Preview
প্রশ্ন করুন

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

এইচ,এম,মাসউদুল আলম ফয়সাল  জাগ্রত বিশ্বকোলাহল-মাঝে গম্ভীর, স্তব্ধ, শান্ত, নির্বিকার

মহাগুরু

অন্যতম কৌশলী প্রশ্ন এটা | এই প্রশ্নটি প্রার্থীকে তার নিজের কথা বলার সুযোগ করে দেয় এবং এই প্রশ্নের কোন সঠিক ভা ভুল উত্তর নেই | প্রার্থী যা বলবে তাই | এই প্রশ্নের উত্তরে প্রার্থী তার সৃজনী শক্তিকে কাজে লাগাতে পারে কারণ এখানে সঠিক বা ভুল উত্তর নিয়ে ভাবতে হয় না | এতে চাকরিদাতা প্রার্থীর চরিত্র, কল্পনাশক্তি এবং উদ্ভাবনী শক্তি সম্পর্কে জানার সুযোগ পায় | এক্ষেত্রে আপনি আপনার জীবনবৃত্তান্তের যে তিনটি অথবা চারটি বিষয় তাদের স্মরণ করাতে চান সেগুলো তুলে ধরুন এবং ঐগুলো সম্পর্কে কথা বলুন | তাদের কাছে নিজের ব্যক্তিগত স্বপ্ন বলার ঝোঁক সংযত করা অতিব জরুরি | এই প্রশ্নটির উত্তরে প্রত্যেকেই যে ভুলটা করে থাকে সেটা হলো কোথায় সে পড়াশোনা করেছে, কী খেতে বা পড়তে ভালবাসে, ইত্যাদি তথ্য দিয়ে সময় নষ্ট করে | আসলে, আপনার নিজের সম্পর্কে বলা মানে আপনার পছন্দ বা অপছন্দের বিষয় সম্পর্কে নয়, বরং আপনি কী ধরনের জব প্রোফাইল পছন্দ করেন (তবে অবশ্যই যে পদের জন্য ইন্টারভিউ দিতে গিয়েছেন, সেটাকে প্রাধান্য দিতে হবে আপনাকে), বা কী বিষয় নিয়ে আপনি পড়াশোনা করেছেন, যে প্রোফাইলে কাজ করার জন্য আপনি আবেদন করেছেন, কেন আপনি সেই প্রোফাইলের জন্য উপযুক্ত সেসবই হল এই প্রশ্নের যথাযোগ্য উত্তর | সহজ ভাষায়, ইন্টারভিউয়ার বা প্রশ্নকর্তা যা কিনতে চাইছেন, আপনাকে তাই-ই বিক্রি করতে হবে | ইন্টারভিউ দেওয়ার সময় চেষ্টা করবেন ইন্টারভিউয়ার যেন আপনার সঙ্গে সমানভাবে অংশগ্রহণ করেন সেটা নিশ্চিত করতে | তাতে তার পছন্দ-অপছন্দ, প্রয়োজন সম্পর্কে আপনার একটা ধারণা তৈরি হয়ে যাবে | সাক্ষাৎকারগ্রহীতা এমন একজনকে খুঁজছেন যে তার দুর্বলতা এবং ক্ষমতাসমূহ সম্পর্কে অকপটে বলতে বাস্তবসম্মত হয় | তাদের নিজেদের দৃষ্টিগোচর থেকে আপনি আপনার দুর্বলতাগুলো প্রতিরোধ করতে কোন পদক্ষেপসমূহ নিয়েছিলেন সেগুলো বর্ণনা করতে এবং আপনার যোগ্যতার দাবির সপক্ষে কিছু উদাহরণ তুলে ধরা প্রয়োজন | সুতরাং, উদাহরণস্বরূপ, বিশৃঙ্খল হওয়া আপনার একটি সমস্যা, কিভাবে অগ্রাধিকার দিতে এবং তালিকা তৈরি করতে শিখেছেন তা ব্যাখ্যা করুন | মনে রাখতে হবে সম্পূর্ণসততা প্রকাশ করা যুক্তিযুক্ত নয় |

শাকিল আহমেদ  তোর স্বপ্ন ছোঁয়ার ইচ্ছে, মোর আজটা কেড়ে নিচ্ছে

মহাগুরু

এটা অনেকটা ওপেন কোয়শ্চেনের মতন। এর জন্য আপনি পূর্বে থেকেই একটি সংক্ষিপ্ত প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে পারেন। এখানে আপনি আপনার মত করে অনেক কিছুই বলতে পারেন। ফলে এই প্রশ্নটির উত্তর সম্পর্কে অনেকেই ভিন্ন ভিন্ন মত পোষণ করেন। তারা মতের সমর্থনে যার যার যুক্তিও দেন। আমি যেটা মনে করি সেটা হলো আপনারা কয় ভাই বোন, বাবা-মা কি করেন, কী খেতে বা পড়তে ভালবাসেন ইত্যাদি তথ্য দেয়া মানে সময় এবং সুযোগ দুটোই নষ্ট করা। আসলে, আপনার নিজের সম্পর্কে বলা মানে আপনার পছন্দ বা অপছন্দের বিষয় সম্পর্কে নয়। এখানে যে বিষয় গুলো বলা যেতে পারে- ১। আপনি কী ধরনের জব প্রোফাইল পছন্দ করেন; তবে এখানে অবশ্যই যে পদের জন্য ইন্টারভিউ দিতে গিয়েছেন, সেটাকে প্রাধান্য দিতে হবে আপনাকে। ২। কী বিষয় নিয়ে আপনি পড়াশোনা করেছেন ৩। ফ্রেশার না হলে, সাম্প্রতিক কাজের অভিজ্ঞতা বা কাজের ইতিহাস। সাম্প্রতিক কাজের অভিজ্ঞতার উপরই বেশি জোর দিন। ৪। যে প্রোফাইলে কাজ করার জন্য আপনি আবেদন করেছেন, কেন আপনি সেই প্রোফাইলের জন্য উপযুক্ত সেসবই এই প্রশ্নের যথাযোগ্য উত্তর বলে আমি মনে করি। তবে আপনি চাইলে আরো কিছু যোগ করে নিতে পারেন, আপনার যোগ্যতাকে তুলে ধরে ইন্টারভিউ প্যানেলিস্টদের ইমপ্রেস করতে। তবে মোটামুটি পাঁচটা টপিক বললেই যথেষ্ট। কাজের সাথে সম্পর্কযুক্ত বিষয়ে সীমাবদ্ধ থাকাই উত্তম। কিন্তু সাবধান থাকবেন এটি যেন মুখস্থ বলছেন মনে না হয়, সাবলীল ভাবে বলুন। সহজ ভাষায়, ইন্টারভিউয়ার বা প্রশ্নকর্তা যা কিনতে চাইছেন, আপনাকে তাই-ই বিক্রি করতে হবে। মনে রাখবেন, এটি আপনার প্রস্তুতি প্রশ্ন হতে পারে। তাই একটা ভালো ইম্প্রেশন, আপনার পুরো ইন্টারভিউয়কে প্রভাবিত করতে পারে। তাই ঘাবড়াবেন না।

মি"ল"ন  বন্ধুত্ব শুধু একটি শব্দ নয়; শুধু একটি সম্পর্ক নয়, বন্ধুত্ব একটি নীরব প্রতিশ্রুতি; আমি ছিলাম, আমি আছি এবং আমি থাকবো

গুরু

একজন চাকুরী প্রার্থীর জন্য একটা গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন | "নিজের সম্পর্কে কিছু বলুন" এই প্রশ্নটি যখন ইন্টারভিউ বোর্ড কোনো প্রার্থীকে আস্ক করে তখন বিচক্ষনার সাথে উত্তরে বলা উচিত, যে পোস্টটিতে আপনি এপলাই করেছেন তার সাথে আপনি কিভাবে ফিট সেটা | মানে আপনার শিক্ষা, অভিজ্ঞতা, কোনো ট্রেনিং এবং মেধা ও শ্রম কিভাবে এপলাইকৃত পোস্টটির সাথে সামজ্জসপুর্ণ অর্থাত নিয়োগদাতা কেন আপনাকে উক্ত পোস্টে চাকুরী বা নিয়োগ দিবেন সেটা তুলে ধরতে হবে | আপনার সম্পর্কে বলতে বলা হয়েছে মানে এই নয় যে, আপনি আপনার ফামিল্লির সদস্য, তারা কে কি করেন, আপনি কথায় পরা লিখা করেছেন প্রভৃতি কখনই নয় | ইন্টারভিউ বোর্ড চাকুরী প্রার্থীকে আর একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন করেন, তা হলো- " আপনার এপলাইকৃত পোস্টটি সম্পর্কে আমাদের কিছু বলুন" এখানে আপনি অর্গানায়জেসান সম্পর্কে বলবেন এবং এপলাইকৃত পোস্টটিতে নিয়োগ প্রাপ্ত হলে আপনি অর্গানায়জেসানটিকে কি দিতে পারবেন সেটা তুলে ধরবেন (পূর্বের মত করে ) | আন্তরিক ধন্যবাদ

Md. Akter Hosen  আমি মুক্তমনা একজন মানুষ।

বিশারদ

ইন্টারভিউ বোর্ডে যা করবেনঃ অবশ্যই কিছুনা কিছু খেয়ে বাসা থেকে বের হবেন।তা না হলে খালি পেটে থাকার জন্য আপনার মুখ থেকে দুর্গন্ধ বের হবে।পেটে বুটবাট শব্দ হবে। যদি অনাকাঙিখত ভাবে মুখে দুর্গন্ধ থেকেই থাকে তবে এলাচ,দারচিনি কিংবা লবঙ্গ মুখে রাখুন তবে সাবধান মুখে এলাচ,দারচিনি কিংবা লবঙ্গ নিয়ে বোর্ডে হাজির হবেন না। সালাম দিয়ে বোর্ডের সামনে যান। সময় বুঝে ইন্টারভিউয়ারদের উদ্দেশ্যে গুড মর্নিং,গুড আফটারনুন,গুড ইভিনিং বলুন। বসতে বললে শব্দ না কওে চেয়াওে বসুন এবং ধন্যবাদ বলুন। দরকারী সনদপত্র গুলো ফাইলে এমন ভাবে সাজিয়ে রাখুন যাতে দরকার পড়লে হাতড়াতে না হয় এবং ফাইলটিকে আলতো করে টেবিলের উপর রাখুন। কখনো হাচি এলে রুমাল কিংবা টিস্যু মুখে দিয়ে তা করবেন এবং পরনেই দুংখিত বলবেন। ইন্টারভিউয়ার সিগারেট কিংবা নেশাজাতীয় পানীয় অফার করলে তা সবিনয়ে প্রত্যাখ্যাণ করবেন। চেয়ারে হালকা হেলান দিয়ে এবং শিরদাড়া সোজা করে বসবেন। মেয়েরা হাতব্যাগটা চেয়ারের পাশে মাটিতে রাখুন কিংবা চেয়ারে ঝুলিয়ে দিন।ছোট হাতব্যাগ হলে আলতো করে টেবিলের একপাশে রাখুন। কাজটা কি আপনি পারবেন?এ ধরনের প্রশ্ন করা হলে আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করব এ ধরনের জবাব দেওয়াই উত্তম। বেরোবার সময় সালাম দিয়ে রুম থেকে বেরোবেন।

Taz Uddin  বর্ণচোরা ...... :)

গুরু

CV তে যেটা থাকে সেটা লিখিত কিন্তু প্রশ্নকর্তা দেখতে চান আপনি কারো সাথে কথা বলায় কতটা পারদর্শী, সেক্ষেত্রে CV লেখাগুলিই গুছিয়ে বলুন আর বাড়তি হিসাবে আপনার হবি,শিক্ষা প্রতিষ্টানে আপনার এক্সট্রা এক্টিভিটিস ইত্যাদি বলতে পারেন,আর জড়তা কাটানোর জন্য মনে করুন আপনি আপনর পরিচিত কিন্তু শ্রদ্ধেয় কারো সাথে কথা বলছেন

অনুপ  অদ্ভুত!!!

বিশারদ

এই ভিডিও টি দেখুন ! সরাসরি আপনার প্রশ্নেরই উত্তর দেয়া আছে । https://www.youtube.com/watch?v=XUhsNIeIgpY

Julfiker Hossain  ভদ্র নম্র নিরীহ নিরস্ত্র ব্যক্তি

গুণী

কেউ কাউকে চাকুরী দিতে চাইলে বেশী প্রশ্ন করেন না। লোক দেখানো ইন্টার ভিউতে, চাকুরীটা অন্যকে দিবে খামাকা ইন্টারভিউর আয়োজন করা বেকারকে হয়রানি করা হয়। একটা না একটা যোগ্যতা বেকারের অবশ্যই রয়েছে। চাকুরী দাতা তা খোঁজে বের করে লোকটিকে চাকুরী দিতে পারেন। অভিজ্ঞ হয়ে গেলে বেতন বাড়িয়ে দিতে পারেন। কিন্তু এদেশটা সে রকম নয়, ইন্টারভিউতে আগে টি/এ ডিএ দেওয়া হতো। এখন সামান্য চা দিতে চাকুরী প্রার্থী থেকে পোস্টাল অর্ডারের নামে ব্যাংক ড্রাফটের নামে চাকুরী দাতারা টাকা হাতিয়ে নেয়। তাছাড়া অগ্রজ ও পুরাতন কর্মকর্তা কর্মচারী আগন্তককে নিরুতসাহিত করা, হয়রানি করা গুপ্তভাবে সুপ্ত অপরাধে লিপ্ত হওয়া কাম্য নয়।


অথবা,