মাইক্রোওয়েভ ওভেন

মাইক্রোওয়েভওভেন নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

সারাদিনের কাজের নানান ব্যস্ততার ভিড়ে অনেকে বাড়িতেই নারীরা বিশেষ করে কর্মজীবী নারীরা তাদের প্রয়োজন মেটাতেই ব্যবহার করে থাকেন মাইক্রোওয়েভ ওভেন।একটু সময় বাঁচিয়ে সহজেই ঝটপট রান্নার যন্ত্র এটি। যন্ত্রটিতে নানা রকম রান্না করা ছাড়াও যেকোনো ঠান্ডা খাবার গরম করতে জুড়ি মেলা ভার। তাই সকালবেলা অফিস যাবার আগে নারীদের এই যন্ত্রটির সাহায্য নিতেই হয়। আগের রাতে রান্না করা খাবার, ওভেনে ভালোভাবে গরম করে সংসারের সকলের দুপুরের খাবার নিশ্চিত করতে পেরে স্বস্তি মেলে সেই কর্মজীবী নারীটির। সাথে বাচ্চাদের টিফিন, স্বামী ও নিজের লাঞ্চটাও দিব্যি বাসা থেকে নিয়ে আসার সুযোগ মেলে। সুতরাং আজকাল যুগে ঘরে একটা মাইক্রোওয়েভ ওভেন থাকা মানে বিশাল স্বস্তি। 

 

তবে প্রতিদিনের তাড়াহুড়ায় ঠিকঠাকভাবে নেয়া হয়ে উঠে না সঠিকভাবে মাইক্রোওয়েভ ওভেনের যত্ন। কিন্তু এই ব্যাপারটি কিন্তু মোটেও এড়িয়ে গেলে চলবে না কারণ মাইক্রোওয়েভ ওভেনের যত্ন নেয়াটা শরীর ও স্বাস্থ্যের কথা ভেবেই খুবই জরুরী। মাঝে মাঝেই শুকনো কাপড় দিয়ে বাইরেরটা মুছে নিতে হবে। ওভেনের পেছনের দিকে যেন কোনো ময়লা না জমে বা পোকামাকড় না ঢোকে। কাজের শেষে ওভেন ঠান্ডা হলে কোনো প্রকার খাবার বা তেল, ঝোল পড়ে থাকলে শুকনো সুতি কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। নইলে ময়লা জমে বা ধুলোবালি আটকে ওভেনটি নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

খাবার গরম করার সময় অনেক সময় বেশি গরম হয়ে তা মাইক্রোওয়েভ ওভেনের ভেতরে পড়ে যেতে পারে। তাই খাবার গরম হয়ে গেলে সঙ্গে সঙ্গে এটি পরিষ্কার করতে হবে। অন্যথায় এটির ভেতর দুর্গন্ধ হয়ে যেতে পারে। এমনকি পরে গরম করা খাবার নষ্ট হয়ে যেতে পারে। মাইক্রোওয়েভ ওভেনের পেছনের যে ফাঁকা জায়গা আছে সেখানে তেলাপোকা, মাকড়সা বা টিকটিকি ঢুকে যেতে পারে। এসব ক্ষেত্রে যেকোনো সময় খাবার নষ্টের কারণ হতে পারে। তাই সব সময় মাইক্রোওভেনের পেছনের দিক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।

 

ওভেন ক্লিনার ঢাকার বায়তুল মোকারম পাবেন। এছাড়া ইলেক্ট্রনিক্স পণ্যের শোরুমগুলোতেও পাবেন। তবে বাজারে একটি নতুন এবং অভিনব একটি  মাইক্রোওয়েভ ওভেন ক্লিনার এসেছে, যার কাজের মতোই নামটাও দারুন, জানতে চাই সেটি নাম ANGRY MAMA মাইক্রোওয়েভ ওভেন ক্লিনার ! এটি খুবই সহজে কাজ করে থাকে। আপনার ব্যস্ততার মাঝে ওভেন পরিষ্কার করার কাজটি স্বয়ংকৃতভাবে কোনো ঝুট ঝামেলা ছাড়াই করতে একই যথেষ্ট। আপনাকে শুধু ছোট কিছু কাজ করতে হবে। আসুন জানিয়ে রাখি --

  • পানি ও ভিনিগারের মিশ্রন এর মধ্যে দিন এবং এটাকে কিছুক্ষনের জন্য ওভেনের ভেতর রাখুন। 
  • এর থেকে স্টিম বের হবে যা ওভেনে পরা দাগ বা ময়লাকে নরম করবে। 
  • এরপর পাতলা কাপর দিয়ে সহজেই ওভেনে লাগা যেকোনো ময়লা বা দাগকে সহজেই মুছে ফেলা যাবে। 
  • আপনাদের সুবিধার জন্য এই ভিডিও লিংকটি শেয়ার করছি --

https://www.youtube.com/watch?v=OlObP6AyVg4

দারুন না ! তাহলেই আর দেরি কেন ? আপনার মাইক্রোওয়েভ ওভেনের যত্নে আজকেই ঘরে আমন্ত্রণ জানান রাগী মামা ওরফে ANGRY MAMA মাইক্রোওয়েভ ওভেন ক্লিনার ! প্রোডাক্টটি পাওয়া যাচ্ছে আজকের ডিলে, মামার দাম ৫০০ টাকার মধ্যে। কিনতে চাইলে ছবিতে ও লিংকে ক্লিক করুন।

 

কারো যদি মাইক্রোওয়েভ ওভেন না থেকে থাকে বা কিনতে চান তাহলে ঘুরে দেখুন আজকের ডিলের কিচেন ও ডাইনিং ক্যাটাগরিটি।

*angrymama* *মাইক্রোওয়েভওভেন* *ওভেনক্লিনার* *কিচেনগ্যাজেট*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

মাইক্রো ওভেনের বাহারি ব্যবহারবর্তমান সময়ে ওভেন নিত্যদিনের জনপ্রিয় একটি সামাগ্রী। রান্না ঘরে ওভেনের সংযোজনটা এখন আহামরি কোন আবদার নয়। খুব সহজে খাবার গরম করা ও রান্নার জন্য ওভেনের ব্যবহার দিন দিন আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। চলুন বিভিন্ন ধরনের ওভেনের ব্যবহার সম্পর্কে জেনে নেই।

ওভেন:

ওভেন কিনতে ক্লিক করুন
ওভেন বিংশ শতাব্দীর অন্যতম আবিষ্কারগুলোর একটি। ওভেনে খাবার গরম বা রান্না করতে খুব কম সময় লাগে এবং বিদ্যুৎ খরচও কম হয়। জীবনকে সহজ করে দেয় এই ইলেকট্রনিক সামগ্রীটি। এটি ছাড়া উন্নত বিশ্বে জীবন কল্পনাই করা যায় না। বর্তমানে বাজারে তিন ধরনের ওভেন পাওয়া যায়। এর মধ্যে একটি মাইক্রোওয়েভ ওভেন, একটি ইলেকট্রিক ওভেন আর একটি হল ইলেকট্রিক মাইক্রোওয়েভ ওভেন। এদের মধ্যে যেটা শুধু ইলেকট্রিক ওভেন সেখানে প্রায় সব ধরনের খাবার রান্না করা সম্ভব। আর মাইক্রোওয়েভ ওভেনে খাবার দ্রুত রান্না করা গেলেও এখানে কিন্তু খাবার রান্না করার কিছু বাধ্যবাধকতা আছে। অর্থাৎ সব রকমের খাবার এই ওভেনে রান্না হবে না। তবে এখন বেশ কিছু মাইক্রোওয়েভ ওভেন বাজারে পাওয়া যায়, যেগুলোতে প্রায় সব ধরনের খাবার রান্না করা যায় এবং খাবার দ্রুত গরম করাও যায়।

মাইক্রোওয়েভ ওভেন:

ওভেন কিনতে ক্লিক করুন
বায়োসিরামিক প্রযুক্তিতে তৈরি মাইক্রোওয়েভ ওভেনে রান্না করা খাদ্যের গুণ অর্থাৎ ভিটামিন, নিউট্রেশন সব ঠিক থাকে। এজন্য রান্নার জন্য মাংস তেল-মসলা দিয়ে মাখিয়ে তিন-চার ঘণ্টা ফ্রিজে রেখে দিন। খাবার ১৫-২০ মিনিট আগে ওভেনে রান্না করুন। রান্না না করলেও মাঝে মধ্যে ওভেনের ভেতর মুছে রাখুন এবং সর্বোপরি সুরক্ষিত থাকার জন্য ওভেনে মজবুত সুইচ বোর্ড ব্যবহার করুন। শুধু তাড়াতাড়ি রান্না বা অল্প তেল-মসলায় রান্নাই নয়, মাইক্রোওয়েভ ওভেনে রান্না করা যায় স্বাস্থ্যকর ও ভিটামিনসমৃদ্ধ খাবার। কেবল খাবার গরমই নয়, নানা স্বাদের খাবারও তৈরি করা যায় মাইক্রোওয়েভ ওভেনে।

ওভেন কিনতে ক্লিক করুনদৈনন্দিন সাধারণ খাবারের পাশাপাশি কেক, বিস্কুট, ফিরনি, পোলাও, কাবাব, নান সব কিছুই খুব সহজে তৈরি করা যায় মাইক্রোওয়েভ ওভেনে। রেগুলেটর এবং ইজিটাচ কন্ট্রোল সিস্টেমের মাধ্যমে সহজেই যেমন অপারেট করা যায়, তেমনি মেন্যুয়াল দেখে নিজে নিজেও চেষ্টা করা যায় এবং প্রস্তুত করা যায় মজার মজার খাবার। মাইক্রোওয়েভে রান্নার জন্য কিছু সহজ পদ্ধতিও আছে, যা রান্নার সময় কমানোর পাশাপাশি বৈদ্যুতিক খরচও কমিয়ে দিতে সাহায্য করে।

ব্যবহারের সময় যে নিয়মগুলো মেনে চলবেন:

ওভেন কিনতে ক্লিক করুন
✓ ওভেনের ক্ষেত্রে ভোল্টেজের ব্যাপারটি গুরুত্বপূর্ণ। খুব কম বা বেশি ভোল্টেজে ওভেন চালাবেন না। বিদ্যুতের হঠাৎ আসা-যাওয়াতেও অনেক সময় নষ্ট হয়ে যেতে পারে ওভেন। অনেক সময় এতে ওভেনের ট্রান্সফরমারও নষ্ট হয়ে যায়।
✓ সম্ভব হলে প্রটেক্টর লাগিয়ে নিন। এতে বিপদমুক্ত থাকবে আপনার ওভেনটি।
✓ খাদ্যের ধরন অনুযায়ী গরম করার জন্য সময় নির্ধারণ করুন। স্ট্যান্ডিং টাইমের পরও রান্না না হলে আবার অল্প সময়ের জন্য দিন ওভেনে। তবে প্রথমে কম সময় নির্ধারণ করে দেওয়াই ভালো।
✓ ওভেন সব সময় কাঠের টেবিলের ওপর রাখবেন। তবে টেবিল যেন বেশি উঁচু না হয় সেদিকে লক্ষ রাখা জরুরি।
✓ ওভেনে রান্না করার সময় অবশ্যই ওভেনপ্রুফ পাত্র ব্যবহার করতে হবে। ধাতব বাসন কখনই ওভেনের ভেতর দেবেন না।
✓ ব্যবহারের কিছুক্ষণ আগে ওভেনটি চালু করে নিন।
ওভেনের ভেতরে পাত্র ও খাবার খুব সাবধানে রাখবেন যেন ওভেনের ধাতব গায়ে লেগে না যায়।
✓ পাত্রে অতিরিক্ত খাবার দেবেন না। রান্নার ক্ষেত্রে খাবারের টুকরোগুলো একই আকৃতির হওয়া উচিত। এতে খাবারগুলো একই সময়ে সুষমভাবে সেদ্ধ হয়।
✓ ফ্রিজ থেকে খাবার বের করে সরাসরি ওভেনে গরম করা হলে এটি খাবারের মান নষ্ট করে। তাই ফ্রিজের খাবারের শীতল ভাব কমিয়ে ওভেনে গরম করুন।
✓ খাওয়া শেষে খাবার ওভেনে গরম করার পর বাতাসে ঠাণ্ডা করে ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন।
✓ ওভেনে রান্নার সময় এর ভেতরে খাদ্যদ্রব্য সব সময় ঢেকে দেবেন।
✓ গরম অবস্থায় কখনও ভেতরে খালি হাত ঢোকাবেন না। গরম পাত্র ধরতে মোটা ও ভারি গ্লাভস ব্যবহার করুন।
✓ ওভেনে রান্না করতে বেশি তেল লাগে না। তাই ডুবোতেলে কিছু রান্না করতে যাবেন না। তেল গরম হয়ে এদিক-ওদিক ছিটে ওভেনটি নষ্ট হয়ে যেতে পারে।
✓ ব্যাবহার শেষে ওভেনের বৈদ্যুতিক সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করে ফেলুন।

কোথায় থেকে কিনবেন দাম কেমন?

ওভেন কিনতে ক্লিক করুন
বাজারে এখন স্যামসাং, সিঙ্গার, ফিলিপস, ন্যাশনালের মতো বড় প্রতিষ্ঠানগুলোর ওভেন কিনতে পাওয়া যায়। এসব শোরুমে পাবেন মাইক্রোওয়েভ ওভেন এবং ইলেকট্রিক মাইক্রোওয়েভ ওভেন। আর ইলেকট্রিক ওভেন কিনতে গেলে স্টেডিয়াম মার্কেট, বায়তুল মোকাররাম, বসুন্ধরা সিটি, নিউমার্কেট-এসব জায়গা থেকে কিনতে পারেন। এ ধরনের ইলেকট্রিক ওভেনের দাম পড়বে চার হাজার থেকে শুরু করে ব্র্যান্ড আর সাইজ অনুপাতে ১০ হাজার টাকা। আর ইলেকট্রিক মাইক্রোওয়েভ ওভেন কিনতে পারবেন আট হাজার থেকে শুরু করে ১৮ হাজার টাকায়।

ওভেন কিনতে ক্লিক করুনসহজে ঘরে বসে ওভেন কেনার চমৎকার একটি মাধ্যম আছে তা হল অনলাইন। অনলাইন শপ থেকে আপনি সবরক ওভেন কিনতে পারবেন। এজন্য দেশের সেরা অনলাইন শপিংমল আজকের ডিলের ওযেবসাইট থেকে ঘুরে আসতে পারেন। আজকের ডিল থেকে ওভেন কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 

*ওভেন* *ইলেকট্রনিক্সওভেন* *মাইক্রোওয়েভওভেন* *স্মার্টশপিং*

বিডি আইডল: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 মাইক্রোওয়েভ ওভেন কেনার পুর্বে কি কি বিষয়গুলো দেখে কেনা ভালো হবে ?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

*মাইক্রোওয়েভওভেন* *ওভেন* *মাইক্রোওভেন*

পূজা: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 মাইক্রোওয়েভ ওভেন ব্যবহারে কি কি স্বাস্থ্য ঝুঁকি থাকতে পারে?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

*মাইক্রোওয়েভওভেন* *স্বাস্থ্যঝুঁকি* *টিপস* *হেলথটিপস*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★