আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে


জন্ম-নিয়ন্ত্রণের পুরাতন পদ্ধতির দিন ফুরিয়ে আসছে, যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসচুসেটস ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির গবেষকদের উদ্ভাবন করেছেন জন্ম-নিয়ন্ত্রণ মাইক্রোচিপ।  জন্ম নিয়ন্ত্রণে মাইক্রোচিপ নিদিষ্ট সময় আপনার সমস্যার সমাধান দেবে আর আপনি ইচ্ছে করলেই যে কোন সময়ে অন অফ করতে পারবেন।

মাইক্রোচিপের ব্যবহারঃ
মহিলাদের নিতম্ব, বাহু বা পেটের চামড়ার নীচে লাগানো যাবে এই চিপ। রিমোটের মাধ্যমে ইচ্ছেমতো সেই চিপকে অন-অফ করে ১৬ বছর পর্যন্ত নিজের গর্ভধারণ নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন যে কোনও মহিলা। ওই গর্ভনিরোধক চিপটি তৈরি করে এমনই দাবি করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসচুসেটস ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি। মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস সমর্থিত সংস্থাটি এই চিপ তৈরির আইডিয়াও পেয়েছে তাঁর কাছ থেকেই।

২ বছর আগে সংস্থার ল্যাবে এসেছিলেন বিল গেটস। সেখানে গবেষকদের তিনি প্রশ্ন করছিলেন, জন্ম-নিয়ন্ত্রণের কি এমন কোনও পদ্ধতি থাকতে পারে, যা মহিলারা নিজের ইচ্ছায় অন-অফ করতে পারবেন। এর পরই গর্ভনিরোধক চিপ তৈরি করে ফেলে সংস্থাটি। চামড়ার নীচে চিপটি লাগালে, তা ১৬ বছর পর্যন্ত লিবোনোর্জেস্ট্রেল নামের একটি হরমোন রিলিজ করবে। এই হরমোন গর্ভনিরোধক। এর সঙ্গে আর একটি ইমপ্ল্যান্ট করালেই মহিলারা ওয়্যারলেস কন্ট্রোলের সাহায্যে এই চিপটি অ্যাক্টিভেট বা ডিঅ্যাক্টিভেট করতে পারবেন। এ
ক দিক থেকে দেখলে এটি গর্ভনিরোধকের খুব সুবিধাজনক রাস্তা। চিপ ডেভেলপারদের দাবি, এই চিপ ইমপ্ল্যান্ট করালে, দীর্ঘ সময় পর্যন্ত বার্থ কন্ট্রোল সলিউশান পাওয়া যাবে। বর্তমানে যে গর্ভনিরোধক ইমপ্ল্যান্ট রয়েছে, তা ৩ বছরের বেশি কার্যকর থাকে না। ৩ বছরের আগে কোনও মহিলা গর্ভধারণের পরিকল্পনা করলে, চিকিত্‍‌সকের কাছে গিয়ে তা সরাতে হয়। এই চিপ নির্মাণকারীরা জানিয়েছে, এই ইমপ্ল্যান্ট সেফটি টেস্ট পাশ করে নিলে ২০১৮ নাগাদ তা বাজারে আসবে। আগামী বছর এই ইমপ্ল্যান্টের ক্লিনিকাল টেস্টিং শুরু হবে।

সূত্রঃ ইন্টারনেট
*জন্মনিয়ন্ত্রণ* *স্বাস্থ্যতথ্য* *হেলথটিপস*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত