শরৎকাল

শরৎকাল নিয়ে কি ভাবছো?

মেঘবালক: ________ আকাশে জুড়ে মেঘের বাড়ী যাচ্ছে উড়ে কই, আমায় ফেলে একা একা যাসনে সখী ওই। দিনের শেষে সন্ধ্যা হলে কইবো কথা কিছু, চললি কোথা আমায় ছেড়ে ছাড়বোনা তোর পিছু।

*ছড়া* *শরৎকাল*

মাহবুব ইসলাম রাসেল: *শরৎকাল* শরৎ এর নীল আকাশ আমায় মুগ্ধ করে। মনে বড় ইচ্ছে জাগে তার হাত ধরে হাত ধরে ঘুরে বেড়ায় নীল আকাশের নিচে।♥

জল: *শরৎকাল* মানেই কাশফুল । কাশফুল মানেই বিশাল বিশাল ধানক্ষেত (হার্ট)

জাফর পাঠান: *শরৎকাল*

দীপ্তি: বেশি ভালো ভালো (না) কথায় আছে লেবু বেশি কষলে তিতা হয়ে যায় (বমি) বর্ষাকাল (বৃষ্টি) তুমি এবার রক্ষে দাও (প্লিইইজ) পালাও পালাও (ভাগোওওও) এত ভালবাসি তোমাকে (ভালবাসি) অথচ তোমার উপস্থিতি এই শরতে আর ভালো ঠেকছে (না) (আম্মুউউউ) শরত মামা ও শরত মামা, বর্ষা মামীকে বাপের বাড়ি পাঠিয়ে দাও না (মাফচাই) মামীর অত্যাচার যে আর নেয়া যাচ্ছে না (মাইরালা) (ছেড়েদেশয়তান)

*শরৎকাল* *বর্ষাকাল* *বৃষ্টি*
ছবি

মোঃ রফিকুল ইসলাম: ফটো পোস্ট করেছে

শখেরফটোগ্রাফি

২০১৩সালের ফেব্রুয়ারির সকালে তোলা, মনে হচ্ছে যেন শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে ফুটেছে,,,,,,,,,

*শরৎকাল* *ফটোকনটেস্ট* *তুমিইসেরা* *শখেরফটোগ্রাফি*
ছবি

★ছায়াবতী★: ফটো পোস্ট করেছে

অনন্ত যৌবনা পদ্মা তুমি সুন্দর তাই চেয়ে থাকি। ইচ্ছে করে এখানেই হাজার বছর বাঁচি

এটা আমাদের রাজশাহী শহরের অন্যতম সুন্দর ও দর্শণীয় স্থান পদ্মা গার্ডেন। (ভালবাসি)(প্রেমেঅন্ধ) ছবিটু তুলেছিলাম নোকিয়া এক্স২ (৫মেগাপিক্সেল) মোবাইল দিয়ে।

*শরৎকাল* *ফটোকনটেস্ট* *তুমিইসেরা* *শখেরফটোগ্রাফি*

বিম্ববতী: *শরৎকাল* মানেই মা'র কাছে আমার আবদার,,,,এইবারের আবদার - " মা তুমি আমার অস্থিরতা সঙ্গে করে তোমার শ্বশুরবাড়ি নিয়ে যাও তো,,,,,,,,,আর ভাল্লাগছে নাগো,,,,,,,,,ধ্যাত্তেরি,,,,,,,,,,তোমার রাজকন্যার নির্দেশ,,,,,"(কান্না২)

ছবি

★ছায়াবতী★: ফটো পোস্ট করেছে

ইচ্ছে করে হারিয়ে যায় ঐ নীলিমায়

সারাবছর পদ্মা জরা জীর্ণ অবস্থায় থাকে কিন্তু শুধু মাত্র বর্ষা কালেই তার হারানো যৌবন ফিরে পায়(হার্ট)

*ফটোকনটেস্ট* *তুমিইসেরা* *শখেরফটোগ্রাফি* *শরৎকাল*

সারা: "আজ ধানের ক্ষেতে রৌদ্রছায়ায় লুকোচুরি খেলা নীল আকাশে কে ভাসালে সাদা মেঘের ভেলা।। আজ ভ্রমর ভোলে মধু খেতে– উড়ে বেড়ায় আলোয় মেতে আজ কিসের তরে নদীর চরে চখা-চখীর মেলা।। ওরে যাব না আজ ঘরে রে ভাই, যাব না আজ ঘরে। ওরে আকাশ ভেঙে বাহিরকে আজ নেব রে লুট করে। যেন জোয়ার-জলে ফেনার রাশি বাতাসে আজ ছুটেব হাসি আজ বিনা কাজে বাজিয়ে বাঁশি কাটবে সকল বেলা।।"

*শরৎকাল* *প্রিয়গান*

খোরশেদ আলম: *শরৎকাল* আমার ভালোবাসার মানুষটি হবে শরতের নীল আকাশের মত। যা দেখা মাত্র হৃদয়ে কাশ ফুলের দোলা দিবে আর তার সুবাস হবে শিউলি ফুলের মত।

মাসুম: একটি বেশব্লগ লিখেছে

শুভ হোক শরৎ..... 
ডানা মেলুন কাশবনে.......

প্রকৃতির সাজ সজ্জার তুলনা অপরিমেয়। আর যে সাজিয়েছেন তার কথা নতুন করে আর কি বলব?? এই সজ্জার কৌশল অনিন্দ্য-অসাধারণ। শুধু মুগ্ধ হয়ে দেখা, ভাবা, অনুভব করা,,,,,,,
প্রত্যেকটা সজ্জার সৌন্দর্যই শুধু অসাধারণ প্রকাশ নয় বরং প্রত্যেকটা জিনিষের আলাদা গুরত্বও আছে। এই সজ্জা আর অপরিসীম গুরুত্বের যে অপার সমন্বয়, বিন্যাস তাতে মুগ্ধতা এমনিতে চলে আসে। সেই স্রষ্টার অপার কৌশলে যারা মুখ ফিরিয়ে নেই তারা কেমনে নাস্তিক‬ বনে যায় ভেবে পাইনে। আমার মনে হয় এদের নাস্তিক না বলে অসীম অকৃতজ্ঞ বলাটাই শ্রেয়। কারণ কেউ না কেউ এই অপার সৌন্দর্যে
অবশ্য্ই মুগ্ধ হয়, অবশ্যই উপকৃত হয়। শুধু আফসোস ওদের এই ধৃষ্ঠতার জন্য।

সব ঋতুই পছন্দের। তবে শরৎকাল‬ টা একটু বেশি বেশিই। মানুষের মনের আকাশের সাথে শরৎকালের আকাশের, আবহাওয়ার, প্রকৃতির অসাধারণ মিল খুজে পাই আমি। কখনো এই শুভ্র বা কালো মেঘ নতুবা নীল আকাশ, এই রোদ্দুর নতুবা ঝিরি ঝিরি হাওয়ায় নৃত্যের তালে সুক্ষ্ম বৃষ্টি, হেমন্তের আগমনের বানি নিয়ে হিম শীতল হাওয়া বয়ে চলে বিস্তর কাশবনের উপর দিয়ে। ইচ্ছে করে দুই হাত মেলে দিয়ে কাশফুলের পরশ পেতে পেতে অবাধ ছুটে চলতে। দুরের আকাশের নীল আর শুভ্র মেঘের সংমিশ্রণ যখন নীল ঢেউয়ের তালে তালে উদ্বেলিত হবে, শীতল হাওয়া যখন কাশ ফুলে মৃদু ছন্দ তালে ঢেউ খেলে যাবে, আমি বেখেয়ালেই আনমনে চেয়ে দেখব সে দৃশ্য। কখনো বা আদুল গায়ে ছেলে মেয়েরা কাশবনে ছুটে বেড়াবে। ওদের অবাধ ছুটে চলায় দুই একটা কাশ মুখ থুবড়ে পড়বে। বকব না কিন্তু আমি। সব সৌন্দর্য আর সৃষ্টি তো মানুষেরই জন্য। ওরা উড়ুক চার দেয়ালে অকারণ বন্দি না থেকে। অবাধে ছুটে চলুক দিগন্তে। মিশে যাক শুভ্র কাশ ফুলের বনে অকৃত্রিম হাসি নিয়ে। এ হাসি যে অমূল্য....


কখনো বা মিষ্টি গন্ধে মুখরিত হব। কানে বাজবে রিম ঝিম ঝিম বৃষ্টির আওয়াজ। তারপরে ঝুল বারান্দায় এসে দাড়াব। মাঝারি সাইজের বৃষ্টির ফোটায় অবলীলায় ঝরে পড়বে অজস্র শিউলি ফুল। হাত বাড়িয়ে বৃষ্টির পরশ নিব, মৃদু ছুয়ে যাবে শিউলির পতন। কখনো বা হারিয়ে যাব। ভুলেই ভিজতে ভিজতে শিউলি ‍কুড়াব। দুর থেকে বয়স্করা দেখে কানাকানি করবে। ধাড়ি বেটা কেমনে ছেলেমি দেখায়। অসাধারণ সেসব দৃশ্যপট!!

ও হ্যা। আজ চুপিসারে ভাদ্র এল বলে। শ্বেত শুভ্র কাশ ফুলের অধীর শিহরণ নিয়ে আর শিউলির সুমিষ্ট সুবাস নিয়ে শরৎ আজ বাংলার দোর গোড়ায়। বসন্ত‬ ঋতুরাজ‬ হলে, হেমন্ত‬ ঋতুরানী‬ হলে, শরৎ‬ কেন নয় ঋতুর ত্রয়োদশবর্ষী রাজকন্যা‬?? যে রাজ কন্যার পরনে থাকবে সিল্কের মসলিন নয় বরং কাশফুলের আবরণ, এলোকেশে স্বর্ণের তাজ নয় বরং শিউলিমালা‬! আমি বারবার দেখব সেই রাজকন্যাকে।। আর অসীম মুগ্ধতা নিয়ে প্রশংসা জপতে থাকব সেই মহারাজের, অধীশ্বরের!! যার অকৃত্রিম লালনে গড়ে উঠেছে এই বিশ্ব চরাচর। সৌন্দর্যমন্ডিত হয়েছে মহাবিশ্ব।

প্রত্যেককে শরতের অনিন্দ্য-সুন্দর-সুবাসিত শিউলিমালা দিলাম। খোপায় গুজে নিও, নতুবা গুজে দিও পবিত্র হাতে অপার ‪‎ভালোবাসা‬ মিশিয়ে, আর একগুচ্ছ কাশফুল‬ দিলাম শিহরিত পরশ নিও।
আর সহস্রবার শুভ কামনা দিলাম। শরতের আকাশের মত শুভ্র মেঘের ভেলায় চড়ে আরোহন করিও অনাগত আগামীর সুউচ্চ শিখরে। শুভ হোক তবে এই আর আগামীর লগ্ন। শুভ হোক অনাগত আগামীর প্রতিটা মূহুর্ত। উজ্জল হোক আগামী...............

*দুখোব্লগ* *শরৎকাল* *কাশফুল* *শিউলিমালা* *শিউলিফুল* *কাশবন*

দীপ্তি: প্রতিটি ভোর আসবে ঝরে পড়া শিউলির সৌন্দর্য গায়ে মেখে। পৃথিবীর বুকে এক অনাবিল আনন্দের ঝর্ণাধারা ছড়িয়ে দিতে আজ আগমন শরৎ ঋতুর (আতশবাজি) শরতের আগমন বলে মা আসছে .... (ইয়েয়ে) শরৎ আসে শান্ত সিগ্ধ কোমল রূপ নিয়ে, যেখানে নেই কোনো মলিনতা, আছে কেবল নির্মল আনন্দ আর অনাবিল উচ্ছ্বাস (খুকখুকহাসি) "শরৎ তোমার অরুণ আলোর অঞ্জলি, আজ প্রভাতের হৃদয় ওঠে চঞ্চলি" (ভালবাসি)

*শরৎকাল*

শাকিল: শরৎ মানেই নীল আকাশে সাদা মেঘের ভেলা। বর্ষার রেশ এখনো না কাটলেও আকাশের সাদা মেঘ আর মাঠের কাশফুল জানান দিচ্ছে, শরৎ এসেছে।

*শরৎকাল*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★