স্কুল ব্যাগ

স্কুলব্যাগ নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

কি আপনার মনে হচ্ছে এই তো সেদিনই আপনার কোল আলো করে যে ছোট্ট সোনামনি এসেছে, দেখতে দেখতে তার স্কুলে যাওয়ার সময় হয়ে এলো। সোনামনি স্কুলে যাচ্ছে আপনার কি আর চিন্তার শেষ আছে ! তবে, সব পরিকল্পনা মাফিক প্ল্যান  করলে চিন্তা একটু কমানো যাবে।  

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

• ছোট্ট সোনা স্কুলে যাচ্ছে, তাকে মানসিকভাবে প্রস্তুত করুন
• স্কুল সম্পর্কে মজার মজার গল্প বলুন
• তাকে বোঝান স্কুল ভয়ের জায়গা নয়
• বেশ কিছুটা সময় সে আপনার কাছ থেকে অন্য পরিবেশে থাকবে, তাই আগে
• থেকেই তার অভ্যাস তৈরি করুন।
• মাঝে মাঝে স্কুলে নিয়ে বেড়াতে যান
• শিশুকে নিরাপদে রাস্তা পার হতে শেখান
• নাম-ঠিকানা, বাসার ফোন নম্বর মুখস্ত করান শিশুকে
• একটি কাগজে বিস্তারিত ঠিকানা, যোগাযোগের নম্বর লিখে শিশুর ব্যাগের নির্দিষ্ট জায়গায় রেখে দিন।

সোনামনির নতুন স্কুলের জন্য কেনাকাটা শেষ ! যদি না হয়ে থাকে তাহলে আগেই তালিকা করুন কি কি  প্রয়োজন :

• স্কুলের পোশাক তৈরি করুন
• বই, খাতা, পেনসিল, ইরেজার, ব্যাগ, পেনসিল বক্স, টিফিন বক্স, পানির পট
• যদি জুতা স্কুল ঠিক করে দেয় তাহলে তো ঠিক আছে, না হলে আরামদায়ক জুতা কিনুন

• বাচ্চার স্কুলে যাওয়ার জন্য দরকার সুন্দর একটি ব্যাগ। বই, খাতা, পেন্সিল, পানির বোতল, খাবারের বাটি সবই নিতে হবে সেই ব্যাগে। তাই রঙ, ডিজাইন আর টেকসই দেখে সোনামনির জন্য স্কুল ব্যাগ কেনার চেয়েও বরং শিশুর জন্য আরামদায়ক ব্যাগ কিনুন, শতকরা ৬০ ভাগ ভারী ব্যাগ বহনকারী স্কুল শিক্ষার্থীরই পরবর্তীতে পিঠের নানা সমস্যা হয়। এসব সমস্যার মধ্যে রয়েছে মেরুদণ্ড ও মাংসপেশির সমস্যা, ঘাড় ব্যথা ও পিঠের নানা সমস্যা। গবেষকরা জানাচ্ছেন, শিশুদের পিঠ বেশি ভারি বোঝা বহনের উপযুক্ত নয়। নইলে,  হতে পারে ব্যাগের চাপে শিশুর মেরুদণ্ডের ক্ষয় ! চেষ্টা করুন তার পছন্দের কার্টুন চরিত্রকে ব্যাগ হিসেবে তার কাঁধে ঝোলাতে, এতে করে সে ভীষণ আনন্দ পাবে।

• শিশুর জন্য একটি বড় সমস্যা তৈরি হয় ভোরে উঠে তৈরি হয়ে স্কুলে যাওয়া। এজন্য শিশুকে রাতে ১০টার মধ্যে ঘুমানোর অভ্যাস গড়ে তুলুন। 

 

নিউ মার্কেট, নবাবপুর, চকবাজার, এলিফেন্ট রোড, বায়তুল মোকাররম, গুলিস্তান, মৌচাক মার্কেট ছাড়াও শিশুদের জন্য স্কুলের সকল প্রকার সামগ্রী রয়েছে বড় বড় শপিং মলগুলোতেও। তবে আগোরা, মীনাবাজার, ফ্যামিলি নিডসসহ বিভিন্ন চেইনশপে আকর্ষণীয় ডিজাইনের ব্যাগ ও শিশুদের স্কুল সামগ্রী পাওয়া যায়। তবে, আমি বলবো আজকের ডিল থেকে স্কুল ব্যাগ কিনতে। আজকেরডিল থেকে আপনি মোট ২২৫ টি ব্যাগের মধ্যে বাছাই করে আপনার সন্তানের জন্য স্কুল ব্যাগ অর্ডার করতে পারেন। আজকের ডিল থেকে কিনতে এখানে ও ছবিগুলোতে ক্লিক করুন।

পরিশেষে,  আপনার শিশুকে স্কুলের অন্য বাচ্চাদের সঙ্গে মেলামেশার করতে অাগ্রহ তৈরি করুন। এতে তার সামাজিক বিকাশ দ্রুত হবে।

আপনার সোনামনির জন্য রইল শুভকামনা।

*স্কুলব্যাগ* *সোনামনি* *শিশুরপ্রথমস্কুল* *প্যারেন্টিংটিপস* *ব্যাকপ্যাক*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বই উৎসব তো শেষ হলো কিন্তু নতুন বইগুলো নতুন ব্যাগে করে না নিয়ে স্কুলে যেতে পারলে কি ভালো লাগে ? তাই ছোট্ট সোনামণিদের জন্য এলো কিউট কিউট সব স্কুল ব্যাগ। 
নতুন বছরে নতুন ক্লাসে আপনার ছোট্ট সোনামণিদের জন্য দারুণ উপহার হতে পারে  এই স্কুলব্যাগগুলো। স্মার্ট ডিজাইন আর ডিজনীর জনপ্রিয় সব কার্টুন ক্যারেক্টার নিয়ে তৈরি এসব ব্যাগগুলো আপনার সোনামণির নজর তো কাড়বেই সেই সাথে নতুন বই নিয়ে স্কুলে যেতেও উতলা থাকবে সে। 

চলুন দেখে নিই আপনার ছোট্ট বাবুটির জন্য এমন দারুণ কিছু কিডস স্কুলব্যাগ কালেকশন > । 


























*ব্যাগ* *স্কুলব্যাগ* *স্মার্টশপিং*

শামীম রেজা: একটি বেশব্লগ লিখেছে

স্কুল মানেই বই, খাতা, কত কী সঙ্গে নিতে হয়৷ এসব বহন করার জন্য বাজারে রয়েছে কত সুন্দর সুন্দর ব্যাগ৷ ছোট্ট শিশুটির ওজনের সাথে ব্যাগের সাইজ, ওজন ঠিক আছে কিনা তা খুবই জরুরি৷ ব্যাগ বেশি বড় হলে, তাতে একগাদা বই খাতাসহ অন্যান্য জিনিস ঢুকিয়ে ভারি করে ফেললে, তা ছোট শিশুর ঘাড়, পিঠ এবং মেরুদণ্ডে অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি করে৷ এতে শিশুর হাড়ের গঠনে ক্ষতি করতে পারে৷

১৯৯৫ সালে জার্মানিতে পিঠের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে এজিআর নামের একটি সংস্থা তৈরি হয়৷ তাদের পরামর্শ, স্কুল ব্যাগ কেনার সময় সবচেয়ে জরুরি হচ্ছে খালি ব্যাগের ওজন যেন ১.৩ কেজির বেশি না হয়৷ অর্থাৎ ব্যাগ যেন শিশুর কাছে লোড বা ‘বোঝা’ মনে না হয়৷ বোঝা ব্যাপারটা কিছুটা অনেক সময় নির্ভর করে শিশুর শরীরের ওজনের উপরও৷ স্বাস্থ্যবান শিশুর জন্য ওজন ততটা খারাপ না হলেও দুর্বল শিশুর জন্য তা অবশ্যই ক্ষতিকর৷


স্কুল ব্যাগের দু’পাশের বেল্টগুলো যেন ৪ সেন্টিমিটার চওড়া এবং নন-স্লিপ হয়, তাছাড়া বেল্টের প্যাড সামান্য মোটা ও ছোট-বড় করার ভালো সুবিধা থাকলে শিশুদের মেরুদণ্ডে চাপ কম পড়ে এবং শ্বাসকষ্টও কম হয়৷

শুধু সুন্দর এবং উপযুক্ত ব্যাগ হলেই যথেষ্ট নয়৷ লক্ষ্য রাখতে হবে, ব্যাগের ভেতরে যেন প্রয়োজনের বেশি কোনো জিনিসই না ঢোকানো হয়৷ অর্থাৎ প্রতিদিনই নতুন করে প্যাকিং করতে হবে৷ শুধু সেদিনের প্রয়োজনীয় বই খাতা ও দরকারি জিনিসই থাকবে পিঠে নেওয়ার ব্যাগের ভেতর – তার বেশি কিছুই নয়! বাড়তি ওজন মানেই শিশুর মেরুদণ্ড, ঘাড়, পিঠের জন্য বাড়তি চাপ, এতে ক্ষতি হয়ে যেতে পারে শিশুর স্বাস্থ্যের৷

ছোট শিশুদের স্কুল ব্যাগের হ্যান্ডেলটিও হতে হবে আরামদায়ক, যাতে ছোট ছোট শিশুরা সহজে হ্যান্ডেল করতে পারে৷

প্রাইমারী স্কুল পর্যন্ত বাচ্চারা সাধারণ স্কুল ব্যাগ নিতে তেমন আপত্তি না করলেও একটু বড় হওয়ার সাথে সাথে ওদের বন্ধুদের মতো নিজেদের পছন্দের ব্যাগই কিনতে চায়৷ এক্ষেত্রে এজিআর সংস্থার পরামর্শ – অসুবিধা নেই, আজকাল বাজারে স্বাস্থ্যসম্মত বা পিঠের জন্য নমনীয় অনেক ব্যাকপ্যাকই পাওয়া যায়৷
*শিশুরযত্ন* *স্কুলব্যাগ* *ব্যাগ*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 বাচ্চাদের ভালো স্কুলব্যাগ কোথায় পাওয়া যাবে ?

উত্তর দাও (৬ টি উত্তর আছে )

*উপহার* *গিফট* *স্কুলব্যাগ*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★