রাষ্ট্র

রাষ্ট্র নিয়ে কি ভাবছো?

বিম্ববতী: কি চমৎকার দেখা গেলো,,, "এমন একটা ফ্যাসিষ্ট রাজনৈতিক সংস্কৃতি ও মেরুদণ্ডহীন রাষ্ট্র কাঠামো এবং ঞ্জানপাপী পঙ্গু সমাজ ব্যবস্থার মধ্যদিয়ে আমরা যাচ্ছি যেখানে মানবিক মূল্যবোধের অবক্ষয় হতে হতে সমাজটা একটা পঁচা মস্তিস্কের ডাষ্টবিনে পরিণত হচ্ছে। আজকের ঘটনাটা আমি কোনভাবেই মেলাতে পারছিনা। গেলাম সুন্দরবন রক্ষার মিছিলে আর পুলিশ আমাদের সহযোদ্ধাদের আটক করলো জঙ্গী অজুহাতে ((সাথে ছাত্রলীগের কয়েক দফা উপর্যুপরি হামলা তো আছেই)),," https://goo.gl/QYKLTr

*সুন্দরবন-বাঁচাও* *সুন্দরবন* *ফ্যাসিজম* *রাষ্ট্র* *রাষ্ট্র-ব্যবস্থা* *অপ-রাজনীতি* *সমাজ-ব্যবস্থা* *মূর্খ* *নষ্ট* *পঁচা*

বিম্ববতী: বর্তমান *পরিস্থিতি*'র ফলাফল সবাই জানি. এর জন্য প্রখর দূরদর্শিতার প্রয়োজন হয়না. বরং চিন্তাশক্তিকে মুক্ত করে সমস্যার সমাধানের জের টানতে হবে. আর তার একমাত্র সমাধান গণ জন জাগরণ.উহু কথায় নয়! সময় এসেছে রাষ্ট্র থেকে শুরু করে প্রতিটা ব্যক্তি মানুষের ব্যক্তিগত স্বার্থ ছেড়ে এক ই পথে নামার. আর তা ব্যাক্তিস্বার্থেই দাঁড়াতে হবে. রাষ্ট্রকেও এসে নামতে হবে এক ই ছায়াতলে প্রখর রৌদ্রে রাষ্ট্রের স্বার্থেই. সময়টা বড্ড প্রয়োজনের হয়ে দাঁড়িয়েছে- নিজ অস্ত্বিত্বের দাবিতে!

*রাষ্ট্র* *ব্যক্তি* *ব্যক্তি-স্বার্থ* *প্রতিবাদ* *সময়* *অস্তিত্ব*

বিম্ববতী: একটি বেশব্লগ লিখেছে

কিছুতেই কোথাও মন বসাতে পারছি না,,,কিছুতেই নাহ,,,,অস্ত্রের মুখে যে ছিল সে আমার অতিথি,,বন্ধু,,,আমার স্বজন,,,আর অস্ত্র যে ধরে রেখেছিলো সে কিছুদিন আগেও আমার কষ্টে বুক ভাসিয়েছিল,,,আমার বন্ধু আমার ভাই আমার সন্তান,,,,কিসের ক্ষোভকে পুঞ্জীভূত করলে এতটা মানুষহীন হওয়া যায়,,,???,,কতটা মানসিক অস্থিরতা থাকলে নিজের ব্রেইনটা এভাবে ওয়াশ করতে দেয়া যায়????,,,,আমি বুঝিনা,,,জানিনা,,,রাস্তায় যখন নামছি মাথা আপনি আপনি হেট হয়ে যাচ্ছে,,,কার কাছে? কেন? জানিনা,,,নিজের ভিতর কিসের অস্তিত্ব যেন মৃদু কেঁপে কেঁপে উঠছে,,,বুকের গভীরে নীরবে কাকে লালন করছি আমি,,,হু??,,,,এই নষ্ট ব্যবস্থা আমাদের বুকের গভীরে কেমন ক্ষত  যুগের পর যুগ ধরে সৃষ্টি করলে আমরা এতো হিংস্র হয়ে উঠতে পারি,,,?,,,আমরা কি?,,,,অস্ত্র যারা ধরে রেখেছে সেকি আমরা নই???,,,,,হিংস্রতাকে অন্যায়ভাবে কাজে লাগাতে কেন দ্বিধা করছি না???,,,,,অস্ত্র চালিয়ে দিচ্ছি ভাই বোন বন্ধুর  বুকে কি নির্দ্বিধায়!!,,,,যে অস্ত্র একদিন গর্জে উঠতো অন্যায়ের বিরুদ্ধে ন্যায়সঙ্গতভাবে,,,,!!,,

"যে পিতা সন্তানের লাশ সনাক্ত করতে ভয় পায় 
আমি তাকে ঘৃণা করি- 
যে ভাই এখনও নির্লজ্জ স্বাভাবিক হয়ে আছে 
আমি তাকে ঘৃণা করি- 
যে শিক্ষক বুদ্ধিজীবী কবি ও কেরাণী 
প্রকাশ্য পথে এই হত্যার প্রতিশোধ চায় না 
আমি তাকে ঘৃণা করি-" 

কোন হত্যার প্রতিশোধ?,,,,আমাদের ভিতরের মানবিকতা হত্যার প্রতিশোধ নেবো না?,,,,,,,(বৃষ্টি),,,

"কিসের নেশায় কেমন করে মরছে যে বীর লাখে লাখে!",,,কে বীর আর কে বীর না?,,,,(বৃষ্টি),,,,,,

কে অন্যায় করছে আর কে অপ-ব্যবহৃত হচ্ছে???,,,,,,(বৃষ্টি),,,,

এমন দুর্দিনেও কেন আমরা একতাবদ্ধ হতে পারছি না,,? ,,,,,,,,,,,,,(বৃষ্টি),,,,,,,,

যে পুলিশ অভিযানে মারা গেছে সে ভালো না খারাপ সে তর্ক এখন কেন? এখন তো সে শহীদ হয়েছে! যখন অন্যায় করেছিল তখন তো দিব্যি পদে বহাল রেখে অপকর্ম করতে দেয়া হয়েছিল! এইসব তর্ক কিসের ইঙ্গিত করে? হত্যার জাস্টিফিকেশন?,,,,(বৃষ্টি),,,,

কে সূরা পড়তে পেরে বের হয়ে এলো এইসব সংবাদের পিছনের সত্য কি?,,মানুষের মানসিকতায় কি বীজ বপন করতে চাইছে এরা নীরবে? কে এই আসল সন্ত্রাস?,,,যখন সরকারি উচ্চ পদে থেকে নির্দ্বিধায় বলে ফেলেন- ধর্ম নিয়ে কিছু বলে যদি কেউ হত্যা হয় সে দায়ভার আমরা নেবো নাহ!!!,,,কি ব্যবস্থাকে নীরবে অঙ্কুরোদ্গম করছে তারা??,,,,,,,(বৃষ্টি),,,

"আটজন মৃতদেহ 
চেতনার পথ জুড়ে শুয়ে আছে 
আমি অপ্রকৃতিস্থ হয়ে যাচ্ছি 
আট জোড়া খোলা চোখ আমাকে ঘুমের মধ্যে দেখে 
আমি চীৎকার করে উঠি 
আমাকে তারা ডাকছে অবেলায় উদ্যানে সকল সময় 
আমি উন্মাদ হয়ে যাব 
আত্মহ্ত্যা করব 
যা ইচ্ছা চায় তাই করব।"

নবারুণের মতো চিৎকার করে বলতে ইচ্ছে করছে-

"এই মৃত্যু উপত্যকা আমার দেশ না 
এই জল্লাদের উল্লাসমঞ্চ আমার দেশ না 
এই বিস্তীর্ণ শ্মশান আমার দেশ না 
এই রক্তস্নাত কসাইখানা আমার দেশ না"

এই নষ্ট দুর্গন্ধ পঁচে যাওয়া দগদগে ক্ষত আমার শরীর না-
আমার পৃথিবী না,,,,,,,,,(বৃষ্টি),,,,মানি না,,,,,,(বৃষ্টি),,,,,,,,,,

"আমি আমার দেশকে ফিরে কেড়ে নেব 
বুকের মধ্যে টেনে নেব কুয়াশায় ভেজা কাশ বিকেল ও ভাসান 
সমস্ত শরীর ঘিরে জোনাকি না পাহাড়ে পাহাড়ে জুম 
অগণিত হৃদয় শস্য, রূপকথা ফুল নারী নদী 
প্রতিটি শহীদের নামে এক একটি তারকার নাম দেব ইচ্ছে মতো 
ডেকে নেব টলমলে হাওয়া রৌদ্রের ছায়ায় মাছের চোখের মত দীঘি 
ভালোবাসা-যার থেকে আলোকবর্ষ দুরে জন্মাবধি অচ্ছুৎ হয়ে আছি- 
তাকেও ডেকে নেব কাছে বিপ্লবের উৎসবের দিন।"

,,,,পারছি না,,,,,পারছি না,,,,বুকের মধ্যে কুয়াশায় ভেজা কিছুই টেনে নিতে পারছি না,,,,পা দুটো বড্ড টলে যাচ্ছে বারবার,,,,প্রতিবার,,,,,,মৌলিক প্রশ্নরা এসে পথ রুদ্ধ করে,,,,কোথায় দাঁড়াবো আমি???,,,আমরা??????,,,,(বৃষ্টি),,,,,,(বৃষ্টি),,,,,,,,,,,,,,,,,,,,(বৃষ্টি),,,,,,

*আমি* *আমরা* *মানুষ* *সমাজ* *রাষ্ট্র* *সমাজ-ব্যবস্থা* *তরুণ* *তারুণ্য* *হত্যা* *জঙ্গি* *বন্ধু* *ক্ষত* *হিংস্রতা* *অন্যায়*
ছবি

বিম্ববতী: ফটো পোস্ট করেছে

কিসের তাড়নায় এরা মানুষ এইভাবে খুন করার অধর্ম নেশায় মত্ত হলো,,??,,,

এর দায় ভার কি রাষ্ট্র থেকে শুরু করে আমরা প্রতিটা সমাজধারী মানুষ অস্বীকার করতে পারি???,,,, http://www.dhakatimes24.com/2016/07/03/118826 http://www.somoyerkonthosor.com/2016/07/03/9799.htm

*অধর্ম* *দায়ভার* *রাষ্ট্র* *তরুণ-সমাজ* *তরুণ* *সমাজ* *জঙ্গি* *হত্যা* *ব্যর্থতা*

বিম্ববতী: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আমার মায়ের সোনার নোলক হারিয়ে গেল শেষে
হেথায় খুঁজি হোথায় খুঁজি সারা বাংলাদেশে।
নদীর কাছে গিয়েছিলাম, আছে তোমার কাছে ?
-হাত দিওনা আমার শরীর ভরা বোয়াল মাছে।
বললো কেঁদে তিতাস নদী হরিণবেড়ের বাঁকে
শাদা পালক বকরা যেথায় পাখ ছড়িয়ে থাকে।
জল ছাড়িয়ে দল হারিয়ে গেলাম বনের দিক
সবুজ বনের হরিণ টিয়ে করে রে ঝিকমিক।
বনের কাছে এই মিনতি, ফিরিয়ে দেবে ভাই,
আমার মায়ের গয়না নিয়ে ঘরকে যেতে চাই।

নোলক আবহমান বাঙালী মায়েদের নাকের অলংকার হলেও এ শুধু তার অর্থগত আর সৌন্দর্যের কারণেই গুরুত্বপূর্ণ না, গুরুত্বপুর্ণ আরো বড় কারণে। কবি আল মাহমুদ এখানে আক্ষরিক অর্থের নোলক খোঁজেননি, খুঁজেছেন এর ঐতিহ্য এবং ঐশ্বর্যকে।

আমরা আমাদের সংস্কৃতি থেকে ক্রমান্বয়ে দূরে সরে যাচ্ছি, দূরে আমরা ইচ্ছে করে যাচ্ছি না-সরাচ্ছে পরিস্থিতি। সেই পরিস্থিতির দায়িত্ব রাষ্ট্রের। রাষ্ট্র পারছে না আমাদের সংস্কৃতি রক্ষা করতে। পারছে না প্রাত্যহিক জীবনে এর প্রয়োজনীয়তা নিশ্চিত করতে। বরং তার অগণতান্ত্রিক মানসিকতার প্রকাশ আমরা পাই যখন দেখি দেশের সর্বোচ্চ আদালত থেকে রায় দেয় মোবাইলে রিংটোন কি হবে সে বিষয়ে। তারা কেন জানবে না যে জোর করে বা আইন করে সংস্কৃতির চর্চা হয় না! ইংলিশ মিডিয়ামে পড়া ব্যক্তির কোন ভাষার গান ভালো লাগবে সেটা বোঝাই যায়। রুটি-রোজগারের প্রয়োজন মেটাতে বাংলার চাইতে ইংরেজিই ব্যক্তিকে বেশি সমর্থন দেয়, আমি ইংরেজি-নির্ভর হবো না কেন? পুরো পদ্ধতিটাই হয়ে পড়েছে গোলমেলে। আমি গরুকে ঘাস খাওয়াতে পারব না, খাওয়াতে পারব পানি; কিন্তু গরুর কাছে চাইব দুধ! তা কী করে হয়। সমস্যার মূলে না গেলে সমস্যার সমাধান করতে যে যাবে আল্টিমেটলি সমস্যা বাড়ানোর ক্ষেত্রে সে-ই অবদান রেখে আসবে । এতে সংস্কৃতির অবস্থা এবং রাষ্ট্রের সর্বশেষ শক্তি প্রয়োগও দেখা যায়। এগুলো সবই আমাদের সংস্কৃতির করুণ পরিস্থিতিরই ইঙ্গিত দেয়। 

আল মাহমুদের ‘নোলক’ কবিতায় যে বাংলাদেশ আমরা দেখতে পাই তাকেই যেন হারিয়ে খোঁজার সময় এখন। খুঁজতে হবে আমাদের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য এবং প্রাকৃতিক ঐশ্বর্যকে। খুঁজতে হবে সেই মূল্যবোধকে। এবং তা খুঁজে না পাওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে স্বস্তি হবে না। আল মাহমুদের ‘নোলক’ কবিতাটি পড়লে বারবার এই সত্যেরই উপলব্ধি হয়। বাস্তবতাও এই কবিতাটি বারবার মনে করিয়ে দেয়। 

কোথায় পাবো তোমার মায়ের হারিয়ে যাওয়া ধন
আমরা তো সব পাখপাখালি বনের সাধারণ।
সবুজ চুলে ফুল পিন্দেছি নোলক পরি নাতো !
ফুলের গন্ধ চাও যদি নাও, হাত পাতো হাত পাতো
বলে পাহাড় দেখায় তাহার আহার ভরা বুক
হাজার হরিণ পাতার ফাঁকে বাঁকিয়ে রাখে মুখ।
এলিয়ে খোঁপা রাত্রি এলেন, ফের বাড়ালাম পা
আমার মায়ের গয়না ছাড়া ঘরকে যাবো না।,,,,,,,,,(বৃষ্টি),,,,,
,,,,,,,,,,,(বৃষ্টি),,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,(বৃষ্টি),,,,,

----------------------------- কৃতজ্ঞতা: সাংবাদিক জুননু রাইন
পুরো লেখা পাবেন: http://arts.bdnews24.com/?p=6780 
*মা* *সংস্কৃতি* *ভাষা* *রাষ্ট্র* *কবিতা* *আল-মাহমুদ*
খবর

বিম্ববতী খবরটি শেয়ার করেছে
""আমরা লক্ষ্য না করতে পারি যে ধীরে ধীরে আমলা-পুলিশ নির্ভর এক অদ্ভুত দৈত্য রাষ্ট্র বানিয়ে ফেলা হয়ে গেছে।",,,,আসুন সব খেলা দেখতে ই থাকি শুধু,,ক্রিকেট থেকে শুরু করে রাজনৈতিক খেলা,,খেলে যাও খেলারাম,,,হাঃ হাঃ হাঃ ,,,,,"

মাশরাফির অনায়াস আলাপ আর প্রপাগান্ডা-সংস্কৃতি
http://www.banglatribune.com/columns/opinion/75579/%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%B6%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%AB%E0%A6%BF%E0%A6%B0-%E0%A6%85%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A7%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B8-%E0%A6%86%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%AA-%E0%A6%86%E0%A6%B0-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%AA%E0%A6%BE%E0%A6%97%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A1%E0%A6%BE-%E0%A6%B8%E0%A6%82%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%95%E0%A7%83%E0%A6%A4%E0%A6%BF
মাশরাফি বিন মর্তুজাকে ক্রিকেটার হিসেবে পছন্দ করতে শুরু করার আগেই আমি তাঁর অনায়াস ভঙ্গির একজন গুণগ্রাহী হয়ে পড়েছিলাম। মাঠে তাঁর হাঁটবার ভঙ্গি খোঁচা-খোঁচা দাড়ি পুরস্কার নিতে যাওয়ার সময়ের দেহভাষা মুখের হাসি এসবই আমার অতীব মনোহর লাগত। বলাই বাহুল্য এসবের দেখা মিলত টেলিভিশনেই। মাশরাফিকে... ...বিস্তারিত
*ক্রিকেট* *রাজনীতি* *মাশরাফি* *সংস্কৃতি* *রাষ্ট্র* *সরকার-ব্যবস্থা* *পুলিশ*
১৫৮ বার দেখা হয়েছে

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★