হেয়ার ব্যান্ড

হেয়ারব্যান্ড নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

কিনতে ক্লিক করুনআদিকাল থেকে চুল রূপসজ্জার অন্যতম অনুসঙ্গ। আধুনিক যুগের নানান রকম স্টাইলিশ চুলের আবেদনকে আরো আকর্ষণীয় করে তুলেছে। যে যারমত বাহারি স্টাইল ও কাটছাট দিয়ে আরও ফ্যাশনেবল হয়ে উঠছে। চুল ফ্যাশনের এই স্টাইলে আপনার সঙ্গী হতে পারে হরেক রকম হেয়ার ব্যান্ড। যদিও মাথার চুল আটকে রাখাই ব্যান্ডের কাজ। তারপরও নান্দনিক সব ব্যান্ডের মাধ্যমেই তৈরি করে ফেলা যায় চুলের বাহারি সব স্টাইল। সাধারণ জিনিসেই ফুটিয়ে তোলা যায় অসাধারণত্ব। 

হরেক রকম হেয়ার ব্যান্ড

কিনতে ক্লিক করুন

বর্তমান বাজারে হরেক রকমের স্টাইলিশ হেয়ার ব্যান্ড পাওয়া যায়। কাপড়ের ওপর প্রিন্ট অথবা ছোট চেকের ব্যান্ডগুলো জনপ্রিয়তা পেয়েছে বেশ। এগুলো অবশ্য কিছুটা মোটা ধাঁচের হচ্ছে। বর্তমানে জনপ্রিয়তা পেয়েছে ফ্লাওয়ার শেপ হেয়ার ব্যান্ড। এ ছাড়াও প্লাস্টিকের তৈরি কালো, সাদা, মেরুনসহ বিভিন্ন রঙের ব্যান্ড রয়েছে। সাদা পুঁতিগুলোকে কালো সুতায়ও সাজানো হচ্ছে। কখনো পাথরের ঝলকানিতে মাথার শোভা বাড়াচ্ছে। মোট কথা, বিভিন্ন রঙে এবং নকশার খেলায় খেলে যাচ্ছে উপকরণটি। কিনতে ক্লিক করুনসোজা চুলে এ ব্যান্ডগুলো বেশি মানানসই, তবে কোঁকড়া চুলেও এনে দেয় আলাদা সৌন্দর্য। ছোট চুল ও বড় চুলে সমান মানানসই। হালকা বেণি, ফ্রেঞ্চ বেণি ও ঝুঁটি করে ব্যান্ড পরে নিলেই হবে। যে কোনো পোশাকের সঙ্গেই ব্যান্ড মানানসই, তবে শাড়ির সঙ্গে না পরলেই ভালো। বয়সের সঙ্গে মিলিয়ে পরলেই বেশি ভালো লাগবে। পোশাক ও অনুষ্ঠানের সঙ্গে মানানসই ব্যান্ডই পরা উচিত। শুধু ব্যান্ড ব্যবহার করে চেহারায় পরিবর্তন আনা যায়। দরকার চেহারা, চুল ও স্টাইলের কথা চিন্তা করে জিনিসটি কেনা। চুলের স্টাইলে বাড়তি সৌন্দর্য আনার এ উপকরণটি তা না হলে দেখতে বেমানান লাগবে।


চুলের সাজে

কিনতে ক্লিক করুন
বড় হোক, ছোট হোক চুলের সাজ বাড়াতে, চেহারায় ভিন্নধর্মী লুক আনতে জুড়ি নেই ব্যান্ডের। ব্যান্ডের সঙ্গে চুল বেঁধে রাখলে ভালো লাগবে না। কোঁকড়া হোক কিংবা সোজা, খোলা চুলেই ব্যান্ড ব্যবহার করা উচিত। চেহারার গঠনের সঙ্গে মিল রেখে ব্যান্ড পরা উচিত।
লম্বাটে চেহারার অধিকারীরা ব্যান্ড পরার সময় পাশ দিয়ে কিছুটা চুল বের করে রাখবেন। এতে চেহারার লম্বা ভাবটি কেটে যাবে। কপাল বড় থাকলে তাও ঢেকে যাবে।
কিনতে ক্লিক করুনএকইভাবে পরবেন গোল কিংবা ফোলা গালের অধিকারীরা। সামনের দিক দিয়ে অথবা গালের দুই পাশ দিয়ে চুল থাকলে ভালো লাগবে।
ছোট মুখ যাদের, তারা সব চুল পেছনে টেনে নিয়ে পরবেন।
কোঁকড়া চুলের আছে আলাদা সৌন্দর্য। ব্যান্ড পরলে এতে যোগ হয় আলাদা মাত্রা। কপাল থেকে সব চুল টেনে পরতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে, কপাল ও ব্যান্ডের মধ্যে দূরত্ব যেন একদমই না থাকে। কপাল থেকে খুব বেশি পেছনে চলে না যায়। অর্থাৎ ব্যান্ড কপালের কাছাকাছি পরতে হবে।
ব্যান্ডের সঙ্গে জুতার একটা সামঞ্জস্য রাখতে হবে। ব্যান্ড পরলে অবশ্যই হিল ছাড়া ফ্ল্যাট জুতা পরবেন।

কোথায় থেকে কিনবেন:

কিনতে ক্লিক করুন

রাজধানীর নিউমার্কেট, আজিমপুর, গুলিস্থান, ধানমন্ডি, উত্তরা ও বনানীর মার্কেট গুলোতে নান্দনিক সব হেয়ার ব্যান্ড পেয়ে যাবেন। তাছাড়াও অনলাইনে কেনা যাবে দেশের প্রায় সবগুলো অনলাইন শপ থেকে। তবে বিশ্বস্থতার সাথে দ্রুত ডেলিভারীর নিশ্চয়তা দিয়ে পণ্য সরবারহ করছে দেশ সেরা শপিংমল আজকের ডিল। তাদের কাছ থেকে স্টাইলিশ হেয়ার ব্যান্ড কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*হেয়ারব্যান্ড* *চুলেরসাজ* *হেয়ারস্টাইল* *স্মার্টশপিং*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★