Preview
প্রশ্ন করুন
রিলেটেড কিছু বিষয়

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

( ১১ টি উত্তর আছে )

( ৬৬,৭০২ বার দেখা হয়েছে)

Md. Saud Hasan Shah  

জ্ঞানী

মোটা হবার জন্য কোনো প্রকার ঔষুধ না খাওয়া টায় ভালো. আপনি নিয়মিত খাবার খান আর একটু বেশি করে ঘুমাতে পারেন এতে করে আশাকরি ফল পাবেন. খাবারের রুচি বাড়ানোর জন্য হামদদ এর সিনকারা খেতে পারেন.......

123456  

জ্ঞানী

মোটা হওয়ার পরে কিন্তু আফসোস করবেন... এমন আমি সবাইকে দেখেছি যারা মোটা হওয়ার জন্য পাগল ছিল কিন্তু হওয়ার পর ভূল বুঝতে পেরেছে...কারন একবার মোটা হয়ে গেলে আবার সাধারনভাবে আসা একটু পরিশ্রমসাধ্য ব্যপার। সুস্থ থাকাটাই আসল..

কবিয়াল সাদমান  কবিতার মদে ডুবি , অতল গভীরে ।

পন্ডিত

নিয়মিত খাবার খান আর প্র্তি রাতে ১ গ্লাস দুধ খাবেন । ফ্যাট যুক্ত খাবার খান আর ঘুমান বেশি করে । ১ মাসে মোটা হয়ে যাবেন আগের থেকে কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ছাড়া ।

chonchol  

গুণী

Amer Money Hoy Mota Hohar Dorkar nai. Mota Hoai Onek Problem. Please

মিজানুর রহমান (মামুন)  আমার অন্তহীন অপেক্ষা...........

পন্ডিত

আপনে যদি স্মোকিং করেন তা হলে স্মোকিং ছেড়ে দেন আপনে 5 , ৬ মাসের ভেতরে মোটা হবেন.

Hridoy Hasan  

পন্ডিত

Md. Imran Dewan  আমি জানতে ও জানাতে ভালবাসি।

বিশারদ

ভাই আমার ওজন ৬ মাসে প্রায় ৮ কেজি বেড়েছে। আমি নিচের রুটিন ব্যবহার করেছি। রাতে ঘুমানোর আগে ১ গ্লাস দুধ আর সকালে খালি পেটে অন্তত্য আধা কেজি পানি ও ১টি গরম ডিম সেদ্ধ সকাল ৯-১০ টার মধ্যে যে কোন নাস্তা। প্রতিদিন অল্প/পরিমান মত ৪-৫ বার খাওয়া। রাতে অন্তত ৭-৮ ঘন্টা ঘুম। সম্ভব হলে দুপুরে খাওয়ার পর ১ ঘন্টা ঘুম। ইনশাআল্লাহ, আপনারও আমার মত ওজন বাড়বে। *** খাবারে রুচির জন্য আমি সকালে খালি পেটে ১-২ চামচ নিমের রস অথবা কখনো চিরতার পানি খাই। মাঝে মাঝে অর্জুনের ছাল ভিজিয়ে খাই। অর্জুন গ্যাস্ট্রিক, বদ হজম এর জন্যও ভাল কাজ করে।নিম, চিরতা, অর্জুন এই ৩টিই ক্ষুধা বৃদ্ধি করে এবং রুচি বাড়ায়। এই গুলো মেদ নিয়ন্ত্রন করে। আপনি খাবার খাবেন, স্বাস্থ্যবান হবেন কিন্তু মেদ ভুরি থাকবে না।

shohag hasan  

গুণী

ওজন বাড়াতে চাই! স্বাস্থ্য বাড়াতে চাই!! মোটা হতে চাই!!। কী, অবাক হচ্ছেন? ভাবছেন যেখানে বিশ্ব জুড়ে সবাই শুধু স্লিম হতে চায়, সেখানে আবার মোটা হতে চায় কে?

আসলে কিছুটা মোটা হতে চাওয়া অস্বাভাবিক নয়। কারণ অত্যধিক মোটা শরীর যেমন দেখতে অসুন্দর, তেমনি অধিক চিকন, ফিনফিনে, রোগা-পাতলা শরীরও দেখতে ভালো লাগে না। 

তাই যার শরীর বেশ চিকন ও রোগাটে, তার মোটা হতে চাওয়াই স্বাভাবিক নয় কি? কারণ বেশি শুকনা শরীর দেখতে মানানসই নয়। আবার একটু লম্বা ছেলের শরীর চিকন হলে তো দেখতে আরো বেমানান লাগে। সুতরাং স্লিম শরীর সবার স্বপ্ন হলেও বেশি চিকন শরীর কারোই কাম্য নয়।

প্রকৃতপক্ষে বেশি মোটা বা বেশি চিকন, কোনটাই ভাল নয়; উভয়ের মাঝামাঝি একটি সুঠাম দেহই কল্যাণকর।

মোটা থেকে চিকন হওয়ার জন্য যেমন বাড়তি শারীরিক চর্চা ও শৃংখলা মেনে চলতে হয়, ঠিক তেমনি মোটা হতে হলে বা ওজন বাড়াতে হলেও চাই বাড়তি যত্ন ও নিয়ম-শৃংখলা।

নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার খেলে, রুটিনমাফিক জীবন যাপন করলে ও রাতের ঘুম ঠিক রাখলে আশা করা যায় আপনি দ্রুত স্বাস্থ্য মোটা করতে বা ওজন বাড়াতে পারবেন

তবে শুধু খেলেই চলবে না। খাওয়ার সময় আরো একটা বিষয় খেয়াল রাখতে হবে যে যা খাওয়া হচ্ছে, সেই খাদ্যে যেন রুচি থাকে। অরুচি নিয়ে আপনি যত খাবারই খান না কেন, তার পুষ্টিগুণ আপনার শরীরে সেভাবে কাজ নাও করতে পারে। খাবারে মজা পেতে হবে। খাবারকে মন দিয়ে উপভোগ করতে হবে। অন্য কোন কাজের ফাঁকে খাওয়া-দাওয়া করা যাবে না। বরং আলাদা সময় নিয়ে মন ভরে, পেট ভরে খেতে হবে।

অনেককেই দেখবেন, প্রচুর খাওয়া-দাওয়া করে। কিন্তু কোন স্বাস্থ্য বাড়ে না। এতোসব খাবার যে কোথায় যায়? এর কারণ হতে পারে যে তারা বেশি খেলেও খাওয়ার সময় খাবারের প্রতি মনোযোগ থাকে না। অথবা সেই খাবারে তার অরুচি রয়েছে, শুধু ক্ষুধা মেটানোর জন্যই খায়। অথবা শুধু খাবারই বেশী খায়, কিন্তু অন্যান্য নিয়ম-শৃংখলা মেনে চলে না। রাতে ঠিক সময়ে ঘুমায় না। রাতে ঘুম ঠিক না হলে আপনার শরীর ক্যালরি ধরে রাখতে পারবে না। সেক্ষেত্রে আপনার মোটা হবার সম্ভাবনা কমে যাবে।

অনেকে মনে করে ব্যায়াম শুধু তাদের জন্য যারা ওজন কমাতে যায়। কিন্তু এ ধারণা সম্পূর্ণ ভুল। যারা স্বাস্থ্য কমাতে চায় তাদের চেয়ে স্বাস্থ্য বাড়াতে চাওয়া লোকের ব্যায়াম করার প্রয়োজনীয়তা মোটেও কম নয়। তাই ওজন বাড়াতে চাইলেও প্রচুর ব্যায়াম করতে হবে।

মোটা হওয়ার উপায় হিসেবে ওজন বাড়ানোর জন্য জিমে যাওয়ার বিকল্প নেই। তবে মোটা হতে চাইলে অবশ্যই একজন অভিজ্ঞ ট্রেইনারের নির্দেশনা মাফিক ব্যায়াম করতে হবে।

ব্যায়াম করলে প্রচুর ক্ষুধা লাগে। এতে খাওয়ার চাহিদা বাড়বে। তাই পর্যাপ্ত পরিমাণে সুষম খাদ্য খেতে হবে। শরীর চর্চা করলে প্রচুর পানির পিপাসাও লাগে। সুতরাং ব্যায়ামের ফলে বেশি বেশি পানি খাওয়ার চাহিদাও সৃষ্টি হবে। নিয়মিত ব্যায়াম করলে টেনশন বা দুশ্চিন্তাও অনেকাংশে কমে যায়। আর দুশ্চিন্তা থেকে মুক্ত থাকতে পারলে শরীর-স্বাস্থ্য এমনিতেই ভালো থাকে। প্রয়োজন মতো এনার্জি ফুড খেতে হবে। প্রচুর পরিমাণে ফল খাওয়া যেতে পারে। এতে প্রচুর ক্যালরি পাওয়া যায়। এছাড়াও ফলের রস, জ্যাম, জেলি ইত্যাদিতে প্রচুর ফ্যাট থাকে যা আপনার শরীরকে মোটা হতে সাহায্য করবে।

তবে শুধু মোটা হলেই চলবে না। মোটা হবার সাথে সাথে সুগঠিত শরীরও গঠন করতে হবে। এইসব কিছু করার জন্য আপনাকে একটি সঠিক নির্দেশনা অনুসরণ করত হবে।

তাই মোটা হওয়া বা ওজন বাড়ানো বা স্বাস্থ্য বাড়ানোর সহজ উপায় নিয়ে WikiReZon টীম এই অ্যাপটি ডেভেলপ করেছে।

এ অ্যাপ থেকে জানতে পারবেনঃ
- মোটা হওয়ার সহজ উপায়
- কখন বুঝবেন আপনার ওজন বাড়ানো দরকার?
- কিভাবে ক্যালরি ধরে রাখবেন?
- ঔষধ সেবন করলে আপনি কি মোটা হতে পারবেন?
- ওজন বাড়ানোর জন্য ব্যায়াম
- মোটা হতে কী খাবেন?
- ওজন বাড়ানোর গুরুত্বপূর্ণ কিছু উপায়
- ওজন বাড়াতে প্রধান ২০টি খাদ্য
- পুষ্টিকর খাবার এর তালিকা
- শরীর বৃদ্ধির জন্য ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার
- ৬ মাসে ৮ কেজি বাড়ানো এক পুরুষের ঘটনা
এই অ্যাপের তথ্যসমূহ স্বাস্থ্য বিষয়ক বেশ কিছু সাইট থেকে সংকলিত হয়েছে।

এপস  এ যেতে Click Here

https://play.google.com/store/apps/details?id=com.WikiReZon.MotaHowarJadukoriUpay

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

আপনার রক্তের গ্রুপ অনুযায় খাদ্য গ্রহণ করতে হবে তাহলে আপনার চেহারার পরিবর্তন হবে আশা করি।

Asia Jannat  অতি সাধারন এক মানুষ

জ্ঞানী

সকালের দিকে ঘুমালে  এবং পর্যাপ্ত পরিমানে ডিম দুধ খেলে তাড়াতাড়ি স্বাস্থ্য ভালো হয়।

পানি দিয়ে  গরম ভাত খেলে তাড়াতাড়ি মোটা হয়া যায়।

Minhazur Rahman  Experienced in Self-help

পন্ডিত

3 বেলা ঠিকমতো খাবেন, প্রতিদিন অবশ্যই প্রোটিন যুক্ত খাবার খাবেন বিশেষ করে মাছ ডেইলি খাওয়ার চেষ্টা করবেন. প্রতিদিন হালকা পাতলা ব্যায়াম বা আধা ঘন্টা হাঁটবেন, কোষ্টকাঠিন্য থাকলে শাক সবজি বেশি খাবেন এবং ভুষি খাবেন. রাত জাগবেন না, বেশি করে পানি খাবেন তবে খাওয়ার সাথে সাথে পানি খাবেন না. আজেবাজে খাবার বা বাইরের খাবার খেয়ে মোটা হওয়ার চেষ্টা করবেন না. খাওয়ার আগেই ও পরে চা খাওয়ার অভ্যাস থাকলে বাদ দিন. যেগুলো বলেছি সেগুলো মেনে চললেই ইন শা আল্লাহ ২ মাসের মধ্যে 4-5 কেজি ওজন বাড়বে.


অথবা,