সাজসজ্জা

সাজসজ্জা নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

দেখতে দেখতে বছর ঘুরে চলে এলো আরেকটি বসন্ত। বসন্তকে বরণ করতে তরুণীদের মধ্যে ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে নানান জল্পনা কল্পনা। ফাল্গুনের রঙের মাঝে বাসন্তী রঙের শাড়ি, খোঁপায় গোঁজা গাঁদা ফুল, হাতভর্তি চুড়ি, কপালে লাল টিপ আর হালকা মেকআপ নারীর সৌন্দর্য ফুটে ওঠে। ফাল্গুন মানেই বাসন্তী রংয়ের মেলা। হলুদ-লাল পাড়ের শাড়ি, হাত ভর্তি চুড়ি আর মাথায় গাঁদাফুল— সব মিলিয়ে পূর্ণতা পায় বসন্তের সাজ। বসন্তের প্রথম দিনে দেশীয় পোশাকের সঙ্গে হাতে থাকুক রঙিন চুড়ি।  "চুড়ি নেবেন চুড়ি, হরেক রকম চুড়ি", একসময়ের গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যের সঙ্গী ছিলো চুড়ি। 

বাঙালি নারীর হাতে রেশমি চুড়ির রিনিঝিনি ছন্দে, মন মেতে ওঠে আনন্দে। কানে ঝুলানো দুল সঙ্গে দেয় আলাদা আবহ। তাই বসন্ত বরণে নতুন পোশাকের সঙ্গে হাতভর্তি চুড়ি বা ব্রেসলেট  আর মিলিয়ে কানের দুল চাই-ই চাই। আর কদিন বাদে পহেলা ফাল্গুন। তাই নিজের সাজগোজের সব অনুষঙ্গ ঠিকঠাক মত আরেকবার মিলিয়ে নিতে পারেন। পোশাকের রং-এর সঙ্গে মিলিয়ে চুড়ি-গয়না কিনেছেন তো? এখনো না কিনে থাকলে জেনে নিন কোথায় পাবেন মনের মতো কাঁচের চুড়ি আর কানের দুল। 

টিএসসির মোড়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরি ভবনের পাশে, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান এবং ছবির হাট ও চারুকলার সামনে কাঠ, মাটির গয়না আর কাচের চুড়ির পসরা সাজিয়ে বসেছেন চুড়িওয়ালা মামারা। এছাড়া দোয়েল চত্বর, আজিজ সুপার মার্কেট, আড়ং, কলাবাগানসহ ইডেন কলেজ, নিউ মার্কেটে রাস্তার দুপাশে, গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের পাশে রয়েছে চুড়ি, দুল, গলার মালার বিশাল বাজার।

বাসন্তী সাজে অনায়াসে এসব গয়না মানিয়ে যাবে। নানা রকম ঝুনঝুনি, চুমকি, পুঁতি ব্যবহার করা মাটির গয়নাও আপনার সাজে ব্যাবহার করতে পারেন। বসন্ত সাজের বড় একটি অংশ জুড়ে থাকে ফুলের গয়না। ফুলেল সাজে নিজেকে অনন্য করে তুলতে বেছে নিতে পারেন রং-বেরঙের ফুলের গয়না। এখন প্রয়োজন আপনার রুচি আর সাধ্যের সমন্বয় করে গয়না কেনার পালা। এসব গয়না ১৫০ থেকে ৩৫০ টাকার মধ্যে অনায়াসে পেয়ে যাবেন। হাতের চুড়ি পাবেন সেট অনুযায়ী ভিন্ন দামে।

অনেকে কাঁচের চুড়ির বদলে দুই হাতে এক জোড়া বালা বা সিটিগোল্ডের চুড় পড়তে বেশি পছন্দ করেন, তাদের জন্য আজকের ডিলের রয়েছে আকর্ষণীয় বসন্তের ডিজাইনার চুড়ি কালেকশন । আজকের ডিল থেকে চুড়ি কিনতে ক্লিক করুন এখানে ও ছবিগুলোতে।

বসন্তের প্রথম সকালে বাসন্তি রঙা শাড়ি, কপালে টিপ, হাতে চুড়ি, পায়ে নূপুর, খোঁপায় গাঁদা ফুল জড়িয়ে বেরিয়ে পড়বে তরুণী-বধূরা। বসন্ত মানেই পূর্ণতা। বসন্ত মানেই নতুন প্রাণের কলরব। বসন্ত মানেই একে অপরের হাত ধরে হাঁটা। মিলনের এ ঋতু বাসন্তী রঙে সাজায় মনকে, মানুষকে করে আনমনা। এমনও মধুর দিনে এমন শঙ্কাও কি জাগে না অধীর প্রতিক্ষায় থাকা কোন মনে- ‘সে কি আমায় নেবে চিনে/ এই নব ফাল্গুনের দিনে- জানিনে…?’ 

*চুড়ি* *বসন্তেরসাজ* *পহেলফাল্গুন* *ফাল্গুনীসাজ* *সাজসজ্জা* *গহনা*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

কিনতে ক্লিক করুনগাইতে জানলে যদি গায়েন হওয়া যায় তাহলে সাজতে জানলে নায়িকা হওয়া যাবেনা কেন? আসলে কম-বেশি সাজতে জানেন সবাই। তবে সুন্দর সাজের পেছনের রহস্যটা লুকিয়ে থাকে সঠিক সাজের উপাদান নির্বাচনে। এমনিতে হয়তো তেমন সাজেন না আপনি। কিন্তু বিশেষ উপলক্ষে নিজেকে একটু গুছিয়ে না নিলেও তো চলে না। আপনার সংগ্রহে তাই থাকা চাই কিছু সাজের উপকরণ। কিন্তু সেগুলো কী? জেনে নিন এই প্রতিবেদনে।

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুনসাজ পর্বের শুরুটা করতে হবে ত্বকের ধরন অনুযায়ী ভালো মানের একটা ফেসওয়াশে। অর্থাৎ প্রসাধন বাক্সের প্রথম উপাদান হবে ফেসওয়াশ। এরপর একে একে যোগ হবে ফাউন্ডেশন থেকে শুরু করে ব্লাশ-অন, আইশ্যাডো, লিপস্টিক, কাজল, মাসকারা। ত্বকের ধরন ও গায়ের রং বুঝে সাজের উপাদান নির্বাচন করতে হবে। শুষ্ক, স্বাভাবিক, তৈলাক্ত ত্বকের বৈচিত্র্যে সাজ উপাদানে যেমন ভিন্নতা আসে, তেমনি উজ্জ্বল, শ্যাম, চাপা ত্বকের রং অনুযায়ীও সাজের উপাদান বদলে যায়।

কিনতে ক্লিক করুনসাজে উৎসবের ছোঁয়া আনতে যোগ করে নিতে পারেন রঙের ছোঁয়া। আইশ্যাডো আর লিপস্টিক নির্বাচনের সময় এবার। আইশ্যাডো কেনার সময় গুরুত্ব দিন এমন কতগুলো রঙের প্রতি, যেগুলো সব পোশাকেই মানানসই। রং হতে পারে বাদামি, সোনালি, রুপালি, ব্রোঞ্জ প্রভৃতি। এর সঙ্গে নীল, সবুজ, গোলাপি, কালো রং আছে কি না, দেখে নিন। আলাদা আলাদা রঙের পাত্র না কিনে একসঙ্গে ৬ থেকে ১২টি রঙের একটি আইশ্যাডো বক্স কিনে ফেলুন।

কিনতে ক্লিক করুনযাদের গায়ের রং উজ্জ্বল, তাঁদের হালকা রঙের লিপস্টিকগুলো বেশি মানিয়ে যায়। যাঁদের ত্বক একটু চাপা রঙের, তাঁদের গোলাপির মতো মিষ্টি রং ভালো দেখায়। যাঁদের ত্বকের রং শ্যামবর্ণ, তাঁরা বেগুনি, কমলা, গোলাপি রং বেছে নিতে পারেন। এখন অবশ্য প্রায় সবাই লাল রং ব্যবহার করছেন অবলীলায়। লিপগ্লসও ব্যবহার করতে পারেন। তবে দিনে নয় রাতের কোনো আয়োজনে।

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুনযাদের ত্বকে ব্রণের দাগ, মেছতা, চোখের নিচে কালো দাগ রয়েছে, তাঁরা কনসিলার ব্যবহার করুন। ফাউন্ডেশন থেকে এক শেড উজ্জ্বল রঙের কনসিলার কিনে নিন এর জন্য। কনসিলার অবশ্যই ফাউন্ডেশনের আগে প্রয়োগ করে নেবেন।

<কিনতে ক্লিক করুনimg class="roundIm" src="/beshtoImages/photoShare/d240/u25/u25_537030_440314.jpg" />বাদামি ও গোলাপি—এ দুই শেডের ব্লাশঅন কেনাই যথেষ্ট। তবে দিনের তুলনায় রাতের রংটা একটু গাঢ় হবেl আইলাইনার ব্যবহারে যাঁরা পারদর্শী নন, তাঁরা কাজল কিনে নিতে পারেন। কালো, সবুজ, নীল—এ তিন রঙের কাজল থাকলেই চলবে। সাজের ক্ষেত্রে সঠিক ব্রাশের ব্যবহারও জরুরি। সে ক্ষেত্রে ব্লাশঅনের জন্য একটি বড় ব্রাশ, আইশ্যাডোর জন্য চিকন ও মাঝারি দুই থেকে তিনটা ব্রাশ কিনে নিন। চাইলে আইশ্যাডোর জন্য স্পঞ্জ ব্রাশও বেছে নিতে পারেন।

কিনতে ক্লিক করুনফাউন্ডেশন বসানোর জন্য একটি স্পঞ্জ ও পাউডার লাগানোর জন্য ব্রাশ কিনে নিন। নখ থেকে চুল পর্যন্ত সবকিছু নিলেই সাজ পূর্ণতা পায়। তাই নখের জন্য সুন্দর দুটি রঙের নেইলপলিশ কিনে নিন। সব সময়ের জন্য হালকা গোলাপি ও উৎসবের জন্য লাল কিংবা সোনালি নেইলপলিশ কিনে নিন। আপনার চুলের সাজের জন্য অবশ্যই প্রয়োজন পড়বে একটি হেয়ার ড্রায়ার ও একটি হেয়ার আয়রনের। চুলের যেকোনো সাজকে দীর্ঘস্থায়ী করতে ব্যবহার করতে পারেন হেয়ার স্প্রে কিংবা জেল।

বন্ধুরা, আকর্ষণীয় এই প্রশাধনীগুলো আপনি এখন ঘরে বসেই কিনতে পারবেন। অনলাইনে সাজের উপকরণ কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 

*সাজসজ্জা* *মেকআপটিপস* *স্মার্টশপিং*

ইসরাত: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 মধ্য বয়সের মহিলা পুরুষের সাজগোজ কেমন হওয়া উচিত ?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*সাজসজ্জা* *মধ্যবয়সেরসাজ* *সৌন্দর্য্যচর্চা* *বিউটিটিপস* *লাইফস্টাইলটিপস*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ঈদের সকাল গৃহিণীর কাটে হেঁশেল ঘরে। আর তাই বেশীরভাগ গৃহিণীই মনে করেন ঈদের সকালে সাজের কোন দরকার নেই। কিন্তু আপনি কি জানেন আপনার প্রিয় মানুষগুলো চায় আপনি সাজুন। আর এই সাজগোজের জন্য আপনাকে যে খুব বেশি সময় ব্যয় করতে হবে তাও কিন্তু নয়। ঈদের দিন সবাই চায় নিজেকে স্নিগ্ধ-কোমল সাজে সুন্দরভাবে নিজেকে সাজাতে, নিজেকে সুন্দরভাবে অপরের কাছে উপস্থাপন করতে। ঈদের আনন্দের পূর্ণতা পায় নতুন জামা-কাপড়, সাজসজ্জা, আত্মীয়-স্বজনের বাসায় বেড়াতে যাওয়া এবং বন্ধুদের সঙ্গে ঘুরে বেড়ানোর মধ্য দিয়ে। আর এসবের জন্য ঈদের অন্তত ৭ দিন আগে থেকেই ঈদের প্রস্তুতির প্রয়োজন পড়ে।

এক সপ্তাহ তথা ৫-৭ দিন আগেই হেয়ারকাটটি করিয়ে নিন, কারণ হেয়ারকাটটি সেট হতে ৫-৭ দিন সময় লেগে যায়। আগের দিন পেডিকিউর-মেনিকিউর, ২-৩ দিন আগে প্রয়োজন অনুযায়ী হেয়ার ট্রিটমেন্ট এবং হেয়ার স্ট্রেটনিং করাতে চাইলে ৭-৮ দিন আগেই করাতে পারেন। হেয়ার কালার ২-৩ দিন আগেও করা যেতে পারে। আইব্রো, ওয়াক্সিং থ্রেডিং ২-১ দিন আগে। মেহেদি চাঁদ রাতে লাগানোটাই ভালো। ঈদের সারাটা দিন মূলত অতিথি আপ্যায়ন করে ব্যস্ততায় দিন কাটে। তাই সাজের মধ্যে একটা স্নিগ্ধভাব থাকা চাই, যাতে সারা দিনের ক্লান্তি চেহারায় ফুটে না ওঠে। সেক্ষেত্রে সকালের সাজে স্নিগ্ধতা ও সতেজতা বেশি জরুরি। সকালে সাজে সবচেয়ে প্রয়োজনীয় হলো পরিচ্ছন্ন একটি সাওয়ার। তাছাড়া ময়েশ্চারের সঙ্গে ঠোঁটে ভেসলিনই যথেষ্ট। দুপুরে রোদটা বেশি পড়ে। তাই এ সময়ে জমকালো সাজ দৃষ্টিকটু লাগবে। এক্ষেত্রে হাল্কা সাজই মানানসই। সাজের ক্ষেত্রে ন্যাচারাল আই শ্যাডো ব্যবহার করা যায়

♣ সালোয়ার কামিজ পরলে, আরাম পাবেন এবং কাজে সুবিধা হবে এমনটা পরুন। ফুলহাতার থ্রিপিস না পরাই ভালো।
♣ শাড়ি পরলে সুতি শাড়ি পরুন। সকালের সাজে সুতি শাড়ি বা কাপড় ভালো লাগে
♣ হালকা করে কাজলের রেখা টেনে নিন দুই চোখে। সাজে অন্যরকম মাত্রা আসবে।
♣ চুলের ক্ষেত্রে কাজের সঙ্গে সুবিধা হয়, স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে, সেভাবে বেঁধে নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে সকালের দিকে চুল ছেড়ে দেওয়া যেতে পারে। পরে বোল্ড বা খোঁপা করে নেওয়া যেতে পারে পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে।
♣ টিপ পরলে, কপালে ছোট্ট একটা টিপ পরুন শাড়ির রঙে মিলিয়ে।
♣হালকা কিছু সোনার গয়না পরুন।

ঈদের সকালে হালকা সাজে সাজিয়ে নিন নিজেকে। ভালো কাটুক আপনার ঈদের সারাটি দিন।

*ঈদেরসাজ* *সকালেরসাজ* *গৃহিনীরসাজ* *সাজসজ্জা*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

নারীদের সাঁজগোজের একটা বড় অংশ জুড়ে থাকে নখ। চমত্কার মেক-আপ আর পোশাকের সবটাই ভেস্তে যেতে বাধ্য যদি আপনার হাতটি না হয় ঠিক একই রকম সুন্দর আর মানানসই। আর তাই নখের সৌন্দর্য বাড়াতে বেশ বড় রকমের ভূমিকা রাখে যে জিনিসটি সেই নেইলপালিশ নিয়েই কিছু টিপস দেওয়া হল আজ।

      কিনতে ক্লিক করুন                                               কিনতে ক্লিক করুন

জেনে নিন কোন রঙ-এর পোশাকের সাথে কোন রং-এর নেইলপালিশ ব্যবহার করতে পারেন আপনি।

♦ লাল রঙের নেইলপলিশ আপনি আপনার নখে মানানসইভাবে লাগাতে পারেন যে কোন ধরনের কালো রঙের পোশাকের সাথে। সেটা শার্ট হোক, অথবা কামিজ। সবধরনের কালো রঙের পোশাকের সাথেই বেশ আকর্ষণীয়ভাবে মানিয়ে যায় লাল নেইলপলিশ। জিন্সের পোশাকের সাথে দেখতে বেশ চমৎকার লাগে লাল রঙের নেইলপলিশ।

    কিনতে ক্লিক করুন                                               কিনতে ক্লিক করুন

♦ সাদা রঙের পোশাকের সাথেও বেশ মানিয়ে যায় লাল রঙের নেইলপলিশ। তবে অতিরিক্ত সাদার ব্যবহার থাকলে অবশ্য লাল রঙটা না ব্যবহার করাই ভালো। কালো, ধুসর অথবা সাদা যেকোন রঙের সাথেই মানিয়ে যায় নিয়ন গোলাপী রঙের নেইলপলিশ।

কিনতে ক্লিক করুন                                               কিনতে ক্লিক করুন

♦অস্বচ্ছ গোলাপী রঙের নেইলপলিশ মানিয়ে যায় যে কোন পোশাকের সাথেই।

♦ গোলাপী রঙটা আর সব রঙের সাথে মানিয়ে গেলেও লাল অথবা খুব বেশি উজ্জ্বল রঙ এর পোশাকের ক্ষেত্রে এটি না ব্যবহার করাই ভালো।

      কিনতে ক্লিক করুন                                               কিনতে ক্লিক করুন 

♦ প্যাষ্টেল রঙের কাপড় পরলে সাথে ব্যবহার করুন নীল রঙের নেইলপলিশ।

♦ সোনালী ও রুপালী রঙের পোশাকের সাথে ব্যবহার করুন হালকা নীল বা আকাশী রঙের নেইলপলিশ।

♦ সাদা, নীল ও উজ্জ্বল রঙের ক্ষেত্রেও আপনার পছন্দের সারিতে রাখতে পারেন নীল রঙের নেইলপলিশকে।

♦ উজ্জ্বল ধূসর রঙের পোশাকের সাথে নখে ব্যবহার করতে পারেন হলুদ রঙের নেইলপলিশ।

♦সাদা রঙের পোশাকের সাথেও পরতে পারেন হালকা হলুদ রঙের নেইলপলিশ।

♦সোনালি রঙের সাথে মিলিয়ে নখে লাগাতে পারেন কালো রঙের নেইলপলিশ। রুপালি রঙের সাথেও বেশ মানিয়ে যায় কালো নেইলপলিশ। তবে কেবল সোনালি বা রুপালি না, কালো রঙের নেইলপলিশ আপনি পরতে পারেন সব রঙের পোশাকের সাথেই।

           কিনতে ক্লিক করুন                                               কিনতে ক্লিক করুন

নারীরা বরাবরই সাজগোজ করতে অনেকটা পছন্দ করেন। আর ফ্যাশানেবল পোশাকের সাথে নেইলপালিশ না দিলে যেনও চলেই না। কোন রং-এর নেইলপালিশ ব্যবহার করলে আপনাকে অনেক বেশি সুন্দর লাগবে l

*নেইলপালিশ* *নখেরযত্ন* *সাজসজ্জা* *বিউটিটিপস*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের আর মাত্র কয়েকদিন বাঁকি। এই দিনটিকে ঘিরে উৎসাহ উদ্দীপনার কোন কমতি নেই। কিভাবে ভ্যালেন্টাইনে প্রিয় মানুষটির কাছে আরও বেশি প্রিয় হয়ে ওঠা যায়, কিভাবে নিজেকে আরও একটু ফ্যাশনবেল করা যায় তাই নিয়ে তরুণ-তরুণীদের জল্পনা কল্পনা শুরু হয়ে গেছে। তবে যে যাই বলুক এই দিনটাতে পোশাকে একটু ভিন্নতা থাকতেই হবে। তাই ভ্যালেন্টাইনে প্রিয় মানুষটির কাছে আরও প্রিয় হয়ে উঠতে পরুন নিচের ড্রেস গুলো। 
 
 
ভ্যালেন্টাইন'স টি-শার্ট
 
 
টি-শার্টেই যদি ভালো বাসার বহিপ্রকাশ ঘটে তাহলে তো কথায় নেই। ভ্যালেন্টাইন ডেতে এই রকম টি-শার্ট যদি আপনার পরণে থাকে তাহলে প্রেমিকের আর বুঝে নিতে দেরি থাকবেনা যে আপনি তার জন্য এই টি-শার্টটি পরেছেন। তাই আর দেরী না করে আজই কিনে নিন জাস্ট লাভ ভ্যালেন্টাইন'স টি-শার্ট। 
 
 
 
 
ভ্যালেন্টাইন’স কাপল টি-শার্ট 
ভালোবাসা দিবসে আপনাদের ড্রেসটি যদি একই রকম হয় তাহলে কেমন মজা হবে বলুন তো। যে কেউ ধরেই নেবে আপনার একজন আরেক জনকে অনেক ভালোবাসেন। আর আপনাদের মধ্যে ভালোবাসা অধিক বেড়ে যাবে। তাছাড়াও ভ্যালেন্টাইন’স কাপল টি-শার্টটিতে আপনাদের বেশ স্টাইলিশ দেখাবে। ফ্যাশনে যুক্ত হবে নতুন মাত্র। তাহলে আর দেরী না করে আজকের ডিল থেকে কম্বো অফারে কিনে নিন ভ্যালেন্টাইন’স কাপল টি-শার্ট। 
কাপল টি-শার্ট এখানে ক্লিক করুন
 
 
 
ফ্যাশনেবল কূর্তি
কূর্তি পরলে নাকি ফূর্তির শেষ থাকে না। তাই প্রিয় মানুষটিকে আনন্দ ফূর্তিতে ভরিয়ে দিতে বেছে নিতে পারেন কূর্তি। কূর্তি আমাদের দেশে বর্তমানে অধিক জনপ্রিয় পোশাক। বিশেষ করে তরুণীদের প্রথম পছন্দের তালিকায় রয়েছে এটি। এই পোশাকটি বেশ ঢিলেঢালা এবং আরামদায়ক। এই পোশাকটি আপনাকে এতটাই ফ্যাশনেবল করে তোলতে সক্ষম যা দেখেই আপনার মনের মানুষটি আপনাকে আরও কাছে টেনে নেবে।
কূর্তি কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
 
সেমিস্টিচড সানতুন থ্রি পিস 
সেমিস্টিচড সানতুন থ্রি পিস ভ্যালেন্টাইনে হতে পারে আপনার সেরা পরিধেয়। স্টাইলিশ এই থ্রী পিস গুলো আপনার আউটলুক দিগুণ করে তোলবে। প্রিয় মানুষটির পাশাপাশি একসাথে ঘুরে বেড়াতে ফ্যাশনেবল স্টাইলিশ থ্রী পিস কিনে নিতে পারেন। এটি প্রিয় মানুষটির কাছে আপনাকে আরও প্রিয় করে তুলবে। 
থ্রী পিস টি কিনতে  এখানে ক্লিক করুন
 
 
 
 
শাড়ি
বাঙালি ললনাদের নাকি শাড়িতে বেশি মানায়। কাথায় বলে, শাড়িতে অনন্যা বাঙালি ললনা। তাই ভালোবাসা দিবসে সত্যিকারের ললনা হয়ে উঠতে শাড়ি পরুন। বিশেষ করে যারা একেবারেই শাড়ি পরেন না তারা ভ্যালেন্টাইনে শাড়ি পরে ভালোবাসার মানুষটিকে চমকে দিতে পারেন। তবে শাড়ি পরার সময় অবশ্যই মাচিং করে ব্লাউজ পরবেন। 
শাড়িটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
ভালোবাসা দিবসের সব পোশাক কিনুন এই লিংকে
*ভ্যালেন্টাইন* *ভালোবাসাদিবস* *সাজসজ্জা* *ফ্যাশন* *শপিং* *স্মার্টশপিং* *লাইফস্টাইলটিপস*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাসন্তী পোশাক কিনতে ক্লিক করুনপ্রকৃতিতে নব আনন্দের সাজ সাজ রব বিরাজ করছে। আর মাত্র ক’দিন পরেই প্রকৃতিকে নতুন সাজে রাঙাতে ঋতুরাজ বসন্তের আগমন ঘটবে। বসন্ত মানেই বাসন্তী সাজে নিজেকে একটু বদলে নেওয়া। রাস্তার পাশে ফুটে থাকা পলাশ-শিমুল-কৃষ্ণচূড়া, কচি সবুজ পাতা আর লাল-হলুদ ফুলের রঙ্গিণ সাজের সাথে নিজেকে মানিয়ে না নিলে বসন্তের রঙ আপনাকে ফাঁকি দেবে এটাই স্বাভাবিক। তাই আসছে ফাগুনে স্টাইলিশ ফ্যাশনের ছোঁয়ায় নিজেকে সাজিয়ে নিন নতুন করে। কি কি রাখবেন বাসন্তী সাজে চলুন জেনে নেই।
 
নারীদের বাসন্তী শাড়ি
১লা ফাগুনে বসন্তকে বরণ করতে বেরিয়ে পড়বে সবাই। বাসন্তী রং শাড়ি পরে ললনারা ডাক দেবে মেলায় যাওয়ার। সে দিনের সাজটা কেমন হবে আপনার? বসন্তের প্রকৃতিতে রঙের ছড়াছড়ি। 
পয়লা ফাল্গুনের সাজে তাই রঙের ছোঁয়া তো থাকবেই। নতুন ফুল, পাতার রংগুলো তুলে আনুন পোশাকে। শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া যা-ই পরা হোক, তাতে তো বসন্তের উজ্জ্বল রংগুলোর ছোঁয়া থাকা চাই। বাসন্তী, কমলা, লাল, সবুজ, রানিং রং এগুলোই তো থাকবে শাড়িতে । শাড়িতে থাকতে পারে ব্লক ও জরির কাজ। ব্লাউজের কাটে ভিন্নতা আনতে পারেন ম্যাগি বা ঘটি হাতা দিয়ে। 
ললনাদের বাসন্তী শাড়ির কালেকশন দেখতে ও কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 
 
বাসন্তী ফ্যাশনে গয়না
 
হালকা সাজ পোশাকের সঙ্গে গয়নাও হালকা হওয়া চাই। সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে মাটি, কাঠ বা মেটালের দুল পরুন। গলায় পাতলা নেকলেস পরে নিতে পারেন। হাতে চুড়ি পরতে পারেন। এখানেও বেছে নিন কাঠ, মাটি, মেটাল বা কাচের রেশমি চুড়ি। শাড়ি পরলে কানের দুলের সঙ্গে গলায় লম্বা পুঁতির মালা পরুন। সঙ্গে হাতভর্তি চুড়ি। সাজের পূর্ণতা আনতে ব্যবহার করুন হালকা সুগন্ধি।
বাসন্তী সাজের গয়না কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
 
 
 
ছেলেদের  বাসন্তী ফ্যাশন
বসন্ত বরণে শুধু মেয়েরাই শাড়ি আর গহনায় নিজেকে সাজাবে তা কি হয়? ছেলেরাও ১লা ফাগুনে নিজেকে সাজিয়ে নিতে পারেন বাসন্তী সাজে।  বাসন্তী রংয়ের পাঞ্জাবি পরেই যে ফাল্গুন পার করতে হবে এমন কোনো কথা নেই। প্রকৃতির যেকোনো উজ্জ্বল রংয়ের সঙ্গে মিলিয়ে কমলা, লাল, সবুজ, হলুদ পাঞ্জাবি পরতে পারেন। এদিন কমলা রঙের পোলোশার্ট ও টিশার্টেও বেশ মানাবে। সঙ্গে চোজ-পায়জামা। পাঞ্জাবি পরতে না চাইলে উজ্জ্বল রংয়ের শার্টও পরতে পারেন। সেক্ষেত্রে জিন্স-প্যান্ট বেশ মানিয়ে যাবে।
ছেলেদের বাসন্তী ফ্যাশনে মন মাতানো পোশাক কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 
*বসন্তফ্যাশন* *ফ্যাশন* *সাজসজ্জা* *ফ্যাশনটিপস* *কেনাকাটা* *স্মার্টশপিং*
খবর

Online Khobor: একটি খবর জানাচ্ছে

চুলের ঘনত্ব বৃদ্ধিতে কিছু ছোট্ট টিপস - Online Khobor
http://onlinekhobor.com/beauty-tips/news/22824
নারীর সৌন্দর্যে চুলের গুরুত্ব কতোখানি তা বলাই বাহুল্য। এছাড়াও ...বিস্তারিত
*রুপচর্চা* *চুলের* *সাজসজ্জা* *বিউটিটিপস* *বৃদ্ধিতে* *যত্ন* *অনলাইনখবর*
১৪০ বার দেখা হয়েছে
খবর

Online Khobor: একটি খবর জানাচ্ছে

জেনে নিন ন্যাচারাল মেকআপের নিয়মকানুন - Online Khobor
http://onlinekhobor.com/beauty-tips/news/22928
অনলাইন খবর ডেস্ক:   বিয়ে বা অনুষ্ঠানে জমকালো আর ভারী সাজতো ...বিস্তারিত
*রুপচর্চা* *মেকআপ* *সাজসজ্জা* *বিউটিটিপস* *ন্যাচারাল* *নিয়মকানুন* *অনলাইনখবর*
১৪৭ বার দেখা হয়েছে
খবর

Online Khobor: একটি খবর জানাচ্ছে

নিজেকে আকর্ষণীয় করে তুলুন মাত্র ৭টি উপায়ে - Online Khobor
http://onlinekhobor.com/beauty-tips/news/23125
অনলাইন খবর ডটকমঃ   অনেক নারীই আয়নার সামনে দাড়িয়ে নিজের ...বিস্তারিত
*রুপচর্চা* *আকর্ষণীয়* *সাজসজ্জা* *বিউটিটিপস* *মুখেরযত্ন* *যত্ন* *অনলাইনখবর*
১২২ বার দেখা হয়েছে
খবর

Online Khobor: একটি খবর জানাচ্ছে

জেনে নিন ন্যাচারাল মেকআপের নিয়মকানুন - Online Khobor
http://onlinekhobor.com/beauty-tips/news/22928
বিয়ে বা অনুষ্ঠানে জমকালো আর ভারী সাজতো ...বিস্তারিত
*রুপচর্চা* *মেকআপ* *সাজসজ্জা* *বিউটিটিপস* *মুখেরযত্ন* *যত্ন* *অনলাইনখবর*
১৩৬ বার দেখা হয়েছে

লিজা : একটি বেশব্লগ লিখেছে

১. ম্যাকের আইলাইনার কাজলঃ
তারুণ্যদীপ্তলুক দিতে চাইলে ম্যাকের কাজলের কি কোন বিকল্প কি হতে পারে? আর তাছাড়া কন্ট্যাক্ট লেন্স ব্যবহারকারীদের জন্য এটা নিরাপদ। পেনসিল স্টাইলের এই কাজলটি উপর আর নিচের ল্যাশ লাইনে লাগানো যায়। ৬-৮ ঘন্টা দীর্ঘস্থায়ী হয়। দামটা একটু বেশিই পড়বে ১৪০০ টাকা। বিভিন্ন শেডের যেমন ব্ল্যাক,কফি,গ্রিন, ডার্ক ব্লু ম্যাকের কাজল সত্যিই চোখকে মোহনীয় করবে।

২. বুরজোইস খোল এন্ড কন্টর আইপেন্সিলঃ
জোজবা অয়েল সমৃদ্ধ বুরজোইস কাজল বেশ মসৃণ এবং চোখে লাগালে ফ্রেশ দেখায়। ওয়াটারপ্রুফ এই কাজল স্মোকি মেক আপের জন্য উপযোগী এবং টেক্সচারটি কিছুটা ক্রিমি। চোখের কোলেও দেয়া যাবে।এটি ১৬ ঘন্টা স্থায়ী থাকবে,ছড়াবেও না। এটি ৫০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে।

৩. ববি ব্রাউন আই কাজল লাইনারঃ
ববি ব্রাউনের আই কাজল লাইনার বিশ্বজুড়ে সমাদৃত। চোখের পাতায় লাগালে ভালভাবে বসে থাকে, ঘেমে গেলে ছড়ায় না। এর সফট টেক্সচার স্মোকি আইসের জন্য পার্কফেক্ট লুক এনে দিবে।শুধু একটাই ঝামেলা সেটি হচ্ছে শার্প করা।ছয় ছয়টি স্বতন্ত্র কালারের ববি ব্রাউনের কাজল এর প্রতিটির দাম পড়বে প্রায় ২০০০ টাকার মতো।

৪. মেবিলিন কোলোজাল কাজলঃ
এই কাজলটি এখন ক্রেতাদের কাছে পছন্দের তালিকায় শীর্ষে। হলুদ রঙের প্যাকেটে মেবিলিন কাজল সরাসরি ভারত থেকে দেশ বিদেশে সৌন্দর্যপ্রিয় মানুষের হাতে পৌঁছে যাচ্ছে।ভিটামিনইসমৃদ্ধডার্কব্ল্যাক কোলোজাল কাজল চোখে একটা ম্যাট লুক এনে দেয়। এটি একদমই ছড়ায় না এমনকি দীর্ঘস্থায়ী থাকে ৬-১২ ঘণ্টা পর্যন্ত। রোলিং সিস্টেমে এটা ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ব্যবহার করতে হয়। এর দাম পড়বে ৩০০-৩৫০ টাকা।

৫. ল্যাকমে আইকনিক কাজলঃ
তাড়াহুড়া করে বাইরে যাচ্ছেন,ঝক্কি ঝামেলা ছাড়াই আইকনিক কাজলের একটান আপনার চোখকে আকর্ষণীয় করে তুলবে।ওয়াটারপ্রুফ ল্যাকমের আইকনিক কাজল ১০ঘণ্টা পর্যন্ত স্থায়ী থাকে।ডারমাটোলজিস্টসদের মতে,চোখে অ্যালার্জির সমস্যা থাকলে আইকনিক কাজল দিলে কোন সমস্যাই অনুভূত হবে না। আর এটা মুছে ফেলাও সহজ।এটাতেও রোলিং সিস্টেম আছে। বাজারে কালো ছাড়াও হোয়াইট,ব্লু,গ্রে কালারের আইকনিক কাজল পাওয়া যায়। দাম পড়বে প্রায় ৪৫০ টাকার মতো।

৬. লরিয়েল প্যারিস কাজল ম্যাগিকিউঃ কোকোয়া বাটার,ভিটামিন ই ও ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ওয়াটারপ্রুফ লরিয়েল প্যারিসের কালো পেনসিল কাজলটি ১২ ঘণ্টা পর্যন্ত ছড়াবে না। দাম পড়বে ৩০০ টাকা। (সংগ্রহীত)
*টিপস* *সাজসজ্জা* *কাজল*

খুশি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

চলছে ১১তম ক্রিকেট বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপ ক্রিকেট উপলক্ষে চারিদিকে ব্যপক উন্মাদনা শুরু হয়ে গেছে। ভক্তদের মধ্যে ক্রিকেট ক্রিকেট সাজ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। স্টেডিয়াম, বড় পর্দায় খেলা দেখা, অফিস, আড্ডা, ঘোরাঘুরির মাঝেই পরা হচ্ছে ক্রিকেটের জার্সি। শুধু ছেলেরাই নন ক্রিকেট জার্সি পড়ার উম্মাদনা কম নেই মেয়েদের মধ্যেও। তবে অনেক মেয়েরা ক্রিকেটের টি-শার্ট পরতে গিয়ে শার্টের সাথে মেকআপ মেলাতে পারেন না। তাই বিশ্বকাপরে উন্মাদনায় জার্সির সাথে হয়ে যাক মানানসই শর্টকাট মেকআপ।

জার্সির সাথে যে ধরনের মেকআপ করবেনঃ
বেস মেকআপ
প্রথমে মুখ ভালো করে ধুয়ে নিন। মুখে ফাউন্ডেশন ব্যবহার না করাই ত্বকের জন্য ভালো। মুখে দাগ থাকলে সেটা কনসিলার দিয়ে ঢেকে ওপরে ফেসপাউডার লাগিয়ে নিন। সবচাইতে ভালো হয়ে যদি সানস্ক্রিন সমৃদ্ধ ফেসপাউডার ব্যবহার করতে পারেন।

ওয়াটারপ্রুফ আই লাইনার ও মাসকারা
কোলাহলের গরমে কাজল ব্যবহার করা উচিত না। কারণ কাজল গলে চোখের নিচে ছড়িয়ে যায়। ফলে দেখতে ক্লান্ত দেখায়। তাই এই গরমে ওয়াটারপ্রুফ আইলাইনার ব্যবহার করুন। সেই সঙ্গে চোখের পাপড়িকে আরও ঘন দেখানোর জন্য ওয়াটারপ্রুফ মাসকারা ব্যবহার করুন। সঙ্গে আই ভ্রু আঁকতে ভুলবেন না।

 ম্যাট লিপস্টিক
ভিড়ের মাঝে ও গরমে কখনই গ্লসি লিপস্টিক ব্যবহার করবেন না। গরমে গ্লসি লিপস্টিক ব্যবহার করলে সেটা ছড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই ব্যবহার করুন ম্যাট লিপস্টিক। লিপস্টিক দেয়ার পর একটু পাউডার প্রেস করে নিন। এর ওপর আবার লিপস্টিক দিন। তাহলে দীর্ঘ সময় ঠিক থাকবে লিপস্টিক।

চুল বাঁধুন
খেলার পোশাক বা জার্সির সঙ্গে চুল খোলা রাখা উচিত নয়। এতে চুল ঘামিয়ে যায় এবং ধুলাবালিতে চুলের ক্ষতি হয়। মেকআপ করা শেষে চুলটাকে ঢিলে করে পনিটেল অথবা বেনি করে ফেলুন। চুল বাঁধার সময় সবসময় মোটা ও নরম ব্যান্ড ব্যবহার করবেন। চিকন ও শক্ত ব্যান্ড ব্যবহার করলে চুল ছিড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

পাদুকা
টি-শার্টের সঙ্গে কেডস বা ব্যালেরিনা শু পড়ে নিন। ভুলেও হাই হিল বা গ্লেসি শু পরবেন না। দেখতে একদমই মানাবে না। সহজেই মুভ করা যায় এমন শু পড়ুন।

টি-শার্ট যেখানে পাবেন:
বড় বড় পোশাকের শো-রুমগুলোতে ক্রিকেটের আমেজে তৈরি করা হয়েছে মেয়েদের জন্য বিভিন্ন রকম টি-শার্ট। বসুন্ধারা সিটি, সীমান্ত স্কয়ার, ধানমন্ডি হকারস মার্কেট, দেশি দশ, ফ্রি-ল্যান্ড ইত্যাদি স্থানে পেয়ে যাবেন টি-শার্ট।

খেলার পোশাকের সঙ্গে ম্যাট লুক রাখার চেষ্টা করুন। ক্রিকেটের আয়োজন উপভোগ করুন ক্রিকেটের সাজে সবার সঙ্গে। (সংকলিত)

*সাজসজ্জা* *ফ্যাশন* *ক্রিকেটবিশ্বকাপ* *বিশ্বকাপক্রিকেট* *মেকআপ* *সৌন্দর্য্যচর্চা*

লিজা : একটি বেশব্লগ লিখেছে


আজকাল গাছের মেহেদির চাইতে কেমিক্যাল মেশানো টিউব মেহেদির চাহিদাই বেশি। যারা এই মেহেদি ব্যবহার করেন তারাও খুব ভালো করে জানেন যে এই মেহেদি ব্যবহার করা ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। তারপরও ব্যবহারের সুবিধা বা সুন্দরভাবে নকশা করা যায় বলে অনেকের কাছেই এটি পছন্দনীয়। তবে আপনি চাইলে বাড়িতেও প্রাকৃতিক মেহেদি থেকে টিউব মেহেদি তৈরি করতে পারবেন। আসুন সে বিষয়ে জেনে নিই।

 বানানোর প্রক্রিয়া:

    মেহেদি পাতা যত্ন করে বাটতে হবে। মিহি হওয়া চাই। এবার চায়ের ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে ফেলুন। চায়ের ছাঁকনির ছিদ্রগুলোও হতে হবে মিহি ছোট ও মিহি। খয়ের মেশাতে পারেন, যদি গাঢ় রং চান।
    বাটার পেপারকে সুন্দর করে কোণ বানান (এই কাগজগুলো ব্যবহার করা হয় কেকের ওপর ক্রিমের নকশা করার কাজে)। সামনের ছিদ্রটি যাতে সূক্ষ্ম চিকন হয়।
    আঠালো টেপ দিয়ে ভালোমতো চারপাশ আটকে ফেলুন। পেছনের দিকটা খোলা রাখতে হবে। মেহেদি ঢালুন কোণটিতে। পেছনের অংশটুকু এবার ভালোমতো আটকে ফেলুন। ব্যস, তৈরি হয়ে গেল আপনার মেহেদি কোণ। যাতে নেই কোনো রাসায়নিক পদার্থ।
    তবে মাঝে মধ্যে বেশি পাতলা হয়ে যায় বাটা মেহেদি। এ ক্ষেত্রে সঙ্গে মিশিয়ে দিন গুঁড়ো মেহেদি পাউডার।

 মেহেদি লাগানোর প্রস্তুতি:

    অবশ্যই হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। শুকনো করে মুছে ফেলুন। মেহেদি লাগানোর আগে হাতে ক্রিম বা তেল লাগাবেন না। পছন্দমতো নকশায় এবার এঁকে ফেলুন দুই হাত।
    হাতে লাগানো মেহেদি পুরোপুরি শুকোতে দিন। শুকিয়ে গেলে লেবুর রস লাগান। ১৫-২০ মিনিট রাখতে হবে আরও। ধুয়ে হাতে তেল লাগান সামান্য। রং গাঢ় হবে এতে।
    ঈদের যত কম ব্যবধানে মেহেদি লাগানো যাবে, ততই ভালো। সবচেয়ে ভালো হবে যদি চাঁদরাতে লাগান। অন্তত ঈদের তিন দিন মেহেদিটুকু আলোকিত করে রাখবে আপনার হাত দুটি। (সংগ্রহীত)

*টিপস* *সাজসজ্জা*

যারিন তাসনিম: একটি টিপস পোস্ট করেছে

চোখের সাজে সাদা কাজলের ব্যবহার
http://newsa2z.com/?p=5230
কাজলের রঙ কালোই ভালো এই ধারণা ভেঙ্গে দিয়ে কিছুদিন আগেও নীল ও সবুজ রঙের কাজল পৃথিবী দাপিয়ে বেড়িয়েছে। কিন্তু বর্তমানে এই নীল ও সবুজ রঙের কাজল একটু পিছিয়ে পরেছে। আর ফ্যাশনের জগতে স্থান করে নিয়েছে সাদা কাজল। সাদা কাজল চোখের সাজে নিয়ে এসেছে ভিন্নমাত্রা। সাদা কাজলের মাধ্যমে চোখের আকার একটু বড় করে উপস্থাপন করা যায়। পাশাপাশি চোখের সাজকে করে তোলে বোল্ড এবং গরজিয়াস। কিন্ত এই সাদা কাজলের ব্যবহার একটু বিপদজনক। সঠিক উপায়ে এবং ঠিক মত ব্যবহার করে চেহারায় আনতে পারেন ভিন্নমাত্রার দীপ্তি। তাই সাদা কাজল ব্যাবহার করতে জানতে হয় কিছু ট্রিক্স। চোখের উপরের পাতায় সাদা কাজল চোখের পাতায় ভিন্নধর্মী কাজলের স্টাইল আনতে ব্যবহার করতে পারেন সাদা কাজল। সাধারনত যাদের ত্বকের রঙ উজ্জ্বল শ্যামলা ও ফর্সা তারা আইলাইনার যেভাবে দেয়া হয় সেভাবে সাদা কাজল ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া চোখের পাতার ভেতরের দুইদিকে সাদা কাজল ব্যবহারে ন্যাচারাল লুক আনতে পারেন সাজে। চোখ বড় দেখাতে চোখের নিচের পাতায় সাদা কাজল অনেকেই আছেন যারা চোখের সাজের মাধ্যমে চোখকে একটু বড় আকার দিয়ে থাকেন। সাদা কাজলের সাহায্য নিয়ে খুব সহজে চোখের পাতা বড় দেখাতে পারবেন। এর জন্য কালো কাজল যেভাবে চোখের নিচের পাতায় দেয়া হত সেভাবেই সাদা কাজল দিয়ে একে নিন। এরপর কালো কাজল দিয়ে বর্ডার করে দিন। চোখের আকার বড় দেখাবে।white kajal1 হালকা সাদায় সাধারণ সাজে গরজিয়াস লুক সাদা কাজল ব্যবহারের সব চাইতে ভালো সাজ হচ্ছে চোখের নিচের পাতায় এর ব্যবহার। সাধারণভাবে যেভাবে কালো কাজল দিয়ে সাজা হয় ঠিক সেভাবেই সেজে এতে একটু হালকা সাদা কাজল ব্যবহার করে আনা যায় এই গরজিয়াস লুক। প্রথমে কালো কাজল দিয়ে চোখের সাজ দিয়ে নিন। শুধু নিছের পাতার ভেতরের দিকে কালো কাজলের পরিবর্তে সাদা কাজল লাগিয়ে নিন। ...বিস্তারিত
*সাজসজ্জা* *বিউটিটিপস* *কাজল* *সাদাকাজল* *হালেরফ্যাশন* *কৈশোরেফ্যাশন* *ঈদফ্যাশন* *পূজাফ্যাশন*
২৯১ বার দেখা হয়েছে

হাফিজ উল্লাহ: একটি টিপস পোস্ট করেছে

চোখ আকর্ষণীয় করে তুলুন ৭ উপায়ে
http://www.arthosuchak.com/archives/105834/%E0%A6%9A%E0%A7%8B%E0%A6%96%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%86%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%B7%E0%A6%A8%E0%A7%80%E0%A7%9F-%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%A4%E0%A7%81%E0%A6%B2%E0%A7%81%E0%A6%A8/
‘চোখ যে মনের কথা বলে চোখে চোখ রাখা শুধু নয় চোখের সে ভাষা বুঝতে হলে চোখের মতো চোখ থাকা চাই।।’ শিল্পী খন্দকার নূরুল আলম ‘ছায়াছবি’ সিনেমায় এই জনপ্রিয় গানটি গেয়েছিলেন। সত্যিই চোখের ভাষাই অনেক কিছু বলে দেয়। শুধু তাই নয়, ব্যক্তিত্বকে ফুটিয়ে তুলতেও কিন্তু এর জুড়ি নেই। তাই চোখের জন্য দরকার সামান্য মেকআপ। দেখবেন, তা ব্যবহারে চোখের চেহারাটাই পুরো পাল্টে যাবে। একটু খানি যত্নেই চোখ হয়ে উঠবে অনন্য। সেই সাথে চোখের সৌন্দর্যও কিন্তু বেড়ে যাবে বহুগুণ। হয়ে উঠবে আকর্ষণীয়। এবার অর্থসূচক পাঠকদের জন্য চোখকে আকর্ষণীয় করে তোলার ৭ উপায়ের কথা জানিয়ে দেওয়া হলো। ...বিস্তারিত
*চোখেরসাজ* *সাজসজ্জা*
৫১৬ বার দেখা হয়েছে

★ছায়াবতী★: একটি বেশব্লগ লিখেছে

হাত ও পায়ের যত্ন :
হাত ও পায়ের যত্নের জন্য করাতে পারেন মেনিকিউর ও পেডিকিউর।
ঘরে বসে এটি করার জন্য একটি পাত্রে কিছুটা উষ্ণ পানির সঙ্গে জীবাণুনাশক তরল, শ্যাম্পু ও লেবু এবং সামান্য লবণ মিশিয়ে নিন। এরপর আপনার হাত ও পা মিশ্রিত পানিতে ১০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। এবার নেলকাটার দিয়ে নখের অতিরিক্ত অংশ কেটে ফেলুন। আপনার নখ শক্ত ও মজবুত রাখার জন্য নেইল ফাইল দিয়ে নখ ঘষে নিন। এরপর বাফার দিয়ে নখের ময়লা ঘষে পরিষ্কার করে নিন। এতে নখের উজ্জ্বলতাও বাড়বে। 
*সাজসজ্জা* *রুপচর্চা* *বিউটিটিপস* *ত্বকেরযত্ন*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★