ভর্তি

ভর্তি নিয়ে কি ভাবছো?

ওম: নতুন জানতে পারলাম | এটা কেমন প্রশ্ন : ঘুম থেকে উঠে দেখলে তুমি গর্ভবতী, কী করবে? বিস্তারিত আরো - http://www.nirapadnews.com/2015/11/27/news-id:109596/

*গর্ভবতী* *প্রশ্ন* *ভর্তি* *কলেজ* *উত্তরযোগ্য*
জোকস

হাফিজ উল্লাহ: একটি জোকস পোস্ট করেছে

[ফুলকি-যাভাগ] প্রথম বন্ধু : দোস্ত, আমার গার্লফ্রেন্ড তো মেডিক্যালে ভর্তি হইছে। দ্বিতীয় বন্ধু : কী বলিস! ও না মানবিক বিভাগে পড়ত? . . প্রথম বন্ধু : দূর! গাড়ি থেকে পড়ে গিয়ে পা ভাঙছে, তাই চিকিৎসার জন্য মেডিক্যালে ভর্তি হইছে!
*মেডিক্যাল* *ভর্তি* *কমেডিয়ানহাফিজ*

আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

সদ্য এসএসসি পাশকৃত শিক্ষার্থীরা একাদশ শ্রেণিতে কোন কলেজে ভর্তি হবে তা নির্ধারণ করবে শিক্ষা বোর্ড। অনলাইনে শিক্ষার্থীর আবেদনের পছন্দক্রম থেকে একটি কলেজ নির্ধারণ করা হবে; সেখানে শিক্ষার্থীকে ভর্তি হতে হবে। আর ভর্তির পুরো কাজটি হবে অনলাইনে। ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণির ভর্তি সামনে রেখে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং আন্তশিক্ষা বোর্ডগুলো। তবে এবারও ভর্তির মূল যোগ্যতা হবে আগের মতোই এসএসসির ফল।

আগে যেভাবে আবেদন করা হতো

বিগত বছরগুলোতে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য টেলিটকের খুদে বার্তায় আবেদন করা হতো। একজন শিক্ষার্থী তার পছন্দ অনুযায়ী; প্রতিটি কলেজের জন্য আলাদাভাবে আবেদন করতে হতো। তবে প্রতিটি আবেদনের জন্যই টেলিটকের মাধ্যমে ১২০ টাকা দিতে হতো।

নতুন নিয়মে যেভাবে আবেদন করতে হবে

আন্তশিক্ষা বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, নতুন ভর্তি প্রক্রিয়ার কাজটি করবে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। নতুন নিয়ম অনুযায়ী একজন ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থী বোর্ডের নির্ধারণ করা ওয়েবসাইটে অনলাইনে আবেদন করবে। আবেদনে পছন্দক্রম অনুযায়ী সর্বোচ্চ পাঁচটি কলেজের নাম দেওয়া যাবে। এ জন্য ১৫০ টাকা দিতে হবে। এরপর কলেজগুলোর আসন ও যোগ্যতা অনুযায়ী তারা (বোর্ড) আবেদনকারীদের এসএসসির ফল যাচাই করে পছন্দক্রম অনুযায়ী ভর্তির জন্য একটি কলেজ নির্ধারণ করে দেবে। তবে শিক্ষার্থীকে একটি নির্দিষ্ট সময় দিয়ে পছন্দক্রম পরিবর্তনেরও সুযোগ রাখা হচ্ছে। এরপর সংশ্লিষ্ট কলেজে গিয়ে শুধু টাকা জমা দিলেই একজন শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পারবে

আবেদনের সময়সীমা

২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণির ভর্তিতে আবেদন গ্রহণ শুরু হবে ৬ জুন। চলবে ১৮ জুন পর্যন্ত। আর ফল প্রকাশ হবে ২৫ জুন। আন্তশিক্ষা বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী "http://www.xiclassadmission.gov.bd" ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। পাশাপাশি আগের মতো টেলিটকেও খুদেবার্তা পাঠিয়ে আবেদনের সুযোগ রাখা হয়েছে। তবে এ জন্য প্রতি আবেদনের (প্রতি কলেজের জন্য এক আবেদন) জন্য ১২০ টাকা দিতে হবে। আর অনলাইনে এক আবেদনেই পাঁচটি কলেজের নাম পছন্দক্রম অনুযায়ী দেওয়া যাবে, ফি ১৫০ টাকা। কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান-সবার জন্যই একই নিয়মে আবেদন করতে হবে।

পুরনো নিয়মও চালু থাকবে

তবে বিকল্প উপায়ও রাখা হয়েছে কারণ বিষয়টি যেহেতু নতুন, তাই আগের মতো টেলিটকের মাধ্যমে খুদে বার্তা পাঠিয়েও আবেদনের সুযোগ রাখা হয়েছে। সে ক্ষেত্রে আবেদনকারীদের প্রতি কলেজের জন্য ১২০ টাকা করে দিতে হবে। কিন্তু এ ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের বেশি খরচ হবে। অর্থাৎ শিক্ষার্থী যদি খুদে বার্তায় পাঁচটি কলেজে আবেদন করে, তাহলে তাকে ৬০০ টাকা দিতে হবে। আর অনলাইনে করলে ১৫০ টাকা দিয়েই সেটা সম্ভব। আগামী বছর থেকে খুদে বার্তার মাধ্যমে আবেদনের ব্যবস্থা থাকবে না, তখন সবকিছু হবে অনলাইনে। দূরদূরান্ত ও মফস্বল এলাকার কথা বিবেচনা করে এবারও বিকল্প হিসেবে খুদে বার্তার মাধ্যমে আবেদনের সুযোগ রাখা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে প্রথম আবেদনটিই প্রথম পছন্দক্রম, দ্বিতীয় আবেদনটি দ্বিতীয় পছন্দক্রম—এভাবে বাকিগুলোরও হিসাব ধরা হবে।

একজন শিক্ষার্থী আবেদন করা পাঁচটি কলেজের কোনোটিতেই ভর্তির যোগ্য হলো না, সে ক্ষেত্রে অন্য কলেজে ভর্তি হবে।  কারণ, অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে, একজন শিক্ষার্থী একসঙ্গে বেশি কলেজে আবেদন করে না। এ ছাড়া আসনও পর্যাপ্ত রয়েছে। যেমন ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীন একাদশ শ্রেণিতে মোট আসন আছে সাড়ে চার লাখ। বিপরীতে পরীক্ষা দিয়েছে প্রায় সাড়ে তিন লাখ। ফলে সমস্যা হবে না।
সূত্রঃ ইনফোপিডিয়া
*ভর্তি* *শিক্ষা* *পড়াশুনা*
খবর

অনি: একটি খবর জানাচ্ছে

এসএসসি-এইচএসসির ফলাফলের ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির নির্দেশনা
http://www.prothom-alo.com/education/article/412447/%E0%A6%8F%E0%A6%B8%E0%A6%8F%E0%A6%B8%E0%A6%B8%E0%A6%BF-%E0%A6%8F%E0%A6%87%E0%A6%9A%E0%A6%8F%E0%A6%B8%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%B0-%E0%A6%AB%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%AB%E0%A6%B2%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%AD%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%B6%E0%A7%8D%E0%A6%AC%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A6%AF%E0%A6%BC%E0%A7%87
স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের বিদ্যমান ভর্তি পরীক্ষার পরিবর্তে এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফলের ভিত্তিতে ভর্তি করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রতি নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। গতকাল বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এ নিদের্শনা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পাঠানো... ...বিস্তারিত
*ভর্তি* *ফলাফল*
২৫১ বার দেখা হয়েছে

মিকাত : একটি বেশব্লগ লিখেছে

 নভেম্বর ডিসেম্বর আসলেই অনেক অভিভাবকের মাথা গরম হয়ে যায় কিভাবে তার শিশু সন্তানকে একটি ভালো স্কুলে ভর্তি করবে। এজন্য অনেকে লক্ষ লক্ষ টাকা ডোনেশান (ঘুষ) দেয়, দুধের শিশুকে লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করে কোচিং করায়। যে-শিশুর এখনও খেলাধুলার বয়সই হয়নি, তাকে নিয়ে হাজার হাজার শিশুর সাথে প্রতিযোগিতার যুদ্ধে নামিয়ে দেওয়া কতটা অমানবিক, আমরা কেউ তা ভাবি না। সত্যিকার অর্থে এটি একটি মারাত্মক অসুস্থ প্রতিযোগিতা। অভিভাবকরা ভালো স্কুল বলতে বুঝেন, যে স্কুলের গড়পড়তা রেজাল্ট ভালো অর্থাৎ এ-প্লাস পাওয়াদের সংখ্যা বেশী। অথচ ভালো স্কুল-কলেজের প্রকৃত রহস্য নিয়ে আমরা কেউ চিন্তা করে দেখি না। ভালো স্কুল-কলেজগুলি বেছে বেছে ভালো ভালো ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করায় বলেই তাদের রেজাল্ট ভালো হয়। কিন্তু সাধারণ মানুষ মনে করে তারা ভালো পড়ায় বলেই হয়তো তাদের ছাত্র-ছাত্রীরা ভালো রেজাল্ট করে। এটা একটা সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। ভালো স্কুল-কলেজগুলি যদি বেছে বেছে খারাপ ছাত্র-ছাত্রীদের ভর্তি করে ভালো রেজাল্ট দেখাতে পারত, তবেই তাদেরকে সত্যিকারের ভালো স্কুল-কলেজ বলা যুক্তিসঙ্গত হতো। তথাকথিত ভালো স্কুল-কলেজের আরেকটি দোষ হলো এরা রোজ এক বস্তা করে হোমওয়ার্ক দিয়ে দেয়, যা সামাল দিতে অভিভাবকদের বাড়িতে টিউটর রাখতে, কয়েক জায়গায় কোচিং করাসহ আরো নানারকম অগণিত হয়রানীর শিকার হতে হয়। বিশেষত একেবারে ছোট ক্লাশে বা কিন্টার গার্টেনের শিশুদের পড়ার মাত্রাতিরিক্ত চাপে জ্ঞানার্জনের প্রতি বাচ্চাদের আগ্রহ সৃষ্টি না হয়ে বরং তাদের মনে বিতৃষ্ণা-ঘৃণার জন্ম হয়। বিষয়টি আমাদের আগামী প্রজন্মকে সুনাগরিক করে গড়ে তোলার পথে একটি অলঙ্ঘনীয় বাধা হিসেবে কাজ করে। আমার পরিচিত এক ব্যক্তি যার দুই সন্তান একটি ভালো স্কুলে চান্স পাওয়ায় খুশিতে আটখানা। তার মতে, ভালো স্কুলে যেহেতু মন্ত্রী, এম.পি., শিল্পপতি, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, সচিব, জেনারেল, ব্যারিষ্টার প্রভৃতি হাই-ফাই ফ্যামিলির বাচ্চারা পড়াশোনা করে, তাই তাদের সাথে বুন্ধত্ব হওয়ার মাধ্যমে আমার বাচ্চাও এক লাফে জাতে উঠে যাবে। ইহার চাইতে নীচু মানসিকতা আর কি হতে পারে ? বাস্তবে দেখা যায়, যে বাচ্চা গাড়িতে করে রোজ স্কুলে আসে সে কিন্তু গাড়িতে করে আসা বাচ্চাদের সাথেই বন্ধুত্ব করে; হেঁটে আসা বা রিক্সায় করে স্কুলে আসা বাচ্চাদের সাথে সে মেলামেশাই করবে না। তাছাড়া পবিত্র কোরআন-হাদীসে মুসলমানদেরকে সবসময় ক্ষমতাশালী এবং বিত্তশালীদের কাছ থেকে দূরে থাকতে বলা হয়েছে। কেননা পৃথিবীতে যত অপকর্ম হয়ে থাকে, তার নিরানব্বই ভাগই করে থাকে এই দুই শ্রেণীর লোকেরা। সিনেমাতে যতই গরীব-ধনীর মধ্যে প্রেম-ভালবাসা ঘটে যাক না কেন, বাস্তবে তা একেবারেই অকল্পনীয়। পারস্যের কবি শেখ সাদী বলেছিলেন যে, বাঘের সাথে বন্ধুত্বের কারণে শেয়ালের যেমন বিনা শ্রমে খাবার জুটে যায়, তেমনি আবার খেয়ালী বাঘের থাপ্পড়ে শেয়ালকে অকালে প্রাণও হারাতে হয়। অাফসোসের ব্যাপার হলো অধিকাংশ অভিভাবকেরই একমাত্র চিন্তা থাকে কিভাবে তার সন্তানকে ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার-জজ-ব্যারিষ্টার বানাবে। অন্যদিকে আমার সন্তান সত্যিকারের মানুষের মতো মানুষ হবে কিভাবে, এই চিন্তা খুব কম অভিভাবকই করে থাকেন। এটা একটা অতীব দুঃখজনক হুজুগে পরিণত হয়েছে। আমাদেরকে মনে রাখতে হবে যে, আমার সন্তান যদি আল্লাহ্‌কে চিনতে পারে এবং আল্লাহ্‌র নিদের্শিত সৎ-সুন্দর-পবিত্র জীবনযাপনে আগ্রহী হয়; তবে হোক সে রিক্সাচালক কিংবা চানাচুর বিক্রেতা, আল্লাহ্‌র কাছে তার মযার্র্দা কোটি কোটি ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার-জজ-ব্যারিষ্টারের চাইতে অনেক বেশী। ইমাম আবু হানিফা (রহঃ) বাদশার অত্যাচারে শাহাদাত বরণ করেছেন কিন্তু তারপরও প্রধান বিচারপতির পদ গ্রহন করতে রাজী হন নাই। কেননা মানুষ মাত্রই ভুল-ত্রুটি, লোভ-লালসা, অলসতা, দ্বায়িত্বহীনতা, পক্ষপাতিত্ব ইত্যাদি দোষ হতে মুক্ত নন। সেক্ষেত্রে কোন বিচারপ্রাথী যদি ন্যায়বিচার হতে বঞ্চিত হয়, তবে সেই বিচারককে অন্তত কাল জাহান্নামের আগুনে জ্বলতে হবে। একই কারণে একজন ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ারের পক্ষেও একই পরিণতি বরণ করা বিচিত্র কিছু নয়। আমার মতে, পড়াশুনা নিজের কাছে। পড়াশুনা করতে হবে নিজেকেই, স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসার ভূমিকা এখানে খুবই নগণ্য।
*ভর্তি* *শিশুরযত্ন* *সন্তানেরভবিষ্যত* *অভিবাবক* *ক্যারিয়ার* *অভিবাবকেরদায়িত্ব*
খবর

খলিলুর রহমান ফয়সাল: একটি খবর জানাচ্ছে

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারে স্বাগতম
https://www.facebook.com/notes/faysal-khalilur-rahman/%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%B2%E0%A7%87%E0%A6%9F-%E0%A6%95%E0%A7%83%E0%A6%B7%E0%A6%BF-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%B6%E0%A7%8D%E0%A6%AC%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%9F-%E0%A6%AA%E0%A6%B0%E0%A6%BF%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%97%E0%A6%A4%E0%A6%AE/10152542662723026
অত্যন্ত আনন্দের সাথে জানাচ্ছি যে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে ৬টি অনুষদে স্নাতক (সম্মান) কোর্সে লেভেল-১ সেমিস্টার-১ এর ভর্তি পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়েছে। আগামী ১৯ ডিসেম্বর ২০১৪ রোজ শুক্রবার ভর্তিপরীক্ষা ...বিস্তারিত
*সিলেট* *কৃষি* *বিশ্ববিদ্যালয়* *ভর্তি* *ভর্তিপরীক্ষা*
২৭০ বার দেখা হয়েছে
ছবি

মুহাম্মাদ আবদুল গণি: ফটো পোস্ট করেছে

বাংলাদেশ উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড এপ্লিকেশন কোর্সে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

http://www.bou.edu.bd/home.php

*ভর্তি* *শিক্ষা* *তথ্যপ্রযুক্তি* *ডিপ্লোমা* *ক্যারিয়ার*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★