শাওমি

শাওমি নিয়ে কি ভাবছো?

খুশি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ফোন কিনব, Huawei ফোন ভালো হবে নাকি Xiaomi ?

উত্তর দাও (৫ টি উত্তর আছে )

.
*মোবাইলফোন* *শাওমি* *হুয়াই*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বর্তমানে বিশ্বের চতুর্থ বৃহৎ মোবাইল ফোন নির্মাতা শাওমি (Xiaomi – যাকে আমরা অনেকেই ভুলভাবে জিয়াওমি উচ্চারণ করে থাকি) অনেকের কাছে পরিচিত হলেও, বাংলাদেশে অধিকাংশের কাছে এখনো অপরিচিত। এই চাইনিজ মোবাইল ও স্মার্ট ডিভাইস নির্মাতা কোম্পানিটি ২০১০ সালের আগস্ট মাসে তাদের যাত্রা শুরু করে। মাত্র ৬ বছরেই শাওমি তার বর্তমান অবস্থানে পৌঁছে যায় এবং এর অগ্রযাত্রা অব্যাহত রয়েছে দুর্বার গতিতে। আমাদের দেশে আরও দুটি চাইনিজ মোবাইল নির্মাতা হুয়াওয়ে (১৯৮৭) ও অপ্পো (২০০১) কোম্পানি তাদের অনেক শো-রুমের কল্যাণে বেশ পরিচিতি পেলেও শাওমি আজও মোটামুটি অপরিচিতই বলা যায়। অথচ বর্তমানে পৃথিবীতে প্রায় ১৭ কোটি শাওমি অপারেটিং সিস্টেম মিইউআই (MIUI) ব্যবহারকারী রয়েছে, যার মধ্যে বৃহৎ অংশটি শাওমি’র মোবাইল সেট ব্যবহার করে। প্রায় ৩৪০ টি মডেলে ব্যবহৃত মিইউআই, অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে। কিন্তু শাওমি আর এর অপারেটিং সিস্টেম মিইউআই এর কথা আপনি যদি কাউকে বলেন, তাহলে তার মুখের কৌতুহলের ভ্রুকুটি বা বিদ্রুপের (চাইনিজ হবার কারণে) অভিব্যক্তি দেখে আপনার খারাপ লাগাটাই স্বাভাবিক। শাওমির জনপ্রিয়তার কারণগুলোর মধ্যে অন্যতম এর প্রোডাক্টের মূল্য। বলা হয়ে থাকে, শাওমির প্রোডাক্টগুলোর দাম হয় কস্ট-অফ-ম্যাটেরিয়ালস বা শুধুমাত্র পন্য প্রস্তুতের খরচের সবচেয়ে কাছাকাছি। ফিচার ও কনফিগারেশনের তুলনায় এর দাম অন্যন্য হাই-এন্ড ব্র্যান্ডের সমতূল্য মডেলের সেটের এক তৃতীয়াংশ বা এমনকি এক চতুর্থাংশের মত হয়। শাওমি মূলতঃ মোবাইল ফোন নির্মাতা হিসেবে নামলেও আজ তারা নানা রকমের চমকপ্রদ সব ইলেক্ট্রনিক স্মার্ট ডিভাইস ও গৃহস্থালি পন্য তৈরি করে যাচ্ছে।

তবে আজকের এই লিখাটি কিন্তু শাওমি’র গুণগান করবার জন্য নয়। বরং এর অপারেটিং সিস্টেম মিইউআই (MIUI – Mi User Interface) সম্পর্কে দু-একটি কথা বলবার জন্যই লেখা।

 

মিইউআই কি?

মিইউআই (উচ্চারণ হয়ঃ Me, You, I) মূলতঃ এন্ড্রয়েড-ভিত্তিক আফটার-মার্কেট ফার্মওয়্যার বা এক কথায় একটি কাস্টম রম। তবে, মিইউআই সমস্ত শাওমি মোবাইলে স্টক রম হিসেবে ইন্সটল করা থাকে। আমরা যারা এন্ড্রয়েডের এডভান্সড ইউজার, তাদের জন্য রম, স্টক রম, কাস্টম রম ইত্যাদি পরিচিত শব্দ হলেও আমাদের অনেকেরই কাছে এগুলো অপরিচিত হতে পারে। খুব সহজে বলতে গেলেঃ রম হল এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোনের অপারেটিং সিস্টেম বা অপারেটিং সিস্টেমের মূল কাঠামো যেখানে ডিফল্ট অ্যাপ্লিকেশনগুলো বিন্যস্ত থাকে। স্টক রম হল একটি মোবাইল ফোনে ফ্যাক্টরী থেকে দেয়া রম (যেমনঃ এন্ড্রয়েড কিটক্যাট, ললিপপ, মার্শম্যালো ইত্যাদি) আর কাস্টম রম হল, মূল এন্ড্রয়েড ভার্সনের ওপেন সোর্সকে ডেভেলপ করে নির্মিত রম যেখানে অতিরিক্ত ও ভিন্ন কিছু ফিচার বা অ্যাপ্লিকেশন থাকে (যেমনঃ সায়ানোজেনমড, মিইউআই, এওএসপি ইত্যাদি)। তাই শাওমি বা অন্য কোন ব্র্যান্ডের মোবাইলে মিইউআই রম স্টক হিসেবে দেয়া হলেও এটা যেহেতু মূল এন্ড্রয়েড এর উপর নির্মান করা তাই একে একধরনের কাস্টম রমও বলা যায়। মিইউআই রম শাওমি’র সব মোবাইলের পাশাপাশি প্রায় ৩৪০ মডেলের সেটে কাস্টম রম হিসেবে ইন্সটল করা থাকে যাতে নিচের ব্র্যান্ডগুলোর বেশ কিছু মডেলও উল্লেখযোগ্যঃ

গুগল নেক্সাস
এইচ টি সি
স্যামসাং
মটোরলা
এল জি
সনি এরিকসন
জেড টি ই
অপ্পো
হুয়াওয়ে
মিডিয়াটেক
লেনোভো
ওয়ান প্লাস
টি সি এল
মাইক্রোম্যাক্স
মেইজু
জিওনি

প্রকারভেদ

মিইউআই রম মূলতঃ দুই ধরণের হয়ঃ

চায়না রমঃ এই রম প্রধানতঃ মেইনল্যান্ড চায়নার জন্য তৈরি। চীন সরকার ও গুগলের মধ্যে কিছু মতবিরোধের কারণে চায়না রমে গুগলের কোন অ্যাপ্লিকেশন প্রি-ইন্সটল করা থাকে না (এমনকি এন্ড্রয়েডের জন্য অপরিহার্য গুগলের প্লে-স্টোর অ্যাপ্লিকেশনও না)। যার কারণে এই রম ইন্সটল করলে প্রথম দিকেই আপনাকে সমস্যায় পড়তে হতে পারে, কারণ আমরা আমাদের পছন্দমত অ্যাপ্লিকেশনগুলো প্লে-স্টোর থেকেই ডাউনলোড ও ইন্সটল করে থাকি। তবে, এ সমস্যারও সমাধান আছে। আপনি GApps নামের গুগল অ্যাপ্লিকেশন প্যাক চায়না রমের উপর ইন্সটল করতে পারবেন যেখানে আপনার কাস্টম রিকভারী, রম ফ্ল্যাশিং, রুটিং ইত্যাদি সম্পর্কে কিছুটা এডভান্সড জ্ঞান থাকতে হবে। এছাড়া, চায়না রমে সাধারণতঃ চাইনিজ ভাষার স্থানীয় কিছু অ্যাপ্লিকেশন থাকে যা, চাইনিজদের জন্য উপকারী হলেও আমাদের অন্য সবার জন্য ‘ব্লোটওয়্যার’ (অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার – যা জায়গা আর মেমোরী দখল করে) ছাড়া কিছু নয়। তবে, হালনাগাদ আর নতুনত্বের দিক থেকে চায়না রম সবসময়ই কিছুটা এগিয়ে থাকে।

গ্লোবাল রমঃ এই শ্রেণীর রম মূলতঃ গ্লোবাল ইউজারদের জন্য নির্মিত হয়। গ্লোবাল রমে চাইনিজ ভাষার কোন অ্যাপ্লিকেশন থাকে না এবং গুগলের অপরিহার্য প্রায় সব অ্যাপ্লিকেশনই প্রি-ইন্সটল করা থাকে (না থাকলেও চিন্তা নেই, প্লে-স্টোর যেহেতু থাকছেই!)।

পুরো লেখাটি পড়তেঃ http://lighthome24.com/miui-rom-review/

*শাওমি* *ফোন* *মোবাইল* *বেশটেক* *তথ্যপ্রযুক্তি* *রম* *বিশ্ব*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রযক্তি বাজারে এখন সবচেয়ে বেশি ভীড় স্মার্টফোনের শো রুমে। যুগের সাথে তালমিলেয়ে সবাই যে যার মত পছন্দের ব্র্যান্ডের সেরা স্মার্টফোনটি খুঁজে নিচ্ছে। প্রযুক্তির এই যুগে স্মার্টনেস ধরে রাখতে চাই নতুন নতুন সব স্মার্ট ফোন। অনেকই হয়তবা ঈদ উপলেক্ষ্যে কোন স্মার্টফোন কিনবেন সেটা ভাবছেন? আর যারা কিনবেন না তারা না কিনলেও, জেনে রাখতে দোষ কি?

স্মার্টফোনের চাহিদা আর ব্যবহার দিন দিন বেড়ে যাওয়ার করণেই দেশের সবেচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিল নিয়ে এসেছে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের বেস্ট স্মার্টফোনের এর সেরা সব কালেকশন। আইফোন, স্যামসাং, হুওয়াই, এইচটিসি, শাওমি, ওয়ালটন, অপ্পো, এলজিসহ সব ধরনের স্মার্টফোনের আপডেটেড কালেকশন রয়েছে আজকেরডিলে।

বন্ধুরা, আপনারা ০% সুদে আজকেরডিল থেকে কিস্তিতেও মোবাইল ফোন কিনে নিতে পারবেন। টাকা পরিশোধ করতে পারবেন ৩ অথবা ৬ মাসের কিস্তিতে। 

স্টাইলিশ ও আপডেটেড স্মার্টফোনের কালেকশনগুলো দেখতে আজেরডিলের স্মার্টফোনের এই পেজটিতে ক্লিক করুন।


চলুন বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় কিছু স্মার্টফোন ব্র্যান্ড সম্পর্কে জেনে নেই।

শাওমিঃ

 

প্রতিযোগিতার এই যুগে আকর্ষণীয় সব স্মার্টফোন ও মোবাইল এক্সেসরিজ তৈরী করে গ্রাহকদের মনযোগ ধরে রেখেছে শাওমি। বলে রাখা ভাল, শাওমি হচ্ছে একটি প্রাইভেট চীনা ইলেকট্রনিক্স কোম্পানি। এটি বিশ্বের ৪র্থ বৃহত্তম স্মার্টফোন নির্মাতা। শাওমি স্মার্টফোন, মোবাইল অ্যাপস এর পাশাপাশি ভালো মানের বিভিন্ন ধরনের মোবাইল এক্সেসরিজ তৈরী করে থাকে। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিল ব্যাপক আকারে বিশ্বখ্যাত এই ব্রান্ডের স্মার্টফোন গুলি অনলাইনে বিক্রি করছে। কিনতে ক্লিক করুন

আইফোনঃ


আইফোন অ্যাপল ইনকর্পোরেটেড দ্বারা নির্মিত একটি আধুনিক ইন্টারনেট ও মাল্টিমিডিয়া সংযুক্ত স্মার্টফোন। অ্যাপলের সাবেক সিইও স্টিভ জবস এর প্রতিষ্ঠান এটি। বর্তমান বিশ্বে টেকসই স্মার্টফোন তৈরী করে গ্রাহকদের আস্থা তৈরী করেছে আইফোন। গত ২০০৭ সালে যাত্রা শরু করার পর ৯-১০ বছরের মধ্যেই পুরো বিশ্বের স্মার্টফোন প্রেমীদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে আইফোন। ক্রেতাপ্রিয় টেকসই আইফোন আপনারা ঘরে বসেই কিনতে পারবেন আজকেরডিল এর মাধ্যমে। কিনতে ক্লিক করুন

 

এইচটিসিঃ

 

বাংলাদেশের বাজারে তাইওয়ানভিত্তিক প্রযুক্তিপণ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান এইচটিসি দারুন দারুন সব স্মার্ট ফোন নিয়ে এসেছে। শুরুতে এইচটিসির ছয়টি মডেলের স্মার্টফোন বাজারে ছাড়া হয়েছে। স্মার্টফোনগুলো হচ্ছে ওয়ান এম৮ আই, ডিজায়ার ৮২০এস, ডিজায়ার ৬২৬জি প্লাস, ডিজায়ার ৬২০ জি, ডিজায়ার ৫২৬জি প্লাস এবং ডিজায়ার ৩২৬জি। এদের ফোন গুলো বেশ ভাল এবং দামও তুলনামূলক ভাবে সাধ্যের মধ্যেই রয়েছে। আপনার বাজারে তাদের শোরুম এবং অনলাইন থেকেও এইচটিসি ফোন কিনতে পারবেন। অনলাইনে কিনতে এখানে ক্লিক করুন

অপপো:

স্মার্টফোনেরবাজার ক্রমাগত ওজনে হালকা ও পাতলা ফোন তৈরির প্রতিযোগিতা নতুন কিছু নয়। আরএক্ষেত্রে সবসময়ই এগিয়ে আছে চীনের মোবাইলফোন নির্মাতা কোম্পানিগুলো। আর সবচেয়ে পাতলা স্মার্টফোন তৈরি করে রীতিমতো তাক লাগিয়ে দিয়েছে আরেকচীনা কোম্পানি অপপো। অপপোর ফোনগুলি দেখতে যেমন স্মার্ট কাজেও সেরকম স্মার্ট। অপপোর ক্যামেরা খুবই ভাল। বর্তমানে অপপো ক্যামেরা ফোন হিসেবে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। বাংলাদেশের বাজারে তাদের বিভিন্ন শোরুম গুলোতে ফোন কিনতে পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়া অনলাইনেও এটি কিনতে পারবেন? 

হুয়াইঃ

টানা ৩ বছর ধরে বিশ্বের তৃতীয় বৃহৎ স্মার্টফোন প্রস্তুতকারী হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া জনপ্রিয় মোবাইল ফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াই ( Huawei Mobile ) বাংলাদেশের বাজারে বেশে কিছু নতুন মডেলের একটি স্মার্টফোন নিয়ে এসেছে। দীর্ঘ সময় চলার ক্ষমতাসম্পন্ন ব্যাটারিও রয়েছে সেটগুলোতে। মোবাইল সেট গুলোর পারফরমেন্স ও বেশ ভাল।

সিম্ফনিঃ

বাংলাদেশের বাজারে সর্বাধিক বিক্রিত মোবাইল ফোন সিম্ফনি ( symphony-mobile )। কমদামের সব দারুন দারুন স্মার্টফোন এনে ক্রেতা ও ব্যবহারকারীদের নজর কেড়েছে সিম্ফনি। বাজারে সাশ্রয়ী বাজেটের দেশীয় ব্র্যান্ডের এন্ড্রয়েডগুলোর মধ্যে সিম্ফনিই সবথেকে বেশি অপশন দিচ্ছে। এবং গত কয়েক মাসে সিম্ফনি এন্ড্রয়েডগুলোর দামে তেমন কোন পরিবর্তিত হয়নি। সারাদেশের স্যামসাং এর শোরুম গুলো থেকে স্টাইলিশ ও নজরকাড়া সব ফোন কিনতে পারবেন।

উপরের স্মার্টফোনগুলো ছাড়াও বর্তমানে দেশের বাজারে বেশি বিক্রি হচ্ছে আমাদের দেশীয়পন্য ওয়ালটন সহ আসুস, এলজি ও লাভারফোন। বিশ্বস্থতার সাথে সবধরনের স্মার্টফোন ঘরে বসে অনলাইনে কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*স্মার্টফোন* *এইটিসি* *শাওমি* *স্যামসাং* *অপ্পো* *সিম্ফনি* *অ্যাপল* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রতিযোগিতার এই যুগে আকর্ষণীয় সব স্মার্টফোন ও মোবাইল এক্সেসরিজ তৈরী করে গ্রাহকদের মনযোগ ধরে রেখেছে শাওমি। বলে রাখা ভাল, শাওমি হচ্ছে একটি প্রাইভেট চীনা ইলেকট্রনিক্স কোম্পানি। এটি বিশ্বের ৪র্থ বৃহত্তম স্মার্টফোন নির্মাতা। শাওমি স্মার্টফোন, মোবাইল অ্যাপস এর পাশাপাশি ভালো মানের বিভিন্ন ধরনের মোবাইল এক্সেসরিজ তৈরী করে থাকে। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিল ব্যাপক আকারে বিশ্বখ্যাত এই ব্রান্ডের পণ্যগুলি অনলাইনে বিক্রি করছে। চলুন শাওমির আকর্ষণীয় কিছু মোবাইল এক্সেসরিজ সম্পর্কে জেনে নেই।

শাওমি পিসটন আইরন ইয়ারফোনঃ


শাওমির অসাধারণ স্টাইলিশ একটি আইরন ইয়ারফোন এটি। মচকানো ও ভাঙ্গার কোন ভয় নেই। কানের কোন ক্ষতি করে না। স্মুথলি সফট মিউজিক শোনার জন্য এটি বেশ ভাল হবে। ইয়ারফোনটির দাম ১,৯৯৯ টাকা।

স্মার্ট ওয়াচ ফিটনেস ব্যান্ডঃ


প্রযুক্তি এখন আমাদের হাতের মুঠোয়। তাইতো স্মার্টফোনের পাশাপাশি স্মার্টওয়াচের ব্যবহারও দিন দিন বাড়ছে। স্মার্টওয়াচ প্রযুক্তিতেও বেশ ভালমানের সব ওয়াচ নিয়ে এসেছে শাওমি। বর্তমানে পকেটের স্মার্টফোনটি এখন আর বারবার বের করার প্রয়োজন হয় না। হাতের স্মার্ট ওয়াচটিই স্মার্ট ফোনের সব কাজ করে দেয়। যদিও এটি একটি ঘড়ি তারপরেও এর এক্সট্রা সুবিধা হলে এটার মধ্যে পুরা একটা অপারেটিং সিস্টেম লোড করা আছে। স্মার্টওয়াচ আপনার স্মার্ট মোবাইলের এক্সট্রা গিয়ার হিসেবে কাজ করবে।

শাওমি পাওয়ার ব্যাংক


প্রযুক্তি বাজারে পাওয়ার ব্যাংককের চাহিদা দিনদিন বেড়ে যাওয়ায় এই খাতেও উন্নতমানের পাওয়ার ব্যাংক তৈরী করছে শাওমি। বাজারে শাওমির বেশ কয়েক ধরনের পাওয়ার ব্যাংক পাওয়া যায়। চলতি পথে স্মার্টফোন, ট্যাবলেট, আইফোন, আইপড-সহ সব ধরনের মোবাইল ডিভাইস চার্জ দেয়ার জন্য শাওমির পাওয়ার ব্যাংকগুলো বেশ ভাল পারফর্মেন্স দেয়। যারা দীর্ঘপথ পাড়ি দেবেন, তাঁরা যাত্রাপথে চাইলে একটি পাওয়ার ব্যাংক সঙ্গে নিতে পারেন। যানজটে পড়ে আপনার স্মার্টফোন বা ডিভাইসে চার্জ ফুরিয়ে গেলে তা কাজে লাগবে।

এগুলো ছাড়াও শাওমি ব্রান্ডের প্রচুর এক্সেসরিজ পাওয়া যায়। যেগুলোর মধ্যে ব্লুটুথ স্পিকার, ব্লুটুথ মিউজিক এলার্ম ঘড়ি, প্রোটেবল স্পিকার, ওয়াল এডাপ্টার , ওটিজি ক্যাবল, ভিআরবক্স, মোবাইল স্ট্যান্ড, সেলফি স্টিক অন্যতম। আপনার প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় শাওমির এই এক্সেসরিজগুলোর অরিজিনাল কালেকশন আপনি পাবেন দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিল ডটকমের ওয়েবসাইটে। তাদের ওয়েবসাইটে শাওমির স্মার্টফোন সব সব ধরনের এক্সেসরিজের বিশাল সংগ্রহ রয়েছে। আজকেরডিল থেকে শাওমির পণ্য কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*শাওমি* *আজকেরডিল* *স্মার্টশপিং* *এক্সেসরিজ*

হোস্টিং বাংলাদেশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

চীনের বাজারে এখন অ্যাপল কিংবা স্যামসাং শাওমির সাথে পেরে উঠছে না।শাওমির নতুন স্মার্টফোন বের হওয়ার সাথে সাথেই স্টক শেষ হয়ে যাচ্ছে। বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইএইচএস টেকনোলজি জানিয়েছে, গত বছর শাওমি ৭০ মিলিয়ন ইউনিট স্মার্টফোন বিক্রি করে। যদিও গত বছর শাওমির লক্ষ্য ছিল ৮০ মিলিয়ন ডিভাইস বিক্রি করার।

চলতি বছরের শুরুতেই শাওমি এমআই৫, রেডমি ৩, রেডমি ৩ প্রো স্মার্টফোন এনে বাজার মাতিয়ে রেখেছে। তবে বাজারের এখনো তিনটি প্রান্তিক বাকি আছে।পরবর্তীতে বাজার ধরে রাখার জন্য ৬.৪ ইঞ্চি ডিসপ্লের ট্যাবলেট ‘ম্যাক্স’ আনতে যাচ্ছে শাওমি । বড় ডিসপ্লের এই ফোনটি বছরের শেষে বা মাঝামাঝি সময়ে বাজারে আসতে পারে।

স্মার্টফোনের বাজারে বছরের প্রথম প্রান্তিকে প্রতিষ্ঠানটি এক কোটি ৪৮ লাখ স্মার্টফোন বিক্রি করেছে। তাদের বিক্রি দিনে দিনে আরও বাড়ছে।

*শাওমি* *চীন* *স্মার্টফোন* *বিক্রি*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★