Preview
প্রশ্ন করুন
রিলেটেড কিছু বিষয়

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

শাকিল আহমেদ  তোর স্বপ্ন ছোঁয়ার ইচ্ছে, মোর আজটা কেড়ে নিচ্ছে

মহাগুরু

প্রতিটি মানুষই চায় নিজের ব্যক্তিত্ব ও যোগ্যতার সাথে মানানসই একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে, ক্যারিয়ার গড়তে ও জীবনে সুপ্রতিষ্ঠিত হতে। কিন্তু চাকরি নির্বাচনে অনেকেই কিছুটা দ্বিধাদ্বন্দ্বে থাকেন। চাকরি সমগ্র জীবনের বাকি কার্যক্রমের উপরও প্রবলভাবে প্রভাব বিস্তার করে। তাই চাকরি নির্বাচনের সময় কিছু বিষয়ে অবশ্যই স্বচ্ছ ধারণা রাখা প্রয়োজন। ১। প্রথমে সিদ্ধান্ত নিন ঠিক কোন ধরণের চাকরি আপনার জন্য উপযুক্ত হবে। আপনার শারীরিক, মানসিক এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার সাথে খাপ খায় এমন চাকরিই তালিকার প্রথমে রাখুন। ২। এমন কিছু কোম্পানির তালিকা তৈরি করুন যাদের হয়ে আপনি কাজ করতে চান। এসব কোম্পানির পণ্য, লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য, নিয়োগ পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত খোঁজ নেয়া শুরু করুন। এসব বিষয়ের উপর নজর রাখলে কোম্পানিগুলো সম্পর্কে আপনি জ্ঞান অর্জন করে ফেলবেন, যা আপনার কাঙ্ক্ষিত চাকরি পেতে আপনাকে সাহায্য করবে। ৩। চাকরির সাথে কোম্পানি প্রদত্ত আনুষঙ্গিক সুবিধার দিকে লক্ষ্য রাখুন। কিছু প্রতিষ্ঠান বাৎসরিক স-বৈতনিক ছুটি, অসুস্থতাজনিত ছুটি, বাৎসরিক বোনাস, চিকিৎসা বীমা ইত্যাদি সুবিধা প্রদান করে। আবার কিছু কোম্পানি বাসস্থান সুবিধা, নিজস্ব পরিবহণ ব্যবস্থা, ভ্রমণ ভাতা ইত্যাদি প্রদান করে। আপনার চাহিদার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ কোম্পানিই এই ক্ষেত্রে নির্বাচন করুন। ৪। আজকালর চাকরির বিজ্ঞাপনেই আপনার দায়িত্ব কি হবে, কি ধরনের সমস্যা আপনাকে সমাধান করতে হবে তা উল্লেখ্য করা থাকে। এখান থেকেও আপনি চাকরিটি আপনার ব্যক্তিত্ব ও যোগ্যতার সাথে মানানসই কি না তা সম্পর্কে ধারনা পেতে পারেন। ধন্যবাদ।

লীনা জাম্বিল  অতি সাধারন

মহাগুরু

নিজের যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা --কাজের ক্ষেত্র -- কি ধরনের প্রতিষ্ঠান এগুলো অবশ্যই চিন্তা করতে হবে । অরগানাইজেশনের ধরন, কাজের ধরন আর বিজ্ঞপ্তির রিকুয়েরমেন্ট দেখেই বুঝা যায় ঐ জবের জন্য আমি ফিট কিনা ।

হৃদয়  

গুণী

কোম্পানির ধরন, কাজের ধরন, সময় বেতন, আনুষঙ্গিক সুবিধা ইত্যাদি মাথায় রাখা উচিতl চাকরির বিজ্ঞাপন থেকে ধারনা পেতে পারেন চাকরিটি আপনার ব্যক্তিত্ব ও যোগ্যতার সাথে মানানসই কি না l


অথবা,