ব্যাগ

ব্যাগ নিয়ে কি ভাবছো?

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

সন্দ্বীপ স্পীড বোটে যাওয়ার সময় এক মেয়ে এক ছেলেকে বলছে ভাইয়া আমার ব্যাগটা একটু ধরবেন প্লিজ সেই থেকে শুরু ভদ্রলোক এখন রোজ দুবেলা করে বাজারের ব্যাগ নিয়ে বাসায় ফিরে !
*কাপল* *মেয়ে* *ছেলে* *আবেগ* *ভালোবাসা* *ব্যাগ*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ফ্যাশনে মেলে রুচিবোধের পরিচয়। ব্যাগ তেমনি একটি আভিজাত্যের অনুষঙ্গ। পোশাক আর সাজের সঙ্গে মানানসই ব্যাগ আনে ফ্যাশনে ভিন্নমাত্রা। তরুণ-তরুণীরা অনেক ফ্যাশন সচেতন। ফ্যাশনে নতুনত্ব আনতে রকমারি বাহারি ব্যাগ প্রয়োজন তো পূরণ করবেই সঙ্গে ফ্যাশনেও আনবে আধুনিকতা। কন্ট্রাস্ট রঙের ব্যাগের ব্যবহারই এখন ফ্যাশন। বাজারে পাওয়া যাচ্ছে নানান ডিজাইন আর আকৃতির ব্যাগ। ইচ্ছেমতো রং বা আকারের ব্যাগ ব্যবহারের চল এখন। পোশাকটা সাদামাটা হলেও নজর কাড়বে হয়তো ব্যাগটাই। রঙের বাহার যেমন আছে, তেমনি নানা রকম প্রিন্ট বা নকশারও কমতি নেই।  চলছে বড় ব্যাগ বা ছোট ক্লাচই ট্রেন্ডি এ সময়ে—এমন কথা বলা যাবে না। বড়, ছোট বা মাঝারি সব ধরনের ব্যাগের চাহিদা রয়েছে ক্রেতাদের কাছে। 

শুধু ফিটফাট পোশাক আর স্টাইলিশ জুতাতেই এখন আর ‘ফ্যাশনেবল’ শব্দটা আটকে নেই। সুন্দর একটা ব্যাগও কিন্তু আপনার পুরো লুকে নিয়ে আসতে পারে চমক। আপনার পোশাক-আশাক, সাজে যোগ করতে পারে বাড়তি সৌন্দর্য। ব্যাগের নকশায় বা আকারে থাকছে নানা বৈচিত্র্য। কোনো ব্যাগ হচ্ছে ত্রিভুজ আকারের বা গোলাকার। কোনোটিতে আছে চৌকোনার নানা ধরন। টোটি, ন্যাপস্যাক, মেসেঞ্জার নামে পরিচিত এই ব্যাগগুলোতে থাকছে উজ্জ্বল রঙের ব্যবহার। ছোট ক্লাচ ব্যাগগুলোতেও পাথর আর পুঁতির ব্যবহারে আনা হচ্ছে আভিজাত্যের ছোঁয়া।

হাল ফ্যাশনে প্রতিনিয়তই চলছে পরিবর্তন। বাজারে এখন একটু ঘুরলেই চোখে পড়বে বাহারি নকশার সব ব্যাগ। দোকানগুলোতে বিভিন্ন নকশা ও রঙের আধিক্য দেখলেই বোঝা যায় বর্তমান ফ্যাশনে ব্যাগের বেশ জনপ্রিয়তা। বিশেষ করে মেয়েদের ফ্যাশনে পোশাকের সাথে ম্যাচিং করে মানানসই বাহারি রংয়ের বিচিত্র নকশার ছোট বড় ব্যাগ অন্যতম অনুষঙ্গ হিসেবে পরিণত হয়েছে। স্টাইলিশ ব্যাগ সাথে না থকলে ফ্যাশনটাই যেন মাটি হয়ে যায়। তাইতো ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী দোকান ও শপিংমলে বাহারি ডিজাইনের সব ব্যাগের কালেকশনের রেখেছে। দোকানগুলোতে বিভিন্ন নকশা এবং রংয়ের আধিক্য দেখলেই বোঝা যায় বর্তমান ফ্যাশনে ব্যাগের বেশ জনপ্রিয়তা রয়েছে। আজকের আয়োজন লেডিস ব্যাগ নিয়ে। বর্তমান ফ্যাশনে কোন ব্যাগ গুলো চলছে চলুন জেনে নেই।

আজকের ডিলে  একটু খুঁজে ফরমায়েশ দিতে পারেন ব্যাগের। 

 

*ব্যাগ* *ব্যাগফ্যাশন* *মেয়েদেরফ্যাশন* *শপিং* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ওয়াটারপ্রুফ ব্যাগ কালেকশনবর্ষাকাল মানেই কখনো রোদ কখনো বৃষ্টি। বৃষ্টিমুখর আবহাওয়া সহসা মিলিয়ে যাবে বলে মনে হচ্ছে না। বৃষ্টিভেজা দিনে যতই ঘরে বসে খিচুড়ি খেতে ইচ্ছে হোক না কেন, অফিস আর ক্লাসকে অবজ্ঞা করার উপায় নেই। নাই বাইরে যেতেই হবে, আর সেজন্যেই নিতে হবে বাড়তি কিছু সতর্কতা। মুষলধারে বৃষ্টি পড়ছে, অথচ আপনাকে যেতেই হবে বাইরে? একএষত্রে আপনার গুরুত্বপূর্ণ জিনিস গুলো সুরক্ষার অন্যতম অনুসঙ্গ হতে পারে ওয়াটার প্রুফ ব্যাগ।

ওয়াটার প্রুফ ব্যাগ:

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুন
বিভিন্ন কাজে ব্যাগ আমরা প্রতিনিয়তই ব্যবহার করি। বিষেয় করে বাদলা দিনে একটা ওয়াটার প্রুফ ব্যাগ ব্যাবহার করলে কিন্তু মন্দ হয় না। এই বর্ষায় ছাত্র-ছাত্রীরা নিরাপদে খাতা ও বই রাখার জন্য ওয়াটার প্রুফ ব্যাগ নিয়ে নিতে পারেন।

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুনতাছাড়াও বৃষ্টির দিনে ফোন, হেডফোন, পেনড্রাইভসহ আপনার দরকারি জিনিসগুলো ওয়াটার প্রুফ ব্যাগে রেখে সহজেই বৃষ্টিতে থেকে সুরক্ষিত রাখতে পারেন।

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুনআধুনিকতার সাথে স্টাইলিশ ও মানানসই এই ব্যাগগুলো আপনার ফ্যাশনের সাথে সহজেই মানিয়ে যাবে। যারা আরামদায়ক স্টাইলিশ ব্যাগ ব্যবহার করতে আগ্রহী তারা এধরনের ব্যাগ সংগ্রহে রাখতে পারেন। বাজারে বিভিন্ন দামের ওয়াটারপ্রুফ ব্যগ রয়েছে সাধ্যমত আপনি আপনার পছন্দেরটি বেছে নিন। ঘরে বসেই ওয়াটার প্রুফ ব্যাগের লেটেস্ট কালেকশন কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*ওয়াটারপ্রুফব্যাগ* *ব্যাগ* *ব্যাগপ্যাক* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

এখন গ্রীষ্মকাল। তাই কখনো কড়া রোদ আবার কখনোবা বৃষ্টি। আকাশে সূর্যের হাসি দেখে ছাতার তোয়াক্কা না করেই বেরিয়েছেন ঘরের বাইরে, হঠাত্ এক পসলা বৃষ্টি ভিজিয়ে দিতে পারে আপনাকে। আর এই বৃষ্টিতে ভিজলে ঠাণ্ডা কিংবা জ্বর বাঁধানোর পাশাপাশি নষ্ট পারে প্রিয় পোশাকটিও, সাথে থাকা ব্যাগটি। আর কাদা মাখামাখি হয়ে বিপত্তির মুখোমুখি পড়তে হয় অনেককেই। পোশাকটি বাসায় ফিরে দ্রুত শুকনো গেলেও ব্যাগটিকে শুকানো কিন্তু কষ্টসাধ্য ব্যাপার হয়ে দাড়ায়, আসলে একটু মোটা তন্তু বা মোটা বুনটের কাপড় বলে শুকাতে দেরি হয় । তারমধ্যে আবার ব্যাগে থাকা দরকারী জিনিসপত্র, বইখাতা ভিজে একাকার, সব মিলে যাচ্ছে তাই অবস্থ্যা। তাই বলে কি বৃষ্টির ভয়ে ঘরে বসে থাকতে হবে? না, তা নয়। বরং বৃষ্টিকে মানিয়েই আপনাকে প্রয়োজনে বাইরে বের হতে হবে। 

কিনতে ক্লিক করুন 

বৃষ্টির দিনগুলোতে দামি চামড়া কিংবা পুঁথি, স্টোনখচিত ব্যাগ ব্যবহার না করাই উত্তম। বরং বৃষ্টি উপযোগী ব্যাগ ব্যবহার করাই বুদ্ধিমানের কাজ। বাজারে রেক্সিন, সিনথেটিক ও কাপড়ের ব্যাগ পাওয়া যায়। এ ব্যাগগুলো পাবেন নিউমার্কেট, ইস্টার্ন প্লাজা, মৌচাক মার্কেট, মেট্রো শপিংমল, রাপা প্লাজা প্রভৃতি মার্কেটে, এছাড়া অনলাইন শপিং মল আজকের ডিলেও রয়েছে ব্যাগের দারুন সব কালেকশন। মৌচাক মার্কেটের রহিম জেনারেল স্টোরে পানিরোধক নানান মোড়ক পাওয়া যায়। এসব কিনলে বইখাতা, কাগজ, মোবাইল, ফোন ও ক্যালকুলেটর পানি থেকে বাঁচানো যায়। 

কিনতে ক্লিক করুন

বৃষ্টির সময় রাস্তায় বা চলতি পথে বৃষ্টির পানি বা কাদাপানির ঝক্কিতে যেন আপনার মূল্যবান ব্যাগটির বারোটা বেজে না যায় সে জন্য ব্যাগের সুরক্ষায় ব্যাবহার করুন রেইন ও ডাস্ট কভার।এছাড়া ছাতার কাপড়ে তৈরি বলে এগুলোতে ভালো ফল পাওয়া যাবে। সেই সাথে রেকসিন, প্যারাস্যুট কাপড়ের ব্যাগ ব্যবহার করা যেতে পারে। ভাজ করে রেখে দিবেন ব্যাগের ভেতরে, বৃষ্টির সময় প্রয়োজন পড়লেই ব্যাস বের করে ফেলবেন। বর্ষাকালে যেহেতু বৃষ্টির ঠিক ঠিকানা নেই, তাই যখনই বের হোন না কেন, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আলাদা প্লাস্টিকের ব্যাগে রেখে দিন। ক্যালকুলেটর কিংবা মোবাইল ফোন রাখার জন্য পানিরোধক মোড়ক আগেই কিনে রাখুন। 

 কিনতে ক্লিক করুন

রেইন কভার কোথায় পাবেন: ২ টা অপশন রয়েছে এই ব্যাগ সংগ্রহে রাখবার জন্য 

নিজেই বানিয়ে নিন : প্রথম কাজ ওয়াটার প্রুফ কাপড় কেনা । সোজা চলে যান সদরঘাট টার্মিনাল । টার্মিনালের উল্টা দিকে দেখবেন এক তোলা হকারস মার্কেট । ভিতরে বিশাল , বাইরে থেকে দেখলে মনে হয় টং দোকান । ভিতরে সব কিছুই পাবেন , গজ কাপড় যেখানে বিক্রি করে সেই অংশে চলে যান । ওয়াটার প্রুফ কাপড় খোঁজেন । সব দোকানেই পাবেন । মানের উপর নির্ভর করে প্রতি গজ ৭০ - ১৫০ টাকা আছে ।  সাথে অবশ্যই আপনার ব্যাগ / ব্যাগপ্যাকটি নিয়ে যাবেন । কাপড়ের মাপের জন্য। তবে যত বড়ই ব্যাগ হোক ১ গজের বেশি লাগবে না । এই কাপড় গুলোর বহর বেশ বড় । ইসলামপুরেও পাবেন কাপড় ।সবচেয়ে ভালো এলাকার দর্জির কাছে যান । অনেক খানে দেখবেন রাস্তার পাশে দর্জি বসে। কিভাবে বানাতে চান, তার একটা স্যাম্পল ছবি দেখিয়ে দিন, দর্জিরা খানিকক্ষণের মধ্যেই বানিয়ে দেবে। তবে বানিয়ে নেয়ার সুবিধা হলো এতে করে আপনি আপনার মন পছন্দ অনুযায়ী শেপে এবং ডিজাইনে বানিয়ে নিতে পারবেন। তবে এর জন্য একটু বেশি টাকা গুনতে হবে। সব মিলে ৪০০ / ৫০০ টাকা তো লাগবেই। 

যাদের সময় সল্পতা রয়েছে তারা রেডিমেট কিনে নিতে পারেন আজকের ডিল থেকে l ওদের কাছে ২০০ থেকে ৪৫০ টাকার মধ্যেই পেয়ে যাবেন। তিনটি ছবি দেয়া হলো, সেগুলো ক্লিক করে বিস্তারিত জেনে নিন এবং কিনতে চাইলে অর্ডার করুন। 

 

*রেইনকভার* *বর্ষাকাল* *ব্যাগ*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

 
জ্ঞান অন্বেষণ আর কর্মজীবনের ব্যস্ততা থেকে নিজেকে একটু রিফ্রেশ করতে ভ্রমনের কোন বিকল্প নেই। ঈদ মানে আনন্দ আর খুশি। আর এই আনন্দ উপভোগ করার সবচেয়ে উত্তম পন্থা হচ্ছে পরিবারের সবাইকে নিয়ে হাসি-খুশিতে সময় কাটানো। আপনার এই আনন্দে বাড়তি মাত্রা যোগ করতে পারে ভ্রমন। ঈদের ছুটিতে স্বপরিবারে বেড়াতে যাওয়ার মজাই অন্যরকম। ঈদের দু'একদিন পরে পরিবারের সবাইকে নিয়ে দূরে কোথাও ভ্রমন/বেড়াতে যাওয়া যেতে পারে। আমরা অনেকেই আছি যারা দেশ বিদেশে ঘুরে বেড়াতে ভালবাসি তাদের ভ্রমন সঙ্গী হতে পারে আকর্ষনীয় ট্রাভেল ব্যাগ। লম্বা ছুটি কিংবা ছোট-খাট ট্যুর প্ল্যানেও ট্রাভেল ব্যাগ অন্যতম অনুষঙ্গ। যারা পরিবার-পরিজন নিয়ে প্রকৃতির কাছে, নির্জনে, দূরে কোথাও ঘুরতে যেতে চান তাদের জন্য ট্রাভেল ব্যাগ মাস্ট। মনে রাখবেন, যেখানেই যাই না কেন, ভ্রমণের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অনুসঙ্গটি হলো ব্যাগ।
 
(কনটেন্টটির ছবিগুলোতে ক্লিক করে ট্রাভেল ব্যাগ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন)
 
ট্রাভেল ব্যাগ কেন প্রয়োজন এবং কেমন ব্যাগ কিনবেন?
ভ্রমনে একসাথে অনেক গুলো জিনিস নিয়ে যেতে হয় যার জন্য ট্রাভেল ব্যাগ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ক্যামেরা,জামা- কাপড়, জুতা, কসমেটিকসসহ আরও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সবকিছু  গুছিয়ে নেবার জন্যই একটি ভালো মানের ট্রাভেল ব্যাগ দরকার। ব্যাগের ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখবেন:-
•    পরিবারের সদস্য সংখ্যা অনুযায়ী ব্যাগের আকার নির্বাচন করুন
•    কোথায় কয়দিনের জন্য যাচ্ছেন সে অনুযায়ী কাপড় নিন। অহেতুক অপ্রয়োজনীয় পেশাক নিয়ে ব্যাগ বড় করবেন না
•    জিনিসপত্র যতই হোক না কেন একটা বড় ব্যাগের ভেতরই সব রাখার চেষ্টা করুন
•    ছোট ছোট অনেক ব্যাগ করবেন না, অনেকগুলো ব্যাগ থাকলে কোনোটা হারিয়ে যেতে পারে তাই বড় দেখে ব্যাগ কিনুন। 
•    পোলো, পাইলট, লিভাইস, মারিনাল ওরনেট, প্রেসিডেন্ট, লোটাস, হাইসান, ডেনিয়েল, নারদেভো, ফাইলসসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ব্যাগ রয়েছে
•    ব্যাগ কেনার আগে চেইন, লকার, ট্রলিটি ঠিক আছে কিনা দেখে নিন
•    ব্যাগ পরিবহনের ক্ষেত্রে বেশি ভারি ব্যাগ হলে ট্রলির সাহায্যে পরিবহন করুন
•    আগেই দেখে নিন চেইন বা লকার, ট্রলি ব্যাগের ট্রেলি ঠিক আছে কিনা, নতুবা ব্যাগ নিয়ে রাস্তায় বিপাকে পড়ে যেতে পারেন
•    দীর্ঘদিন ট্রাভেল ব্যাগ ফেলে রাখলে চেইনগুলোতে জং ধরে তা ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে যেতে পারে।
•    এরও যত্নের প্রয়োজন। ট্রাভেল ব্যাগটি মাঝে মাঝে বের করে পরিষ্কার করুন এবং চেইনে তেল দিয়ে রাখুন।
 
কোথায় পাবেন, দাম কেমন?
ট্রাভেল ব্যাগ কিনতে যেতে পারেন নিউমার্কেট, গুলিস্থান, বায়তুল মোকারম মসজিদ মার্কেট, এখানে ট্রাভেল ব্যাগের অনেক বড় বাজার। ট্রলি ছাড়া ট্রাভেল ব্যাগগুলো আপনি পাবেন ৭০০ থেকে ৫০০০ টাকার মধ্যে।  আর ট্রলিসহ ট্রাভেল ব্যাগগুলো পাবেন সবচেয়ে ছোট সাইজটি ১০০০ এবং ব্যাগের মান ও আকৃতির ওপর ভিত্তি করে দরদাম ওঠানামা করে ১৪০০ থেকে ৮০০০ টাকা পর্যন্ত। এধরনের আকর্ষণীয় অনেক ব্যাগ অনলাইন শপিংমল আজকের ডিল ডটকমেও পেয়ে যাবেন। যারা ঘরে বসে ব্যাগ কিনতে চান তারা এক্ষনি এই লিংকে ক্লিক করুন
 
সব ধরনের ব্যাগের সমাহার দেখতে এখানে ক্লিক করুন
*ট্রাভেলব্যাগ* *ট্রাভেল* *ভ্রমনটিপস* *ব্যাগ* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বই উৎসব তো শেষ হলো কিন্তু নতুন বইগুলো নতুন ব্যাগে করে না নিয়ে স্কুলে যেতে পারলে কি ভালো লাগে ? তাই ছোট্ট সোনামণিদের জন্য এলো কিউট কিউট সব স্কুল ব্যাগ। 
নতুন বছরে নতুন ক্লাসে আপনার ছোট্ট সোনামণিদের জন্য দারুণ উপহার হতে পারে  এই স্কুলব্যাগগুলো। স্মার্ট ডিজাইন আর ডিজনীর জনপ্রিয় সব কার্টুন ক্যারেক্টার নিয়ে তৈরি এসব ব্যাগগুলো আপনার সোনামণির নজর তো কাড়বেই সেই সাথে নতুন বই নিয়ে স্কুলে যেতেও উতলা থাকবে সে। 

চলুন দেখে নিই আপনার ছোট্ট বাবুটির জন্য এমন দারুণ কিছু কিডস স্কুলব্যাগ কালেকশন > । 


























*ব্যাগ* *স্কুলব্যাগ* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

হাল ফ্যাশনে প্রতিনিয়তই চলছে পরিবর্তন। বিশেষ করে মেয়েদের ফ্যাশনে পোশাকের সাথে ম্যাচিং করে মানানসই বাহারি রংয়ের বিচিত্র নকশার ছোট বড় ব্যাগ অন্যতম অনুষঙ্গ হিসেবে পরিণত হয়েছে। স্টাইলিশ ব্যাগ সাথে না থকলে ফ্যাশনটাই যেন মাটি হয়ে যায়।  তাইতো ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী দোকান ও শপিংমলে বাহারি ডিজাইনের সব ব্যাগের কালেকশনের রেখেছে। দোকানগুলোতে বিভিন্ন নকশা এবং রংয়ের আধিক্য দেখলেই বোঝা যায় বর্তমান ফ্যাশনে ব্যাগের বেশ জনপ্রিয়তা রয়েছে। আজকের আয়োজন লেডিস ব্যাগ নিয়ে। বর্তমান ফ্যাশনে কোন ব্যাগ গুলো চলছে চলুন জেনে নেই।

স্টাইলিশ লেডিজ ব্যাগ
আর্টিফিশিয়াল লেদার এ তৈরী স্টাইলিশ ও ট্রেন্ডি ব্যাগ গুলো বর্তমানে বেশি চলছে। এই ব্যাগ গুলো খুব একটা লম্বা না। এটি আদুনিকতার সাথে মানানসই। পোশাকের রংয়ের সঙ্গে মানানোর পাশাপাশি এখন কন্ট্রাস্ট স্টাইলেও ব্যাগ নিতে পছন্দ করেন অনেকে। সেক্ষেত্রে জুতো, ঘড়ি বা অন্যকোনো অনুষঙ্গের সঙ্গে মানিয়ে ব্যাগ বাছাই করা যেতে পারে। লেডিস এই ব্যাগ গুলোর অনেক গুলো কালেকশন রয়েছে রয়ের নানান রংয়ের কম্বিনেশন।

ট্রেন্ডি লেডিজ ব্যাগ
শর্ট সাইজের ট্রেন্ডি লেডিস ব্যাগ গুলো এখন বেশি চলছে। আর্টিফিশিয়াল লেদার এ তৈরী এই ব্যাগগুলো ফ্যাশনের অন্যতম অনুসঙ্গী। শাড়ি আর বিভিন্ন পার্টিওয়্যারের সঙ্গে এই ধরনের লেডিজ ব্যাগ বেশ মানানসই।। নিজের পছন্দের ড্রেসের সঙ্গে ম্যাচিং করে নেওয়া যেতে পারে ব্যাগটি। আরামদায়ক স্ট্র্যাপ রয়েছে ব্যাগটিতে। তাছাড়াও চাহিদা অনুযায়ী বিভিন্ন উইডথ এর ব্যাগ শপিংমল গুলোতে পেয়ে যাবেন। 

লেডিজ লেদার ভ্যানিটি ব্যাগ
বাইরে বের হতে মেয়েদের সঙ্গে থাকতে হয় অতি প্রয়োজনীয় কিছু জিনিস যার মধ্যে ভ্যানিটি ব্যাগ অন্যতম। মেয়েদের ফ্যাশনে বেশ বড়সড় জায়গায়ই দখল করে নিয়েছে নানা রকম ভ্যানিটি ব্যাগ। রেপ্লিক, কাপুড় এবং চামড়ার বিভিন্ন ধরনের লেডিজ ভ্যঅনিটি ব্যাগ পাওয়া যায়। তবে ফ্যাশনে চাড়াটাকেই সবাই পাধান্য দেয়। ছবির এই ব্যাগটি ১০০% লেদার এলিগ্যান্ট। বাহারি ডিজাইনের এই ব্যাগে টাকা-পয়সা ও প্রয়োজনীয় জিনিস-পত্র রাখার জন্য রয়েছে কয়েকটি চেম্বার। বহনের সুবিধার জন্য রয়েছে হ্যান্ডেল।

লেদার ব্যাগ
সবসময়ই চামড়ার তৈরি জিনিসের কদর কিছুটা বেশি। ব্যাগের ক্ষেত্রেও তাই। এক রঙা হালকা নকশার চামড়ার ব্যাগের দাম তুলনামূলক বেশি। তবে ভালো চামড়ার ব্যাগ অনেকদিন টেকসই থাকে। তাছাড়া চামড়ার ব্যাগ ভিন্ন ধরনের ব্যক্তিত্ব ও রুচিশীলতা প্রকাশ করে। পার্টি, অফিস বা বিশ্ববিদ্যালয়ে সব জায়গায় চামড়ার ব্যাগ দারুণ মানিয়ে যায়। বাজারে কালো, বাদামি, লাল, নেভি-ব্লুসহ বিভিন্ন রংয়ের ব্যাগ পাওয়া যাচ্ছে। ছবির এই ব্যাগটি বেশ ফ্যাশনেবল ও স্টাইলিশ। ব্যাগটি আপনি এখনি কিনে নিতে পারেন।

লেডিজ প্রিন্টেড লেদার হ্যান্ডব্যাগ
চমকপ্রদ সব ছবি সম্বলিত প্রিন্টেড লেদার ব্যাগ বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। ব্যাগগুলো বেশ স্টাইলিশ ও ফ্যাশনেবল। যারা স্টাইলিশ ফ্যাশনে অভ্যস্থ তারা ব্যাগটি সংগ্রহে রাখতে পারেন। ছবির এই ব্যাগটিতে রয়েছে: 
-ল্যাপটপের জন্য আলাদা চেম্বার
-দুইটি পানির বোতল রাখার পকেট দুপাশে
-ম্যাটেরিয়াল-পিউ লেদার
-স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় বা যেকোন পার্টিতে ব্যাবহারোপযোগী

সবধরনের লেডিস ব্যাগ কিনতে নিচের লিংকটিতে ক্লিক করুন
*ব্যাগ* *ব্যাগফ্যাশন* *মেয়েদেরফ্যাশন* *শপিং* *স্মার্টশপিং*

মোজাহিদুল ইসলাম মিফতাহ: ব্যাগ কাটা মহিলা চোর থেকে সাবধান! ভিডিও সহ *ঈদ* *মার্কেট* *ব্যাগ* https://www.youtube.com/watch?v=ppKslVB0Ih4

*মার্কেট* *ব্যাগ*

শামীম রেজা: একটি বেশব্লগ লিখেছে

স্কুল মানেই বই, খাতা, কত কী সঙ্গে নিতে হয়৷ এসব বহন করার জন্য বাজারে রয়েছে কত সুন্দর সুন্দর ব্যাগ৷ ছোট্ট শিশুটির ওজনের সাথে ব্যাগের সাইজ, ওজন ঠিক আছে কিনা তা খুবই জরুরি৷ ব্যাগ বেশি বড় হলে, তাতে একগাদা বই খাতাসহ অন্যান্য জিনিস ঢুকিয়ে ভারি করে ফেললে, তা ছোট শিশুর ঘাড়, পিঠ এবং মেরুদণ্ডে অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি করে৷ এতে শিশুর হাড়ের গঠনে ক্ষতি করতে পারে৷

১৯৯৫ সালে জার্মানিতে পিঠের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে এজিআর নামের একটি সংস্থা তৈরি হয়৷ তাদের পরামর্শ, স্কুল ব্যাগ কেনার সময় সবচেয়ে জরুরি হচ্ছে খালি ব্যাগের ওজন যেন ১.৩ কেজির বেশি না হয়৷ অর্থাৎ ব্যাগ যেন শিশুর কাছে লোড বা ‘বোঝা’ মনে না হয়৷ বোঝা ব্যাপারটা কিছুটা অনেক সময় নির্ভর করে শিশুর শরীরের ওজনের উপরও৷ স্বাস্থ্যবান শিশুর জন্য ওজন ততটা খারাপ না হলেও দুর্বল শিশুর জন্য তা অবশ্যই ক্ষতিকর৷


স্কুল ব্যাগের দু’পাশের বেল্টগুলো যেন ৪ সেন্টিমিটার চওড়া এবং নন-স্লিপ হয়, তাছাড়া বেল্টের প্যাড সামান্য মোটা ও ছোট-বড় করার ভালো সুবিধা থাকলে শিশুদের মেরুদণ্ডে চাপ কম পড়ে এবং শ্বাসকষ্টও কম হয়৷

শুধু সুন্দর এবং উপযুক্ত ব্যাগ হলেই যথেষ্ট নয়৷ লক্ষ্য রাখতে হবে, ব্যাগের ভেতরে যেন প্রয়োজনের বেশি কোনো জিনিসই না ঢোকানো হয়৷ অর্থাৎ প্রতিদিনই নতুন করে প্যাকিং করতে হবে৷ শুধু সেদিনের প্রয়োজনীয় বই খাতা ও দরকারি জিনিসই থাকবে পিঠে নেওয়ার ব্যাগের ভেতর – তার বেশি কিছুই নয়! বাড়তি ওজন মানেই শিশুর মেরুদণ্ড, ঘাড়, পিঠের জন্য বাড়তি চাপ, এতে ক্ষতি হয়ে যেতে পারে শিশুর স্বাস্থ্যের৷

ছোট শিশুদের স্কুল ব্যাগের হ্যান্ডেলটিও হতে হবে আরামদায়ক, যাতে ছোট ছোট শিশুরা সহজে হ্যান্ডেল করতে পারে৷

প্রাইমারী স্কুল পর্যন্ত বাচ্চারা সাধারণ স্কুল ব্যাগ নিতে তেমন আপত্তি না করলেও একটু বড় হওয়ার সাথে সাথে ওদের বন্ধুদের মতো নিজেদের পছন্দের ব্যাগই কিনতে চায়৷ এক্ষেত্রে এজিআর সংস্থার পরামর্শ – অসুবিধা নেই, আজকাল বাজারে স্বাস্থ্যসম্মত বা পিঠের জন্য নমনীয় অনেক ব্যাকপ্যাকই পাওয়া যায়৷
*শিশুরযত্ন* *স্কুলব্যাগ* *ব্যাগ*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ভালো মানের অফিসিয়াল লেদারের ব্যাগ কোথায় কিনতে পাবো ?

উত্তর দাও (৪ টি উত্তর আছে )

*ব্যাগ* *অফিসেরসাজ* *হালেরফ্যাশন* *অফিসঅ্যাটিকেট* *লাইফস্টাইল* *শপিং*
শপিং

যারিন তাসনিম: কেনাকাটা সংক্রান্ত একটি তথ্য দিচ্ছে

৳ 400.00
http://www.sheraponno.com/party-hand-bag

লিঙ্কটি সম্পর্কে তোমার কোন মতামত থাকলে তা এখানে লিখো

*ঈদেরকেনাকাটা* *ঈদফ্যাশন* *ব্যাগ* *হালেরফ্যাশন* *ফ্যাশন*
১,৫১৮বার দেখা হয়েছে

শপিং

AjkerDeal.com: কেনাকাটা সংক্রান্ত একটি তথ্য দিচ্ছে

৭২০ টাকা
http://www.ajkerdeal.com/CategorywiseDeals.aspx?CI=7&SCI=139

হাতে বানানো মেয়েদের ক্রিস্টাল ব্যাগ এখন আজকের ডিলে পাওয়া যাচ্ছে

*ব্যাগ* *ফ্যাশন*
২৯৬বার দেখা হয়েছে

শপিং

AjkerDeal.com: কেনাকাটা সংক্রান্ত একটি তথ্য দিচ্ছে

৫৫০ টাকা থেকে শুরু
http://www.ajkerdeal.com/CategorywiseDeals.aspx?CI=7&SCI=139

হাতে তৈরি পাটের ব্যাগ এখন আজকেরডিলে। স্টক সীমিত।

*ব্যাগ* *পাট* *ফ্যাশন*
৩৪৫বার দেখা হয়েছে

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★