যৌতুক

যৌতুক নিয়ে কি ভাবছো?

সাদাত সাদ: [রাজামশাই-হুহুহাহা] যৌতুক ভিক্ষুকদের নতুন বানী (রাগী) । আমরা যৌতুক নিয়ে ছেলেকে বিয়ে করাব না, তবে আপনারা খুশী হয়ে যদি কিছু দেন তবে সেগুলো না নিয়ে আপনাদের মনে কষ্ট দিতে চাইনা (বমি)

*যৌতুক*
জোকস

হাফিজ উল্লাহ: একটি জোকস পোস্ট করেছে

[বাঘমামা-উশটাখাইসি] বেয়াই সাহেব, আমি সব সময় যৌতুকের বিপক্ষে। তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমার ছেলের বিয়েতে আপনার ওপর কোনো চাপ সৃষ্টি করব না। শুধু আপনার মেয়েকে ১০ ভরি স্বর্ণ আর জামাইকে একটা মোটরসাইকেল দেবেন। আর আপনার বেয়াইনের জন্য একটা এলসিডি টেলিভিশন, সঙ্গে একটা ফ্রিজ। মেয়ের ঘর সাজানোর জন্য কিছু ফার্নিচার দিলে তো সোনায় সোহাগা! আর আর... নাহ আর কিছু লাগব না! . . . মেয়ের বাবা: ...আর একটা মামলাও দিয়ে দিই, কী বলেন?
*কমেডিয়ানহাফিজ* *যৌতুক*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

আমি যদি কোনদিন মন্ত্রী কিংবা নেতা হতে পারি তাহলে যে ছেলে বিয়েতে যৌতুক চাইবে,সঙ্গে সঙ্গে তাকে তলব করে হাতের মধ্যে ভিক্ষা করার জন্য একটা পুরানো থালা ধরিয়ে দেব..
*মেজাজ-খারাপ* *যৌতুক*
ছবি

Dipti: ফটো পোস্ট করেছে

৪/৫

সংগ্রহিত

*যৌতুক* *জোকস*

সাইফ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

অধিকাংশ শহরের শিক্ষিত মানুষের ধারনা বর্তমান বাঙালি শহরের সমাজে যৌতুক প্রথা বিলুপ্তপ্রায়। আধুনিক নারী এবং পুরুষরা শিক্ষার অবদান এবং সচেতনতার কারণে যৌতুক প্রথাকে ঘৃণা করছে এবং সাথে সাথে তাদের সন্তানদেরও শিক্ষা দিচ্ছে এই প্রথাকে অন্তর থেকে ঘৃণা করতে। এর ফলাফল সুদূরপ্রসারী, শহর সমাজে যৌতুক প্রথা আজ বিলুপ্তই বলা চলে। ছেলে পক্ষ প্রস্তাব নিয়ে গেলে ঐ মেয়েটিকেই গুরুত্ত দিচ্ছে। কিন্তু গ্রাম বাংলায় এখনও যৌতুক প্রথা রয়েছে। আমরা আজ শহরের এমন এক যৌতুক প্রথার উপর আলোকপাত করতে চাই, যা কখনও হয়তো যৌতুক বলে গণ্যই করা হয় না।

এই প্রথার নাম দেয়া যায় উপঢৌকন প্রথা। কি এই উপঢৌকন প্রথা? মূলত মধ্যবিত্ত এবং উচ্চ মধ্যবিত্ত শ্রেণীতে এই প্রথা চলছে। এখানে কখনোই কন্যার বাবার কাছে যৌতুক চাওয়া হয় না, বলা হয় না গাড়ি, মোটরসাইকেল বা ক্যাশ টাকা লাগবে। এই প্রথায় অনেক দামি দামি জিনিস চাওয়া বাদেই চলে আসে। কখনো বলা হয় এসব তো মেয়ের বাবার গিফট ছেলের জন্য, কখনোবা বলা হয়, ওদের নতুন সংসার তাই মেয়ে পক্ষ থেকে ঘর সাজিয়ে দিয়েছে। কিন্তু ভুলেও একে কখনো যৌতুক বলা হয় না। কারন এসবই তো উপঢৌকন!

কারো উপঢৌকন বা গিফট দেয়া নিয়ে আমরা প্রশ্ন তুলতে পারি না। এটা যার যার ব্যক্তিগত স্বাধীনতা। আসুন একটু আলোকপাত করি, যদি মেয়ের পরিবার এই উপঢৌকন না দেন। আমাদের মায়া টিম নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এমন কয়েকজন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া এবং চাকরিজীবী শহুরে নারীর মতামত নেয়। আমরা জানতে পারি, অনেকেই প্রেমের বিয়েতে পরিবারের সম্মতিতে বিয়ে করেন। কিন্তু বিয়ের আগে দেখতে পান, তাদের কয়েকজনের স্বামী বলছেন, আমরা নতুন সংসার শুরু করতে যাব তোমার ফ্যামিলি থেকে তো এমন কিছু আসলো না যা দিয়ে ঘরটা অন্তত সাজানো যায়। উত্তরে যদি বলা হয়, এতো যৌতুক! আমিতো যৌতুক বলছি না, এসবতো সাধারণত গিফটের মতই আসে। আমরাতো যৌতুক চাইছি না! যা ফার্নিচার আসবে তাতো আমরা ২ জনই ব্যবহার করবো।
কয়েকজন বললেন যে, এটা আসলে আমরা যৌতুক হিসেবে দেখিই না, এটা একরকম রীতি। অন্তত ছেলে মেয়ের বেডরুমের ফার্নিচার দেয়াটা ফর্মালিটিই বলে চালানো হয়।
আরও দুঃখের ব্যাপার হল, যারা নিজের মেয়েতে বিয়েতে এমন করছেন, তারা নিজের ছেলের বিয়েতেও একই রকম উপঢৌকনই আশা করেন।

গিফট হবে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী এবং গিফট দেয়া হবে আনন্দের থেকে। কোন নিয়মের বাঁধাধরার কারণে দামি দামি উপঢৌকন পাঠানো যেন রীতিতে পরিণত না হয়। এই রীতিকে কখনো আইনের আওতায় আনাও সম্ভব নয়। কারন একেতো প্রথমেই উপঢৌকন বলা হবে।

বিয়ে দুজন মানুষের নিজস্ব সম্মতিতে এবং পরিবারবর্গের উপস্থিতিতে আয়োজিত হতে পারে। এই বিয়ের রীতিতে বাঙালি নারীরা এবং তার পরিবার বহু বছর ধরে যৌতুক প্রথায় জর্জরিত। শিক্ষিত সমাজে এই প্রথা এখন উপঢৌকনে রূপ নিয়েছে। আর এই দামি দামি উপঢৌকন মেয়ের পরিবার থেকে চাওয়ার আগেই আসছে। কখনো একে যৌতুক ও বলা যাবে না কারণ ছেলে বা ছেলের পরিবার থেকে কিছু চাওয়া হয়নি। কিন্তু তাদের এসব পাওয়ার মৌন সম্মতি রয়েছে।

সংগৃহিতঃ http://www.maya.com.bd/en/voice/post/-54

*যৌতুক* *উপহার*
৪/৫

★ছায়াবতী★: [রানী-মারহাবা]- ছেলে মেয়ে আল্লাহর দান" তবুও কেন যৌতুকচান" যদি হয় মনের মত নারী" কি দরকার বাড়ী আরগাড়ী" আসুন আমরা সবার সাথে পোষ্ট টা ""শেয়ার"" করি "যৌতুক মুক্ত বাংলাদেশ গড়ি"..!!(গ্যাংনাম)(ইয়েয়ে)(কিলক্ষ্মী)(কিমজা)(চাখাই)(হিহিহি)(মিশনেআছি)(মিয়াও)(খুশীতেনাচি)

*যৌতুক* *সচেতনতা* *রসিকতা* *বেশম্ভব*
জোকস

হাফিজ উল্লাহ: একটি জোকস পোস্ট করেছে

ঘটক : শুনুন, ছেলে পক্ষ বলেছে বিয়ের দিন তার ডান হাতে নগদ দ'লাখ টাকা আর বাঁ হাতে আপনার মেয়েকে তুলে দিবেন। এখন আপনার কি চাওয়ার আছে? . . . . মেয়ের বাবা : আমি কিচ্ছু চাই না। শুধু তার ছেলের ডান হাতটা কাটার জন্য বড় একটা রমদা চাই!
*জোকস* *যৌতুক*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

১৯৭০ সাল ! ! ! বর ভাবতোঃ- যৌতুক হিসেবে যদি রেডিও পাওয়া যেত! ১৯৮০ সাল ! ! ! যৌতুক হিসেবে যদি সাইকেল পাওয়া যেত ! ১৯৯০ সাল ! ! ! যৌতুক হিসেবে যদি মোটর সাইকেল পাওয়া যেত ! ২০০০ সাল ! ! ! যৌতুক হিসেবে যদি কার পাওয়া যেত! ২০১৫ সাল ! ! ! শুধু বিনা বয়ফ্রেন্ডের একটা বউ পাইলেই চলে আর কিছু চায় না !!
*জোকস* *যৌতুক*

হাফিজ উল্লাহ: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৫/৫
সৌরভী @shouravi আপুর করা জবাব
এক যৌতুক লোভী ছেলে বিয়ের জন্য সৌরভী আপুকে দেখতে গেল আপুকে তার পছন্দ হল এরপর সে সৌরভীকে বললঃ - আপনাকে তো আমার পছন্দ কিন্তু আপনার বাবা কি আমার ডিমান্ড পূরণ করতে পারবে? সৌরভী: কি ডিমান্ড? - না মানে আসলে আমার না আপনি তার এক মাত্র মেয়ে আপনার খুশির জন্য তো একটা গাড়ি হলে ভাল হয়। উনি কি তা পারবেন??? সৌরভী: (অবাক) কি?
তারপর সৌরভী: আমার বাবার তো প্লেন দেয়ার সামর্থ্য আছে কিন্তু আপনার বাবার কি এয়ারপোর্ট বানানোর সামর্থ্য আছে?
*যৌতুক* *পুরাইধরা* *সামর্থ্য* *রসিকতা* *কমেডিয়ানহাফিজ*

রনি রহমান বেশব্লগটি শেয়ার করেছে

যৌতুক প্রথা আমাদের সমাজ থেকে এখনো উঠে যায় নি.. আমরা অনেকক্ষেত্রেই  আধুনিক হলেও মনের ক্ষেত্রে এখনো সেই কাল যুগেই আছি.. নিম্নবিত্ত পরিবারে  এটা কমবেশি দেখা যায়ই তেমনি উচ্চবিত্ত পরিবারেও এটা দেখা যায়.. নিম্নবিত্ত মধ্যবিত্ত পরিবারে মেয়ের বাবা মেয়ে বিয়ে দেয়ার সময়ে তার সামর্থ্য সাধ্য অনুযায়ী কিন্তু কম দেন না.. তবুও বিয়ের সময়ে ছেলের পরিবারের মনে মনে এটা ওটা পাবার আশা আকাঙ্খা পরিলক্ষিত .. যখন কারো আশাতীত প্রাপ্তি হয়ে যায় স্বাভাবিকভাবেই মেয়েটি ওই পরিবারে ভালো দাম পায় .. আর প্রাপ্তির কমতি দেখা দিলে এটা ওটা খোচা খুচি শুরু হয়ে যায় ...   বিয়ে একটি সামাজিক প্রথা কিন্তু তারমানে এই নয় যে একটি মেয়েকে ছেলে পরিবার কিনে নিচ্ছে..আর এখনকার মেয়েরা যথেষ্ট সাবলম্বী .. মেয়েরা এখন শিক্ষিত হচ্ছে.. চাকরি করছে , ব্যবসা করছে ... কোনো ক্ষেত্রেই পিছিয়ে নেই তারা ... একটি মেয়েকে এই পর্যায়ে আনতে কিন্তু বাবা মা এর কম খরচা পাতি করতে হয় না ..বরং অনেক ক্ষেত্রে একটি ছেলের পড়া লেখার ও আনুসঙ্গিক  খরচের থেকে একটি মেয়ের জন্য দিগুন তিনগুন খরচ করতে হয়..প্রতিটি বাবা মা এরই মেয়ের বিয়ে নিয়ে একটা চিন্তা থাকে .. মেয়ের জন্মের পর থেকেই তাই মেয়ের বিয়েতে কি কি দিবেন না দিবেন তাই নিয়ে শুরু করে দেন সঞ্চয়.. মা রেখে দেন তার শখের গহনা গাটি..

উচ্চ বিত্ত পরিবারে যৌতুক কে যৌতুক বলা হয় না ..বলা হয় উপহার / গিফট/ উপঢৌকন..মেয়েকে যাতে শশুরবাড়িতে কোনো রকমেরই কষ্ট করতে না হয় সে জন্য জামাইকে দেয়া হয় গাড়ি, বাড়ি, আসবাবপত্র, ইত্যাদি ইত্যাদি ... কিন্তু এক অর্থে বাবা মা এটাই চিন্তা করেন যে তার জামাই খুশি থাকলে কিন্তু মেয়েই ভালো থাকবে... তা দেখে অনেক ছেলেরই স্বপ্ন থাকে উচ্চবিত্ত পরিবারে বিয়ে করবে ... দুসম্পর্কের এক আত্তীয় বিয়ে করবে দেখে পাত্রী খুজছিল ..তার শর্ত ছিল তাকে ১০ লক্ষ টাকা ডিমান্ড/ যৌতুক দিতে হবে.. তাহলে মেয়ে যেমনি হোক দেখতে সে বিয়ে করতে রাজি.. এর কারণ জানতে চাওয়ায় তার উত্তর শুনে আমি 'থ' বনে গেছিলাম .. সে ১০ লক্ষ টাকা ঘুস দিয়ে একটি সরকারী চাকরি জুটিয়েছে.. সেজন্য জামাই যেহেতু সরকারী চাকুরিজীবি শশুর এই টাকা আদর করে দিতেই পারে..

এখনকার অনেক মুরুব্বিই সন্তান সম্ভোবা নারীকে এই দোয়াই করে থাকেন..'দোআ করি তুমি ছেলে সন্তানের মা হও  ' .. আমি কৌতুহল বশত একদিন আমার নানী শাশুড়িকে জিগ্যেস করে ফেললাম, 'আচ্ছা নানী এই দোআ কেন করা হয়? মেয়ে সন্তান কি খারাপ..?' নানী বলেছিলেন..''বুবু ছেলে হলে তো ভালো, ছেলেও থাকলো..বউ আসলো, ছেলের বিয়েতে খরচ কম...'   আমি বলি বাহ্ what  a concept ! 

এক আত্তীয় পাত্রী খুজতেছে .. তার শর্ত হলো সে নারায়ণগঞ্জের মেয়ে বিয়ে করবে.. আমি তো অবাক! এত জায়গা থাকতে নারায়নগঞ্জ কেন? তার সদুত্তর >> কিছুদিন আগে সে তার এক বন্ধুর বিয়ে খেয়ে এসেছে.. তো সেই বন্ধুর বাড়িতে নাকি শশুর বাড়ি থেকে দুই দিন পর পর এটা সেটা (টিভি , সি, ইত্যাদি ইত্যাদি ) পাঠায় ... সেই জন্য তার এই শখ..   

*যৌতুক* *নারীনির্যাতন*

সৌ র ভী: একটি বেশব্লগ লিখেছে

যৌতুক প্রথা আমাদের সমাজ থেকে এখনো উঠে যায় নি.. আমরা অনেকক্ষেত্রেই  আধুনিক হলেও মনের ক্ষেত্রে এখনো সেই কাল যুগেই আছি.. নিম্নবিত্ত পরিবারে  এটা কমবেশি দেখা যায়ই তেমনি উচ্চবিত্ত পরিবারেও এটা দেখা যায়.. নিম্নবিত্ত মধ্যবিত্ত পরিবারে মেয়ের বাবা মেয়ে বিয়ে দেয়ার সময়ে তার সামর্থ্য সাধ্য অনুযায়ী কিন্তু কম দেন না.. তবুও বিয়ের সময়ে ছেলের পরিবারের মনে মনে এটা ওটা পাবার আশা আকাঙ্খা পরিলক্ষিত .. যখন কারো আশাতীত প্রাপ্তি হয়ে যায় স্বাভাবিকভাবেই মেয়েটি ওই পরিবারে ভালো দাম পায় .. আর প্রাপ্তির কমতি দেখা দিলে এটা ওটা খোচা খুচি শুরু হয়ে যায় ...   বিয়ে একটি সামাজিক প্রথা কিন্তু তারমানে এই নয় যে একটি মেয়েকে ছেলে পরিবার কিনে নিচ্ছে..আর এখনকার মেয়েরা যথেষ্ট সাবলম্বী .. মেয়েরা এখন শিক্ষিত হচ্ছে.. চাকরি করছে , ব্যবসা করছে ... কোনো ক্ষেত্রেই পিছিয়ে নেই তারা ... একটি মেয়েকে এই পর্যায়ে আনতে কিন্তু বাবা মা এর কম খরচা পাতি করতে হয় না ..বরং অনেক ক্ষেত্রে একটি ছেলের পড়া লেখার ও আনুসঙ্গিক  খরচের থেকে একটি মেয়ের জন্য দিগুন তিনগুন খরচ করতে হয়..প্রতিটি বাবা মা এরই মেয়ের বিয়ে নিয়ে একটা চিন্তা থাকে .. মেয়ের জন্মের পর থেকেই তাই মেয়ের বিয়েতে কি কি দিবেন না দিবেন তাই নিয়ে শুরু করে দেন সঞ্চয়.. মা রেখে দেন তার শখের গহনা গাটি..

উচ্চ বিত্ত পরিবারে যৌতুক কে যৌতুক বলা হয় না ..বলা হয় উপহার / গিফট/ উপঢৌকন..মেয়েকে যাতে শশুরবাড়িতে কোনো রকমেরই কষ্ট করতে না হয় সে জন্য জামাইকে দেয়া হয় গাড়ি, বাড়ি, আসবাবপত্র, ইত্যাদি ইত্যাদি ... কিন্তু এক অর্থে বাবা মা এটাই চিন্তা করেন যে তার জামাই খুশি থাকলে কিন্তু মেয়েই ভালো থাকবে... তা দেখে অনেক ছেলেরই স্বপ্ন থাকে উচ্চবিত্ত পরিবারে বিয়ে করবে ... দুসম্পর্কের এক আত্তীয় বিয়ে করবে দেখে পাত্রী খুজছিল ..তার শর্ত ছিল তাকে ১০ লক্ষ টাকা ডিমান্ড/ যৌতুক দিতে হবে.. তাহলে মেয়ে যেমনি হোক দেখতে সে বিয়ে করতে রাজি.. এর কারণ জানতে চাওয়ায় তার উত্তর শুনে আমি 'থ' বনে গেছিলাম .. সে ১০ লক্ষ টাকা ঘুস দিয়ে একটি সরকারী চাকরি জুটিয়েছে.. সেজন্য জামাই যেহেতু সরকারী চাকুরিজীবি শশুর এই টাকা আদর করে দিতেই পারে..

এখনকার অনেক মুরুব্বিই সন্তান সম্ভোবা নারীকে এই দোয়াই করে থাকেন..'দোআ করি তুমি ছেলে সন্তানের মা হও  ' .. আমি কৌতুহল বশত একদিন আমার নানী শাশুড়িকে জিগ্যেস করে ফেললাম, 'আচ্ছা নানী এই দোআ কেন করা হয়? মেয়ে সন্তান কি খারাপ..?' নানী বলেছিলেন..''বুবু ছেলে হলে তো ভালো, ছেলেও থাকলো..বউ আসলো, ছেলের বিয়েতে খরচ কম...'   আমি বলি বাহ্ what  a concept ! 

এক আত্তীয় পাত্রী খুজতেছে .. তার শর্ত হলো সে নারায়ণগঞ্জের মেয়ে বিয়ে করবে.. আমি তো অবাক! এত জায়গা থাকতে নারায়নগঞ্জ কেন? তার সদুত্তর >> কিছুদিন আগে সে তার এক বন্ধুর বিয়ে খেয়ে এসেছে.. তো সেই বন্ধুর বাড়িতে নাকি শশুর বাড়ি থেকে দুই দিন পর পর এটা সেটা (টিভি , সি, ইত্যাদি ইত্যাদি ) পাঠায় ... সেই জন্য তার এই শখ..   

*যৌতুক*

★ছায়াবতী★: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আজকাল মানুষের দৃষ্টিভংগি এমন যে মেয়ে ০ স্লিমনাহথেকে শুরু করে ছোকরা এমনকি বিয়ের বাজারে মহিলারকাআন্টিরাও ঐ স্লিমের পুজারি। তারা সৌন্দর্য শব্দটি খুঁজে গলার হাড়ের ভেতর।

গলার হাড় দেখাতে গিয়ে ত অল্প বয়সে হাড় ক্ষয়, গর্ভধারণ ক্ষমতা হ্রাস,অপুষ্ট সন্তান জন্মদান ইত্যাদির মত সমস্যার জন্ম দেয়। এগুলো মিডিয়ার নির্মাণ । ফর্সা নাহলে নাকি চাকরি হবেনা,বিয়ে হবেনা। ফেয়ার এন্ড লাভলী মেখে নাকি যৌতুক বন্ধ হয়ে যায়।
(ঘৃণা)(বেইলনাই)(চিন্তাকরি)(মানিনা)
এসব নির্মান অসুস্থ্য মানসিকতার পরিচয় দেয় খুব বাজে এক ধরনের হতাশা ক্রিয়েট করে। সবাই ব্যাহ্যিক দিক নিয়ে মেতে আছে কেউ ভেতরের মনুষ্যত্ব কে দেখার প্রয়োজন মনে করেনা। কোন মানুষই স্বয়ংসম্পূর্ণ নয়।

<'মোটা-চিকনের অসুস্থতা' থেকে একবিংশ শতাব্দীর লোকেরা একসময় বেরিয়ে আসবে, এটা স্রেফ একটি কামনা মাত্র !!! নীচের লাইন তিনটা কালেক্টেড >
*ডিসকোর্স* *শুভবিবাহ* *যৌতুক* *স্বয়ংসসম্পূর্ণ* *সুশীলসমাজ* *নীতিকথা* *সেরামবচন* *সচেতনতা* *নৈতিকতা* *সভ্যতা* *দৃষ্টিভঙ্গি* *লোককথা* *পাছেলোকেকিছুবলে* *কুসংস্কার*
জোকস

হাফিজ উল্লাহ: একটি জোকস পোস্ট করেছে

প্রথম বন্ধু: দোস্ত বিরাট সমস্যায় পড়েছি। কি করব বুঝতে পারছি না। দ্বিতীয় বন্ধু: কেন কি হয়েছে? প্রথম বন্ধু: আর বলিস না বউ কোন কাজ করতে চায় না, খালি খাওয়া-ঘুম আর কেনাকাটা নিয়েই ব্যস্ত। আমার জান শেষ্ দ্বিতীয় বন্ধু: বিয়ের সময় যৌতুক নিয়েছিলি? প্রথম বন্ধু: আরে না, আমার জন্য কিছু নিই নি। শুধু বউয়ের জন্য সামান্য গয়না আর তার স্বামীর জন্য একটা মোটর সাইকেল ও ব্যবসার জন্য লাখ দশেক টাকা নিয়েছি।
*যৌতুক*

মনুষ্য: [বাঘমামা-ওস্তাদমানুষ]

*যৌতুক*

মোহাম্মাদ নাছিম: *যৌতুক* জানেন তো মেয়ে দিলে হয় যৌতুক আর ছেলেরা দিলে হয় কৌতুক.........।।

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★