জর্জ অলড্রিন ঘোষ

@GeorgeAGhosh

www.Facebook.com/George.A.Ghosh
business_center প্রফেশনাল তথ্য নেই
school এডুকেশনাল তথ্য নেই
location_on লোকেশন পাওয়া যায়নি
1437392399000  থেকে আমাদের সাথে আছে

জর্জ অলড্রিন ঘোষ : একটি বেশব্লগ লিখেছে

পৃথিবী এমন এক মহাবির্পযয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে যেখানে বৃষ্টির মৌসুমে বৃষ্টি নেই ,আবার কখনো অতির্বষণ। শুষ্ক মৌসুমে মারাÍক খরা শস্যহানি; আবার প্রলয়ঙ্কারী বন্যা, ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছাসের পৌণ:পুণিকতা। ষড় ঋতুর দেশ বাংলাদেশে ঋতু বৈচিত্র হারিয়ে যাচ্ছে। একদিকে গ্রীষ্ম ও বর্ষা প্রলম্বিত হচ্ছে,অন্যদিকে শীতকাল সংকুচিত হচ্ছে। শরৎ ও হেমন্তের অস্তিত প্রায় বিলুপ্ত। পরিবেশবিজ্ঞানীদের মতে এর পেছনে রয়েছে জলবায়ুর পরির্বতন। এই যে ঘন ঘন বন্যা, জলোচ্ছ্বাস, সাগরে নিুচাপ, ঘূর্ণিঝড়, খরা, জলাবদ্ধতা, অসময়ে বৃষ্টি-অনাবৃষ্টি, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে এসব প্রাকৃতিক দুর্যোগ আমাদের বিপর্যস্ত করে ফেলছে। জলবায়ু পরিবর্তন পৃথিবীর টেকসই উন্নয়ন ও মানবজাতির অস্তিত্বের ক্ষেত্রে বড় হুমকি।


পৃথিবীর আবহাওয়ার গড় অবস্থার পরিবর্তন উন্নত বিশ্বের কর্মকান্ডের ফলেই ঘটছে। উন্নত বিশ্ব “জলবায়ু পরিবর্তন” বিশেষ করে “বিশ্ব উষ্ণায়ন” প্রক্রিয়ায় অন্যতম বড় দায়ী । পরিবেশ বিজ্ঞানীদের মতে, কার্বন-ডাই-অক্সাইডের মূল উৎস হলো কয়লা, পেট্রোলিয়াম, ডিজেলের মত জ্বালানি ব্যাবহার, বন নিধন, জনসংখ্যা বৃদ্ধি, ব্যাপক শিল্পায়ন ইত্যাদি। অকেজো ও মেয়াদ উত্তীর্ণ যানবাহনে ব্যবহুত জ্বালানি ভালভাবে নিঃশেষ না হওয়ায় স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি কার্বন-ডাই-অক্্রাইড নিঃসরিত হয়। মনুষ্যসৃষ্ট দূষণের কারণেই গ্রিন হাউস প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে। নির্বনীকরণ ও মরুকরণের ফলে ভূমিতে প্রতিফলনীয়তা পরিবর্তন ভূপৃষ্ঠ কর্তৃক সৌর শক্তি শোষণের পরিমাণের উপর প্রভাব বিস্তার করে। বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে নির্গত সালফারের এরোসল মেঘমালাকে পরিবর্তিত করে। ক্লোরোফ্লুরোকার্বনের কারণে স্ট্রাটোস্ফিয়ারে ওজোন স্তরের পরিবর্তন জলবায়ুকে প্রভাবিত করে। জলবায়ুর পরিবর্তনের গড় জলবায়ুর মাত্রা উন্নীত হবে। তবে প্রকৃতপক্ষে গড় নয়, আবহাওয়ার চরম ভাবাপন্নতাই ক্ষতি ঘটাবে বেশি। এতে ঘটবে প্রচন্ড খরা ও ঝড়, পরিণামে ঘটবে মৃত্যু।  


জর্জ অলড্রিন ঘোষ : বাংলাদেশ বনাম দঃ আফ্রিকার খেলা দেখলাম, দলে সব খেলোয়াড়ই কম বেশি ঠিক ঠাক আছে কিন্তু ইমরুল কায়েস কি করে সৌম্য সরকারের রিপ্লেসমেন্ট হয় এটাই বুঝতে পারছি নাহ। ৩ ম্যাচের একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে সৌম্য সরকার এর এত ভাল খেলার পরও দলে জায়গা পেলো ইমরুল কায়েস?

জর্জ অলড্রিন ঘোষ : এই মাত্র ঘুম থেকে উঠলাম, ভেবেছিলাম সকালে উঠে দঃ আফ্রিকা বনাম বাংলাদেশ এর ১ম টেস্ট এর খেলা দেখবো, কিন্তু সে গুড়ে বালি। ঘুম থেকে উঠে দেখি অর্ধেক খেলা শেষ। কি বা আর করার আছে? সকালে আর বৃষ্টি হয়নি, খুব ভালই হয়েছে! এত বৃষ্টি হলে ঘর থেকে বেরুবো কি করে?

জর্জ অলড্রিন ঘোষ : একটি বেশব্লগ লিখেছে

এক গণিতজ্ঞ দিনরাত গণিত নিয়ে এতই ব্যস্ত থাকেন যে, একমাত্র গণিত ছাড়া দুনিয়ার আর কোন প্র্যাক্টিক্যাল বিষয় সম্পর্কে তার পরিষ্কার কোন ধারণা নেই। এই নিয়ে তার স্ত্রী সবসময়ই তার উপর চোটপাট করেন। কাজেই স্ত্রীর মন রক্ষা করার জন্য একদিন তিনি স্ত্রীকে আশ্বাস দিয়ে বললেন, যাও এখন থেকে আমি তোমার কাছ থেকে টুকটাক সংসারের কাজকর্ম শিখব। স্ত্রী খুবই আনন্দিত হয়ে প্রথমেই তাকে চা তৈরি করা শিখিয়ে দিলেন।


চা তৈরির নিয়মটা স্বামীর মনে আছে কি না, সেটা পরীক্ষা করার জন্য দুদিন পরে স্ত্রী স্বামীকে জিজ্ঞেস করলেন, আচ্ছা বলতো, তোমাকে যদি একটা কেতলি আর দেশলাই দেওয়া হয় আর বলা হয় ঘরে গ্যাসের স্টোভ আছে এবং কলে পানি আছে, তাহলে তুমি ঠিক কিভাবে চায়ের পানি গরম করবে?


জটিল সব গণিতের সমস্যায় বেচারা স্বামী নিয়মটা ভুলেই গিয়েছিলেন। কিন্তু অনেক ভেবে কিছুটা স্মরণ শক্তি থেকে আর বাকিটা অনুমান থেকে ভয়ে ভয়ে বললেন, প্রথমে কেতলিতে পানি নিব। তারপর দেশলাই জ্বালিয়ে গ্যাসের স্টোভটা চালাবো। তারপর কেতলিটা স্টোভের উপর বসিয়ে পানিটা গরম করলেই তো মনে হয়ে যাবে। তাই না?


হ্যাঁ, হয়েছে - স্ত্রী বললেন। আচ্ছা এবার বলতো, যদি তোমাকে একটা পানি ভর্তি কেতলি দেওয়া হয় আর একটা দেশলাই এবং গ্যাসের স্টোভ দেওয়া হয়, তাহলে কি করবে?


গণিতজ্ঞ এবার হাসিমুখে উত্তর দিলেন, এটা তো খুবই সহজ। প্রথমে কেতলি থেকে পানিটা ফেলে দিব। তাহলেই সমস্যাটা ঠিক আগের সমস্যাটার মতো হয়ে যাবে। আর সেটার সমাধান তো একটু আগেই করেছি। তাই না!

*কৌতুক*

জর্জ অলড্রিন ঘোষ : ঈদের আনন্দ বোধ হয় সব পানিতে মিশে গেছে, বরাবরই আমার বৃষ্টি ভাল লাগে নাহ। কাদায় চারিদিক ভরে ওঠে আর জ্বর-ঠান্ডা-কাশির উপদ্রোব ডেকে আনে। মাঝে মাঝে মনে হয় মরুভূমিতে চলে যাই অবশ্য মরুভূমিতে বৃষ্টি না হলেও গরম প্রচুর! গরম আর ঠান্ডার মাঝামাঝি কি আছে জানেন?

জর্জ অলড্রিন ঘোষ : আমি প্রচুর চা খাই, বেশি চা খাওয়ার জন্য ঘুম কম হয়। আর ঘুম কম হবার কারণেই বেশি বেশি ফেসবুক আর বেশি বেশি মুভি দেখা হয়। অনেকটা একারণেই আমি নিশাচর, অভ্যাসটা একেবারে বাদ দিলে চলে নাহ, বহুবার চেষ্টা করলাম কিন্তু হচ্ছে নাহ। কি করা উচিত, বুঝতেই পারছি নাহ!

জর্জ অলড্রিন ঘোষ : বেশতো খুব মজার একটা সোসিয়াল নেটওয়ার্ক আসলেই মানতে হবে ! আমি এখানে নতুন, ভাল পোস্ট করতে চাই! আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি অনেক বন্ধু পাবো। বেশতোতে দেখি স্টেটাস লিখতে গেলে আবার ক্যারেকটার লিমিট করে দেয়, ক্যারেকটার লিমিট না থাকলে বোধ হয় বেশি ভাল হতো! এনিওয়ে, সকল কে জানাই ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক !

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

আজকের
গড়
এযাবত
৩৬

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত