Preview
প্রশ্ন করুন
রিলেটেড কিছু বিষয়

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

ছায়াসঙ্গী  

মহাগুরু

একটা পাত্রে ১/৪ কাপ ঘি এর সাথে একটু তেল অল্প আচে গরম করে এর সাথে এলাচ, দারচিনি, লবঙ্গ, তেজপাতা ছেড়ে দিয়ে কিছুক্ষণ ভাজার পর ৪ কাপ ভেজা পোলাও এর চাল দিন. তারপর পোলাও এর চাল ৪ টেবিল চামচ পেস্তা বাদাম বাটা, ১ কাপ ক্রিম, ২ চা চামচ কেওড়া জল, অনেক গুলো কিসমিস দিয়ে ভাজুন. ভাজার পর ৭ কাপ পানি যোগ করে অল্প আচে পোলাও রান্না শেষ করুন. গারনিশ হিসেবে পেস্তা বাদাম কুচি , একটু স্পেন এর স্যাফরন, আর পেয়াজ ভাজা দিতে পারেন.

সজিব  দুনিয়ার সবচেয়ে সুখী মানুষ আমি|কারণ আমি আমার কষ্টের আকাশকে হাসির মেঘ দিয়ে আড়াল করতে পারি|আর সেই মেঘের বর্ষন ঘটায় জনশূন্য কোনো নির্জন স্থানে!

পন্ডিত

পুরোনো বাসমতী চাল দুই কাপ (ধুয়ে কুসুম গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন), তেল সিকি কাপ, পেঁয়াজকুচি আধা কাপ, এলাচি চারটি, লবঙ্গ দুটি, লবণ এক টেবিল-চামচ অথবা স্বাদ অনুযায়ী, চিনি এক টেবিল-চামচ অথবা স্বাদ অনুযায়ী, কিশমিশ দুই টেবিল-চামচ, শাহি বিরিয়ানি মসলা এক টেবিল-চামচ, পোলাও রান্নার জন্য ফুটানো গরম পানি আড়াই কাপ, আদাবাটা এক চা-চামচ, কেওড়া এক টেবিল-চামচ, জাফরান আধা চা-চামচ, মাওয়া সিকি কাপ, আনারসকুচি এক কাপ, আঙুর চিরে নেওয়া ২৫০ গ্রাম, ঘি সিকি কাপ, তেজপাতা দুটি, দারচিটি চার টুকরা, গুঁড়ো দুধ দুই টেবিল-চামচ, কাজু বাদাম আধা কাপ, গরম পানি আড়াই কাপ, রসুনবাটা আধা চা-চামচ, গোলাপজল এক টেবিল-চামচ (দুই টেবিল-চামচ দুধে ভিজিয়ে ঢেকে রাখুন), ডালিম বা আনার দানা আধা কাপ, আপেলকুচি এক কাপ, চেরিকুচি সিকি কাপ, কমলা দুটি (ছিলে কোষের ভেতরের অংশ বের করে নিন)। শাহি বিরিয়ানি মসলা: দারচিনি, এলাচি (বড় ও ছোট), লবঙ্গ, জায়ফল, জয়ত্রী, সাদা গোলমরিচ, শাহি জিরা, কাবাব ও চিনি পরিমাণমতো টেলে গুঁড়া করে নিন। প্রণালি: সব ফল একটি বাটিতে এক টেবিল-চামচ লেবুর রস দিয়ে মেখে রেখে দিন। হাঁড়িতে তেল ও ঘি গরম করে তেজপাতা ও গোটা গরম মসলার ফোড়ন দিন। তাতে পেঁয়াজ সোনালি রং করে ভেজে নিন। আদা ও রসুনবাটা দিয়ে কষিয়ে তাতে ভিজিয়ে রাখা বাসমতী চাল দিন। পাঁচ মিনিট ভেজে গুঁড়ো দুধ দিয়ে আরও বেশ কিছুক্ষণ ভাজুন। চাল ভাজা হলে ফুটানো গরম পানি ও লবণ দিয়ে নেড়ে ঢেকে দিন মাঝারি আঁচে। পানি টেনে গেলে সব ফল, গোলাপজল, কেওড়া ও চিনি দিয়ে নেড়ে মাওয়া ছিটিয়ে ঢেকে দিন। পানি সম্পূর্ণ টেনে গেলে চারটি কাঁচা মরিচ, কাজু বাদাম ও বিরিয়ানি মসলা দিয়ে ভালো করে নেড়ে মিশিয়ে ওপর থেকে দুধে ভেজানো জাফরান ও কিশমিশ দিয়ে আঁচ কমিয়ে ঢেকে রাখুন কিছুক্ষণ। তারপর পোলাও ঝরঝরে হলে ঢেকে চুলা বন্ধ করে দমে রাখুন কিছুক্ষণ।

Noor  খুবই অলস প্রকৃতির

গুরু

কাশ্মীরি পোলাওঃ উপকরণ : পোলাওর চাল এক কেজি, ঘি এক কাপ, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, কাজুবাদাম আধা কাপ, গাজর (ছোট ছোট কিউব করে কাটা) আধা কাপ, পেস্তা আধা কাপ, দারুচিনি চার টুকরা, এলাচ ছয়টি, কিশমিশ সিকি কাপ, কাঠবাদাম আধা কাপ, জাফরান আধা চা-চামচ, গোলাপজল এক টেবিল-চামচ, লেবুর রস দুই টেবিল-চামচ, চিনি দুই চা-চামচ, পেস্তা-আমন্ড-কাজু বাটা দুই টেবিল-চামচ, ঘন দুধ এক কাপ, মালাই এক কাপ, গরম পানি ছয় কাপ, লবণ স্বাদমতো। প্রণালি : দুধ, পেস্তা-আমন্ড-কাজু বাদাম বাটা, জাফরান, গোলাপজল একসঙ্গে মিশিয়ে রাখতে হবে। চাল ধুয়ে ২০-২৫ মিনিট ভিজিয়ে রেখে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। পেস্তা, আমন্ড, কাজু, কিশমিশ ঘিয়ে ভেজে উঠিয়ে রাখতে হবে। গরম ঘিয়ে পেঁয়াজ ভেজে বেরেস্তা করে উঠিয়ে রাখতে হবে। চাল ঘিয়ে ভেজে তাতে দারুচিনি, এলাচ ও গাজর দিয়ে কিছুক্ষণ ভেজে পানি দিতে হবে। ফুটে উঠলে লবণ ও লেবুর রস দিতে হবে। এরপর চালের পানি কমে গেলে দুধ বাদাম বাটা ইত্যাদির মিশ্রণ দিয়ে দমে রাখতে হবে। ২০-২৫ মিনিট পর মালাই ও কিছুটা কিশমিশ, কাজু, পেস্তা, আমন্ড ভাজা দিয়ে ১০ মিনিট দমে রাখতে হবে। কাশ্মীরি পোলাও পরিবেশন পাত্রে ঢেলে ওপরে বাকি কিশমিশ, কাজু, পেস্তা ও আমন্ড ভাজা ছিটিয়ে দিয়ে পরিবেশন করতে হবে।


অথবা,