মধু

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

সব ধরনের শপিং আইটেমের পাশাপাশি ফুড বেভারেজের তরতাজা কালেকশন পাওয়া যায় দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন মার্কেট প্লেস আজকেরডিলে। মূলত খাঁটি ও টাটকা খাদ্যসামগ্রী তুলে দেবার জন্যই আজকেরডিলের এই আয়োজন। আজকেরডিলের ফুড বেভারেজ মধ্যে বেবী ফুড, মিষ্টি, দই, মধু, কেক, চকোলেট ও ক্যান্ডি, জ্যাম, জেলি ও আচার, ড্রাই ফুড/ স্ন্যাক্স, ড্রিংকস অ্যান্ড বেভারেজ, তেল, ঘি ও মসলা, মাছ ও শুটকীসহ বিভিন্ন রকমের ফলমূল পাওয়া যায়। চলুন আজকেরডিলের কিছু ফুড ও বেভারেজ আইটেম দেখে নেই।

Nescafé কফিঃ

আমাদের দেশে মূলত Nescafé কফি বেশী প্রচলিত। Nescafé হল ইন্সট্যান্ট কফির একটি ব্যান্ড যার প্রস্তুতকারক সুইজারল্যান্ড ভিত্তিক Nestlé. বিশ্বব্যাপী ইন্সট্যান্ট কফি হিসেবে Nescafé বেশ জনপ্রিয়। আজকেরডিল থেকে ঘরে বসেই আপনি বিশ্বখ্যাত এই কফি কিনে নিতে পারবেন।

রেড বুল এনার্জি ড্রিংকসঃ


রেড বুল একটি শক্তিবর্ধক এনার্জি ড্রিংকস হিসেবে পরিচিত। তবে অনেকের ধারণা এটি প্রচুর পরিমান অ্যালকোহল রয়েছে। কার্বনেটেড পানীয়ের মতো এতে প্রচুর চিনি বা অন্যান্য মিষ্টি, এবং অ্যামিনো অ্যাসিড থাকতে পারে আবার নাও পারে। তবে বিশ্বে বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছে পানীয়টি। আপনি চাইলে আজকেরডিলের ওয়েবসাইটে গিয়ে অর্ডার করে কিনে নিতে পারেন।

সাফারি চকলেটঃ


চকলেট ভালো লাগে না এমন মানুষ কম ই পাওয়া যাবে। তবে আমার চকলেট এ বিশেষ দুর্বলতা আছে. আমার সব থেকে প্রিয় হলো সাফারি চকলেট। চকলেটটি খেতে খুব সুস্বাদু। ভারতের প্রস্তুতকৃত চকলেটটি অর্ডার করতে ছবির উপরে ক্লিক করতে পারেন।


অর্গানিক লাল বিন্নি চাউলঃ

লাল বিন্নি চালটি উৎপাদন হয় পাহাড়ি এলাকাতে, জুম চাষের মাধ্যমে, এটি সিলেট ও রাঙ্গামাটি অঞ্চলে হয়ে থাকে। চালটির বিশেষত্ব হল সুন্দর লাল রং এবং সুঘ্রাণ, রান্নার পর অনেক বেশি আঠালো হয়, মূলত এ চাল দিয়ে পায়েশ ও নরম সবজি খিচুড়ি রান্না করা হয়। আজকেরডিল থেকে ১ কেজির প্যাকেট কিনতে পারবেন মাত্র ১৩০ টাকায়।

ইলিশ মাছঃ


বাংলাদেশর জাতীয় মাছ। সকলের কাছে প্রিয় এবং সুস্বাদু এই মাছটিও আজকেরডিলে পাওয়া যায়। আপনি ঢাকার মধ্যে থাকলে অর্ডার করে ইলিশ মাছ কিনতে পারবেন।

খাঁটি মধুঃ


মধু প্রকৃতির এক শ্রেষ্ঠ নেয়ামত। হাজারো গুণে ভরা মধুতে রয়েছে গুকোজ ও ফ্রুকটোজ যা শরীরে শক্তি যোগায়। এটি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। মধু পুরুষ ও মহিলাদের জটিল রোগ ছাড়াও হাজারো রোগের মহাষৌধ হিসেবে কাজ করে। কিন্তু জটিল সব রোগ সারাতে চাই শতভাগ খাঁটি মধু। কোথায় পাবেন শতভাগ খাঁটি মধুর নিশ্চয়তা? খাঁটি মধু কিনতে ঢুঁ মারুন আজকেরডিলের ওয়েবসাটে।

উপরের পণ্যগুলো ছাড়াও বেবী ফুড, মিষ্টি, দই, কেক, ক্যান্ডি, জ্যাম, জেলি ও আচার, ড্রাই ফুড/ স্ন্যাক্স, ড্রিংকস অ্যান্ড বেভারেজ, তেল, ঘি, মসলা ও শুটকীসহ বিভিন্ন রকমের ফলমূল কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*ফুডএন্ডবেভারেজ* *স্পন্সরডকনটেন্ট* *আজকেরডিল* *স্মার্টশপিং* *মধু*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 পায়ের ত্বকের আলসারের চিকিৎসায় কি মধু ব্যবহার করা যাবে?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

*পায়েরত্বক* *আলসার* *মধু* *স্বাস্থ্যতথ্য* *হেলথটিপস*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

মধু নিয়ে মধুর কথা অনেক। তার চেয়েও বেশি প্রচলিত মধুর মধুরতর গুণের কথা। নিয়মিত মধু খেলে সৌন্দর্য বাড়ে এ কথা অনেকেই জানেন, মানেনও। তাই সকাল সকাল মধু মুখে দিলে শরীর, মনের জন্য ভালো বৈ মন্দ হবে না। জেনে রাখুন কেন সকালবেলা উঠেই মধুর শরণাপন্ন হবেন।

  • মধুতে বিদ্যমান শর্করা সরাসরি রক্তে প্রবেশ করে এবং তাৎক্ষণিকভাবে কাজ করে। তাই এটি রেডি এনার্জি হিসেবে কাজ করে। আধা গ্লাস হালকা গরম লেবুপানিতে এক চা-চামচ মধু ভোরবেলায় খালি পেটে পান করলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।
  • সকালে মধুমিশ্রিত পানি দিয়ে কুলি করলে মাড়ির প্রদাহ কমে। এ ছাড়া দাঁতের ক্ষয় রোধ হয়। হজমের গোলমালেও মধুর উপকারিতা আছে। এটি পাকস্থলীতে অ্যাসিডের ক্ষরণ কমায় বলে অরুচি, বমিভাব, বুক জ্বালা দূর হয়। মধু বিপাকজনিত তাপ উৎপাদন বাড়ায় বলে শীতকালে দেহের উষ্ণতা বাড়ায়।
  • রক্তস্বল্পতায় মধু বেশ কার্যকর ওষুধ। কেননা, এতে কপার, ম্যাঙ্গানিজ ও আয়রন রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে। এটা প্রমাণিত যে দেহের ক্ষত নিরাময়ে মধু চমৎকার কাজ করে।
  • তবে ওজন ওজন কমানোর বেলায় মধুর সরাসরি কোনো ভূমিকা নেই। তবে লেবু ও গরম পানির সাথে মধু মিশিয়ে খেলে পেটের মেদ কমে। মধু এবং লেবুতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো রাখতে সাহায্য করে। তাছাড়া অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল উপাদানে ভরপুর মধু ও লেবু ওজন কমাতেও বেশ কার্যকরী।
  • লেবু-মধু পানীয় বানানোর প্রণালী: এক গ্লাস হালকা বা কুসুম গরম পানি, অর্ধেক/২ চা চামচ লেবুর রস, এক চা চামচ মধু। গরম পানিতে লেবু ও মধু মিশিয়ে পান করুন লেবু-মধু পানীয়। আপনি চাইলে এর সাথে সবুজ চা (Green Tea) মেশাতে পারেন।
  • লেবু-মধু পানীয় লক্ষ্য রাখবেন: আগে পানি হালকা গরম করে, তারপর তাতে লেবু ও মধু মেশাবেন। মধু কখনই গরম করতে যাবেন না।

 

*মধু* *লেবু* *ওজন* *স্বাস্থ্যতথ্য* *লাইফস্টাইলটিপস* *হেলদিফুড*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

পৃথিবীতে যত খাবার রয়েছে সব খাবারের পুষ্টিগুণ ও উপাদেয়তার দিকটি বিবেচনা করে যদি আমরা একটি তালিকা করি, তবে সে তালিকার প্রথম সারিতেই থাকবে 'মধু'র নাম। মধু একটি খুব উপকারী খাদ্য, পথ্য ও ঔষধ। জন্মের পর নানা দাদীরা মখে মধু দেয় নাই এমন লোক খুঁজে পাওয়া কঠিন। প্রাচীনকাল থেকে মানুষ প্রাকৃতিক খাদ্য হিসেবে,মিষ্টি হিসেবে, চিকিৎসা ও সৌন্দর্যচর্চাসহ নানাভাবে মধুর ব্যবহার করে আসছে। হাজার বছর পূর্বেও মধু ছিল সমান জনপ্রিয়। ইতিহাস পর্যালোচনা করে দেখা যায়, অনেক সভ্যতায় মধু ‘ঔষধ’ হিসেবেও ব্যবহৃত হত। এমনকি প্রতিটি পবিত্র ধর্মগ্রন্থেও মধু সেবনের উপকারিতা এবং কার্যকারিতার কথা উল্লেখ রয়েছে। 

চলুন জেনে নেই মধুর ৩০ টি  যুগান্তকারী উপকারিতা সমন্ধে: 

• হৃদরোগ প্রতিরোধ করে। রক্তনালী প্রসারণের মাধ্যমে রক্ত সঞ্চালনে সহায়তা করে এবং হৃদপেশীর কার্যক্রম বৃদ্ধি করে।

• মধুর রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ক্ষমতা, যা দেহকে নানা ঘাট প্রতিঘাতের হাত থেকে রক্ষা করে।

•   অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ক্যান্সার প্রতিরোধ করে ও কোষকে ফ্রি রেডিকেলের ক্ষতি থেকে রক্ষা করে।

• মধুর ক্যালোরি রক্তের হিমোগ্লোবিনের পরিমান বাড়ায়, ফলে রক্ত বর্ধক হয়।

• শরীরের বিভিন্ন ধর ের নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে এবং উষ্ণতা বৃদ্ধি করে।

• ভিটামিন-বি কমপ্লেক্স এবং ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ মধু স্নায়ু ও মস্তিষ্কের কোলা সুদৃঢ় করে।

• মধুতে স্টার্চ ডাইজেস্টি এঞ্জাইম্স এবং মিনারেলস থাকায় চুল ও ত্বক ঠিক রাখতে অনন্য ভূমিকা পালন করে থাকে।

• গলা ব্যাথা, কাশি-হাঁপানি এবং ঠান্ডা জনিত রোগে বিশেষ উপকার করে।

• গ্লাইকোজেনের লেভেল সুনিয়ন্ত্রিত করে।

• আলসার ও গ্যাস্ট্রিক রজার জন্য উপকারী।

• বার্ধক্য অনেক দেরিতে আসে।

• মধু কোষ্ঠ্য কাঠিন্য দূর করে।

• ক্ষুধা, হজমশক্তি ও রুচি বৃদ্ধি করে।

• শিশুদের দৈহিক গড়ন ও ওজন বৃদ্ধি করে।

• রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

• দৃষ্টিশক্তি ও স্মরণশক্তি বৃদ্ধি করে।

• দুর্বল শিশুদের মুখের ভিতর পচনশীল ঘা'র জন্য খুবই উপকারী।

• রক্ত পরিশোধন করে।

• শরীর ও ফুসফুসকে শক্তিশালী করে।

• জিহবার জড়তা দূর করে।

• মুখের দুর্গন্ধ দূর করে।

• বাতের ব্যথা উপশম করে।

• মাথা ব্যথা দূর করে।

• দাঁত পরিষ্কার ও মজবুত করে ।

• মধু তাপ ও শক্তির ভালো উৎস। মধু দেহে তাপ ও শক্তি জুগিয়ে শরীরকে সুস্থ রাখে।


• মধু রক্তের হিমোগ্লোবিন গঠনে সহায়তা করে বলে এটি রক্তশূন্যতায় বেশ ফলদায়ক।কারণ এতে থাকে খুব বেশি পরিমাণে কপার, লৌহ ও ম্যাঙ্গানিজ।

• মধু অনিদ্রার ভালো ওষুধ। রাতে শোয়ার আগে এক গ্লাস পানির সঙ্গে দুই চা চামচ মধু মিশিয়ে খেলে এটি গভীর ঘুম ও সম্মোহনের কাজ করে।

• শীতের ঠান্ডায় এটি দেহকে গরম রাখে। এক অথবা দুই চা চামচ মধু এক কাপ ফুটানো পানির সঙ্গে খেলে শরীর ঝরঝরে ও তাজা থাকে।

• ডায়রিয়া হলে এক লিটার পানিতে ৫০ মিলিলিটার মধু মিশিয়ে খেলে দেহে পানিশূন্যতা রোধ করা যায়।

• মেয়েদের রূপচর্চার ক্ষেত্রে মাস্ক হিসেবে মধুর ব্যবহার বেশ জনপ্রিয়। মুখের ত্বকের মসৃণতা বৃদ্ধির জন্যও মধু ব্যবহৃত হয়।

 

*মধু* *স্বাস্থ্যতথ্য* *হেলদিফুড* *লাইফস্টাইলটিপস*
খবর

মোঃ হাবিবুর রহমান (হাবীব): একটি খবর জানাচ্ছে

মধু খাওয়ার উপকারিতা !
http://nicehabib.wapka.mobi/forum2_theme_112305476.xhtml?tema=8
. ...বিস্তারিত
*মধু* *খাওয়ার* *উপকারিতা*
৫৮৪ বার দেখা হয়েছে

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

লিচু বাগানগুলোতে ধীরে ধীরে ছেয়ে যাচ্ছে মুকুলে মুকুলে। আর ওই মুকুলের মৌ মৌ গন্ধে ঝাঁকে ঝাঁকে ছুটে আসছে মৌমাছি। লিচুর ফলন আসতে এখন অনেক সময় বাকি থাকলেও মুকুলে ভরা লিচুর গাছে আগত মৌমাছির মধু সংগ্রহ করতে ইতোমধ্যে বিভিন্ন জেলার অসংখ্য মৌচাষী বিভিন্ন উপজেলার লিচু বাগানগুলোতে অবস্থান নিয়েছেন। 
 
চলতি মৌসুমে লিচু বাগানের প্রতিটি গাছে এখন মুকূলে ছেয়ে গেছে। আর ওই মুকুলের মৌ মৌ গন্ধে ঝাঁকে ঝাঁকে ছুটে আসছে মৌমাছি। যে লিচু গাছে যতবেশি মৌমাছির আগমন হয় সে গাছের মুকুলে পরাগায়ন ভাল হয় সেই গাছে ফলনও বেশি হয়। 
এতে ওই গাছে বা বাগানে লিচুর যেমন বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা থাকে তেমনি মৌ চাষীরাও বেশি মধু সংগ্রহ করে বেশি লাভবান হয়। 
তাই অধিকাংশ লিচু বাগানে কাঠের তৈরি শত শত বিশেষ বাক্সের মাধ্যমে মৌ চাষ করে সারা বছরের জন্য মধু সংগ্রহ করে নিতে এখন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে মৌচাষীরা। 
 
তাদের সংগৃহিত সেসব মধু পাইকাররা কিনে নিয়ে যান দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে। 
পুষ্টিগুণে অতুলনীয় এই মধু চাইলে কিনতে পারেন দেশের নামকরা সব শপিংমল আর সুপারস্টোরগুলিতে। তবে এত ঝুট-ঝামেলায় না গিয়ে যারা বাসায় বসে লিচু ফুলের নির্যাস থেকে মৌমাছিদের সংগৃহিত এই মধু কিনতে চান তারা নিশ্চিন্তে অর্ডার করতে পারেন দেশের সবথেকে বিশ্বস্ত অনলাইন শপিং সাইট আজকেরডিল ডট কম থেকে। 
 
খাঁটি বোম্বাই লিচু ফুলের মধু যা ঈশ্বরদী থেকে সরাসরি সংগ্রহ করা হয়েছে; তাই ভেজালের কোন সুযোগই নেই ২৫০ গ্রামের প্যাক।  প্রতি বোতল খাঁটি  এই বোম্বাই লিচু ফুলের মধু কিনতে পাবেন মাত্র
২১০ টাকায়। কিনতে চাইলে দেখানো ছবিতে ক্লিক করে অর্ডার করতে পারেন। 
*লিচুফুল* *মধু* *স্মার্টশপিং*

ইসরাত: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 খাঁটি মধু চেনা যায় কিভাবে ?

উত্তর দাও (৩ টি উত্তর আছে )

.
*মধু* *খাঁটিমধু* *মধুচেনারউপায়*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

মধু প্রকৃতির এক শ্রেষ্ঠ নেয়ামত। হাজারো গুণে ভরা মধুতে রয়েছে গুকোজ ও ফ্রুকটোজ যা শরীরে শক্তি যোগায়। এটি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। মধু পুরুষ ও মহিলাদের জটিল রোগ ছাড়াও হাজারো রোগের মহাষৌধ হিসেবে কাজ করে। কিন্তু  জটিল সব রোগ সারাতে চাই শতভাগ খাঁটি মধু। কোথায় পাবেন শতভাগ খাঁটি মধুর নিশ্চয়তা? চলুন জেনে রাখি। 

সরিষা ফুলের খাঁটি মধু
প্রকৃতিতে শুধুমাত্র এই সময়টাতেই বেশিরভাগ সরিষা ফুলের মধু পাওয়া যায়। কারণ  জানুয়ারি মাসে সরিষা ক্ষেত ফুলে ফুলে ভরে যায় এবং সেই ফুল থেকে মৌমাছি মধু সংগ্রহ করে। সরিষা ফুলের খাঁটি মধু প্রতিদিন সকালে নিয়মিত খেলে আপনার শরীর ফুলের মত চাঙ্গা হয়ে উঠবে। এটি আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করবে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করবে। এলার্জি দূর করবে। গ্যাস ও ব্যাথা কমিয়ে দিবে। দুর্বলতা কাটিয়ে দেহে তাৎক্ষণিক এনার্জি সরবরাহ করবে। যারা সরিয়া ফুলের খাঁটি মধু কিনতে চান তারা নিচের লিংক থেকে ঘুরে আসুন।

কালোজিরা ফুলের খাঁটি মধু
কালোজিরাকে বলা হয় সর্বরোগের মহাষৌধ। কালোজিরা চাষের এখনই সময়। কৃষকরা জানুয়ারি ফ্রেবৃয়ারী মাসেই কালোজিরা চাষ করে। বিশেষ করে ফ্রেবুয়ারি মাসে কালোজিরার ফুল ফোটে। এ সময় মৌমাছিরা ফুলে ফুলে ঘুরে মধু সংগ্রহ করে। অনেকেই আবার বিভিন্ন পদ্ধতিতে দীর্ঘদিন এই মধু সংরক্ষণ করে। এই মধু হৃদপিণ্ডকে সুস্থ্য রাখে। শারীরিক সব দূর্বলতা কাটিয়ে দেয়। যৌন শক্তি বৃদ্ধি করে। গ্যাস্টিক সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। সর্ব প্রকার রোগ প্রতিরোধে আপনি নিয়মিত কালোজিরর মধু খেতে পারেন। 


কবিরাজ -এর খাঁটি মধু
সুন্দরবনের মৌয়ালিদের কাছ থেকে সংগ্রহ করা খাঁটি মধু রোগ প্রতিরোধে খুবই কার্যকর। অতি প্রাচীন কাল থেকেই কবিরাজরা ঔষধ হিসেবে মধু ব্যবহার করে আসছে। সব সময় পাওয়া যায় বলে কবিরাজদের কাছে সুন্দর বনের মধু বেশি ব্যবহৃত হয়। নারী পুরুষের জটিল সব রোগ সারাতে এই মধু বেশ কার্যকর। যারা খাঁটি মধুর সন্ধান করছিলেন তারা এখান থেকে মধু কিনে নিতে পারেন।  এই মধূ আপনার শরীরের দূর্বলতাকে টেনে বের করে আপনার দেহকে শক্তিশালী ও মজবুত করে তুলবে। প্রতিদিন সকালে নিয়মিত এই মধু খেলে আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে, এলার্জি থাকবে না, গ্যাষ্টিক থাকবেনা, পেটের সব ধরনের সমস্যার সমাধান হবে। এটি আপনার হার্ট সুস্থ্য রাখবে। 

কোথায় থেকে কিনবেন?
যারা বিভিন্ন মাধ্যম থেকে মধু কিনে প্রতারিত হয়েছেন বা খাঁটি মধু পাননি তারা  বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল আজকের ডিল ডটকম থেকে শতভাগ নিশ্চয়তার খাঁটি মধু কিনতে পারেন। এজন্য নিচে একটি লিংক শেয়ার করলাম। মধু কিনতে নিচের লিংক থেকে ঘুরে আসুন। 
*মধু* *শপিং* *অনলাইনশপিং* *স্মার্টশপিং*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★