শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

গয়না ছাড়া কি পূর্ণতা পায় পূজার সাজ। পূজার পোশাকের সাথে ম্যাচিং করে থাকতে হবে গয়না, তবেই না পূর্ণ হবে পূজার  সাজ।পূজা প্রায় আসন্ন হওয়াতে এখন চলছে গয়না বা অলঙ্কার কেনার পালা। নারীদের প্রধান অনুষঙ্গ অবশ্যই গয়না। শপিংমলগুলোতে পাবেন ইমিটেশন জুয়েলারির বিশাল কালেকশন। এখানেও পুঁতির নানা ধরনের গয়না পাবেন। লম্বা মালা, চিক, দুল, চুড়ি থেকে শুরু করে কোমরবন্ধ পর্যন্ত পাবেন পুঁতির তৈরি। তবে এসব গয়না খুবই আকর্ষণীয়। যারা একটু অন্য রকম গয়না কিনতে চান, তারা কিনতে পারেন পুঁতির কালেকশন থেকে। চেইনের মতো লম্বা মালা এখন বেশ চলছে। এ ছাড়া দুই বা তিন লহরের মুক্তা বা পুঁতির একপাশে গোল্ডের ডিজাইন করা লকেটের মতো লম্বা মালাগুলোও এখন বেশ জনপ্রিয়। তবে স্বর্ণের অলঙ্কারের মধ্যে আংটি, কানের দুল, লকেট, ছোট সেটগুলোই ক্রেতারা বেশি কিনে থাকেন।

(আজকের ডিলের সকল প্রকার গয়নার কালেকশন দেখতে ও কিনতে উপরের ছবিতে ক্লিক করুন)

গয়নার রং একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বর্তমানে যেসব রং বেশি চলছে তার মধ্যে আছে ‘অলিভ, গোল্ডেন হলুদ, জাম, লাল, কমলা, মেরিগোল্ড, মেরুন, সাদা, অফহোয়াইট, কালো, পিচ, পেঁয়াজ, কাঁঠালি হলুদ, বটল গ্রিন, নীল, সবুজ, ফিরোজাসহ আরও অনেক ধরনের রং। বর্তমান গয়নার ডিজাইন শুধু নান্দনিক দিকটি ফুটে ওঠে না। একেকটি গয়না যেন সৃজনশীলতার প্রকাশ। এবারের ঈদে লম্বা কামিজ বেশ জাঁকিয়ে এসেছে। এই লম্বা কামিজের সঙ্গী হচ্ছে লম্বা লম্বা কানের দুল। সোনা, রুপা, ব্রাসো, কাঠ, কড়ি, পুঁতি উপাদান যা-ই হোক, ফ্যাশন কিন্তু একটাই লম্বা দুল।

কানের দুল, গলার মালা বা গয়না, যা-ই বলি না কেন, কয়েক পরতের ডিজাইন অথবা একটু বড় ডিজাইন, এই হলো এবারের পূজার গয়নার ফ্যাশন। কানের দুলে যেমন থাকছে লম্বাটে ভাব, তেমনি গলার গয়না হতে পারে ছড়ানো, লম্বাটে লকেট অথবা তিন, পাঁচ, সাত লহরের মালা। হাতে ব্যাঙ্গেলস বা বালার ব্যবহার তো এখন হাই-ফ্যাশন। শুধু এক রঙের একটি বালাতেই হবে না, চাই তিন-চার রকমের, তিন-চার রঙের বালা।


এবারের পূজা ফ্যাশনে গয়না হবে মূলত দুই ধারার। ফ্যাশন বা কস্টিউম গয়না এবং গতানুগতিক গয়না। গয়নাতেও এবার প্রাধান্য পেয়েছে একটু বড় ডিজাইন। একটির সঙ্গে আরেকটি উপাদান মিলিয়ে তৈরি করা হয়েছে কানের দুল ও গলার গয়না। বাজাওে এবারের গয়নাসম্ভারে প্রতিটি গয়নাই স্বতন্ত্র নকশার। পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে হয়তো একটি কানের দুল পরলেই পরিপূর্ণতা পাবে সাজ। উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এসেছে জুয়েলারিতে। ব্যবহার করা হয়েছে ব্রাসো, সিরামিক, কাঠ, সুতা, পুঁতি, কড়ি, রাদ্রা। আর বিশেষভাবে ব্রাসোতে খোদাই করা কাজ, যা 'ছিলার কাজ' নামে পরিচিত তা বেশ প্রাধান্য পেয়েছে। রুপার কানের দুলে বরফি, চার কোনা, গোলাকার এই ধরনের আকৃতি প্রাধান্য পেয়েছে। সোনার গয়নায় মেশানো হয়েছে পুঁতি ও পাথর।

তামাটে বা অক্সি রঙে থাকলেও অনেক বেশি প্রাধান্য পেয়েছে ব্রাসোতে সোনালি রঙের গয়না। কানের দুলেও ঝুলানো নকশার গয়না বেশি দেখা যাচ্ছে। উপাদান যা-ই হোক, ব্রাসো কিংবা সোনা এগুলো হবে রত্নখচিত। কখনো দামি পাথর আবার কখনো ফ্যাশন পাথরই হবে এবারের ফ্যাশনের ধারা। সব সময়ের মতো এবারের পূজার  গয়নাতেও অনেক বেশি প্রাধান্য পাচ্ছে গোল্ড প্লেটেড গয়না। এবারের পূজার  গয়নার বেশির ভাগ নকশাই পুরনো আমলের। অনেকটা মোগল সময়ের নকশা। আর এই নকশায় প্রাধান্য রয়েছে সোনালির পাশাপাশি কপার বা অ্যান্টিক রঙের। পাথরের ক্ষেত্রে পলকি কুন্দনের পাশাপাশি থাকছে ডায়মন্ড ডাস্টের ব্যবহার।


কস্টিউম বা ফ্যাশন জুয়েলারির ক্ষেত্রে কমলা, মিষ্টি গোলাপি ও হলুদ এই ধরনের সব রং ফ্যাশন। মালা বা দুলের পাশাপাশি হাতের বালা ও আংটিও এবারের ফ্যাশন ট্রেন্ড। পাথরের ক্ষেত্রে সব সময়ের মতো এবারও প্রাধান্য পাবে গার্নেট। পূজা এলেই সোনা কিনতে হবে। এমন ধারণা এখন অনেকের মধ্যেই কমতে শুরু করেছে। তার পরও সোনার গয়নার চাহিদা লক্ষ্য করা যায় ঈদ এলেই। এবারের পূজাতে  তাই সোনার নকশায় পুরনোর ছোঁয়া এসেছে। হীরার গয়নাও কয়েক বছর ধরে নজর কেড়েছে বাঙালির। ছোট ছোট নকশার হীরার গয়না এখন ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে।

(কন্টেন্টের গয়নাগুলো কিনতে ছবিগুলোতে ক্লিক করুন)

যেসব শোরুমে নিজস্ব ডিজাইনের গয়না পাওয়া যাবে তার মধ্যে আছে অঞ্জন’স, কে ক্র্যাফট, দেশাল, নিপুণ, বাংলার মেলা, পিরান অন্যমেলা, নিত্যউপহারসহ আরও বেশকিছু ব্রান্ড আইটেমের দোকান। এছাড়া চাঁদনিচক, গাউছিয়া, নিউমার্কেটে পাওয়া যায় ইমিটেশনের গয়না। অন্য দিকে ফুটপাথেও রয়েছে গয়নার বিশাল সম্ভার। চুলের কাঁটা থেকে শুরু করে পায়ের নূপুর পর্যন্ত সবই পাবেন এসব দোকানে। দামও হাতের নাগালেই। ডিজাইনেরও কমতি নেই। তাই অনেকে এখান থেকেও কিনতে পারেন পছন্দের গয়না। পাবেন অনলাইন শপিং মল আজকের ডিলেও, তাই এই গরমে ভিড় ঠেলে শপিংয়ে যেতে না চাইলে আজকের ডিলের গহনার সম্ভার থেকে দেখে শুনে পছন্দমতো গয়না অর্ডার করুন।

*ঈদফ্যাশন* *গয়না* *গহনা* *অলংকার* *স্মার্টশপিং* *অনলাইনশপিং*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত