লাইক

সাদাত সাদ: বিভিন্ন পেজের কমেন্ট : কুড়ি ঘন্টা এক্টিভ থাকি যদি কেউ লাইক কমেন্ট চাও তাড়াতাড়ি এড করো, I am best liker (মাইরালা) প্রশ্ন : মামা তুই ঘুমাস কখন? :-: মেসেজ : Please like my photo and status (হিহিহি) প্রশ্ন : ভিক্ষুক তুই লাইক দিয়ে কি করবি? :': আচ্ছা আমরা কবে নিজেদের এই বাজে মনমানসিকতার পরিবর্তন করব? লেখা কিংবা সোস্যাল নেটওয়ার্ক এর কার্যকলাপ যদি ভালো হয় তবে মানুষ এমনিতেই লাইক কমেন্ট করবে, এই যুদ্ধের দরকার কি? .

*ফেসবুকরঙ্গ* *লাইক* *সোস্যাল* *কমেন্ট*
ছবি

MYandroidBD.com: ফটো পোস্ট করেছে

হাজার হাজার লাইক সম্পূর্ণ ফ্রিতে! Read more at: http://myandroidbd.com/facebook-page-like-free

*লাইক* *ফেইসবুক*

মোজাহিদুল ইসলাম মিফতাহ: একটি টিপস পোস্ট করেছে

খুব সহজেই আপনার ফেইসবুক পেজ এর লাইক ১ লক্ষ+ করুন! ভিডিও সহ - MYandroidBD
http://myandroidbd.com/facebook-likes
*ফেইসবুক* *লাইক* ...বিস্তারিত
*ফেইসবুক* *লাইক*
২৯৫ বার দেখা হয়েছে

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

নর্মাল স্ট্যাটাসের চেয়ে মানুষের মারা যাওয়ার খবর সংক্রান্ত স্ট্যাটাসে লাইক বেশি পড়ে।
কারণ ডিসলাইক দেওয়ার তো কোনো অপসন নেই
*ফেইসবুক* *লাইক* *ডিসলাইক*

দস্যু বনহুর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ফেবু’র বদৌলতে আমরা সবাই এখন একটি টেকনো সোসাইটির বাসিন্দা। সকাল বিকাল অন্যান্য সবকিছুর মত ফেবু আমাদের জীবনে অন্তরংগ বিষয়গুলির মধ্যে অন্যতম। কে কি করলো, কোথায় গেল, কি বললো, কি ভাবছে, নিজের প্রতিকৃতি… এসবই আমরা কিছুক্ষন পর পর আপডেট পাচ্ছি। ছোট বড় সব বিষয়ই চোখের সামনে মেলে ধরছে ফেবু তার স্ট্যাটাসে। এই জটিলেশ্বর পৃথিবীর কন্টকাকীর্ন সমাজে মুখোমুখি অন্তরঙ্গতা না থাকলেও আমরা প্রায়তই ফেবুর অন্তরালে নিজেদের সমাজকে নিজেদের ভাবনাগুলির সাথে মিলিয়ে একটা ভার্চুয়াল সমাজ ব্যাবস্থা দাড় করিয়ে ফেলেছি। ভাল এবং খারাপের সহাবস্থানে টেকনো এই সামাজিক বন্ধুতা আমাদের এক নতুন বন্ধনে আবদ্ধ করে রাখছে। যার ফলাফল বা উতসাহ হিসেবে উঠে আসছে লাইক বা কমেন্ট এর মত দায়বদ্ধতা। ফেবু মানেই পরিচিত অপরিচিত মানুষের সমাগম। অদৃশ্য, অষ্পষ্ট, সঠিক, বেঠিক, লুক্কায়িত, সংশোধিত এবং আদর্শিক মানুষদের প্রতিনিয়ত পদচারন। প্রতিটি মানুষের ভাব-ভাষা কিংবা ব্যাখ্যা আলাদা, নিয়ন্ত্রিত বা অনিয়ন্ত্রিত অথবা অনিয়মিত হলেও প্রকাশ হবার আগ্রহ প্রকাশিত হতে পারে তার রেগুলার স্ট্যাটাসে। আর ফেবু সেই প্রথাকে উত্থান করবার উদ্যেশ্যেই লাইক কিংবা কমেন্ট এর মত ব্যাবস্থা প্রচলিত রেখেছে। খুব সূক্ষভাবে বাদ দেয়া হয়েছে আনলাইক এর মত দৃষ্টিভংগী। মানুষ তার ভাবনাকে কখনই অপছন্দনীয় হিসেবে মানতে চায়না বরং এর চেয়ে কেউ যদি এড়িয়ে গিয়েও সেই ভাবনাকে সংক্রমিত হবার সুযোগ করে দেয় তারপরও তাতে কিছু আসে যাবেনা। আমি বরাবরই কোন স্ট্যাটাস দেবার চাইতে অন্যের পরিস্থিতি পড়তেই বেশী পছন্দ করি, ভালো লাগলে লাইক প্রেস করি, ভাল না লাগলে এড়িয়ে যাই অথবা কদাচিত কারো ভুল ব্যাখ্যাতে কমেন্ট করে বা’হাত ঢুকিয়ে দেই লেখককে সচেতন করবার উদ্দেশ্যে (এজন্য আমি বেশ কয়েকজন ফেবু বন্ধু হারিয়েছি কিংবা আমার মত একজন বেরসিক, বেয়াদপ বন্ধুর প্রয়োজন নেই তাদের)। কমেন্ট করি কিছু কিছু ক্ষেত্রে। নিজের লেখার ক্ষেত্রে নিজেই লক্ষ্য করেছি, প্রচুর লাইক পেলে নিজেকে বেশ প্রফুল্ল লাগে তবে কমেন্ট পেলে বেশি ভালোলাগে। আর এই ব্যাপারে লক্ষও করছি যে লাইক দিলেই লাইক পাবার আশা করা যেতে পারে। যার স্ট্যাটাস কিংবা ছবিতে আপনি কখনও লাইক দেননা সে নিশ্চয়ই আপনার স্ট্যাটাসে আগ বাড়িয়ে লাইক দেবেনা বরং ভ্রুকুটি করবে! এটা ঠিক যে আমি না উতসাহ দিলে কেন অন্য কেউ আমাকে শুধু শুধু উতসাহ দেবার জন্য এগিয়ে আসবে! তবে ব্যাতিক্রম মানুষও আছে যারা অযথাই ঘুরে ঘুরে লাইক করছে, হয়ত এটা তার ভবিষ্যত পোষ্টের প্রচারনী আকাঙ্ক্ষা। কেউ কেউ আবার অতি উতসাহী! তারা তাদের লেখাতে পরিচিত মানুষদের লাইক না পেলেই হয়ত ফোন করে জিজ্ঞাসা করবে কেন লাইক দিলামনা! অযথাই বিরম্বনা। অনেকে প্রতিদিন বিভিন্ন স্টাইলে ছবি পোষ্ট করছে নিজের চেহারা, ভাবের সাইনবোর্ড-টাকে লাইক এর মিছিলে পর্যাপ্ততা যাচাই করার উদ্দেশ্যে। আবার কেউ অন্য কোন পোষ্টকে লাইক করবার জন্য সাজেশন পাঠায়। এ কি!! তুমি নিজেই লাইক কর, অন্যদের চাপাচাপি করার দরকার কি! কিংবা অনেকেই আছেন যারা ধর্ম বিষয়ক বিভিন্ন ছবি, উক্তি পাঠাচ্ছেন এবং উদ্দেশ্যমূলক ভাবে লাইক করতে বলছেন! দেখে মনে হবে হয়ত এটাতে লাইক না দিলে আমার ইহকাল পরকাল সব চুলোর ভেতর জ্বলজ্বল করবে, আমি ভষ্ম হয়ে যাবো। কেউ কেউ অতি উতসাহি, বিভিন্ন ন্যাচারাল ছবি পাঠাবে তো পাঠাক; আবার ট্যাগ করে দিবে আপনার প্রোফাইলে। আরেক যন্ত্রনা! এই দায়বদ্ধতার মধ্য দিয়ে কেন যেতে হবে? কেন আমি আমাকে নিরপেক্ষতার সাথে চুক্তিভংগ করে ফেবু টিকিয়ে রাখব? কেন আমি অন্যের প্ররোচনায় নিজের পছন্দকে নির্মমভাবে পদদলিত করব? কেনই বা আমি এরকম নির্দেশনায় অন্যকে বিরম্বনায় ফেলে দিবো? কেন আমার চেহারা আমার মন্তব্য অন্যদের জোড় করে ভাল লাগাতে হবে? আসলে মূল সমাজ ব্যাবস্থাটাও একইভাবে মানুষকে প্ররোচিত করছে বিভিন্ন সূত্রতে বিভিন্ন দ্বিধায় বিভিন্ন কর্মকান্ডে। আদৌ এভাবে মানুষকে এক অভিন্ন বূর্জয়া সমাজ ব্যবস্থাতে নিয়ে আসা সম্ভব নাকি উলটো সেই মানুষটাকে এভাবে, খুব সূক্ষভাবে ডিমোটিভেট বা ডিমোরালাইজড করা হচ্ছে! বাস্তবিক নয় এমন কিছুকেই মানুষ কেন আকড়ে ধরে বাচতে চাচ্ছে! কেন আমি পাশের ফ্ল্যাটের মানুষের খবর না রেখে তাকে না চিনে ফেবুতেই তার পছন্দ অপছন্দের শামিল হই! ফেবু কি আসলেই সমাজ ব্যাবস্থা পূনঃজাগ্রত করবার জন্য না সমাজ ব্যবস্থাকে ভেঙ্গে ফেলার জন্য তৈরি করা হয়েছে? নাকি আমরা সমগ্র ইউজার’রা দ্বিধাবিভক্ত! সচেতন নই বাস্তবিক নয় এমন সামাজিক অন্তরঙ্গতায়!
*ফেসবুক* *দায়বদ্ধতা* *সমাজ* *লাইক* *আনলাইক*

পাগলী: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

ভাবনার বাবাঃ তোর এত্ত বড় সাহস! সাধারন একজন ফেসবুকারের ছেলে হয়ে আমার মতো একজন সেলিব্রেটির মেয়েকে রিকুয়েস্ট পাঠাছ! তোর বাবা স্ট্যাটাস দিয়ে তো দুইটা লাইকও পেতো না!
অভিঃ চৌধুরী সাহেব!! আমি ফেসবুকারের ছেলে হতে পারি, কিন্তু আমিও একজন মানুষ! আমার মতো ফেসবুকারদের লাইকেই আপনি আজ সেলিব্রেটি হয়েছেন। মনে রাখবেন, এই আমিও একদিন সেলিব্রেটি হয়ে দেখিয়ে দিবো! সেদিন আপনি ও আপনার মেয়ে আমাকে রিকুয়েস্ট পাঠাবেন!! আমার স্ট্যাটাসে লাইক দিবেন। সেদিন আমি আপনার রিকুয়েস্ট একসেপ্ট করবো না।বাপ-মেয়ে দুজনকেই ফলোয়ার বানিয়ে রাখব!
*জোকস* *বেশটুন* *ফলোয়ার* *স্ট্যাটাস* *লাইক* *সেলিব্রেটি* *ফেসবুক*
জোকস

পাগলী: একটি জোকস পোস্ট করেছে

"তেত্রিশ মাস কাটল, কেউ কথা রাখেনি। শুরুর দিকেই এক 'অ্যাড মেহ' ফ্রেন্ড রিকোয়েট পাঠিয়ে বলেছিল, তাকে অ্যাড করে নিলে আমার প্রতিটা পোস্টে লাইক দেবে বিনিময়ে তার প্রতিটা আলতু-ফালতু স্ট্যাটাসে লাইক-কমেন্ট দিলাম। কিন্তু সেই অ্যাড মেহ প্রতিদানে কিছুই দিল না। তেত্রিশ মাস অপেক্ষায় আছি। লাইক বাবা ইনবক্স করে বলেছিল, আরেকটু ফেমাস তোকে আমি অটোলাইক অ্যাপসের সন্ধান দেব। (নিচেদেখ)
*জোকস* *প্যারোডিকবিতা* *ফেসবুক* *স্ট্যাটাস* *লাইক* *ফলোয়ার*
জোকস

পাগলী: একটি জোকস পোস্ট করেছে

জামাইঃ একটা জিনিস খেয়াল করলাম আব্বা। একটু চালাক না হইলে দুনিয়াতে টেকা খুব কঠিন। শ্বশুরঃ যেমন? জামাইঃ যেমন ধরেন, একই স্ট্যাটাস আপনি কষ্ট করে লেখে পাইলেন তিনটা লাইক,আর আমি আপনার লেখা কপি করে পাইলাম তিনশো লাইক! শ্বশুরঃ লেখা চুরি করে লাইক বেশী পাইলেই কি লেখক হওয়া যায় ?! জামাইঃ হে ! হে ! কেন যাবেনা? শ্বশুরঃ অতি চালাকের ভবিষ্যত কিন্তু ভালো হয় না! [দিন দুয়েক পর ... ] বৌঃ আমি যাবোনা। শ্বশুরঃ কি হইসেরে মা ?
*জোকস* *শ্বশুর* *বউ* *জামাই* *চালাক* *চুরি* *লেখা* *কপি* *লাইক*
জোকস

পাগলী: একটি জোকস পোস্ট করেছে

বিবাহিত ভাইয়ারা সাবধান। ভুলেও ফেসবুকে পুরোনো প্রেমিকার ছবিতে 'লাইক' দিবেন না। (খিকখিক)
*ফেসবুক* *বিবাহ* *প্রেমিকা* *লাইক*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★