লেবু

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 লেবু ও টকজাতীয় খাবার কি রক্ত পরিষ্কার করে?

উত্তর দাও (০ টি উত্তর আছে )

*লেবু* *টকজাতীয়খাবার* *রক্তপরিষ্কার*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

মধু নিয়ে মধুর কথা অনেক। তার চেয়েও বেশি প্রচলিত মধুর মধুরতর গুণের কথা। নিয়মিত মধু খেলে সৌন্দর্য বাড়ে এ কথা অনেকেই জানেন, মানেনও। তাই সকাল সকাল মধু মুখে দিলে শরীর, মনের জন্য ভালো বৈ মন্দ হবে না। জেনে রাখুন কেন সকালবেলা উঠেই মধুর শরণাপন্ন হবেন।

  • মধুতে বিদ্যমান শর্করা সরাসরি রক্তে প্রবেশ করে এবং তাৎক্ষণিকভাবে কাজ করে। তাই এটি রেডি এনার্জি হিসেবে কাজ করে। আধা গ্লাস হালকা গরম লেবুপানিতে এক চা-চামচ মধু ভোরবেলায় খালি পেটে পান করলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।
  • সকালে মধুমিশ্রিত পানি দিয়ে কুলি করলে মাড়ির প্রদাহ কমে। এ ছাড়া দাঁতের ক্ষয় রোধ হয়। হজমের গোলমালেও মধুর উপকারিতা আছে। এটি পাকস্থলীতে অ্যাসিডের ক্ষরণ কমায় বলে অরুচি, বমিভাব, বুক জ্বালা দূর হয়। মধু বিপাকজনিত তাপ উৎপাদন বাড়ায় বলে শীতকালে দেহের উষ্ণতা বাড়ায়।
  • রক্তস্বল্পতায় মধু বেশ কার্যকর ওষুধ। কেননা, এতে কপার, ম্যাঙ্গানিজ ও আয়রন রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে। এটা প্রমাণিত যে দেহের ক্ষত নিরাময়ে মধু চমৎকার কাজ করে।
  • তবে ওজন ওজন কমানোর বেলায় মধুর সরাসরি কোনো ভূমিকা নেই। তবে লেবু ও গরম পানির সাথে মধু মিশিয়ে খেলে পেটের মেদ কমে। মধু এবং লেবুতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো রাখতে সাহায্য করে। তাছাড়া অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল উপাদানে ভরপুর মধু ও লেবু ওজন কমাতেও বেশ কার্যকরী।
  • লেবু-মধু পানীয় বানানোর প্রণালী: এক গ্লাস হালকা বা কুসুম গরম পানি, অর্ধেক/২ চা চামচ লেবুর রস, এক চা চামচ মধু। গরম পানিতে লেবু ও মধু মিশিয়ে পান করুন লেবু-মধু পানীয়। আপনি চাইলে এর সাথে সবুজ চা (Green Tea) মেশাতে পারেন।
  • লেবু-মধু পানীয় লক্ষ্য রাখবেন: আগে পানি হালকা গরম করে, তারপর তাতে লেবু ও মধু মেশাবেন। মধু কখনই গরম করতে যাবেন না।

 

*মধু* *লেবু* *ওজন* *স্বাস্থ্যতথ্য* *লাইফস্টাইলটিপস* *হেলদিফুড*

Risingbd.com: লেবুর রস ত্বক ফর্সা করে না চাকতির মতো করে কাটা এক খণ্ড লেবু নিয়ে মুখমণ্ডলে...More-http://www.risingbd.com/%E0%A6%B2%E0%A7%87%E0%A6%AC%E0%A7%81%E0%A6%B0-%E0%A6%B0%E0%A6%B8-%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%AC%E0%A6%95-%E0%A6%AB%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%B8%E0%A6%BE-%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%A8%E0%A6%BE/159590

*হেলথটিপস* *রূপচর্চা* *লেবু* *আড্ডা*

ঝিঁঝিপোকা: একটি টিপস পোস্ট করেছে

~জেনে নিন লেবুর কিছু কার্যকারী উপকার ~
http://www.bd24live.com/bangla/article/35446/index.html
আশা করছি কাজে লাগবে... ...বিস্তারিত
*লেবু* *গৃহস্থালীটিপস*
২৩৮ বার দেখা হয়েছে

হাফিজ উল্লাহ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

সকাল সকাল হালকা গরম পানিতে লেবুর সরবত দিয়ে দিনটি শুরু করলে সেটি হয়ে উঠে অনেক স্বাস্থ্যকর। সেটি আমরা সবাই জানি। কিন্তু কী কী উপকার আসলে এই ছোট্ট লেবুতে আছে তা অনেকেই জানে না। এর একটি ভালো আয়্যুরভেদিক গুনও রয়েছে। আসুন জেনে নিই এই সরবতের কী কী  গুণাগুন রয়েছে।

১. এই সরবতটি শুধুমাত্র Human gastrointestinal tract কেই উদ্দিপ্ত করে না, এই সরবত যকৃত পরিষ্কার রাখে এবং এর কার্যক্ষমতা বাড়ায়। তাছাড়া এটি পাচক ও হজম সহায়ক এসিড তৈরি করে খাবার হজম ও বর্জনে সাহায্য করে।

২. সাইট্রাস বা টক জাতীয় ফল যেমন লেবুতে অনেক বেশি পরিমাণ ভিটামিন সি এবং এস্করবিক এসিড থাকে। ভিটামিন সি ঠাণ্ডা জ্বর থেকে রক্ষা করে দেহকে এবং এস্করবিক এসিড আয়রন শোষণে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে যা দেহের রোগ প্রতিরোধের অংশ।

৩. আপনার শরীরে্র যদি পিএইচ এর মাত্রা যদি ঠিক না থাকে তবে অনেক রকম অসুখ হতে পারে। যদিও লেবু এসিডিক তথাপি এটি দেহের মধ্যে ক্ষারীয় ভাব আনে এবং শরীর এর পি.এইচ এর মাত্রা ঠিক রাখে।

৩. লেবু পানি একটি  প্রাকৃতিক মূত্রবর্ধক। অর্থাৎ এটি আপনার শরীরকে পরিষ্কার করে এবং সেই সাথে বিষক্রিয়া জাতীয় পদার্থ শরীর থেকে বের করে দেয়। সাইট্রিক এসিড গুলো লিভারের জন্য প্রয়োজনীয় এনজাইম গুলো বৃদ্ধি করতে সহায়ক ভুমিকা পালন করে।

৪. অনেকেই নিজের সকালের কফি বা চা ছাড়তে দ্বিধা বোধ করেন, কিন্তু অনেকেই খুব সহজে কয়েকদিন লেবু পানি পান করে এই মারাত্মক অভ্যাসটা ছেড়ে দিতে পারেন। লেবু এবং পানির এই মিশ্রণটা পরিশুদ্ধ ও অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত তৈরি করে। যার ফলে সারাটি দিন অনেক ফুরফুরে এবং সতেজ লাগে।

৫. যাদের মধ্যে পানি শুন্যতার সমস্যা রয়েছে তাদের দেহের চামড়া অনেক রুক্ষ হয়ে থাকে এবং ফাটা ফাটা দেখা যায়। তারা তাদের দিনের শুরুটা করুন ১ গ্লাস হালকা গরম পানি, মধু এবং লেবুর সরবত দিয়ে, ভিটামিন সি চামড়া সুন্দর ও মসৃণ রাখতে সাহায্য করে এবং এন্টিওক্সিডেন্ট বুড়িয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করবে আপনাকে।

৬. যাদের বাতের/ হাঁটুতে ব্যথা আছে বা প্রদাহ/ফুলে যায় তাদের জন্য এই সরবত উপকারী। কারণ লেবু পানি ইউরিক এসিড কমিয়ে বা দূর করে দেয় ফলে ব্যথা কম হয়ে যায়।

৭. লেবু পানিতে বেশ পরিমাণ পেক্টিন জাতীয় আঁশ আছে যা কলোন এর জন্য ভালো এবং এটি অনুজীব প্রতিহত করে।

৮. লেবু পানি সাথে সাথেই শক্তি সঞ্চয় করতে পারে। কখনো শরীর দুর্বল মনে হলে বা মাথা ঘুরালে সে সময় ১ গ্লাস লেবু সরবত মেডিসিনের মত কাজ করে এবং দেহে চনমনে ভাব চলে আসবে, কারণ এতে রয়েছে পটাশিয়াম যা মস্তিষ্কের নার্ভকে উদ্দিপ্ত করে।

৯. মাইগ্রেনের সমস্যায় এটি অনেক উপকারী। মাইগ্রেনের ব্যথার সময় লেবুর সরবত খেলে লেবু ও চিনি ব্রেইনের নার্ভকে আরাম দেয় এবং ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।

১০. সকালে খালি পেটে ১ গ্লাস হালকা গরম লেবু পানি ওজন কমাতে সাহয্য করে।

লেবুর অনেক গুলো গুন জেনে নিলেন, এবার সকালটা শুরু করুন ১ গ্লাস লেবুর সরবত দিয়ে আর হয়ে উঠুন সতেজ ও চনমনে।

মূল: ফারিয়া ইসলাম, www.bdsob.com 

ছবিঃ এইচডিওয়ালপেপারস.ইউএস

 

*লেবু* *সরবত* *হেলথটিপস*
ছবি

হাফিজ উল্লাহ: ফটো পোস্ট করেছে

পরী: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বহু গুণের লেবু মূলত খাওয়ার কাজেই ব্যবহার করি আমরা। লেবুর শরবত থেকে শুরু করে হরেক রকমের রান্নায় ব্যবহার করা হয় লেবু, আর ভাতের পাতে এক টুকরো লেবুর তো কোন তুলনাই হয় না। চলুন, এই রান্না-বান্না ও খাওয়া-দাওয়ার ক্ষেত্রেই আজ জেনে নিই লেবুর এমন কিছু ব্যবহার, যা হয়তো আপনি জানেন না। যেমন ধরুন, ফ্রিজে রাখা পুরনো মাছের গন্ধ দূর করতে কিংবা ভাত ধবধবে সাদা করতে যে লেবু ভীষণ কার্যকর, সেটা কি আপনি জানেন? ১) সকাল বেলা খালি পেটে ১ কাপ উষ্ণ পানি নিন, সাথে যোগ করুন ১ টেবিল চামচ মধু ও ১ চা চামচ পাকা লেবুর রস। এই মিশ্রণটি রোজ সকালে পান করুন। এটা আপনার মেটাবোলিজম উন্নত করে, ফলে হজম ক্ষমতা বাড়ে ও ওজন কমাতে সহায়ক হয়। বৃদ্ধি করে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। ২) মাছ ধোয়ার সময় বারবার লবণ দিয়ে কচলেও পিচ্ছিল ভাব দূর করতে পারছেন না? সাথে যোগ করে নিন সামান্য লেবুর রস, পিচ্ছিল ভাব গায়েব হয়ে যাবে। ৩) দেশি মুরগী বা গরুর মাংস সিদ্ধ হতে সমস্যা? রান্না করার আগে লেবুর রস দিয়ে মাখিয়ে রাখুন আধা ঘণ্টা। সুন্দর সিদ্ধ হয়ে যাবে। ৪) আপেল বা অন্যান্য ফল কেটে রাখলে লালচে হয়ে যায়? সামান্য লেবুর রস মেখে রাখুন বা লেবুর রস মেশানো পানিতে ডুবিয়ে রাখুন। আর লালচে হবে না। ৫) রান্না ঘরের বাজে দুর্গন্ধ দূর করতে পারেন না কিছুতেই? একটি হাঁড়িতে লেবুর খোসা ও দারুচিনি নিয়ে জ্বাল দিন। কিছুক্ষণের মাঝেই ভ্যাপসা গন্ধ দূর হয়ে চমৎকার সৌরভে ভরে যাবে ঘর। ৬) ঘরে ভ্যানিলা এসেন্স নেই? লেবুর খোসা ভেজিটেবল পিলার দিয়ে ছিলে নিন। তারপর সামান্য একটু খোঁজা মিহি কুচি করে কেক বা বিস্কিটে দিয়ে দিন। অসাধারণ ফ্লেভার হবে। ৭) খাসির মাংস রান্নার পর বিচ্ছিরি গন্ধ মনে হয়? রান্নার শেষ দিকে সামান্য একটু লেবুর রস দিয়ে চুলা নিভিয়ে দিন। সুন্দর ফ্লেভার হবে। ৮) ছোট মাছের চচ্চড়ি রান্না করছেন? পিল করে লেবুর খোসা মাছের ওপরে বিছিয়ে দিন, তারপর ঢাকনা দিয়ে চুলা নিভিয়ে দিন। খোসা গুলো ফেলে দিয়ে পরিবেশন করুন। অসাধারণ গন্ধে মাতোয়ারা হবেন। ৯) ধবধবে সাদা ভাত চাই? ভাত রান্নার শেষ দিকে যোগ করুন কিছু লেবুর রস। ধবধবে সাদা ভাত তো হবেই, ফ্লেভারও আসবে অসাধারণ। বিভাগ:
*লেবু* *হেলদিফুড*

হাফিজ উল্লাহ: একটি টিপস পোস্ট করেছে

দিনের শুরুতে লেবুর উপকারিতা
http://bangla.bdnews24.com/lifestyle/article886177.bdnews
তৃষ্ণা মেটাতে লেবুর শরবতের ‍তুলনা নেই। তবে ঘুম থেকে উঠেই কুসুম গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে খাওয়ার অভ্যাস স্বাস্থ্যের জন্য আশীর্বাদ স্বরূপ। একটি স্বাস্থবিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে সকালের ঘুম থেকে উঠে লেবুপানি খাওয়ার উপকারিতাগুলো উল্লেখ করা হয়। হজমে সাহায্য করে দিনের শুরুতে কুসুম গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে খেলে হজম প্রক্রিয়ায় সহায়তা করে। অন্যদিকে লেবু পাকস্থলি পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে আর বর্জ্য নিষ্কাশনে সহায়তা করে। রোগ প্রতিরোধ সিট্রাস গোত্রের ফল যেমন লেবু, বাতাবি লেবু বা কমলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি এবং অসকর্বিক অ্যাসিড। ভিটামিন সি ঠাণ্ডাজনিত রোগ থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে এবং অসকর্বিক অ্যাসিড শরীরে আয়রন গ্রহণে সহায়তা করে। ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। ক্ষারের সমন্বয় শরীরে হাইড্রোজেনের পরিমাণের উপর অনেকাংশে সুস্থতা নির্ভর করে। সর্বমোট পিএইচ বা পাওয়ার অফ হাইড্রোজেন স্কেল হল ১ থেকে ১৪। মানবদেহে ৭ মাত্রার পিএইচ থাকা স্বাভাবিক। এর থেকে কম বা বেশি হলে শরীরে রোগের বিস্তার হতে পারে। অ্যাসিডিক বা ক্ষারীয় ফল হলেও লেবু মানবদেহে পিএইচ’য়ের মাত্রা সমন্বয় করতে সাহায্য করে। বিশেষ করে যারা বেশি মাংস, পনির বা অ্যালকোহল গ্রহণ করেন তাদের জন্য লেবু সবচেয়ে বেশি উপকারী। ...বিস্তারিত
*হেলথটিপস* *লেবু*
৮৩৪ বার দেখা হয়েছে

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★