা ইলিশ খেতে পারলাম না !!!(কান্না২)

হাফিজ উল্লাহ: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

বাংলা আমার মা, বাংলা আমার অহংকার, আমি বাঙালি হয়ে গর্ব করি এক দিনের জন্যে নয়
এই চরম গরমে ইলিশ নামক জাতীয় নিরীহ প্রাণীর বংশ নির্বংশ করার মিছিলে সামিল হয়ে, বৈশাখীখাবার খেয়ে মিছে মিছি একদিনের বাঙালি সেজে, রং মেখে ঢং করে ঘোরাঘুরি করে কি লাভ? একটু ভাবুন .... নিজেকে, সমাজকে, জাতিকে আর কত্তদিন ধোকা দিবেন? ১ দিন কেন, কেন সপ্তাহ না, কেন মাস না, কেন পুরো বছর বাঙালি সাজা যাবে না???
*গরম* *বৈশাখীখাবার* *বৈশাখীসাজ* *বৈশাখে-ঘোরাঘুরি* *আমার-ভাবনা*

শাকিল: *বৈশাখীখাবার* বৈশাখের সাথে ইলিশের সম্পর্ক কি *কাকতালীয়* না !!!! কিসের সাথে কি ? এসব মিডিয়ার সৃস্টি ....

*বৈশাখীখাবার* *কাকতালীয়*

ঈশান রাব্বি: *বৈশাখীখাবার* হোক রুই মাছ দিয়ে, খরচ কম খেতেও মজা। রুই মাছে ইলিশেরডিম ডিম দিয়ে দিন তাতে করে বোঝাই যাবেনা এটা রুই মাছ।

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাংলা নববর্ষের ঐতিহ্যবাহী খাবার উপকরণের নাম ইলিশ। অবস্থা যার যে রকমই হোক অন্তত্ব পহেলা বৈশাখে ইলিশ মাছ বাড়িতে থাকা চাই-ই-চাই। কিন্তু নববর্ষে ইলিশ মাছ যা ইচ্ছে তাই ভাবে রান্না করলে কিন্তু চলবে না? মাছের মধ্যে ইলিশ যেমন শাহী মাছ, তেমনি এর রান্নাটাও হওয়া চাই স্পেশাল। বাংলা নববর্ষ  উপলক্ষ্যে আপনাদের জন্য থাকছে শাহী ইলিশ রান্নার রেসিপি।
 
উপকরণ
ইলিশ মাছ ৪ টুকরা। পেঁয়াজবাটা আধা কাপ। আদাবাটা আধা চা-চামচ। রসুনবাটা আধা চা-চামচ। কাজুবাদাম বাটা ১ চা-চামচ। কিশমিশ-বাটা আধা চা-চামচ। পোস্তদানা বাটা ১/৪ চা-চামচ। মরিচগুঁড়া ৩,৪ চা-চামচ। লবণ স্বাদ মতো। টক দই ২ টেবিল-চামচ। এলাচ ২,৩ টি। লবঙ্গ ২,৩ টি। দারুচিনি ১টি। তেজপাতা ১টি। গরম মসলাগুঁড়া ১/৪ চা-চামচ। ঘি ২ চা-চামচ। তেল প্রয়োজন মতো।
 
প্রস্তুত প্রণালি
প্রথমে মাছগুলো ধুয়ে একটু লবণ মাখিয়ে রাখতে হবে। এবার ননস্টিক প্যানে ১ চা-চামচ ঘি আর তেল গরম করে এলাচ, দারুচিনি ও লবঙ্গের ফোঁড়ন দিয়ে মাছের টুকরাগুলো হালকা ভেজে তুলে রাখুন। এই তেলেই পেঁয়াজ, আদা-রসুনবাটা একটু কষিয়ে প্রয়োজন মতো পানি দিয়ে মরিচগুঁড়া, লবণ, কাজুবাদাম-বাটা, পোস্তদানা-বাটা, কিশমিশ-বাটা, দই, তেজপাতা দিয়ে আরও কিছুক্ষণ কষিয়ে নিন। তারপর ভাজা মাছগুলো দিয়ে অল্প আঁচে ঢেকে রান্না করুন। রান্নার শেষের দিকে গরম মসলার গুঁড়া, বাকি ঘি আর সামান্য চিনি দিয়ে নামিয়ে ফেলুন।
 
রান্না কিভাবে করবেন তা তো শিখেই নিলেন কিন্তু নববর্ষের বাজারে অমূল্য ইলিশ কোথায় পাবেন?
এই বৈশাখে ইলিশ মাছ কেউ খাবে আর কেউ খাবেনা তা হবেনা তা হবেনা। তাই আপনাদের সবার কথা বিবেচনা করে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিল ডটকম নিয়ে এসেছে বৈশাখী ইলিশের সমাহার। বাজারদরের সাথে মিল রেখেই কিনতে পারবেন এই বৈশাখের প্রিয় ইলিশ। তবে আর দেরি না করে, বাজারে গিয়ে অযথা গা না ঘামিয়ে অনলাইনে এখনি অর্ডার করে বৈশাখের জন্য ইলিশ সংগ্রহ করুন। অনলাইনে কিনতে এই লিংকে ক্লিক করুন।  
*ইলিশরেসিপি* *বৈশাখীখাবার* *রেসিপি* *স্মার্টশপিং*

Mahbubul Alam: গতকাল পহেলা বৈশাখে আমার মা এর হাতের রান্না

*বৈশাখীখাবার*

শ্রীময়ী: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরণ
মাংস -- ৬০০ গ্রাম‚ টুকরো করা
আলু -- ২০০ গ্রাম‚ বড় করে টুকরো করা
টমেটো ১৫০ গ্রাম কুচোনো
জিরে -- ২ চা চামচ বাটা
আদা‚ রসুন -- ২ চা চামচ ‚বাটা
সরষে -- ১ চা চামচ‚ বাটা
দারচিনি -- ১টা‚ বাটা
পেঁয়াজ -- ১০০ গ্রাম‚ বাটা
লঙ্কা গুঁড়ো
নুন
তেল
হলুদ
ভিনিগার


প্রণালী: মাংসের সঙ্গে সমস্ত বাটা মশলা‚ নুন‚ হলুদ মাখিয়ে রাখুন | কড়াইতে তেল গরম করে আলুর টুকরোগুলো ভেজে নিন | ওই তেলে মাংস মাখাটা কষতে থাকুন | ভাজা ভাজা হলে অল্প জল‚ টমেটো‚ ভিনিগার‚ ভাজা আলু‚ লঙ্কা গুঁড়ো দিয়ে দিন | মাংস‚ আলু সেদ্ধ হলে নামিয়ে নিন |

*মাটন* *মাংসেররেসিপি* *ভিন্দালু* *রেসিপি* *বৈশাখীখাবার*
ছবি

অসামাজিক কবি: ফটো পোস্ট করেছে

৪/৫

গতকাল ফ্রেম বন্ধী কিছু ছবি

*বৈশাখীখাবার*
ছবি

অসামাজিক কবি: ফটো পোস্ট করেছে

৫/৫

গতকাল ফ্রেম বন্ধী কিছু ছবি

*বৈশাখীখাবার*
ছবি

shahnaz chaudhury: ফটো পোস্ট করেছে

৪/৫

শুভ নববর্ষ সবাইকে ....... আমার আয়োজন !

*বৈশাখীখাবার*

লিজা : একটি বেশব্লগ লিখেছে

কাঁটা বাছার কোন ঝামেলা নেই। রান্নাই করা হবে এমনভাবে যে একটি কাঁটাও থাকবে না গোটা ইলিশ মাছে! কীভাবে এটা সম্ভব? চলুন, জেনে নিই দারুণ একটি রেসিপি।

উপকরণ-ইলিশ মাছ ১ টিপিঁয়াজ কুচি হাফ কাপমরিচ কুচি হাফ কাপলবণ ১ চা চামচসয়া সস ১ চা চামচসয়াবিন তেল ৩ টে চামচপানিলেবুর রস ১/৪ কাপ
প্রনালী--ইলিশ মাছের আঁশ পরিষ্কার করে কানকোর ও পেটের ময়লা পরিষ্কার করে নিন। ভালো মত ধুয়ে নিয়ে একটা লেবুর রস মেখে আধা ঘন্টা মেরিনেট করুন।-এবার মাছের পেটে পিঁয়াজ- মরিচের কুচি একটু ঠেসে ভরে দিতে হবে।-এবার গোটা মাছটি এতে যায় এমন একটি ছড়ানো কড়াইতে মাছটি রেখে এমনভাবে পানি দিন যেন মাছটি ডুবে যায়।লবণ দিন এবং মৃদু আঁচে রান্না হতে দিন ৫ থেকে ৭ ঘন্টা। পানি কমে গেলে পাশ থেকে অল্প অল্প করে পানি দিন। এই স্টেজটি সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এই কারণেই মাছের কাঁটা সম্পূর্ণ গলে যাবে।-নির্ধারিত সময় পর সাবধানে মাছটি তুলে নিন,যেন ভেঙে না যায়। এবার ফ্রাইপ্যানে তেল গরম করে সয়াসস দিন এবং সাবধানে মাছটি ভেজে তুলুন একটু পোড়া পোড়া করে। আপনি চাইলে কয়লার ফ্লেভারও দিতে পারেন। কয়লা চুলায় গরম করে তারে একটু তেল ঢেলে দিয়ে ধোঁয়া তৈরি কবে। এই ধোঁয়া মাছের গায়ে লাগলেই গন্ধটি হবে অসাধারণ! অসাধারণ এই মাছটিতে কাঁটা নেই বলে চিবিয়ে খেতে পারবেন একদম আয়েশ করে। (সংগ্রহীত)
*রেসিপি* *ইলিশরেসিপি* *বৈশাখীখাবার*

শ্রীময়ী: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরণ: ডিম ৭টা, চিনি ১০০ গ্রাম, আম ২টো, জেলাটিন ২০ গ্রাম, ডাবল ক্রিম ৫০০ মিলি, ভ্যানিলা এসেন্স ৫ মিলি, ম্যাঙ্গো ক্রাশ ২০০ মিলি, আমের টুকরো সাজানোর জন্যে।


প্রণালী: আম কেটে আলাদা করে রাখুন। একটা ছোট বাটিতে দু’ টেবলচামচ গরম জলে জেলাটিন গুলে আলাদা করে রাখুন। ডাবল ক্রিম ভালভাবে ফেটিয়ে নিন। একটা ডাবল বয়েলারে দু’টো ডিম, পাঁচটা কুসুম ও চিনি একসঙ্গে গরম করে নিন। কিছুক্ষণ পর বয়েলার থেকে নামিয়ে ভালভাবে ফেটিয়ে নিন। লাইট এবং ফ্লাফি হবে। এই মিশ্রণের মধ্যে গুলে রাখা জেলাটিন মেশান। এবার আস্তে আস্তে এক এক করে ভ্যানিলা এসেন্স, ম্যাঙ্গো ক্রাশ ও আমের টুকরো মেশান। এই মিশ্রণে ফেটিয়ে রাখা ক্রিম আস্তে আস্তে ফোল্ড করে মেশান। একটা বোলে এই মিশ্রণ ঢেলে ফ্রিজে ঢুকিয়ে দিন। মুজ জমে গেলে ফ্রিজ থেকে বের করে উইপড ক্রিম ও আমের টুকরো দিয়ে সাজিয়ে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন।
*নববর্ষ* *বৈশাখীখাবার* *আমেররেসিপি* *রেসিপি*

শ্রীময়ী: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরণ: আস্ত চিকেন ৫০০ গ্রাম থেকে ১ কেজি, অয়েস্টার সস ২ টেবলচামচ, টাব্যাস্কো-৪ ফোঁটা, , মধু ১ টেবলচামচ, মাখন ১ টেবলচামচ, কালো এবং সাদা গোলমরিচদুঁড়ো এবং নুন স্বাদমতো।


প্রণালী: সমস্ত উপকরণ দিয়ে চিকেন ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা ম্যারিনেট করে রাখুন। প্রথমে চিকেন ফর্ক দিয়ে চিড়ে নিয়ে তারপর ম্যারিনেশনের জন্য প্রসিতুত করবেন। এরপর আভেনে দেওয়ার আগে মাখন আর মধু ব্রাশ করে নিন। এতে খাবারে একটা চকচকে ভাব আসবে। রোস্ট করার সময় ভাল করে মাখন ব্রাশের সাহায্যে লাগিয়ে দিন। প্রথমে ১৪০ থেকে ১৬০ ডিগ্রিতে বেক করুন আভেনে। তারপর চিকেনে লাল রং ধরার জন্য ১৮০ ডিগ্রি পর্যন্ত বেক করতে হবে।
*চিকেন* *রোস্ট* *রেসিপি* *নববর্ষ* *বৈশাখীখাবার* *মাংসেররেসিপি*

শান্তা: একটি বেশব্লগ লিখেছে

দরজায় কড়া নাড়ছে পয়লা বৈশাখ। বাঙ্গালীদের অন্যতম প্রধান উৎসব। বাংলা নববর্ষকে বরণ করার জন্য উম্মুখ সবাই। বিবিধ আচার-অনুষ্ঠানের পাশাপাশি ইলিশ মাছ দিয়ে পান্তা ভাত খাওয়াও আমাদের বৈশাখী সংস্কৃতির অন্যতম অনুসঙ্গ হয়ে উঠেছে আবহমান কাল থেকেই। তাই এই বৈশাখী আয়োজনে ভাপা ইলিশ হলে খারাপ হয় না...
 
প্রয়োজনীয় উপকরণ:
ইলিশ মাছ ১২ টুকরা, পেঁয়াজ বেরেস্তা ২৫০ গ্রাম, হলুদগুঁড়া এক চা-চামচ, মরিচগুঁড়া তিন চা-চামচ, কাঁচামরিচ ১০-১২ টা, চিনি ৫০ গ্রাম, টকদই ১০০ গ্রাম, সরিষার তেল ১৫০ গ্রাম, লবণ পরিমাণ মতো।
 
প্রস্তুত প্রণালী:
মাছ ছাড়া বাকি সব উপকরণ একসঙ্গে ভালোভাবে মাখিয়ে নিন। তারপর মাছ দিয়ে ভালোভাবে মাখিয়ে, লবণ পরিমাণমতো দিয়ে চেখে দেখুন। এবার টিফিন বক্স বা স্টিলের গামলা জাতীয় পাত্রে ভাপে বসান। ডিমের পুডিং বানানোর পদ্ধতিতেই ভাপে দিন। ৩০ মিনিটের বেশি আঁচে ভাপে রাখুন। তারপর চুলা থেকে নামানোর আরও ১০ মিনিট পর পাত্রের ঢাকনা খুলে গরম গরম পরিবেশন করুন।
 
কোথায় পাবেন ইলিশ: 

এই বৈশাখে ইলিশ মাছ কেউ খাবে আর কেউ খাবেনা তা হবেনা তা হবেনা। তাই আপনাদের সবার কথা বিবেচনা করে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিল ডটকম নিয়ে এসেছে বৈশাখী ইলিশের সমাহার। বাজারদরের সাথে মিল রেখেই কিনতে পারবেন এই বৈশাখের প্রিয় ইলিশ। তবে আর দেরি না করে, বাজারে গিয়ে অযথা গা না ঘামিয়ে অনলাইনে এখনি অর্ডার করে বৈশাখের জন্য ইলিশ সংগ্রহ করুন। অনলাইনে কিনতে এই লিংকে ক্লিক করুন। 
 
*ইলিশ* *ইলিশরেসিপি* *বৈশাখীখাবার*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

নববর্ষে অতিথি আপ্যায়নে কেসর রাজভোগ 
উপকরণ:
দুধের ছানা-২০০ গ্রাম
ময়দা-১ টেবিল চামচ
চিনি-১/২ কেজি
জল-২ কাপ
রান্নার সোনালি রঙ-১/৪ চা চামচ
কেসর-১/৮ চা চামচ
এলাচ গুঁড়ো-১ চা চামচ
আমন্ড-৮টা(খোসা ছাড়িয়ে কুচনো)
পেস্তা-৮টা(খোসা ছাড়িয়ে কুচনো)


প্রণালী:
কেসর, এলাচ গুঁড়ো, আমন্ড ও পেস্তা একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। জল ও চিনি একসঙ্গে ফুটিয়ে রস তৈরি করে নিন। সারাক্ষণ নাড়তে থাকবেন। ছানা ও ময়দা একসঙ্গে মিহি, নরম কতরে মেখে নিন। এই মিশ্রণ থেকে হাতে করে ৬ থেকে ৮টা গোল বানিয়ে নিন। প্রতিটা বলের মাঝখানে কেসর, আমন্ড, এলাচ গুঁড়ো ও পেস্তার মিশ্রণ দিন। এবারে ফুটন্ত গরম রসে সোনালি রঙ মিশিয়ে ছানার বল ছেড়ে দিন। চড়া আঁচে ১৫ থেকে ২০ মিনিট ফোটান। ৫ মিনিট অন্তর জল মেশাবেন যাতে রস বেশি ঘন না হয়ে যায়। নামিয়ে নিয়ে গরম গরম বা ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন।
*মিষ্টি* *বৈশাখীখাবার* *রাজভোগ* *নববর্ষ*
৫/৫

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: *বৈশাখীখাবার* পহেলা বৈশাখ এখন কৃত্রিম ইলিশ-সংস্কৃতি রূপ ধারন করেছে । আসলে পহেলা বৈশাখের খাবার কি ? আমরা কি একবার ও ভেবে দেখেছি ।

আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আসছে বাংলা নববর্ষ ১৪২৪। নববর্ষকে বরণ করে নেওয়ার প্রস্তুতিতে ব্যস্ত পুরো বাংলাদেশ। বাংলার ঐতিহ্যবাহী এই বর্ষবরণ উৎসবকে ঘিরে বাংলার ঘরে ঘরে তৈরী হবে হরেক রকমের বাঙ্গালিয়ানী খাবার। ধরেই নেওয়া হয়, ১লা বৈশাখের খাবার মানেই পান্তা ইলিশ।
বছরের প্রথম দিনটিতে ইলিশ মাছ থাকা চাই-ই-চাই। কিন্তু ইলিশের অভাব আর টাকাওলাদের দৌরাত্মে আগে ভাগেই ফ্রিজ বন্দি হয় ইলিশ নামের সোনার হরিণ। তাইতো সর্বজনীন এই উৎসবে গরীবদের কাছে ইলিশ মাছের নাম গন্ধটুকুও খুঁজেও পাওয়া যায় না। সঙ্গত কারণে, ১লা  বৈশাখের এই দিনটিতেও  সিলভার কার্প হয় বাংলার ইলিশ। উৎসবের এই দিনটিতেও দুধের সাদ ঘোলে মেটায় বাংলার সাধারণ মানুষেরা।


(সিলভার কার্প যখন বাংলার ইলিশ! শিরোনামে বিস্তারিত লেখা খুব শিঘ্রই আপনাদের মাঝে তুলে ধরব বলে আশা রাখছি)  আজ এপর্যন্তই.....
*বৈশাখীখাবার* *ইলিশ* *সিলভারকার্প*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★