Preview
প্রশ্ন করুন

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

আড়াল থেকেই বলছি  সীমানাহীন গন্তব্যে এখনো হাঁটছি একাকিত্বের লাঠি হাতে ....

মহাগুরু

অনেক রাতে বের হয়নি তবে আসতে আসতে রাত হয়েছিল প্রায় ৩:৩০ মিনিট l মিরপুর ১০ নং গোল চক্কর থেকে যাচ্ছিলাম মিরপুর সাড়ে এগারো l তখন রাতটি ছিল ১৪ এপ্রিল ২০০৯ সাল সোমবার l ঠিক ওই দিন আবার আমার জন্ম দিন ও ছিল l বের হয়েছিলাম সবার জন্য কেনা কাটা করতে l কেনা কাটা শেষ করে একবন্ধুর বাসায় যাচ্ছিলাম জন্মদিনের দাওয়াত দিতে l বন্ধুটির নাম ছিল ইমরান l সে আমার সাথে কিছু অভিমান করেছিল বলেই সেইদিন কয়েকবার তার মোবাইল কল দেওয়ার পর ও সে আমার সাথে কথা বলেনি l জন্মদিনের আয়োজন করতে আমাকেই যথেষ্ট খাটতে হয় বলেই অন্যন্য বারের মত জন্মদিনের আগের দিন (১৩-০৪ -২০০৯) রাত ৯ টায় বের হয়েছিলাম l অনেক জায়গায় ঘুরতে ঘুরতে ওই অভিমান রত বন্ধুটির সাথে ও সারাদিন দেখা করতে পারিনি l আমার অনেক ভালো একজন বন্ধু যার সাথে আমি লেভেল -১ থেকে শুরু করে ভার্সিটি পর্যন্ত পার করেছি l তাই কেনা কাটা শেষে ১০ নং মিরপুর থেকে হেঁটে হেঁটে রওনা দিলাম সাড়ে এগারোর দিকে l কথাও তেমন কোনো রিক্সা পর্যন্ত পাচ্ছিলাম না l একটা ট্যাক্সি ছিল l তবে মাত্র কয়েকটা কিলোমিটার দূরত্বের জন্য ট্যাক্সি ৫০০ টাকা চেয়েছিল বলে আমি হেঁটেই যাচ্ছিলাম l মোটামোটি বন্ধুর বাড়ির পাশা পাশি পৌছে গেলাম..হটাত কারেন্ট চলে গেল l আমার হাতে তেমন কিছু ছিলনা l শপিং ব্যাগ বাসায় রেখেই আসছিলাম l কিছুই বুঝতে পারলাম না..আমাকে ২ পাশ থেকে ৩/৪ জন এসে চোখ বেঁধে ফেলল l আমার কাছে সর্বমোট ৮/৯ শ টাকার মত ছিল l হাতের মধ্যে পেচানো একটা স্বর্ণের চেইন ছিল আর একটি মোবাইল l মনে হয় সর্বোচ্চ ৪/৫ মিনিটের মত সময় নিল ওরা l আমার কাছে যা ছিল সব ছিনিয়ে নিল l চিল্লা চিল্লি করার কোনো সুযোগ ছিলনা l যাক, টাকা পয়সা নিয়েছে তাতে তেমন কষ্ট পাইনি একদম শুরুতেই যখন আমাকে জিজ্ঞাসা করতেছিল কি আছে তারা তারই বের কইরা দে ,,আমি অমত অমত করলে আমাকে একটা হালকা থাপ্পর দিয়ে বলে ছিল ..''ওই ফকিন্নির বাচ্চা, পোশাক -আশাকে তো মনে হয় জজের বাচ্চা,এত কম টাকা লইয়্যা রোড এ নামস কেন ???'''' এই গালিটা আমাকে এখন ও কষ্ট দেয় l এই ছিল আমার জীবনের প্রথম ছিনতাই এই ঘটনা l

শিমুল হালদার  আমি একটু আমার সঙ্গে দেখা করতে চাই, আলোয় কালোয় মন্দে ভালোয় আমায় দেখতে চাই।

গুরু

ঢাকার রাস্তায় সারারাতের কয়েকটা অভিজ্ঞতা আছে। ইন্টারমিডিয়েট সেকেন্ডইয়ারে থাকাকালীন আজিমপুর কলোনির(ইডেনের বিপরীতে, কি কলোনি জানিনা) পাশের মেইনরোডে; ক্লাস টেন-এ যখন পড়ি তখন একবার রমনা পার্কে, তাঁর একদিন পরই সদরঘাট টার্মিনালে; তাছাড়া পুজোর সময় অনেকবারই সারারাত ঢাকার রাস্তায় ঘুরে বেড়িয়েছি। আরও কত ঘুরতে হবে কে জানে ??

মিকু  simple

মহাগুরু

হল থেকে একদিন রাত তিনটায় খেতে বেড়িয়েছিলাম। চানখারপুলে গিয়ে খেয়েছি। রাতের ঢাকা অন্যরকম। বের হলে মনে হয় গলা ছেড়ে গান গাই! তবে আশেপাশে কিছু পুলিশ থাকে... তাদের থেকে সাবধান। কখন কোন কারণে জেলে ভরে দেয় কে জানে! তবে পুলিশ সাধারণত স্টুডেন্ট দেখলে চেনে। সহজে ঘাটায় না। যাই হোক রাতে আরো বের হয়েছি। মজাই লাগে ঘুরতে।

Helen Ahmed  হেলেন একটি ফুলের নাম. আমি এক জন মা, এটি আমার বড় পরিচই

মহাগুরু

সর্বোচ্চ্য১২ থেকে ৪ ta রাত পর্যন্ত ঢাকার রাস্তায় বেড়িয়েছেন?2003, মিরপুর থেকে আজিম পুর matarniite বাচ্চা ডেলিভারি জন্য, আর রাত র হসপিটালে দাড়িয়ে থাকি , দেবর বউ এর বাচ্চা ডেলিভারি হয় রাত ৩ tai সব কাজ করে ৩.৩০ ত্তে রওয়ানা দেই.

গাজী আজিজ  বাংলাদেশের বোকাসোকা একজন মানুষ। ।

মহাগুরু

ঢাকার অনেক রাস্তা দিয়েই চলাফেরা করি। ছোটখাট ব্যপার ছাড়া বলার মত তেমন কোন ঘটনা নেই।

Syed Mizanur Rahman Siddique  সিম্পল লাইক করি ! সততা বজায় রাখার চেষ্টা করি!

বিশারদ

রাতের ঢাকাঃ হাজার বাতির গল্প

সুজন  সুশাসনের জন্য নাগরিক(সুজন)

গুরু

ভাই ঢকাতে থাকলে কইতাম রে ভাই। কি আর করার পারলে দশ দিয়েন।


অথবা,