বৈশাখীফ্যাশন

বৈশাখীফ্যাশন নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আর ক’দিন বাদেই বাংলা নতুন বছরের সূচনা হবে। বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নিতে সবাই যে যার মত প্রস্তুতি নিচ্ছে। যুগলরা এই দিনটি সাজাতে পারেন একটু ভিন্ন সাজে। এই দিন দুজনেই পরতে পারেন একই রকমের পোশাক। আপনারা যারা আধুনিক তারুণ্যের মধ্যে বর্ণিল রঙে যুগপত্ রাঙাতে চান, তাদের কথা মাথায় রেখেই দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপ আজকেরডিল বিভিন্ন ডিজাইনের পোশাক নিয়ে এসেছে। এতে পরিবারের সকলের উপযোগী করে পোশাকের উপস্থাপনায় আনা হয়েছে মেলবন্ধন। সালোয়ার-কামিজ, পাঞ্জাবি কিংবা শাড়ি সবকিছুইতেই থাকছে ফেব্রিক, ডিজাইন বা মোটিফের যুগপত্ উপস্থাপনা।

  

মূলত বৈশাখী উৎসবকে সামনে রেখে পোশাক ডিজাইনাররা যুগল আর পরিবারের সদস্যদের কথা চিন্তা করে একই রঙের পোশাক বানানো শুরু করেন। সব উত্সবে ফ্যাশন হাউসগুলো যুগলবন্দি পোশাক তৈরি করে। বাকি নেই পহেলা বৈশাখও। টিনএজারদের জন্য তারা ফিউশনধর্মী ভিন্ন কাটিংয়ে একই নকশার পোশাক তৈরি করে। মাঝ বয়সী আর পরিবারের সবার কথা চিন্তা করে রং আর নকশায় পরিবর্তন আনা হয়।

 

উত্সবে মূলত প্রিয়জনের সঙ্গে মিলিয়ে অনেকেই একই রকম পোশাক পরতে চায়। বয়স আর পরিবেশের কথা চিন্তা করে ডিজাইনাররা এসব পোশাক তৈরি করছেন। দেশীয় নকশার সঙ্গে মিল রেখে পাশ্চাত্য কাটিংয়ের মিশ্রণে তরুণদের জন্য তৈরি হচ্ছে ভিন্নধর্মী পোশাক। প্রথম দিকে এসব পোশাকে তরুণদের আগ্রহ বেশি থাকলেও এখন সব বয়সীদের পছন্দের তালিকায় স্থান পেয়েছে যুগল পোশাক।

 

পাঞ্জাবির চাহিদা বছরের অন্য সময়ের তুলনায় এ সময়টাতে থাকে একটু বেশি। বাঙালি বলে কথা, তাই পোশাকেও থাকতে হবে বাঙালির ঐতিহ্য। আর তাই হাতে হালকা লাল রঙের কাজ, গলা ও পিঠে সাদামাটা লালের ছটায় বর্ণিল পাঞ্জাবিগুলোর চাহিদা বেশি। মোঘল পোশাকের ক্যাটিং বা সেমি-ফিট পাঞ্জাবি বেশি চলছে এবার।

 

রঙের সঙ্গে কমলা, হলুদ, নীল ও অন্যান্য রঙও ব্যবহার করা হচ্ছে বৈশাখের পোশাকে। তবে কেন্দ্রীয় রঙ লাল-সাদাই রাখা হয়। প্রতি বছর পহেলা বৈশাখে রমনার বটমূল, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস, বৈশাখের সব অনুষ্ঠানে দেখা যায় লাল-সাদা শাড়ির বাহার। চুড়ি, টিপ, গহনা, লিপস্টিক এমনকি জুতা, ব্যাগও হয়ে থাকে লাল-সাদা রঙের। বৈশাখের শাড়ি কেনার জন্য বাজেটটা অনেক হতে হবে তা নয়। বরং সুন্দর ঐতিহ্যবাহী নকশার শাড়ি কমদামে কিনতে পাওয়া যাবে আজকেরডিলের ওয়েবসাইটে।

দেশের যেকোন প্রান্ত থেকে যুগলরা তাদের পছন্দসই পোশাক কিনতে চাইলে আজকেই ঢুঁ মারতে পারেন অনলাইন শপ আজকেরডিলর ওয়েবসাইটে। পণ্য পছন্দ হলে অর্ডার করলে ঢাকার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় আর ঢাকার বাইরে ৪ কার্যদিবসের মধ্যে পন্য পৌঁছে দেবে। যারা পহেলা বৈশাখের ঐতিহ্যবাহী কাপল ড্রেস কিনতে চান তারা এখানে ক্লিক করুন

*ফ্যাশন* *বৈশাখীফ্যাশন* *স্পন্সরকনটেন্ট* *আজকেরডিল* *কাপলড্রেস*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বর্ষবরণ উৎসবে বাঙালিয়ানা ফুটিয়ে তোলার জন্য ভালো একটি স্টাইলিশ পোশাক যদি পরনে থাকে তাহলে তো ফূর্তির কোন অভাব থাকবে না। বিশেষজ্ঞরা বলেন, কারো মন খারাপ থাকলে ভাল পোশাক পরলেই নাকি মনটা অটোমেটিক ভাল হয়ে যায় আর যে কোন উৎসবে আনন্দে মেতে ওঠার জন্য একটি ভাল পোশাকই যথেষ্ঠ। যদি তাই হয় তাহলে এই বৈশাখে স্টাইলিশ পোশাক কুর্তি পরলে ফূর্তিতো এমনিতে মনের ভেতর আকডুম বাগডুম করবে। চলুন এই বৈশাখের স্টাইলিশ পোশাক কুর্তি সম্পর্কে জেনে নেই।

কুর্তি

"কুর্তা" বা "কুর্তি" শব্দটি মূলত পার্সিয়ান, যার অর্থ "কলারবিহীন শার্ট"। "কুর্তা" আসলে মধ্য, পশ্চিম এবং দক্ষিন এশিয়ায় প্রচলিত একটি ছেলেদের পোশাক। কিন্তু এটি বর্তমানে "কুর্তি" নামে ইন্ডিয়া, পাকিস্তান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশে মেয়েদের একটি জনপ্রিয় পোশাক হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। আমাদের দেশে বর্তমানে এটি অধিক জনপ্রিয় পোশাকে পরিণত হয়েছে। বিশেষ করে তরুণীদের প্রথম পছন্দের তালিকায় রয়েছে এটি।

বৈশাখী কুর্তি কিনতে ক্লিক করুন

কুর্তি ফ্যাশন

বৈশাখে তরুণীদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে স্লিভলেস ও লং সাইজের কুর্তি। কুর্তি এমন একটি পোশাক যা বেশ ঢিলেঢালা এবং আরামদায়ক। নানা রঙে এবং ডিজাইনে তৈরি কুর্তি আজকাল ফ্যাশন সচেতন কিংবা আরামপ্রিয় সবার মাঝেই অনেক জনপ্রিয়। ক্যাজুয়াল অথবা ফর্মাল যেকোনো স্টাইলের সাথেই এই পোশাকটি বেশ মানানসই। জিন্স, লেগিংস ছাড়া ঢিলে স্যালোয়ারের সাথেও কুর্তি পরা যায় অনায়াসেই। বাজারে লাল থেকে শুরু করে সাদা, নীল, সবুজ, হলুদ, বেগুনি, কমলা, মেজেন্ডা থাকছে সব কটা রঙেই। এক রঙা পোশাকের ফ্যাশন বদলে একই পোশাকে কয়েক রঙের ব্যবহার এখন বেশি জনপ্রিয়।
বৈশাখের স্টাইলিশ লং কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

লম্বা ও ঢিলেঢালা কুর্তি:

লং কামিজের মতো লম্বা আর ঢিলেঢালা কুর্তিও এখন অনেকের পছন্দ। সুতি কিংবা লিনেন কাপড়ের হওয়ায় কুর্তিগুলো পরেও আরাম। এগুলোর সামনের দিকটায় থাকে এক রঙের কোনো কাপড় আর পেছনের দিকটায় জবরজং প্রিন্টের কাপড়। হাইনেক কলার ও ফুল স্লিভ কিংবা থ্রি-কোয়ার্টার হাতার কুর্তিগুলোর জমিনজুড়ে থাকে নানা মোটিফ।
লং কুর্তি কিনুন


শর্ট কুর্তি:

শর্ট ও স্লিভলেস কুর্তিও বর্তমান ফ্যাশনে বেশ ভাল চলছে। সাথে হাতাকাটা কুর্তিরও বেশ চাহিদা আছে। ফ্যাশনটা কে একটু স্টাইলিশ করে তুলতে হবে এ ধরনের কর্তির বিকল্প নেই। এই ধরনের কর্তি যেমন আরামদায়ক তেমনই মানানসই। বাজারে লাল থেকে শুরু করে সাদা, নীল, সবুজ, হলুদ, বেগুনি, কমলা, মেজেন্ডা থাকছে সব কটা রঙেই। আপনি আপনার পছন্দমত রঙের টি কিনে নিন। তবে এগুলোতে কয়েকটি রংয়ের কমবিনেশন থাকলে ভাল লাগে।
শর্ট কুর্তি কিনতে ক্লিক করুন

কোথায় পাবেন?

দেশের প্রায় সব ধরনের পোশাকের মার্কেটে মিলবে দেশী বিদেশী বিভিন্ন ডিজাইনের পছন্দসই কুর্তি। আপনি সেখান থেকে আপনার পছন্দেরটি বেছে নিতে পারেন। এছাড়াও আপনি ঘরে বসে শেষ মূহুর্তের বৈশাখী কুর্তি কিনতে পারেন দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল আজকের ডিল থেকে। এর ওয়েবসাইট এ গিয়ে অর্ডার করতে আপনি আপনার পছন্দেরটি কিনে নিতে পারেন। আপনাদের সুবিধার্থে নিচে একটি অনলাইন লিংক শেয়ার করলাম।
বৈশাখী ফ্যাশনেবল কুর্তির কালেকশন দেখতে ক্লিক করুন

*বৈশাখীফ্যাশন* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

পহেলা বৈশাখের আর মাত্র কয়েকদিন বাঁকি। এই দিনটিকে ঘিরে উৎসাহ উদ্দীপনার কোন কমতি নেই। কিভাবে নববর্ষের এই সময়টাতে প্রিয় মানুষটির কাছে আরও বেশি প্রিয় হয়ে ওঠা যায়, কিভাবে নিজেকে আরও একটু ফ্যাশনবেল করা যায় তাই নিয়ে তরুণ-তরুণীদের জল্পনা কল্পনা শুরু হয়ে গেছে। তবে যে যাই বলুক এই দিনটাতে পোশাকে একটু ভিন্নতা থাকতেই হবে। তাই এই বৈশাখে প্রিয় মানুষটির কাছে আরও প্রিয় হয়ে উঠতে পরুন নিচের ড্রেস গুলো। 



বৈশাখী টি-শার্ট

টি-শার্টেই যদি ভালো বাসার বহিপ্রকাশ ঘটে তাহলে দোষ কোথায়? পহেলা বৈশাখে এই রকম ঐতিহ্যবাহী টি-শার্ট যদি আপনার পরণে থাকে তাহলে প্রেমিকের আর বুঝে নিতে দেরি থাকবেনা যে আপনি তার জন্য এই টি-শার্টটি পরেছেন। তাই আর দেরী না করে আজই কিনে নিন আকর্ষণীয় বৈশাখী টি-শার্ট।

টি-শার্ট কিনতে খানে ক্লিক করুন

 

 

যুগলবন্দী পোশাক

বৈশাখী মেলায় বের হবার সময় আপনাদের ড্রেসটি যদি একই রকম হয় তাহলে কেমন মজা হবে বলুন তো। যে কেউ ধরেই নেবে আপনার একজন আরেক জনকে অনেক ভালোবাসেন। আর আপনাদের মধ্যে ভালোবাসা অধিক বেড়ে যাবে। তাছাড়াও বৈশাখে যুগলবন্দী পোশাকে আপনাদের বেশ স্টাইলিশ দেখাবে। ফ্যাশনে যুক্ত হবে নতুন মাত্র। তাহলে আর দেরী না করে আজকের ডিল থেকে কম্বো অফারে কিনে নিন বৈশাখী যুগলবন্দী পোশাক।

বৈশাখী যুগলবন্দী পোশাক কিনতে ক্লিক করুন


ফ্যাশনেবল কূর্তি

কূর্তি পরলে নাকি ফূর্তির শেষ থাকে না। তাই প্রিয় মানুষটিকে আনন্দ ফূর্তিতে ভরিয়ে দিতে বেছে নিতে পারেন কূর্তি। কূর্তি আমাদের দেশে বর্তমানে অধিক জনপ্রিয় পোশাক। বিশেষ করে তরুণীদের প্রথম পছন্দের তালিকায় রয়েছে এটি। এই পোশাকটি বেশ ঢিলেঢালা এবং আরামদায়ক। এই পোশাকটি আপনাকে এতটাই ফ্যাশনেবল করে তোলতে সক্ষম যা দেখেই আপনার মনের মানুষটি আপনাকে আরও কাছে টেনে নেবে।

কূর্তি কিনতে এখানে ক্লিক করুন

 
থ্রী পিস

ব্লক প্রিন্টেড আনস্টিচড থ্রী পিস বৈশাখে হতে পারে আপনার সেরা পরিধেয়। স্টাইলিশ এই থ্রী পিস গুলো আপনার আউটলুক দিগুণ করে তোলবে। প্রিয় মানুষটির পাশাপাশি একসাথে ঘুরে বেড়াতে ফ্যাশনেবল স্টাইলিশ থ্রী পিস কিনে নিতে পারেন। এটি প্রিয় মানুষটির কাছে আপনাকে আরও প্রিয় করে তুলবে।

থ্রী পিস কিনতে এখানে ক্লিক করুন


বৈশাখী শাড়ি

বাঙালি ললনাদের নাকি শাড়িতে বেশি মানায়। কাথায় বলে, শাড়িতে অনন্যা বাঙালি ললনা। তাই পহেলা বৈশাখে সত্যিকারের ললনা হয়ে উঠতে আকর্ষণীয় বৈশাখী শাড়ি পরুন। বিশেষ করে যারা একেবারেই শাড়ি পরেন না তারা এই বৈশাখে বাঙালিয়ানা শাড়ি পরে ভালোবাসার মানুষটিকে চমকে দিতে পারেন। তবে শাড়ি পরার সময় অবশ্যই মাচিং করে ব্লাউজ পরবেন।

বৈশাখী শাড়ি কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 

বৈশাখী পাঞ্জাবি

এই বৈশাখে ছেলেদের জন্য  সবচেয়ে আকর্ষণীয় পোশাক হচ্ছে পাঞ্জাবি। আকর্ষনীয় ডিজাইনের সব নান্দনিক পাঞ্জাবি আপনি হয়ে উঠতে পারেন আরও স্টাইলিশ। যেহেতু নববর্ষে নতুন পোশাকের দিকে একটা ঝোঁক সবারই থাকে সেজন্য আপুরা ভাইয়াদের উপহার হিসেবেও পাঞ্জাবি দিতে পারেন।  বর্তমান বাজারে ভাল মানের অনেক বৈশাখী পাঞ্জাবি পাওয়া যাচ্ছে পছন্দ অনুযায়ী সেরাটি কিনে নিন।  আর এই বৈশাখে প্রিয় মানুষের কাছে হয়ে উঠুন আরও  প্রিয়। 

বৈশাখী পাঞ্জাবি কিনতে এখানে ক্লিক করুন

বিঃ দ্রঃ- বৈশাখের সবধরনের আকর্ষণীয় কালেকশন আপনি এখন ঘরে বসে কিনতে পারবেন। ঘরে বসে বৈশাখী কেনাকাটা করতে এখানে ক্লিক করুন। 

*বৈশাখীসাজ* *বৈশাখীফ্যাশন* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রকৃতিতে নব আনন্দের সাজ সাজ রব বিরাজ করছে। আর মাত্র ক’দিন পরেই প্রকৃতিকে নতুন করে সাজাতে বাংলা নববর্ষের প্রথম মাস বৈশাখের আগমন ঘটবে। বৈশাখ মানেই ভিন্নরকম সাজে নিজেকে একটু বদলে নেওয়া। বৈশাখী হাওয়ার রঙ্গিণ সাজে নিজেকে মানিয়ে না নিলে বৈশাখের নব রঙ আপনাকে ফাঁকি দেবে এটাই স্বাভাবিক। তাই আসছে বৈশাখে স্টাইলিশ ফ্যাশনের ছোঁয়ায় নিজেকে সাজিয়ে নিন নতুন করে। কি কি রাখবেন বৈশাখী সাজে চলুন জেনে নেই।
 
নারীদের বৈশাখী শাড়ি
মাত্র ক’দিন বাদেই নেচে গেয়ে বৈশাখ বরণ করতে বেরিয়ে পড়বে সবাই। নানান রংয়ের বাঙালিয়ানা শাড়ি পরে ললনারা ডাক দেবে মেলায় যাওয়ার। সে দিনের সাজটা কেমন হবে আপনার? এই সময়টাতে প্রকৃতির রং আর  ঐতিহ্যের ছোঁয়া তো থাকবেই। তাই বৈশাখে বাঙ্গালিয়ানা ঐতিহ্য,  নতুন ফুল, পাতার রংগুলো তুলে আনুন পোশাকে। শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া যা-ই পরা হোক, তাতে বৈশাখী ছোঁয়া থাকা চাই। সাদা, কমলা, হলুদ,  লাল, সবুজ, রানিং রং এগুলোই তো থাকবে শাড়িতে। শাড়িতে থাকতে পারে ব্লক ও জরির কাজ। ব্লাউজের কাটে ভিন্নতা আনতে পারেন ম্যাগি বা ঘটি হাতা দিয়ে। 
ললনাদের বৈশাখী শাড়ির কালেকশন দেখতে ও কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 
 
বৈখাখী ফ্যাশনে গয়না
হালকা সাজ পোশাকের সঙ্গে গয়নাও হালকা হওয়া চাই। সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে মাটি, কাঠ বা মেটালের দুল পরুন। গলায় পাতলা নেকলেস পরে নিতে পারেন। হাতে চুড়ি পরতে পারেন। এখানেও বেছে নিন কাঠ, মাটি, মেটাল বা কাঁচের রেশমি চুড়ি। শাড়ি পরলে কানের দুলের সঙ্গে গলায় লম্বা পুঁতির মালা পরুন। সঙ্গে হাতভর্তি চুড়ি। সাজের পূর্ণতা আনতে ব্যবহার করুন হালকা সুগন্ধি।
বৈশাখী সাজের গয়না কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
ছেলেদের বৈশাখী ফ্যাশন
বর্ষ বরণে শুধু মেয়েরাই শাড়ি আর গহনায় নিজেকে সাজাবে তা কি হয়? ছেলেরাও বৈশাখে নিজেকে সাজিয়ে নিতে পারেন বাঙালিয়ানা সাজে।  বৈশাখী পাঞ্জাবি পরেই বেরিয়ে পড়তে পারেন এই দিন। প্রকৃতির যেকোনো উজ্জ্বল রংয়ের সঙ্গে মিলিয়ে সাদা,কমলা, হলুদ, লাল, সবুজ, হলুদ পাঞ্জাবি পরতে পারেন। এদিন ঐতিহ্যবাহী রঙের পোলোশার্ট ও টিশার্টেও বেশ মানাবে। সঙ্গে চোজ-পায়জামা। পাঞ্জাবি পরতে না চাইলে উজ্জ্বল রংয়ের শার্টও পরতে পারেন। সেক্ষেত্রে জিন্স-প্যান্ট বেশ মানিয়ে যাবে।
ছেলেদের বৈশাখী ফ্যাশনে মন মাতানো পোশাক কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 
 
এই বৈশাখে আপনাকে নতুন করে সাজাতে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিল নিয়ে এসেছে নানা রকম আয়োজন। তাদের বৈশাখী সব আয়োজন দেখতে এখানে ক্লিক করুন। 
*বৈশাখীসাজ* *বৈশাখীফ্যাশন* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ফ্যাশন হল সময়ের বাহন। সময়ের হাওয়ায় ফ্যাশন বদলাতে থাকে নিত্যনতুন আঙ্গিকে। আধুনিক তারুণ্যের মধ্যে যারা বর্ণিল রঙে যুগপত্ রাঙাতে চান, তাদের কথা মাথায় রেখেই ফ্যাশন ডিজাইনাররা যুগলবন্দি পোশাকের ডিজাইন করছেন। এতে পরিবারের সকলের উপযোগী করে পোশাকের উপস্থাপনায় আনা হয়েছে মেলবন্ধন। সালোয়ার-কামিজ, পাঞ্জাবি কিংবা শাড়ি সবকিছুইতেই থাকছে ফেব্রিক, ডিজাইন বা মোটিফের যুগপত্ উপস্থাপনা। সালোয়ার-কামিজ আর কুর্তার প্যাটার্নে এবার থাকছে লং এবং গাউন স্টাইল, কিছু কাটিংয়ে থাকছে ঘের এবং বডি ফিটিংস। 
 
মূলত বৈশাখী উৎসবকে সামনে রেখে পোশাক ডিজাইনাররা যুগল আর পরিবারের সদস্যদের কথা চিন্তা করে একই রঙের পোশাক বানানো শুরু করেন। সব উত্সবে ফ্যাশন হাউসগুলো যুগলবন্দি পোশাক তৈরি করে। বাকি নেই পহেলা বৈশাখও। টিনএজারদের জন্য তারা ফিউশনধর্মী ভিন্ন কাটিংয়ে একই নকশার পোশাক তৈরি করে। মাঝ বয়সী আর পরিবারের সবার কথা চিন্তা করে রং আর নকশায় পরিবর্তন আনা হয়। 
 
 
উত্সবে মূলত প্রিয়জনের সঙ্গে মিলিয়ে অনেকেই একই রকম পোশাক পরতে চায়। বয়স আর পরিবেশের কথা চিন্তা করে ডিজাইনাররা এসব পোশাক তৈরি করছেন। দেশীয় নকশার সঙ্গে মিল রেখে পাশ্চাত্য কাটিংয়ের মিশ্রণে তরুণদের জন্য তৈরি হচ্ছে ভিন্নধর্মী পোশাক। প্রথম দিকে এসব পোশাকে তরুণদের আগ্রহ বেশি থাকলেও এখন সব বয়সীদের পছন্দের তালিকায় স্থান পেয়েছে যুগল পোশাক l বৈশাখকে ঘিরে তরুণদের চাহিদার মধ্যে রয়েছে পাঞ্জাবি, ফতুয়া, বৈশাখী শার্ট, গামছাসহ কিছু নতুন ও ব্যতিক্রমী প্রসাধন-সামগ্রী। 
 
 
ফতুয়ায় বাঙালির ঐতিহ্যবাহী ঢোল, একতারার ডিজাইনগুলো এবার কিছুটা ব্যতিক্রম ও নজরকাড়া। আর সেদিকেই ঝুঁকছেন অধিকাংশ ফ্যাশন সচেতন পুরুষ। পাঞ্জাবির চাহিদা বছরের অন্য সময়ের তুলনায় এ সময়টাতে থাকে একটু বেশি। বাঙালি বলে কথা, তাই পোশাকেও থাকতে হবে বাঙালির ঐতিহ্য। আর তাই হাতে হালকা লাল রঙের কাজ, গলা ও পিঠে সাদামাটা লালের ছটায় বর্ণিল পাঞ্জাবিগুলোর চাহিদা বেশি। মোঘল পোশাকের ক্যাটিং বা সেমি-ফিট পাঞ্জাবি বেশি চলছে এবার।
রঙের সঙ্গে কমলা, হলুদ, নীল ও অন্যান্য রঙও ব্যবহার করা হচ্ছে বৈশাখের পোশাকে। তবে কেন্দ্রীয় রঙ লাল-সাদাই রাখা হয়। প্রতি বছর পহেলা বৈশাখে রমনার বটমূল, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস, বৈশাখের সব অনুষ্ঠানে দেখা যায় লাল-সাদা শাড়ির বাহার। চুড়ি, টিপ, গহনা, লিপস্টিক এমনকি জুতা, ব্যাগও হয়ে থাকে লাল-সাদা রঙের। বৈশাখের শাড়ি কেনার জন্য বাজেটটা অনেক হতে হবে তা নয়। বরং সুন্দর ঐতিহ্যবাহী নকশায় বোনা শাড়ি কিনতে পাওয়া যাবে ফ্যাশন হাউসগুলোতে। এসব শাড়িতে বুননের পাশাপাশি থাকে খানিকটা বাড়তি যোগ।
বাবা-ছেলে, মা-মেয়েসহ পুরো পরিবারের একই রকম পোশাক। ভাবতেই তো বেশ ভালো লাগে ব্যাপারটা, তাই না l আপনিও এই বৈশাখে কিনে নিতে পারেন পরিবারের সকলের জন্য বৈশাখের যুগলবন্দী পোশাক l দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলোর পাশাপাশি আজকের ডিলের এই বৈশাখের অন্যতম আকর্ষণ হলো কাপল অফার l এই লিঙ্কে ক্লিক করে বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের পোশাকগুলো l
 
 
*পহেলাবৈশাখ* *কাপলঅফার* *যুগলবন্দীপোশাক* *হালেরফ্যাশন* *ফ্যাশন* *বৈশাখীফ্যাশন*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাংলা নববর্ষ ১৪২৩ উদযাপন উপলক্ষ্যে বাহারি বৈশাখী শাড়িতে নাইনটি নাইন অফার নিয়ে এসেছে দেশের সবেচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল আজকের ডিল ডট কম। আজকের ডিলের এই অফারে আপনি আপনার বৈশাখকে রাঙিয়ে নিতে নানা রকমের বাঙালিয়ানা শাড়ি পাবেন মাত্র ৪৯৯ টাকা থেকে ৯৯৯ টাকার মধ্যে। পহেলা এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া এ অফার চলবে আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত।
 
 
নাইনটি নাইন (৯৯) অফারের বৈশাখী শাড়ি:
বৈশাখী  ৯৯ অফারের শাড়ি গুলো কিনতে কনটেন্টটির ছবিগুলোতে ক্লিক করুন। 
বৈশাখী কোটা শাড়ীঃ
বৈশাখের জনপ্রিয় ও আরামদায়ক এই কোটা শাড়িটি আজকের ডিলে  পাচ্ছেন মাত্র ৪৯৯ টাকায়।যেকোনো উৎসবে মানানসই স্টাইলিস্ট এবং আরামদায়ক এই শাড়িটি আপনি এখনি ঘরে বসেই কিনে নিতে পারবেন। শাড়িটি কিনতে  এখানে ক্লিক করুন
 
বৈশাখী কোটা শাড়ীঃ
শাড়িতে বৈশাখ মাতাতে সংগ্রহে রাখতে পারেন ছবির এই শাড়িটি। এটিও বৈশাখী কোটা শাড়ি। শাড়িটির দাম মাত্র ৫৯৯ টাকা। 
অনলাইনে শাড়িটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
কোটা কটন হ্যান্ড প্রিন্ট শাড়িঃ
হ্যান্ড প্রিন্টের কাজ করা বৈশাখী এই কোটা কটন ফ্যাশনেবল ডিজাইনের শাড়িটি অফারে আজকের ডিল থেকে কিনতে পারবেন মাত্র ৯৯৯ টাকায়। যেসব রমনীরা স্টাইলিশ ফ্যাশনে বিশ্বাসী তাদের জন্য এই শাড়িটি বেশ মানানসই হবে।  শাড়িটিতে লেস বসানো পাড় রয়েছে। প্রিয়জনের জন্য অনন্য উপহার হিসেবেও দিতে পারেন  এই শাড়িটি। 
অনলাইনে শাড়িটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
কোটা সিল্ক শাড়িঃ
বাহারি ডিজাইনের ফ্যাশনেবল এই শাড়িটি বৈশাখী উৎসবে আপনাকে আরও স্টাইলিশ ও সুন্দরী করে তুলবে। নববর্ষে নিজেকে নতুন করে সাজাতে শাড়িটির বিকল্প নেই। যেকোনো উৎসবে মানানসই এই শাড়িটি পরতেও খুব আরামদায়ক। বৈশাখের গরমে আয়েশ করে পরতে পারবেন শাড়িটি। 
দাম মাত্র ৯৯৯ টাকা।
অনলাইনে কিনতে এক্ষণি এখানে ক্লিক করুন। 
 
ব্রাশ প্রিন্টেড কটন শাড়িঃ
 
ব্রাশ প্রিন্টেড কাজ করা নজরকাড়া ডিজাইনের এই শাড়িটি বৈশাখী নাইনটি নাইন অফারে আজকের ডিল থেকে নিতে পারবেন মাত্র ৯৯৯ টাকায়। শাড়িতে বৈশাখ মাতাতে সংগ্রহে রাখতে পারেন ছবির এই শাড়িটি। বৈশাখে এই শাড়িটি আপনার আউটলুক শতগুণে বৃদ্ধি করে দেবে। 
ছবির এই শাড়িটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
বৈশাখী কটন শাড়িঃ
রঙে ঢঙে বৈশাখী এই উৎসবকে সাজিয়ে নিতে এই শাড়িটি হতে পারে আপনার বৈশাখের একান্ত অনুসঙ্গী। কটন ফ্রেবিকের এই শাড়িটিতে প্রিন্টের কাজ করা রয়েছে। এই শাড়িটি কিনলে এর সাথে ম্যাচিং আনস্টিচড ব্লাউজ পিস পেয়ে যাবেন একদম ফ্রি। 
দারুন স্টাইলিশ ও আরামদায়ক এই শাড়িটির দাম মাত্র ৯৯৯ টাকা। 
তাই আর দেরি না করে অনলাইনে কিনতে এক্ষনি অর্ডার দিন এই লিংকে। 
 
মনে রাখবেনঃ
অনলাইন শপিং এর মাধ্যম মানেই আজকেরডিল ডট কম। এই বৈশাখে আজকের ডিল থেকে শপিং করুন ঝড়ের গতিতে আর ডেলিভারী নিন তুফানের বেগে। আর মাথা নষ্ট করা আকর্ষণীয় আরও অফার পেতে চোখ রাখুন আজকের ডিলে
*শাড়ি* *বৈশাখীফ্যাশন* *বৈশাখীঅফার* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আর মাত্র ক’টা দিনের অপেক্ষা! তার পরেই আনন্দে ভাসিয়ে দিতে বাংলা নববর্ষের আগমন ঘটবে। প্রশ্ন হলো এবারের বৈশাখে কী পরছেন? পাঞ্জাবী, টি-শার্ট নাকি ফতুয়া? একটু ভেবে নিন এই বৈশাখের কড়া রোদে আরাম করে ঘুরতে হলে কোনটির বেশি প্রয়োজন? আমি অবশ্য ফতুয়াকেই এগিয়ে রাখবো কারণ বৈশাখী উৎসবের কয়েকটা দিন ভালো ভাবে আরাম করে উদযাপনের জন্য বাঙ্গালিয়ানা ফতুয়ার বিকল্প নেই। আর তাই ফ্যাশন হাউজ গুলো বৈশাখী চাহিদার বিষয় মাথায় রেখে  তাদের সংগ্রহে রেখেছে বিভিন্ন রং ও নানা ধরনের ফতুয়া। পাশাপাশি কাটছাঁটেও নিয়ে এসছে এসেছে ভিন্নতা। এই বৈশাখে ছেলে মেয়ে  উভয়ই নিজেকে রাঙিয়ে নিতে বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের আরামদায়ক ফতুয়া।
(কনটেন্টটির ছবিগুলোতে ক্লিক করে পছন্দের ফতুয়া কিনে নিতে পারবেন)
 
ফতুয়া ফ্যাশন:
বাহারি কাজ, আরামদায়ক কাপড় আর দামও হাতের নাগালে থাকার কারণে ফ্যাশন সচেতন ছেলে মেয়েদের বৈশাখী পোশাকের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ফতুয়া। অনেকর মতে বৈশাখের এই সময়টাতে যে আবহাওয়া চলে তাতে সুতি কাপড়ের কোনো বিকল্প নেই। আর এই গরমে সুতির কাপড়ে তৈরি ফতুয়াই আরামদায়ক।
ফতুয়াটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
জিন্স বা গ্যাবারডিনের প্যান্টের সঙ্গে ফতুয়া এখন তরুণীদের পছন্দের ফ্যাশন। ইদানীং কামিজ ধাঁচের লম্বা ফতুয়ার পাশাপাশি দেখা যাচ্ছে নানা রকম ফিতা দিয়ে ডিজাইন করা ফতুয়াগুলো। দৈহিক গড়ন ও বয়স বুঝে ফতুয়া বেছে নিলে সেটা হবে আপনার স্টাইলিশ ফ্যাশনের অন্যতম অংশ। যাদের স্বাস্থ্য কিছুটা ভালো তাদের জন্য লম্বা ফতুয়া বেছে নেওয়া উচিত। তাছাড়া নিচের দিকে কিছুটা ছড়ানো এবং দু’পাশে কাটা আছে এমন ফতুয়া তাদের দৈহিক গঠনের সঙ্গে মানানসই। অন্যদিকে যারা কিছুটা শুকনা তাদের জন্য দু’পাশে কাটা ছাড়া এবং ছড়ানো ফতুয়া পরা ভালো।
 
যারা প্রিন্টেড লেগিংস বা পালাজ্জো পরেন তারা অবশ্যই এক রংয়ের ফতুয়া কেনায় পাধান্য দিবেন। যারা একটু মোটা তারা প্রিন্টের ফেব্রিকের ফতুয়া পরতে পারেন। এতে তাদের গড়ন কিছুটা স্বাভাবিক মনে হবে। অন্যদিকে যারা শুকনা তারা একরঙা বা কাজ করা ফতুয়া পরতে পারেন। বৈশাখে সুতি কাপড়ের উপর ব্লক, বাটিক, হাতের কাজ ইত্যাদির ফতুয়া বেশি জনপ্রিয়। পশ্চিমা  এই ফ্যাশনটিকে বৈশাখ উপলক্ষে দেশীয় আমেজে ফুটিয়ে তোলা  হয়েছে। বিশেষ করে পশ্চিমা স্টাইলের সঙ্গে এতে ব্যবহার করা হয়েছে দেশীয় রং, মোটিফ আর কাপড়। দুই ধারার ডিজাইনের এই মেলবন্ধন এবারের বৈশাখী ফ্যাশনে বেশ গ্রহণযোগ্যতা পাবে বলে আশা করা যাচ্ছে। 
ফুতয়াটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
কোথায় পাবেন:
রাজধানীসহ দেশের ছোট বড় প্রায় সব মার্কেটেই বিভিন্ন ধরনের ফতুয়া পাওয়া যায়। রাজধানীর আজিজ সুপার মার্কেট, বসুন্ধরা সিটি, নিউ মার্কেট, গাউছিয়া, বদরুদ্দোজা মার্কেটগুলোতে তুলনামূলক কম দামে পাওয়া যাচ্ছে এই পোশাক। তবে বৈশাখী ফতুয়ার বাহারি কালেকশন দেখতে হলে ঢুঁ মারতে পারেন দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল আজকের ডিলের ওয়েব সাইটে। ঘরে বসে বৈশাখী ফতুয়া কিনতে আজকের ডিল হতে পারে আপনার বিশ্বস্থ সঙ্গী। আজকের ডিল থেকে ফতুয়াসহ সব ধরনের বৈশাখী অনুসঙ্গ কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 
*ফতুয়া* *বৈশাখীফ্যাশন*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ঢাক ঢোল পিটিয়ে অসাম্প্রদায়িক বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ উদযাপনের আর খুব একটা দেরি নেই। বাঙালির সার্বজনীন এই উৎসবকে বর্ণিল করতে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাই একআত্না হয়ে যায়। বৃদ্ধ থেকে শিশুরা কেউ বাদ যায় না এই আনুষ্ঠানিকতায়। বৈশাখে শিশুদের সাজটাই সবার বেশি চোখে পড়ে। তাইতো দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলো এবারের বৈশাখে শিশুদের ফ্যাশনে পাধান্য দিয়েছে। সোনামনিদের কথা মাথায় রেখে বর্ণিল সাজে সেজে উঠেছে ফ্যাশন হাউজগুলো। চলুন তাহলে দেখে নেই  কেমন হবে শিশুদের বৈশাখী ফ্যাশন। আর কেমন করে সাজাবেন আপনার ছোট্ট সোনামনিটিকে। 
 
ছোটদের বৈশাখী ফ্যাশন:
এবছর সব বারের মতই বৈশাখের ফ্যাশনে আছে লাল সাদার প্রাধান্য। কিন্তু সেই সাথে অন্যান্য উজ্জ্বল রঙ যেমন নীল, হলুদ, কমলা, সবুজ, কালো ইত্যাদি রংও তাদের জায়গা করে নিয়েছে। লাল সাদার পটভূমিতে নানান রঙের খেলা এইবার পোশাকে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। বাজারে বড়দের শাড়ি, সালওয়ার কামিজ, পাঞ্জাবী ইত্যাদির পাশাপাশি পাওয়া যাচ্ছে ছোটদের জন্য হরেক রকমের পোশাক। ছোট ছেলেদের জন্য আছে ফতুয়া, শার্ট, টিশার্ট আর পাঞ্জাবী। পাঞ্জাবীর সাথে এবার ধুতির থেকে পায়জামার চলটাই বেশি। 
 
এই সময়ে গরমের কথা মাথায় রেখে অধিকাংশ পোশাক তৈরি করা হয়েছে আরামদায়ক পাতলা সুতি ও খাদি কাপড় ব্যবহার করে। পাঞ্জাবীতে সাদা ও লাল রঙ প্রাধান্য পাচ্ছে যদিও কিন্তু পাঞ্জাবীর হাতে, গলায় বা পাশে অন্যান্য রঙের ব্যাবহার দেখা যাচ্ছে। আরও পাওয়া যাচ্ছে সুতি বা খাদি কাপড়ের শার্ট ও হাফ প্যান্টের সেট। এসবে রঙের ব্যাবহার লক্ষণীয়। আর আছে ফতুয়া ও টিশার্ট। ফতুয়াতে অন্যান্য রঙের থেকে লাল সাদার প্রাধান্য দেখা গেলেও টিশার্টে উজ্জ্বল রঙের ব্যাবহারটাই বেশি চখে পড়ে। মেয়েদের জন্য আছে শাড়ি, সালওয়ার কামিজ, ফতুয়া, স্কারট আর টপ, ফ্রক ও কিছু পাশ্চাত্যের পোশাকের আদলে তৈরি পোশাক। ছেলেদের মতই এসব পোশাক তৈরি হয়েছে গরমকে মাথায় রেখে সুতি ও খাদি কাপড় দিয়ে। 
রঙের ক্ষেত্রেও ট্র্যাডিশনাল লাল সাদার পাশাপাশি উজ্জ্বল রঙের ব্যাবহার করা হয়েছে। শাড়িতে সাদার পরিবর্তে তৈরি লাল, কমলা, হলুদ রঙের কাপড়ের ব্যাবহার বেশি দেখা গেছে। পাশ্চাত্যের পোশাকগুলোতে বিভিন্ন রঙের পাশাপাশি প্রিন্টেড কাপড়ের ব্যাবহার লক্ষ্য করা গেছে। মেয়েদের সালওয়ার কামিজ ও ফতুয়ার ক্ষেত্রে লাল, সাদার পাশাপাশি গোলাপি ও কমলা রঙটাই প্রাধান্য পেয়েছে। এবার ছেলে মেয়ে উভয়ের পোশাকে এমব্রয়ডারি ওয়ার্ক, স্কিন প্রিন্ট, এপ্লিকের কাজ বেশি দেখা গেছে। সেই সাথে আছে ব্লকের কাজ। ছেলেমেয়ে উভয়ের পোশাকেই এমব্রয়ডারি ওয়ার্ক করা হয়েছে প্রধানত গলায় ও হাতাতে। মেয়েদের শাড়ির ক্ষেত্রে আর ছেলেদের পাঞ্জাবীর হাতে ব্লকের কাজ বেশি দেখা গেছে। মেয়েদের সালওয়ার কামিজ আর ফতুয়াতে ইয়কের কাজ এখন ফ্যাশনে আছে। সেই সাথে ছেলেদের শার্ট আর ফতুয়াতে এবং মেয়েদের টপস, ফতুয়া এবং কিছু শাড়িতেও স্কিন প্রিন্টের কাজ দেখা গেছে। 
 
ছেলে মেয়ে উভয়ের টি শার্টে ও টপসে স্কিন প্রিন্টটাই লক্ষণীয়। বৈশাখে আনন্দ করাটাই স্বাভাবিক। আর ছোটদের জন্য তা আরও বেশি আনন্দ নিয়ে আসে। তাই তাদের পোশাকে আনন্দের ছোঁয়া তো থাকবেই। কিন্তু ভুলে গেলে চলবে না যে গরমটাও অনেক বেশি থাকবে সেই সময়। তাই পোশাক নির্বাচন করার সময় ফ্যাশনের পাশাপাশি খেয়াল রাখতে হবে তাদের আরামের দিকটাও। পোশাকের রঙের পাশাপাশি সমান গুরুত্ব দিন কাপড় নির্বাচন করার প্রতিও। সব কিছু বিবেচনা করে কিনে ফেলুন বাচ্চার কাপড়টি। এবার আপনার বাচ্চার স্বাচ্ছন্দ্য ও নতুন ফ্যাশনের পোশাক দুইয়ে মিলিয়ে রাঙিয়ে নিন আপনাদের বৈশাখ উৎসব।
 
 
ঘরে বসেই কিনে নিন ছোটমনির বৈশাখী পোশাক:
ইচ্ছে থাকলেও কর্মব্যস্ততার কারনে অনেকেই সোনামনির প্রয়োজনীয় অনুসঙ্গটি কেনার জন্য তাকে নিয়ে বের হতে পারেন না। তবে বিচলিত হবার কোন কারণ নেই ডিজাটাল যুগে ডিজিটালি সব কেনাকাটা সেরা নিতে পারবেন ঘরে বসে। এজন্য আপনার সহযোগী হতে পারে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিল। আজকের ডিলে আপনি সব ধরনের বৈশাখী অনুসঙ্গ কিনতে পাবেন। বিশ্বাস না হলে  একটি বার ঘুরে আসুন এই লিংক থেকে। 

 

*বৈশাখীফ্যাশন* *ছোটদেরফ্যাশন* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আজকেরডিলে বৈশাখী প্রস্তুতিচলছে চৈত্র মাস। বাংলা নববর্ষকে স্বাগত জানাতে আর কয়েকদিন বাদেই আগমন ঘটবে রঙ,ঢঙ আর আনন্দের বৈশাখ মাস। বাঙালির ঐতিহ্য আর উৎসবের বৈশাখকে ঘিরে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে নানান জল্পনা-কল্পনা। কে কিভাবে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করবে তা নিয়ে চলছে ব্যপক প্রস্তুতি। পহেলা বৈশাখ নিয়ে শুধু এ দেশের মানুষই নয় বরং পুরো পৃথিবীর বাংলা ভাষাভাষী মানুষের আছে আলাদা এক উৎসব কেন্দ্রিক প্রস্তুতি। এবার তাই বৈশাখে আপনার সাজ-পোশাক আর মেকাপের প্রস্তুতি নিয়ে থাকছে কিছু টিপস।
 
পোশাক:
পহেলা বৈশাখ মানেই যে শুধু লাল সাদা পোশাক, সে ভাবনাটা এখন আর নেই। এখন ফ্যাশন সচেতনরা বেছে নিচ্ছেন লাল, সাদা, কমলা, নীল, হলুদ, বেগুনী ইত্যাদি রঙ। বয়স, পরিবেশ আর অভ্যাস মিলে বেছে নিন আপনার পোশাক। তবে যেহেতু উৎসবটি একেবারে দেশীয় সংস্কৃতির তাই মেয়েদের জন্য শাড়ি, আর ছেলেদের জন্য পাঞ্জাবীটাই বেশি মানানসই। বাচ্চাদের পরাতে পারেন পাতলা সুতির শাড়ি বা সালওয়ার-কামিজ।
পোশাকের রঙের প্রাধান্য যেটাই থাকুক না কেন, গলায় আর কানে পরতে পারেন নানা রঙের মাটির গয়না। এছাড়াও মানানসই যেকোনো গয়না আপনার বৈশাখি সাজে যোগ করতে পারে ভিন্ন মাত্রা।  
 
মেকআপ:
বৈশাখী সাজে মেকআপের জন্য বেছে নিতে পারেন হাল্কা বেইজের কিছু। তবে তা অবশ্যই স্বাভাবিক মানের হওয়া চাই। প্রচণ্ড গরম আর রোদের তাপে মেকআপ নষ্ট হবার ভয় থাকে। তাই বেছে নিতে পারেন অয়েল ফ্রি বা ওয়াটার প্রুফ মেকআপ। চোখে লাগাতে পারেন হাল্কা আই শ্যাডো আর মাশকারা। এ ক্ষেত্রে কাজল, আই লাইনার বা মাশকারা অবশ্যই ওয়াটার প্রুফ হতে হবে। যাদের কাজল ছড়িয়ে যায় তারা কাজল দেওয়ার পর তার ওপর হাল্কা একটু পাউডার দিয়ে নেবেন। তাতে আর কাজল ছড়ানোর ভয় থাকবে না। ঠোঁটে দিতে পারেন লাল কিংবা অন্য হালকা রঙের লিপস্টিক। কপালে ছোট বা বড়  লাল টিপই বেশি মানাবে।
 
চুলের সাজ:
বৈশাখের সাজে চুলে করতে পারেন খোঁপা বা বেণী। শাড়ি বা সালওয়ার কামিজ যাই পরুন না কেন, চুলে করতে পারেন খোঁপা বা বেণী। এ ক্ষেত্রে হাত খোঁপা করে চুলের দু পাশে বা পুরোটা জুড়ে গেঁথে নিতে পারেন দেশি ফুলের মালা। 
মাঝারি বা ছোট হলে চুল হলে এখনই দিয়ে ফেলুন মানানসই কোনো হেয়ার কাট। উৎসবের দিন সেটাকে আয়রন করে একপাশে রেখে দিতে পারেন বা ছোট্ট কোনো ব্যান্ড দিয়ে হাল্কা হাতে একটু অগোছালো করে আঁটকে নিতে পারেন। তবে তাতেও ফুল থাকা চাই-ই চাই!
 
অন্যান্য অনুষঙ্গ:
 
বাঙালী সংস্কৃতিতে চুড়ির উপস্থিতি অবশ্যই আছে। রেশমি চুড়ির পাশাপাশি অন্যান্য সাধারণ মানের কাঁচের চুড়ি জায়গা করে নিয়েছে, যাতে ব্যবহার হচ্ছে স্টোন, চুমকি, গ্লিটার ইত্যাদি। শাড়ি বা সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে পরতে পারেন হাতভর্তি এসব চুড়ি। বাঙালির প্রাণের উৎসবে চুড়ির মতো নিখাদ বাঙালি ফ্যাশন অনুষঙ্গ বৈশাখের সাজকে সত্যিই দেয় পূর্ণতা। 
হরেক রকম জুয়েলারী দেখতে এখানে ক্লিক করুন
 
 
ঘরে বসে বৈশাখী প্রস্তুতির সেরে নিন:
ইচ্ছে থাকলেও কর্মব্যস্ততার কারনে অনেকেই হয়তবা বৈশাখের প্রয়োজনীয় অনুসঙ্গ কিনতে বের হতে পারবেন না। তবে বিচলিত হবার কোন কারণ নেই ডিজাটাল যুগে ডিজিটালি সব কেনাকাটা সেরা নিতে পারবেন ঘরে বসে। এজন্য আপনার সহযোগী হতে পারে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিল। আজকের ডিলে আপনি সব ধরনের বৈশাখী অনুসঙ্গ কিনতে পাবেন। বিশ্বাস না হলে  একটি বার ঘুরে আসুন এই লিংক থেকে।
 
*বৈশাখীফ্যাশন* *বৈশাখীসাজ* *কেনাকাটা* *স্মার্টশপিং*

খুশি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

নারীকে সুন্দর ও আকর্ষণীয় করে তোলে গহনা। বিভিন্ন উৎসবে সবার মাঝে আকর্ষণীয় করে তুলতে নারীকে গহনার ওপর নির্ভরশীল হতেই হয়। আর তাই রুচি, পছন্দ ও উৎসব উপযোগী গহনার চাহিদা বেশি লক্ষ্য করা যায়। এবারের পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে গহনা, হ্যান্ডিক্রাফটস ও শোপিস বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠান কারুকার এনেছে বেশ কিছু নতুন ও আকর্ষণীয় ডিজাইনের গহনা।

বৈশাখী আবহে আসা পণ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে মালা সেট, দুল, চুড়ি, ব্যাগ, পায়েল, ফিংগার রিং, খোপার কাটা, হ্যান্ড ব্যাগ ও নানা ধরনের শোপিস। বাহারী সব গহনার মাঝে খুঁজে নেওয়ার সুযোগ রয়েছে নিজের পছন্দেরটি। এছাড়া এখানে পাওয়া যাচ্ছে চামড়ার ও কাপড়ের তৈরি মেয়েদের  হ্যান্ড পার্টস, সাইড ব্যাগ, ক্লাচ ব্যাগ, ছেলেদের মানি ব্যাগ। এছাড়া রয়েছে পিতল, তামা, অক্সিডাইজড, গ্লাস বিট্স, কাঠের  তৈরি গহনা সেট, কানের দুল, খোপার কাটা, হাতের চুড়ি ও আংটি ইত্যাদি। শোপিসের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ওয়াল হেঙ্গিন, আয়না, কাঠের টেবিল, কুরআন বক্স, জুয়েলারি বক্স, চাবির রিং এবং পিতলের তৈরি বিভিন্ন শো পিস।

নিজেদের তৈরি বিভিন্ন পণ্যের পাশাপাশি ভারত ও চায়নার নানাবিধ পণ্যও পাওয়া যায় কারুকারে। প্রতিটি পণ্যের দামও হাতের নাগালে। বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করতে পারেন, ১০৯, ২১১, বেইলী ফিয়েস্তা, ১/২ নিউ বেইলি রোড এবং পাইকারি ক্রয়ের জন্য ২০৮/২১৪/২১৫/২১৬, নিউ সুপার মার্কেট (দক্ষিন) বল্ক-এ (নীচ তলা) ঢাকা, ফোন: ০১৭১৫১৫১২২৫। 
Web: www.karukar.com
তথ্যসূত্রঃ ইন্টারনেট
*বৈশাখীসাজ* *গহনা* *বৈশাখীফ্যাশন*
ছবি

AjkerDeal.com: ফটো পোস্ট করেছে

৫/৫

বাঙালি নারীর সৌন্দর্য্য আর ব্যক্তিত্ব শাড়িতেই সবচেয়ে সুন্দরভাবে ফুটে ওঠে ।

বাঙালি নারীর সৌন্দর্য্য আর ব্যক্তিত্ব শাড়িতেই সবচেয়ে সুন্দরভাবে ফুটে ওঠে । বিস্তারিত দেখুন - http://www.ajkerdeal.com/Merchant/5198/all-style-bd ফোনে অর্ডার দিন - ০৯৬১২ ০০৭ ০০৭ এ

*শপিং* *বৈশাখীফ্যাশন* *স্মার্টশপিং* *অনলাইনশপিং*

আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

দেশজুড়ে বাঙ্গালির প্রাণের উৎসব ১লা বৈশাখকে বরণ করে নিতে চলছে ব্যপক প্রস্তুতি। বিশেষ করে বৈশাখে নিজেদের নতুন করে সাজাতে রাজধানী সহ সারা দেশের মার্কেট গুলোতে ভিড় জমাচ্ছেন উৎসুক ক্রেতারা। তাইতা ক্রেতাদের সন্তুষ্টি অর্জনে রাজধানী সহ সারা দেশের মার্কেট গুলোতে বিশেষ ছাড় দিচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। বড়-ছোট সব ধরনের মার্কেটগুলো থেকেই এ ধরনের ছাড় দেয়া হচ্ছে। বিশেষ করে পোশাক, গহনা, জুতা, আসবাবপত্র ও ইলেকট্রনিক্স পণ্যে এ ছাড়ের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

রাজধানীর অভিজাত শপিংমল যমুনা ফিউচার পার্ক, বসুন্ধরা সিটি, গাউছিয়া মার্কেট, আজিজ মার্কেট, এলিফ্যান্ট রোড, নিউ মার্কেট, বিভিন্ন বুটিক হাউসগুলোতে এসব ছাড় দেয়া হয়েছে।

ফ্যাশন হাউস আটিসটি বৈশাখী কেনাকাটা পাঁচ হাজার ৯৯৫ টাকার পণ্য কেনাকাটা করলে এক হাজার ৪২২ টাকা ফ্রি কুপন দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড প্রতিটি গহনায় ৩০ শতাংশ পর্যন্ত মূল্য ছাড় দিয়েছে।

পোশাক কেনাকাটা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে অন্যমেলা এবং কুনুডিনি হ্যান্ডিক্র্যাফট, নিপুণ, সাদাকালো পোশাক এবং জেনিস জুতোয় ১০ শতাংশ ছাড়া দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি জিরো টু দোকানে ১৫ শতাংশ ছাড় দেয়া হয়েছে।

*বৈশাখীসাজ* *বৈশাখী-কেনাকাটা* *বৈশাখীফ্যাশন* *বৈশাখীছাড়* *বৈশাখীউপহার*
ছবি

AjkerDeal.com: ফটো পোস্ট করেছে

৪/৫

আপনার সোনামণিকে রাঙিয়ে তুলুন বৈশাখ আনন্দে। আর ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে নিয়ে নিন সারা দেশে ডেলিভারী ।

আপনার সোনামণিকে রাঙিয়ে তুলুন বৈশাখ আনন্দে। আর ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে নিয়ে নিন সারা দেশে ডেলিভারী । বিস্তারিত দেখুন -http://www.ajkerdeal.com/Category/16/0/boishakhi-offers ফোনে অর্ডার দিন - ০৯৬১২ ০০৭ ০০৭ এ কিংবা আপনার নম্বর আমাদেরকে ইনবক্স করুন।

*শপিং* *বৈশাখীফ্যাশন* *স্মার্টশপিং* *অনলাইনশপিং*
ছবি

Salauddin: ফটো পোস্ট করেছে

৫/৫

a

s(ভালবাসি)

*বৈশাখীসাজ* *বৈশাখীফ্যাশন*
ছবি

AjkerDeal.com: ফটো পোস্ট করেছে

৪/৫

নানা ঢঙ্গের বৈশাখী শাড়িতে বরন করুন ১৪২২ বঙ্গাব্দ। মাত্র ১৯৯৯ টাকায় বাসায় বসে কিনুন নানা রঙের বৈশাখী শাড়ি ।

নানা ঢঙ্গের বৈশাখী শাড়িতে বরন করুন ১৪২২ বঙ্গাব্দ। মাত্র ১৯৯৯ টাকায় বাসায় বসে কিনুন নানা রঙের বৈশাখী শাড়ি । সারা বাংলাদেশে ক্যাশ অন ডেলিভারী দেখুন - http://www.ajkerdeal.com/Merchant/3706/silk-center-new

*শপিং* *বৈশাখীফ্যাশন* *অনলাইনশপিং* *স্মার্টশপিং*
ছবি

রাজকুমার: ফটো পোস্ট করেছে

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★