মেহেদী

মেহেদী নিয়ে কি ভাবছো?

সাদাত সাদ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রায় মেয়েরাই হাতে মেহেদী লাগান,  সব মেয়েদের কাছেই হাতে মেহেদী লাগানো আনন্দের। এখন কথা হল   সেই আনন্দ যদি বয়ে আনে অসহ্য যন্ত্রণা তবেই সমস্যা। ইদানীং বেশ কিছু কোম্পানির মেহেদী তে ক্ষতিকর মেডিসিন ব্যবহার করা হচ্ছে,  মেডিসিন ব্যবহারের মূল উদ্দেশ্য তাড়াতাড়ি হাত চকচকে করা (লাল করা) এই নিম্নমানের মেহেদী ব্যবহারে  স্বাস্থ্য ঝুঁকি  অনেক। যেমন হাতে বসন্ত গোটার মত হয়ে যায়,  অনেক সময় হাত পচে যায়।  তো আমাদের উচিৎ  আপন স্বার্থে এসব ভেজাল মেহেদী হাতে লাগানো থেকে নিজেকে বিরত রাখা।  সম্ভব হলে গাছ থেকে মেহেদী পাতা তুলে তারপর ব্যবহার করুন, অন্তত ভরসা করা যায় তাতে। এযুগে এর থেকে ভাল উপায় আমার জানা নেই।  
---
সাদাত সাদ
১০-১-১৬
*মেহেদিপাতা* *মেহেদীপাতা* *মেহেদী*
ছবি

কনিকা রায় : ফটো পোস্ট করেছে

হাফিজ উল্লাহ: একটি টিপস পোস্ট করেছে

মেহেদি পাতার ব্যবহারে ত্বকের ৫টি সমস্যার সমাধান | প্রতিচ্ছবি
http://www.protichhobi.com/2015/03/11/%E0%A6%AE%E0%A7%87%E0%A6%B9%E0%A7%87%E0%A6%A6%E0%A6%BF-%E0%A6%AA%E0%A6%BE%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%AC%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%A4%E0%A7%8D/
নিশ্চয়ই ভাবছেন যে, চুল আর হাত রাঙাবার মেহেদি কীভাবে ত্বকের সমস্যা দূর করবে! মেহেদি সাধারণত রঞ্জক হিসেবেই ব্যবহার করা হয়। তবে এর কিছু ঔষধি গুণও রয়েছে যা সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে ত্বকের বিভিন্ন রোগ। পা ফাটা শীতকালে তো পা হরদম ফাটে। তবে কারো কারো বারোমাস পা ফাটার সমস্যা থাকে। এছাড়া চামড়া ওঠার সমস্যাও থাকে অনেকের। মেহেদিপাতা বেটে ফাটা জায়গায় পুরু প্রলেপ দিয়ে রাখুন। আধা ঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে পা ফাটা প্রতিরোধ হবে। খুশকি মাথার ত্বকে ফাঙ্গাসের আক্রমণে খুশকির মতো চর্মরোগ হয়। খুশকি দূর করতেও মেহেদি কার্যকর। একটি পুরো ডিম ফেটিয়ে নিন। এর সাথে মেহেদিপাতা বাটা ভালো করে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি মাথার ত্বকসহ পুরো চুলে লাগান। আধা ঘণ্টা রেখে চুল শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুই দিন এ কাজ করুন। খুশকি দূর হয়ে যাবে, চুলও পুষ্টি পাবে। পানি পচা রোগ সাধারণত নোংরা, জীবাণুযুক্ত পানি লেগে এই রোগ হয়। আবার দীর্ঘক্ষণ পানিতে কাজ করলেও এ রোগ হতে পারে। এতে আঙুলের মাঝের অংশে ক্ষতের সৃষ্টি হয়। এই ক্ষতে মেহেদির প্রলেপ লাগিয়ে রাখলে ঘা ভালো হয়ে যায়। ...বিস্তারিত
*মেহেদী*
১৯০ বার দেখা হয়েছে

শ্রীময়ী: একটি বেশব্লগ লিখেছে

মেহন্দী তো মেয়েদের সাজের একটা গুরত্বপূর্ণ অনুসঙ্গ, আমার মেহন্দী পড়তে অনেক ভালো লাগে, যেকোনো অনুষ্ঠানেই আমাদের দেশের মেয়েরা মেহন্দীর নকশায় রাঙিয়ে নেই হাত, এমনকি বিয়ের সময় মনে করা হয়‚ মেহন্দীর রঙ যত গাঢ় হয়‚ তত নাকি স্বামী ভালবাসে বেশি | যদিও এটা কুসংস্কার ছাড়া কিছুই নয় | কিন্তু মেহন্দি লাগানোর পর সব মহিলাই চান মেহন্দির রঙ হোক গাঢ় | তার জন্য কিছু টিপস মেনে চলতে হবে |


১) আপনার স্কিন যেন মেহন্দি লাগানোর আগে একদম পরিষ্কার থাকে | কোনরকম তেল বা লোশন লাগাবেন না মেহন্দির আগে |

২) মেহন্দি লাগানোর আগে বাথরুম থেকে ঘুরে আসুন | (যদিও এটা করলে আপনার মেহন্দি গাঢ হবে না কিন্তু মাঝপথে বাথরুম গেলে বেশ অসুবিধায় পরবেন | 

৩) মেহন্দি লাগানোর পর শুকিয়ে গেলে যাতে ডিজাইন ক্র্যাক না হয় তাই তার ওপরে লেবুর রস বা অল্প জলে চিনি ভিজিয়ে লাগান |

৪) যতক্ষণ পারবেন ওই পেস্ট লাগিয়ে রাখার চেষ্টা করুন | অন্তত ৬ ঘন্টা রাখতেই হবে |

৫) যত বেশি গরম হবে তত রং গাঢ় হবে | তাই পারলে হাল্কা আঁচের ওপর হাত সেঁকে নিন |

৬) শুকনো মেহন্দি পেস্ট তুলে ফেলার পর ভিক্স ভেপোরাব বা beeswax লাগিয়ে নিন ডিজাইনের ওপর | এতে মেহন্দির রং গাঢ় হবে |


৭) অন্তত ২৪ ঘন্টা কোনও রকম ঘরের কাজ করবেন না |

৮) ২৪ ঘন্টা যদি না চান করে থাকতে পারেন তা হলে খুব ভাল হয় | যদি তা না পারেন তাহলে মেহন্দির ওপর ভালো করে ভ্যাসলিন লাগিয়ে নিন |

ওপরের টিপস গুলো মেনে চললে মেহন্দির রং হবে গাঢ আর অন্তত থাকবে ১০ দিন অবধি |

আর একটা দরকারি কথা মনে রাখবেন তা হল মেহন্দি কোনও দোকান থেকে না কিনে তা ঘরেই বানিয়ে নিন | ঘরে মেহন্দি কোন তৈরী করা এমন কিছু কঠিন কাজ নয় | মেহন্দি পাতা বাজার থেকে কিনে ভালো করে বেঁটে নিন | এতে কয়েক ফোঁটা ইউক্যালিপটাস অয়েল মেশান আর ২ চা চামচ লেবুর রস | একটা পরিষ্কার পলিথিন বা প্লাস্টিক নিয়ে তা 'cone' শেপ এ পাকিয়ে নিন | এতে এবার মেহন্দি পেস্ট ভরে নিন | 'cone' এর চারপাশে সেলোটেপ লাগিয়ে নিন ভাল করে | মেহন্দি কোন এরপর ১ ঘন্টা রেখে দিন, তারপর তা ব্যবহার করুন |
*মেহেদী* *সাজগোজ* *বিউটিটিপস* *সৌন্দর্য্যচর্চা*
ছবি

লিজা : ফটো পোস্ট করেছে

আরো দুটি আকর্ষনীয় মেহেদী ডিজাইন.....

এ দুটি ডিজাইনে হাত রাঙিয়ে সহজে নজর করতে পারেন অন্যদের ....(খুকখুকহাসি)

*মেহেদী* *সাজগোজ* *পার্টিসাজ*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★