সংগ্রহ

সংগ্রহ নিয়ে কি ভাবছো?

একজন 'র': একটি বেশব্লগ লিখেছে

১৯১৪ সালের ডিসেম্বরের রাত। নিউজার্সির অরেণ্জ শহরের একটি ফ্যাক্টরিতে আগুন লেগেছে। যার বর্তমান মূল্য প্রায় ৪৮০ মিলিয়ন ডলার। ফ্যাক্টরির মালিক বলতে গেলে তাঁর জীবনের সমস্ত সঞ্চয় ব্যয় করেছেন ফ্যাক্টরিটি তৈরির পেছনে।

মালিক ফ্যাক্টরির বাইরে দাঁড়িয়ে আগুনের শিখা দেখছেন। আর মিটিমিটি হাসছেন। পাশে দাঁড়িয়ে তাঁর ২৪ বছরের ছেলে চার্লস। ভদ্রলোক, ছেলেকে হাসতে হাসতে বললেন- যা তোর মাকে তাড়াতাড়ি ডেকে নিয়ে আয়। এমন সুন্দর আগুন একসাথে দেখার সৌভাগ্য মানুষের খুব কমই হয়।

ছেলেটির মা এসে দেখলেন- তার স্বামীর মুখে হাসি আর পুত্রের চোখে কান্না।

পরদিন ভোরে স্বামী আর স্ত্রী একসাথে হাঁটতে বেরিয়েছেন। একসময় স্ত্রী স্বামীকে বললেন- শুধু তোমার ফ্যাক্টরিই পুড়েনি, তোমার সারা জীবনের সঞ্চয়ও একসাথে পুড়ে ছাই, ভস্ম হয়ে গেছে। তোমার বিশ্বাস ছিল ফ্যাক্টরি সম্পূর্ণরূপে ফায়ারপ্রুফ। কোনোদিন আগুনে কোনো ক্ষতি করতে পারবেনা। তাই ভালোভাবে ইনস্যুরেন্স না করায় কোনো টাকাও ক্ষতিপূরণ পাবেনা। এসব কিছু জানার পরও তুমি এরকম শিশুর মতো হাসছ?

ভদ্রলোক বললেন- কারখানা পুড়েছে কই? আমিতো কোথাও কোনো পুড়া কারখানা দেখলাম না। তবে হ্যাঁ, দেখেছি শুধুই আগুণ।

এই উত্তর শুনে তার স্ত্রী বলল- তোমার কি রাতে ভালো ঘুম হয়নি? সবকিছু হারিয়ে তুমি কি পাগল হয়ে গেছো? নিজের চোখের সামনে দাউ দাউ করে জ্বলে পুড়ে ছাই,-ভস্ম হয়ে গেলো পুরো একটা কারখানা। আর তুমি বলছ- কোনো কারখানাই পুড়েনি। তুমি ঠিক আছো তো?

ভদ্রলোক স্ত্রীকে আশ্বস্ত করতে বললেন- হ্যাঁ, রাতে খুব শান্তির ঘুম হয়েছে। আমিও পুরোপুরিই ঠিক আছি। আর ঠিক আছি বলেই বুঝতে পারছি- আগুনে কোনো কারখানা পুড়েনি, পুড়েছে শুধু আমার অহংকার, পুড়ে শেষ হয়ে গেছে আমার জীবনের সব ত্রুটি,বিচ্যুতি আর ভুল।
একটা কারখানা পুড়েছে, আরেকটা কারখানা তৈরি হবে তাতে কোনো দুঃখ নাই। তারচেয়ে বরং খুশী এই জন্য যে- আমার অহংকার, ত্রুটি, বিচ্যুতি সব পুড়ে গিয়ে স্রষ্টা আমাকে নতুনভাবে আবারো জীবন শুরু করে দেয়ার একটা সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন।

 

ফ্যাক্টরির মালিক এই ভদ্রলোক ছিলেন পৃথিবীর পাঁচজন সেরা বিজ্ঞানীর একজন, যিনি "টমাস আলভা এডিসন" নামে পরিচিত। আর যখন তিনি নতুন করে পুনরায় জীবন শুরু করতে যাচ্ছিলেন, তখন তাঁর বয়স ছিলো ৬৭। উদ্যম, প্রেরণা আর ধ্বংসস্তূপ থেকে পুনরায় জীবন শুরু করার মতো মোটিভেশনের এমন অনুপম দৃষ্টান্ত আর কি হতে পারে?

 

 

 

 

▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬
লেখাটি ফেসবুক হতে সংগ্রহীত
♦ মূল লেখকঃ আরিফ মাহমুদ
♦ ত
থ্যসূত্রঃ This Week In New Jersey

*সংগ্রহ* *ডায়েরি* *জীবনের-আলো*

মোঃ হাবিবুর রহমান (হাবীব): আমার দুঃখ নাই কষ্ট আছে..... আমার ভালবাসা নাই..... কিন্তু সুখ আছে...... আমার রাগ নাই ...... কিন্তু অভিমান আছে..... আমার Lover নাই..... কিন্তু Friend অনেক আছে। (সংগ্রহ)

*সংগ্রহ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

এক সন্তান তার মাকে অনেক ভালোবাসত কিন্তু বৌয়ের হুকুম অমান্য করতো না ,সন্তান তার মাকে ভালবাসত এটা তার স্ত্রী বরদাশত করতে না পেরে স্বামী কে বলল,
পরিস্কার কথা কান খুলে শোন,আজকের পর যদি তোমার মা এই বাড়িতে থাকে তবে আমি থাকব না,আর আমি থাকলে তোমার মা থাকতে পারবে না,
সন্তান বৌয়ের কথাকে গুরুত্ব দিয়ে বৃদ্ধ মাকে বৃদ্ধাশ্রম দিয়ে এসেছে,
তার স্ত্রী বলল,বুড়ি একদম দেখতে যেতে পারবে না ,দেখতে যেন যেতে না হয় তার জন্য লোক মারফত মাসে মাসে কিছু খরচের টাকা দিয়ে দিবা ,
ছেলেটি বউয়ের এই আবদারকেও গুরুত্ব দিল,
বছরে মাত্র একটা দিন মাকে দেখতে যাওয়ার অনুমতি আছে তাও মাত্র কয়েক মিনিটের জন্য,
একদিন বৃদ্ধ মা অসুস্থ হলে পরে দু'চোখ দিয়ে পানি গড়িয়ে পড়েছিল,আয়া বলছে,দাদী কাঁদছেন কেন? আপনার শরীরটা কয়েকদিন ধরে খুব একটা ভালো ছিল না,তাই এখনো কি খারাপ লাগছে?
বৃদ্ধা উত্তর দিল,আমার মন বলছে আমার সময় খুব নিকটে,শরীরটা নিস্তেজ হয়ে আসতেছে, কেমন কেমন যেন লাগছে আমার, যদি পারো তবে আমার ছেলেটাকে একটু খবর দিও ! আমি আমার ছেলেটাকে মাত্র একটি উপদেশ দিব।
বৃদ্ধার এই কথা শুনে আয়া তাড়াতাড়ি বৃদ্ধার ছেলেটিকে খবর দিল,ছেলে এয়ার কাছ থেকে মায়ের এমন খবর শুনে মনে মনে ভাবতে লাগলো,আমার মায়ের কিছু হয়ে গেল কিনা ! আল্লাহ জানে,
ছেলেটি ভাবতে ভাবতে একদিন বিদ্ধাশ্রমে গিয়ে হাজির হয়ে মাকে জড়িয়ে ধরে বলল,
মা,তুমি ঠিক আছ তো!!তোমার বৌয়ের জ্বলাই ঠিক মত তোমাকে দেখতে আসতে পারি না ,
মা বলল,বাবারে,আমার আর সময় নেই,তবে একটা অনুরোধ তোকে করি ,
ছেলে মায়ের অনুরোধের কথাটি জানতে চাইলে মা বলল,
আমার তো মা নাই যে,আমাকে আদর করবে,কিন্তু তর তো মা আছে তাই তো তর জন্য আমার লাগতেছে,আমার মাথার উপর যে  ফ্যানটা দেখছিস এটা বহুদিন যাবত চলে না যদি পারিস এটাকে ঠিক করে দিস।
মায়ের কথা শুনে ছেলেটি আশ্চার্য হয়ে বলছে,মা এই কথাটা আর আগে বলনি কেন ?
আমার নিজের সময় শেষ বলে মনে হচ্ছে তো,তাই বললাম,কারণ কাল পরে তোকেও তোর সন্তানেরা এইখানে রেখে যাবে,তখন তোর সামর্থ থাকবে না ফ্যানটা ঠিক করতে তাই এখনই ঠিক করে নে নইলে গরমে তোর কষ্ট হবেরে...বলতে বলতে বৃদ্ধার চোখ বুজে গেল,
এই পোস্ট টি যদি আমার আগে কেউ করে থাকেন তাহলে মার্জনা করবেন..

......................
*বৃদ্ধাশ্রম* *সংগ্রহ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

১. দেশের বেশিরভাগ (৫০%) মানুষ খোলা আকাশের নিচে টয়লেট করে। (BBC) 
২. পুত্র সন্তানের আশায় ইন্ডিয়াতে প্রতি চারটি নারী ভ্রূণের মধ্যে একটি নষ্ট করে ফেলা হয়। 
৩. দিল্লিকে "ধর্ষণের নগরী" বলা হয় (CNN) 
৪.ইন্ডিয়ার ৬০% মানুষ দারিদ্র্য সীমার নিচে বসবাস করে। 
৫. সমকামিতা (গে), মদ এবং লেসবিয়ানিজম সামাজিকভাবে বৈধ (প্রথম আলো) 
৬. পর্নস্টারকে (সানি লিয়ন) সামাজিকভাবে সম্মাননা দানকারী একমাত্র রাষ্ট্র (নয়া দিগন্ত) 
৭.মুম্বাইকে পশ্চিমা বিশ্বে বলা হয় "সস্তা পতিতার নগরী" (সিটি অফ চিপ টার্ট, BBC) 
৮. বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বস্তি ইন্ডিয়াতে (Hollywood এবং Fox) 
৯. পৃথিবীতে প্রতি বছর মোট ধর্মীয় দাঙ্গার ৫৭% ঘটে শুধু ইন্ডিয়াতে (OxfordUniversity) 
১০. এমন দেশ যার কোনো প্রতিবেশীর সাথে ভালো সম্পর্ক নেই
১১। ২০১৫ সালের ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপে ইন্ডিয়ান ক্রিকেট টিম আইসিসি এবং ৩টি আম্পায়ার এর সাথে ম্যাচ ফিক্সিং করে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে জয় পেয়েছে
*সংগ্রহ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৪/৫
*রসিকতা*
বিসিএস বিসিএস ডাক পারি বিসিএস গেল কোটাদের বাড়ী। ওরে বিসিএস ফিরে আয় মেধাবীরা সব বিদেশ পালায়। মামা-খালু আর কোটা থাকলে চাকরী হাতের ময়লা! আর টাকা থাকলে বিদেশে সেটেল। .মরার উপর খরার ঘা শুধু সাধারণ মেধাবী দের যাদের জীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়া এদেশে খুবই কষ্টসাধ্য ব্যাপার।
*বিসিএস* *রসিকতা* *সংগ্রহ*
ছবি

আড়াল থেকেই বলছি: ফটো পোস্ট করেছে

৪/৫

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ও সুন্দর মসজিদ গুলোর মাঝে ৯ নাম্বার স্থানে থাকা বাইতুল মুকাররাম মসজিদ সম্পর্কে কিছু কথা ..

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ও সুন্দর মসজিদ গুলোর মাঝে ৯ নাম্বার হল , বাংলাদেশ এর বাইতুল মুকাররাম মসজিদ ! রেঙ্ক = নবম (9) বৃহত্তম মসজিদ নাম = বাইতুল মুকাররাম মসজিদ ক্ষমতা = 30,000 প্রায়. শহর = ঢাকা দেশ = বাংলাদেশ স্থাপিত = বছর ১৯৬০

*সংগ্রহ* *বাইতুলমুকাররামমসজিদ* *মসজিদ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৫/৫
পিতা মাতার ১৪টি হক জেনে রাখুন এবং পালন করুন ৷ ............জীবিত অবস্থায় ৭ টি হক: ১) আজমত অর্থাৎ পিতা-মাতার প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া। ২) মনে-প্রাণে ভালোবাসা। ৩) সর্বদা তাদেরকে মেনে চলা। ৪) তাদের খেদমত করা। ৫) তাদের প্রয়োজন পূর্ণ করা। ৬) তাদেরকে সবসময় সুখে শান্তিতে রাখার চেষ্টা করা। ৭) নিয়মিত তাদের সাথে সাক্ষাত ও দেখাশোনা করা।.
............মৃত্যুর পর ৭ টি হক। ১) তাদের মাগফেরাত এর জন্য দোয়া করা। ২) সওয়ার পৌঁছানো। ৩) তাদের সাথী সঙ্গী ও আত্মীয় স্বজনদের সম্মান করা। ৪) সাথী-সঙ্গী ও আত্মীয় স্বজনদের সাহায্য করা। ৫) ঋণ পরিশোধ ও আমানত আদায় করা। ৬) শরীয়ত সম্মত ওসিয়ত পূর্ণ করা। ৭) সাধ্যমত তাদের কবর জিয়ারত করা।
*হক* *সংগ্রহ*
৫/৫

আড়াল থেকেই বলছি: [বাকের-কুনোচিন্তাকরবানা]বিসিএস প্রস্তুতি--------- <> কারা ব্যঞ্জনবর্ণের সঙ্গে স্বরবর্ণ যোগ করেছিলেন? উত্তর : গ্রিকরা। <> আরাবাত শব্দের অর্থ কী? উত্তর : বৃক্ষলতাহীন মরুভূমি। <> ইসলামের সর্বপ্রথম শিক্ষাকেন্দ্র কোনটি? উত্তর : দারুল আরাকাম, মদিনা। <> সর্বপ্রথম কারা জল সেচের পদ্ধতি আবিষ্কার করেছিলেন? উত্তর : ইনকারা। <> কত শতাব্দীতে ইনকা সভ্যতা ধ্বংস হয়? উত্তর : ষোড়শ শতাব্দীতে।

*সংগ্রহ*
৫/৫

আড়াল থেকেই বলছি: [বেশবচন-জোশহইছে]সব মেয়ের ভেতর যেমন একজন পুরুষ বাস করে। সব ছেলের মধ্যেও একটি নারী বাস করে। নারী পুরুষের এ বিভাজন রেখা দুর্বল।

*সংগ্রহ*
ছবি

আড়াল থেকেই বলছি: ফটো পোস্ট করেছে

৫/৫

পতাকাটা খামচাতে, কখনো আসে যদি শকুন আর হায়নার দল.. সংগ্রামে সংগ্রামে রুখে দাঁড়াতেই হবে, সাহস বুকে অবিচল,

আমার প্রানের বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি... প্রানের প্রিয় মা তোকে, বড় বেশী ভালোবাসি... মুক্ত-স্বাধীন আকাশেই উড়বে চিরকাল সবুজের বুকে লাল.

*সংগ্রহ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৪/৫
প্রতি দিন প্রায় ২০০ মিলিয়ন কাপল্ পরস্পর পরস্পর এর প্রেম বন্ধনে আবদ্ধ হয় ।
প্রতিদিন গড়ে ৪০০,০০০ সন্তান জন্মগ্রহন করে আর গড়ে প্রায় ১৪০,০০০ মানুষ মারা যায় ।
*সংগ্রহ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

ইঁদুরের চাপাবাজি *জোকস*
প্রথম ইঁদুর: জানিস, সেদিন আমি এক বোতল ইঁদুর মারার বিষ খেয়ে ফেলেছি, অথচ আমার কিছুই হয়নি। দ্বিতীয় ইঁদুর: কিছুদিন আগে আমি একটা ফাঁদে আটকা পড়ে গেছিলাম। ফাঁদটা ভেঙে বেরিয়ে এসেছি। তৃতীয় ইঁদুর: তোরা গল্প কর, আমি আজউঠি। বাড়ি ফিরে আবার পোষা বিড়ালটাকে খাবার দিতে হবে।
*সংগ্রহ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৪/৫
রানী সাহেব এবং ফুলকির কথোপথাকন
ফুলকি তুমি একটানা ৯৯৯ টা ইংরেজী ওয়ার্ড বলতে পারবে??? যেখানে একটাও A নাই!!
ব্যাপারটা একেবারেই ইজি, One, Two, Three, Four, Five এভাবে ৯৯৯ পর্যন্ত বানান করে লিখে যাও। একটাও A পাবে না।
*সংগ্রহ*
জোকস

আড়াল থেকেই বলছি: একটি জোকস পোস্ট করেছে

আম্মু, প্রস্রাব করতে যাব। মা: যাও। (প্রস্রাব করে আসার পর) বাচ্চা: জানো আম্মু, টয়লেটে না ম্যাজিক আছে... মা: কিসের ম্যাজিক ??? বাচ্চা: আমি টয়লেটের দরজা খুললাম, অমনি আপনা আপনি লাইট জ্বলে উঠল, আবার বন্ধ করলাম, সাথে সাথে লাইট ও বন্ধ হয়ে গেল। . মা: ওরে আমারে মাইরালা!! হারামজাদা তুই ফ্রিজে প্রস্রাব করে আসলি !!!
*সংগ্রহ*

আড়াল থেকেই বলছি: যখন কেউ ভালোবাসার মানুষটার সাথে থাকে তখন সবারই খুব ভালোলাগে... তখন কেউ এটা ভাবেনা যে এই মুহূর্ত গুলো একটু পরেই অতীত হয়ে যাবে, আর রয়ে যাবে স্মৃতির পাতায়.. যতদিন সে সাথে থাকবে এই স্মৃতি গুলো হাসাবে,আর যখন সে থাকবেনা তখন এই স্মৃতিগুলোই আবার কাঁদাবে.

*সংগ্রহ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

দ্বিতীয়বার প্রেম করা মেয়েটা ক্ষণে ক্ষণে দ্বিতীয় ব্যক্তির মাঝে তার প্রথম ভালবাসার ছায়া খুঁজে পেতে চায়। দ্বিতীয় প্রেম করা ছেলেটা অবচেতন মনে প্রায়ই তার প্রথম প্রেমিকার হাসির সাথে দ্বিতীয় জনের হাসির তুলনা করে ফেলে। না চাইলেও তার চোখ ফ্লাশ ব্যাকে চলে যায়। ছেলেটি তার চোখের জল মুছিয়ে দেবার সময় ক্ষণিকের জন্যে হলেও তার মনে পড়ে যাবে "ঠিক একইভাবে আগেও একজন চোখ মুছে দিয়েছে।" ছেলেটা আজ দ্বিতীয় কারো হাত হয়ত ধরবে। কিন্তু হাতের তালুটা সেই প্রথমবারের মত কখনোই উষ্ণ হবে না। দ্বিতীয় কারো সাথে মেয়েটা বৃষ্টিতে ভিজলেও তার হৃদয়টা আর প্রথম বারের মত সিক্ত হবে না। প্রথম ভালবাসার স্মৃতি মানুষের ইন্দ্রিয়ে "ছায়া"র মত ঘুরঘুর করতে থাকে। ছায়া খুব খারাপ জিনিস। ছায়া কখনো দূরে সরে না। একে ঢেকে ফেলা যায় না, মুছে ফেলাও যায় না। সাথে নিয়ে নিয়ে ঘুরতে হয়। মস্তিষ্ক অদ্ভুত কারনে মাঝেই মাঝেই দ্বিতীয় জনের মাঝে সেই "ছায়া" তৈরী করার একটা চেষ্টা করে চলে।

*সংগ্রহ* *সম্পর্ক* *প্রেম* *ভালোবাসা* *ব্রেকআপ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

ভালোবাসা মানে ফোনে ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলা বা গভীর রাতে চ্যাট করা না! * ভালোবাসা মানে মায়ের ফোন চুরি করে পছন্দের মানুষটিকে মিস কল দেওয়া! ধরা পরা ভয়ে কয়েক মিনিট কথা বলেই ফোন কেটে দেওয়া! * ভালবাসা মানে ডেটে গিয়ে ঘনিষ্ঠ সময় পার করা না। * ভালোবাসা মানে পছন্দের মানুষের সাথে দেখা করতে গিয়ে তাকে না দেখতে পেরে ঘরে এসে ফুপিয়ে ফুপিয়ে কাঁদা!
*সংগ্রহ*

আড়াল থেকেই বলছি: [ফুলকি-ওমাতাই]কষ্ট মানুষকে কাঁদায় না. নীরব করে রাখে । আরে কাঁদায় তো সুখ. যে আসে. আবার চলে যায় । দিয়ে যায় ভুলতে না পারা কিছু সময় ও কিছু স্মৃতি । যা একজন মানুষকে কুঁড়ে কুঁড়ে খায়. সারাটি জীবন .

*সংগ্রহ*

আড়াল থেকেই বলছি: [পিরিতি-ভালোবাসারসংগ্রাম]মোমবাতির মাঝখানে সূতোটা বলে, আমিতো জ্বলছি কিন্তু তুমি কাঁদছ কেন? মোমবাতি বলে, যাকে হৃদয়ের মাঝখানে জায়গা দিলাম সে যদি জ্বলে যায়, তবে অশ্রুতো পড়বেই।

*সংগ্রহ*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★