Preview
প্রশ্ন করুন
রিলেটেড কিছু বিষয়

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

( ২ টি উত্তর আছে )

( ৫১৩ বার দেখা হয়েছে)

nazrul islam  আমার হিয়ার মাজে লুকিয়ে ছিলে দেখতে আমি পাইনি........

জ্ঞানী

এক টুকরো সন্ধক লবণ ঘি এর শিশির মধ্যে রেখে দিন। এতে ঘি বেশি দিন টাটকা থাকবে, স্বাদেরও পরিবর্তন হবে না।

****মাধবীলতা****  *এখনো গোধূলির আলোতে খুঁজে ফিরি নিজেকে *

গুরু

স্বাস্থ্যের জন্য অল্প মাত্রার লবণ অপরিহার্য। এটা আমাদের সকলেরই জানা। খাবারের স্বাদ বৃদ্ধিতেও লবণের জুড়ি মেলা ভার। কিন্তু স্বাস্থ্য এবং খাবার ছাড়াও  আরো অনেক কাজে লাগানো যেতে পারে লবণকে। ভাবছেন রান্নার কাজ ছাড়া লবণ দিয়ে আবার কি করা যায়।

বাসন পরিষ্কার করতে :
তেলের আস্তরণ পড়ে গেছে এমন পাত্রের গায়ে লবণ লাগিয়ে রাখুন। তাতে কিছুটা পানি দিন। ২০ মিনিট এভাবে রেখে দেয়ার পর ধুয়ে ফেলুন। তেল চিটচিটে ভাব অনেকটাই কমে যাবে।

জুতোর গন্ধ দূর করতে :
বর্ষাকালে জুতোয় দুর্গন্ধের সমস্যায় অনেকে পড়েন। এর থেকে রেহাই পেতে জুতোয় লবণ ছড়িয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। লবণ জুতো থেকে সমস্ত আর্দ্রতা শুষে নিয়ে জুতো থেকে গন্ধ দূর করবে।

দুর্গন্ধ দূর করতে:
পাতিলেবুর রসের সঙ্গে পরিমাণ মতো লবণ মিশিয়ে নিন। তারপর দুর্গন্ধযুক্ত পোশাকে তা লাগিয়ে কিছুক্ষণ সূর্যের আলোয় রেখে দিন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

প্রাকৃতিক টুথপেস্ট :
টুথপেস্টের বিকল্প হিসেবে কখনো কখনো লবণ ব্যবহার করতে পারেন। এটি ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধেও কাজ করে। এটি দাঁতের প্লাক তৈরি কমায় এবং দাঁতের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে। টুথব্রাশের মধ্যে লবণ নিয়ে দাঁত মাজুন।

এছাড়া সমপরিমাণ লবণ ও বেকিং সোডা মিশিয়ে দাঁত ব্রাশ  করতে পারেন। তবে দাঁত ব্রাশের সময় বেশি ঘষাঘষি করবেন না। এতে মাড়ি ও দাঁতের অ্যানামেল ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

আরোগ্য এবং শিথিল:
হিমালয় বাথ সল্ট বা লবণ পানি দিয়ে গোসল করার ফলে চামড়া হাইড্রেড হয়, আর্দ্রতা বৃদ্ধি পায় এবং সেলুলারের পুনর্জন্ম উন্নীত করে। এছাড়া ত্বককে ডিটক্সিফাই বা দূষণমুক্ত করে এবং ত্বকের নিরাময়ে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। নোনা জলের পানিতে স্নান করলে পেশী এবং জয়েন্টগুলোতে প্রদাহ হ্রাস পায় এবং পেশীর ব্যথা বেদনা দূর করে দেয়।

সাদা বেসিন বা টাইলসের হলুদাভাব দূর করতে :
প্রায়ই দেখা যায় পুরো বেসিন পরিষ্কার হলেও কোণায় কোণায় হলুদ দাগ জমে থাকে। কিংবা সাদা টাইলসের ফাঁকে হলুদাভাবের সৃষ্টি হয়। সমপরিমাণ তারপিন আর লবণ মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি হলুদ স্থানে ঢেলে স্পঞ্জ দিয়ে ঘষে নিলে চকচকে ভাব চলে আসবে।

# অনেক সময় বরফ জমাট বেঁধে এত শক্ত হয়ে থাকে গলানো যায় না। নুন ফেল দিলে বরফ সহজে গলে যাবে।

# পোকা মাকড়ের কামড় থেকে রক্ষা পেতে সামান্য নুন নিয়ে আক্রান্ত জায়গায় ১০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। এতে ঘা শুকিয়ে যাবে।

# ঠান্ডা লাগলে এক গ্লাস গরম জলে নুন ফেলে গার্গল করার টোটকা সকলেই জানেন।


অথবা,