মা বাবা

মা-বাবা নিয়ে কি ভাবছো?

♦ মমিতা ♦: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

মা বাবা সন্তানের জন্য কত কষ্ট করেন, অথচ সেই সন্তানেরাই মা বাবাকে কষ্ট দেন
*মা-বাবা*

সাদাত সাদ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বছরখানেক আগের কথা 
বৃদ্ধাশ্রমে অচেনা এক মাকে জিজ্ঞেস করেছিলাম ,  আচ্ছা এখানে কেমন লাগে বাড়ীর কথা কি কখনো মনে পড়ে?
তিনি উত্তর টা দেবার সময় কিছুটা সময় নিরব থেকে বললেন,  এখানে একদম ভাল লাগেনা, রাতে দুচোখে ঘুম আসেনা।  ছোট্ট খোকার কথা খুব মনে পড়ে,  কখনো তাঁকে ছাড়া বাহিরে থাকা হয়নি তো তাই
 : আপনার খোকা অনেক ভাল তাইনা?
জননী চোখের জল মুছতে মুছতে বললেন,  হ্যা অনেক ভাল ওর মতো লক্ষি ছেলে কোথাও নেই।

একবার ভাবলাম বলবো, ছেলেটা এত ভাল তবে আপনি এখানে কেন?  পরক্ষণেই মনে হলো তিনি এম্নিতেই অনেক দুঃখী  ওনার দুঃখ আর দিগুন করার দরকার নেই।  আমার যা বোঝার তা ওনার অশ্রুজলে বুঝে গিয়েছি। ওনার খোকা আসলেই অনেক ভাল, তবে সেই দুঃখী মায়ের চোখে, বাস্তবে নয়। ওনার মতো এমন হাজারো মা বাবা আছেন বৃদ্ধাশ্রমে,  তাদের সবার চোখ হয়তো এমনই। 


 বৃদ্ধাশ্রমে যে সকল হতভাগা  মা বাবা আছেন তাদের কে দেখে খুব  কষ্ট হয় ।  এত কষ্ট বেদনা সহ্য করে ও কেন যে তাঁরা  নিজের সন্তানকে এত ভালবাসে।  হে প্রভু তাদের মনে একটু ঘৃণা দাও, যাতে ঘৃণা করতে শিখে। 

*বৃদ্ধাশ্রম* *মা* *বাবা* *মা-বাবা* *বেশব্লগ*

♦ মমিতা ♦: সপ্ন অনেক রকমের হয় অনেকে সপ্ন দেখে বড়লোক হবে আবার কেহ কেহ সপ্ন দেখে তাদের সন্তান মানুষ হবে আমার বাবা তাদের মতোই একজন আমাদের কখনোই কোন কিছুর অভাব বুঝতে দেয়নি মা ও কম করেনি নিজের রোজগারের সব টাকা আমাদের পেছনেই ব্যয় করছেন তোমাদের এত ঋণ আমি আর ইমন শোধ করতে পারব তো? যদি নাও পারি তবে ক্ষমা করো শুধু তোমাদের ভালবাসতে দিও (আম্মুউউউ)

*মা-বাবা* *ঋণ*

সাদাত সাদ: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

মা বাবার সপ্ন
দুনিয়ার সব মা বাবা চান তাঁর ছেলেটা যেন সব দিকেই এগিয়ে থাকে মা বাবা তো তাই ১। ছেলেটা যেন সবার থেকে স্টাইলিশ হয় ২। খেলাধুলা তে সে যেন প্রথম হয় ৩। ক্লাসে যেন ছেলেটা ফাস্ট বয় হয় ৪। সমাজে যেন তার সুনাম ছড়ায় ৫। তাদের ছেলেটা যেন পৃথিবী জয় করে
*মা-বাবা*
ছবি

অনি: ফটো পোস্ট করেছে

Universal truth.

*মা-বাবা*
৫/৫

ঝিঁঝিপোকা: ~ এই পৃথিবীতে বাবা-মা'র থেকে আপন আর কেউই হতে পারে না। আমাদের সব ভুল ক্ষমা করে মাথার উপর ছায়া হয়ে থাকেন তাঁরা। আমার আয়ু থেকে কেটে নিয়ে হলেও মহান আল্লাহ তায়ালা যেনো আমার বাবা-মা'কে সুস্থ রাখেন। এই দোয়াই করি... সবসময়! ~

*বাবা-মা* *মা-বাবা* *মা* *বাবা*
ছবি

ঝিঁঝিপোকা: ফটো পোস্ট করেছে

৫/৫

~মা-বাবা~ _ বিধাতার সবচেয়ে শ্রেষ্ঠ উপহার!

(হার্ট)(হার্ট)(হার্ট)

*মা-বাবা* *পরিবার*

হাফিজ উল্লাহ: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৪/৫
সন্তানের কান্না দেখে প্রত্যেক মা-বাবা শুধু একবারই হাসে ! > সন্তানের জন্মের সময় l
*কান্না* *মা-বাবা*
ছবি

আমানুল্লাহ সরকার: ফটো পোস্ট করেছে

৫/৫

আপনার দ্বারা এই কাজটি কখনোই যেন না হয়!!!

আল্লাহ তুমি সব বাবা মায়ের সন্তানদের সঠিক জ্ঞান দাও।

*বৃদ্ধাশ্রম* *মা-বাবা* *সম্পর্ক*
ছবি

তোফায়েল আহমদ: ফটো পোস্ট করেছে

৫/৫

পৃথিবীতে মা-বাবার তুলনা নেই। তাদেরকে কষ্ট দেয়া মানে নিজের জীবনটাকে জ্বলন্ত কয়লার আস্তাকুরে নিক্ষিপ্ত করা...

*শিষ্টাচার* *মা-বাবা*

তোফায়েল আহমদ: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৫/৫
মূল্যবান বাণী...!
শরীর না ভিজিয়ে গোসল করা যেমন অসম্ভব, ঠিক তেমনি ভাবে নিজের মাতা-পিতাকে কষ্ট দিয়ে নিজের সন্তানের কাছ থেকে শান্তির আশা করা ও অসম্ভব।
*মা-বাবা* *মূল্যবান-উক্তি*

এ. আর. খান: একটি বেশব্লগ লিখেছে

হুমায়ূর আজাদ স্যারের লেখা সত্যি কথা বলতে গেলে কোনদিনও আগ্রহ করে পড়তে পারিনি, যে কারণে তাঁর লেখা কখনো শেষ পর্যন্ত পড়তেও পারিনি। মণি-মুক্তা চেনার চোখ তো আর আমার মত অধমের নেই! তাই বুঝিনি কখনো এই একঘেয়ে কটকটে লেখাগুলোর মাঝে কত নির্মম বাস্তব লুকিয়ে থাকে। প্রিয় বেশতোবাসিদের জন্য আজ হুমায়ূন আজাদ স্যারের একটা অসাধারণ সৃষ্টি তুলে ধরছি....

আমাদের মা......

আমাদের মাকে আমরা বলতাম তুমি, বাবাকে আপনি..
আমাদের মা গরিব প্রজার মত দাঁড়াতো বাবার সামনে, কথা বলতে গিয়ে কখনোই কথা শেষ ক’রে উঠতে পারতোনা..
আমাদের মাকে বাবার সামনে এমন তুচ্ছ দেখাতো যে মাকে আপনি বলার কথা আমাদের কোনোদিন মনেই হয়নি!..
আমাদের মা আমাদের থেকে বড় ছিলো, কিন্তু ছিলো আমাদের সমান..
আমাদের মা ছিলো আমাদের শ্রেনীর, আমাদের বর্ণের, আমাদের গোত্রের..

বাবা ছিলেন অনেকটা আল্লার মতো, তার জ্যোতি দেখলে আমরা সেজদা দিতাম...
বাবা ছিলেন অনেকটা সিংহের মতো, তার গর্জনে আমরা কাঁপতে থাকতাম..
বাবা ছিলেন অনেকটা আড়িয়াল বিলের প্রচন্ড চিলের মতো, তার ছায়া দেখলেই মুরগির বাচ্চার মতো আমরা মায়ের ডানার নিচে লুকিয়ে পড়তাম..ছায়া সরে গেলে আবার বের হয়ে আকাশ দেখতাম...

আমাদের মা ছিলো অশ্রুবিন্দু-দিনরাত টলমল করতো..
আমাদের মা ছিলো বনফুলের পাপড়ি;-সারাদিন ঝরে ঝরে পড়তো..
আমাদের মা ছিলো ধানখেত-সোনা হয়ে দিকে দিকে বিছিয়ে থাকতো..
আমাদের মা ছিলো দুধভাত-তিন বেলা আমাদের পাতে ঘন হয়ে থাকতো..
আমাদের মা ছিলো ছোট্ট পুকুর-আমরা তাতে দিনরাত সাঁতার কাটতাম...
আমাদের মার কোনো ব্যক্তিগত জীবন ছিলো কিনা আমরা জানি না..
আমাদের মাকে আমি কখনো বাবার বাহুতে দেখি নি..আমি জানি না মাকে জড়িয়ে ধরে বাবা কখনো চুমু খেয়েছেন কি না চুমু খেলে মার ঠোঁট ওরকম শুকনো থাকতো না...

আমরা ছোট ছিলাম, কিন্তু বছর বছর আমরা বড় হতে থাকি...
আমাদের মা বড় ছিলো, কিন্তু বছর বছর মা ছোটো হতে থাকে...
ষষ্ঠ শ্রেনীতে পড়ার সময়ও আমি ভয় পেয়ে মাকে জড়িয়ে ধরতাম..
সপ্তম শ্রেনীতে ওঠার পর ভয় পেয়ে মা একদিন আমাকে জড়িয়ে ধরে..
আমাদের মা দিন দিন ছোটো হতে থাকে আমাদের মা দিন দিন ভয় পেতে থাকে..

আমাদের মা আর বনফুলের পাপড়ি নয়, সারাদিন ঝরে ঝরে পড়েনা...
আমাদের মা আর ধানখেত নয়, সোনা হয়ে বিছিয়ে থাকে না...
আমাদের মা আর দুধভাত নয়, আমরা আর দুধভাত পছন্দ করিনা...
আমাদের মা আর ছোট্ট পুকুর নয়, পুকুরে সাঁতার কাটতে আমরা কবে ভুলে গেছি...

কিন্তু আমাদের মা আজো অশ্রুবিন্দু, গ্রাম থেকে নগর পর্যন্ত আমাদের মা আজো টলমল করে। 

                                                                                      -------হুমায়ুন আজাদ
*মা-বাবা*

ইউসুফ: পাশ্চাত্যের পরিবারে 'লাভ ইউ মম' 'মিস ইউ ড্যাড' নানাধরনের এক্সপ্রেশনে আমরা অভিভূত হই(মাদার'স ডে বা ফাদার'স ডে তে এর অনুকরণে অনেক কিছু বলি ও করিও) কিন্তু মমতায় গদ্গদ হওয়া ওই পাশ্চাত্যে ১৮ বছর হলে সন্তানের জায়গা হয়না পরিবারে-আর বুড়ো-বুড়ি হলে মা-বাবাদের স্থান হয় ওল্ড হোমে।মা-বাবাকে সাথে রাখুন,আপনার ছোট্ট শিশুটিও শিখবে যে মা-বাবা কোন এক্সপোর্ট আইটেম না

*দায়িত্ব* *মা-বাবা* *প্রতিদান*
জোকস

হাফিজ উল্লাহ: একটি জোকস পোস্ট করেছে

আবুল: আমাদের বাড়ির রান্নার গ্যাস সিলিন্ডারটা হঠাৎ আজ ফেটে গেছে। মা-বাবা একসাথে ছিটকে পড়েছেন বাড়ির বাইরে। - কী সাংঘাতিক ব্যাপার। আবুল: সাংঘাতিক হলেও মা খুশি হয়েছেন। - খুশি হয়েছেন! কেন? আবুল: বিয়ের পর আজ থেকে কখনো মা বাবার সাথে বাড়ির বাইরে যেতে পারেন নি। এই প্রথম গেলেন তো, তাই। (অবাক) (মামাকিদেখলাম)(মাইরালা২)
*মা-বাবা*

বেশতো Buzz: পোস্টটি শেয়ার করেছে "একমাত্র *মা-বাবা* ছাড়া পৃথিবীতে বাকি সব সম্পর্কই প্রতিযোগিতার, অথচ বয়সন্ধিকালে ভুলবশত আমরা সকলেই তাদের অবজ্ঞা করি, আর সেই ভুল জীবনভর বয়ে যেতে হয় (খুকখুকহাসি) তাই, সকলের উচিত সেই ভুল থেকে বেড়িয়ে আসা l"

হাফিজ উল্লাহ: *মা-বাবা* যা-ই বলে তা-ই মনে হয় ভুল। তবে *বয়স* বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে একসময় মনে হয় মা-বাবার সব কথাই ছিল সত্যি। এই *উপলব্ধি* আসার সময় বুঝবেন, আপনার সন্তানও আপনার সব কথা ভুল বলে উড়িয়ে দিচ্ছে।

হাফিজ উল্লাহ: *মা-বাবা* যা-ই বলে তা-ই মনে হয় ভুল। তবে *বয়স* বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে একসময় মনে হয় মা-বাবার সব কথাই ছিল সত্যি। এই *উপলব্ধি* আসার সময় বুঝবেন, আপনার সন্তানও আপনার সব কথা ভুল বলে উড়িয়ে দিচ্ছে।

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★