Preview
প্রশ্ন করুন
রিলেটেড কিছু বিষয়

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

Preview কাচা বাদাম নাকি ভাজা বাদাম কোনটা শরীরের জন্য বিশেষ উপকারী এবং কেন?

*কাচাবাদাম* *ভাজাবাদাম* *বাদাম* *হেলদিফুড* *হেলথটিপস*
( ১৩ টি উত্তর আছে )

( ৬৩,৭৫৫ বার দেখা হয়েছে)

হাফিজ উল্লাহ  খাচায় আবদ্ধ মন, ঘুরে ফিরে খুঁজে সেই স্বাধীনতার রং

গুরু

আরো একটি সুন্দর প্রশ্ন .... উত্তর দেয়া থেকে লোভ সামলাতে পারলাম না.... এক মুঠো বাদামে দুইশ ক্যালোরি পাওয়া যায়। বাদামে যে ধরনের চর্বি পাওয়া পাওয়া জায়,তা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভাল । দৈনিক এক মুঠো বাদাম শরীরে HDL কোলেস্টেরল বাড়ায় যা স্বাস্থ্যকর। বাদাম এত স্বাস্থ্যকর হওয়ার কারন এতে রয়েছে ভিটামিন,খনিজ,আঁশ ,মনস্যাচুরেটেড ও পলিস্যাচুরেটেড চর্বি আর ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড প্রভৃতি।এবার আসি আপনার আসল প্রশ্নে তেলে ভাজা বাদাম, মধু বা চিনি মেশানো বাদাম খেলে উপকারের পরিবর্তে অপকারই বেশি হবে। এতে ওজন বাড়বে। রক্তচাপ বাড়বে । বাদাম দৈনিক এক মুঠোর বেশি খাওয়া উচিত নয়। পোলাও ,হালুয়া, ফিরনি, জর্দা প্রভৃতির সাথে বাদাম খেলে লাভের চেয়ে ক্ষতি হওয়ার আশংকাই বেশি। অতএব সামান্য লবলসহ শুকনো বাদাম খান কাজে আসবে ধন্যবাদ l

জুনি  মাঝে মাঝে তব দেখা পাই, চিরদিন কেন পাই না

মহাগুরু

কাচা বাদাম ও ভাজা বাদাম যদি দুটোর তুলনার কথা বলা হয়,অবশ্যই অবশ্যই কাচা বাদাম ভালো,উপরের উত্তরে হাফিজ ভাই অনেকটুকু বলে দিয়েছেন,আমি সাথে একটু যোগ করে দিচ্ছি কাচা বাদাম কিন্তু ত্বকের জন্য ও অনেক ভালো,অন্যদিকে ভাজা বাদাম শরীর এর জন্য ক্ষতিকর অনেক,বিশেষ করে আমরা যে চানাচুর এর সাথে যে বাদাম খাই,অতএব আমাদের উচিত ভাজা বাদাম এড়িয়ে চলা এবং কাচা বাদাম খাওয়া..ধন্যবাদ

মন্টি মনি  আড্ডা দিতে ভালোবাসি, ভালোবাসি প্রিয় মানুষটির হাত ধরে ঘুরতে | আর ভিষণ কষ্ট পাই কেও অবহেলা করলে....

মহাগুরু

কাচা বাদাম শরীরের জন্য বেশি উপকারী | কেননা ভাজা বাদামে প্রচুর ফ্যাট থাকে | এতে এসিডিটি ও বাড়ে | যাদের এসিডিটির সমস্যা আছে তাদের ভাজা বাদাম এড়িয়ে চলাই ভালো |

Lutfun Nessa  সবই অনিশ্চিত, মরিব এটা নিশ্চিত:(

মহাগুরু

 

বাদাম ভাজা স্বাস্থ্যকর নাকি কাঁচা?

 
বাদাম খেতে আমরা অনেকেই ভালোবাসি। পার্কে কিংবা অপেক্ষায় বাদাম অনেকেরই প্রিয় খাবার। বাদাম কিন্তু শরীরের শুধু পুষ্টি-ই জোগায় না, বরং বাদামের আছে নানা গুণ।

বাদামে থাকে পর্যাপ্ত চর্বি ও প্রোটিন এবং এর চর্বির প্রায় পুরোটাই অসম্পৃক্ত ধাচের অর্থাৎ স্বাস্থ্যকর। এতে ভিটামিন বেশি না পাওয়া গেলেও পর্যাপ্ত পরিমাণে পটাশিয়াম আছে। তাছাড়াও ম্যাগনেসিয়াম সহ প্রয়োজনীয় আরো কিছু খনিজ এতে রয়েছে। খাদ্য নিয়ন্ত্রণ যারা করেন, তারা ক্যালরি বেড়ে যাওয়ার ভয়ে বাদামের চর্বি এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেন। বাদামে শর্করা সামান্যই আছে। ফলে বাদাম খেলে ওজন বাড়বে না। সেই সাথে এটি গ্লুকোজের মাত্রা ঠিক রেখে শরীরের জন্য ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে দেয়। জেনে রাখা ভালো যেসব নারী নিয়মিত বাদাম খান, তাদের স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি অর্ধেক কমে যায়। যারা সপ্তাহে কয়েক দিন বাদাম খান, তাদের হৃদরোগের সম্ভাবনা ৭৪ শতাংশ কমে যায়। বাদাম এত স্বাস্থ্যকর হওয়ার কারন হচ্ছে, এতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন,খনিজ,আঁশ ,মনস্যাচুরেটেড ও পলিস্যাচুরেটেড চর্বি আর ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড প্রভৃতি।

তবে কাচা বাদাম ও ভাজা বাদাম এই দুটোর তুলনার কথা বলা হলে,অবশ্যই কাচা বাদাম ভালো। কেননা ভাজা বাদামে প্রচুর ফ্যাট থাকে | এতে এসিডিটি ও বাড়ে | যাদের এসিডিটির সমস্যা আছে তাদের ভাজা বাদাম এড়িয়ে চলাই ভালো। তাছাড়াও তেলে ভাজা বাদাম, মধু বা চিনি মেশানো বাদাম খেলে উপকারের পরিবর্তে অপকারই বেশি পাওয়া যাবে। এতে ওজন বাড়বে, রক্তচাপ বাড়বে। তাই ভাজা বাদাম খেতে ভালো লাগলেও দৈনিক এক মুঠোর বেশি খাওয়া উচিত নয়। পোলাও ,হালুয়া, ফিরনি, জর্দা প্রভৃতির সাথে বাদাম খেলে লাভের চেয়ে ক্ষতি হওয়ার আশংকাই বেশি। অন্যদিকে, কাচা বাদামে বেশি ভিটামিন থাকে, এটা শরীরের জন্য বেশ উপকারী। যারা কখনোই বাদাম খান না তাদের তুলনায় যারা সপ্তাহে একবারেরও কম বাদাম খান তাদের মৃত্যু ঝুঁকি ৭ শতাংশ, যারা সপ্তাহে অন্তত একবার বাদাম খান তাদের ঝুঁকি ১১ শতাংশ, যারা সপ্তাহে ২ বা ৪ বার বাদাম খান তাদের ১৩ শতাংশ এবং যারা প্রতিদিন বাদাম খান তাদের মৃত্যু ঝুঁকি ২০ শতাংশ কমে যায়।

১.৫ আউন্স বাদামে বিদ্যমান পুষ্টি (গ্রাম হিসেবে): সাধারণ বাদাম, ক্যালোরী ২৪৯ গ্রাম, ফ্যাট ২১.১ গ্রাম, প্রোটিন ১০.১ গ্রাম, পেস্তা বাদাম- ক্যালোরী ২৪৩ গ্রাম, ফ্যাট ১৯.৬ গ্রাম, প্রোটিন ৯.১ গ্রাম, বিদেশী বাদাম- ক্যালোরী ২৫৪ গ্রাম, ফ্যাট ২২.৫ গ্রাম, প্রোটিন ৯.৪ গ্রাম, বড় বাদাম- ক্যালোরী ২৭৯ গ্রাম, ফ্যাট ২৮.২ গ্রাম, প্রোটিন ৬.১ গ্রাম, কাজু বাদাম- ক্যালোরী ২৪৪ গ্রাম, ফ্যাট ১৯.৭ গ্রাম, প্রোটিন ৬.৫ গ্রাম, বাদুর বাদাম- ক্যালোরী ২৭৫ গ্রাম, ফ্যাট ২৬.৫ গ্রাম, প্রোটিন ৬.৪ গ্রাম, আখরোট- ক্যালোরী ২৭৮ গ্রাম, ফ্যাট ২৭.৭ গ্রাম, প্রোটিন ৬.৫ গ্রাম, ম্যাকাড্যামিয়াস- ক্যালোরী ৩০৫ গ্রাম, ফ্যাট ৩২.৪ গ্রাম, প্রোটিন ৩.৩ গ্রাম, পেক্যান্স- ক্যালোরী ৩০২ গ্রাম, ফ্যাট ৩১.৬ গ্রাম, প্রোটিন ৪.০ গ্রাম।

ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন নিরন্তর।

সুমি রহমান  গুটিকয় বৃষ্টির ফোঁটা

মহাগুরু

দুটোই ভালো! তবে তুলনামূলকভাবে কাচা বাদাম ভালো!

চন্দ্র বিন্দু  একটা সুন্দর জীবন ধ্বংস করতে গোলা বারুদ এর প্রয়োজন নেই। ছোট্ট একটা মিথ্যা ভালোবাসার অভিনয়ই যথেষ্ট।

পন্ডিত

ভাজা বাদামের চেয়ে কাচা বাদামে ভিটামিন বেশি

ফারুক হোসাইন সূর্য  আমি কি তা জানি না

গুণী

কাচা বাদাম এ বেশি ভিটামিন থাকে, তাই এটা শরীরের জন্য বেশ উপকারী.

farhan khan tutul  সাদা মনকে নিয়ে নিঃস্ব এক মানুষ

জ্ঞানী

কাচা বাদাম এ বেশি ভিটামিন থাকে,এটা শরীরের জন্য বেশ উপকারী. যারা কখনোই বাদাম খান না তাদের তুলনায় যারা সপ্তাহে একবারেরও কম বাদাম খান তাদের মৃত্যু ঝুঁকি ৭ শতাংশ, যারা সপ্তাহে অন্তত একবার বাদাম খান তাদের ঝুঁকি ১১ শতাংশ, যারা সপ্তাহে ২ বা ৪ বার বাদাম খান তাদের ১৩ শতাংশ এবং যারা প্রতিদিন বাদাম খান তাদের মৃত্যু ঝুঁকি ২০ শতাংশ কমে যায়। বাদাম খেলে মানুষ মোটা হয়ে যায় এবং হৃদরোগীদের ঝুঁকি বাড়ায়– দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা এই ধারণাকে মিথ্যা প্রমাণ করেছে বোস্টনের একটি হাসপাতালের গবেষণা। গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত বাদাম খেলে মানুষ হালকা পাতলা গড়নের হয় এবং তাদের ক্যান্সার ও হৃদ রোগের ঝুঁকি কমে। ডা. ইয়াং বাও এই গবেষণা পরিচালনা করেন এবং তা নিউ ইংল্যাণ্ড মেডিসিন জার্নালে প্রকাশিত হয়। রিপোর্টে বলা হয়েছে, বিশেষ করে বয়স্ক লোকদের হৃদ রোগ হলে যে ঝুঁকি থাকে তা কেটে যায় বাদাম খেলে। এক্ষেত্রে স্ট্রোকের সম্ভাবনাও কমে যায়।

Helen Ahmed  হেলেন একটি ফুলের নাম. আমি এক জন মা, এটি আমার বড় পরিচই

মহাগুরু

কাচা বাদাম বা ভাজা বাদাম শরীরের জন্য বিশেষ উপকারী হয় যদি ৬-১২ বছরের বাচ্চা হয় খাওয়া যেতে পারে. কিন্তু বাদাম বড়দের জন্য ক্ষতিকর, কারণ এতে প্রচুর চর্বি আছে যা এক জন মানুষকে উচ্চ রক্তচাপ বাড়িয়ে দিতে পারে. আর কেউ বাসায় ডেইলি খাবার তাকিকায় রাখে না, তবে ঈদ বা কোনো অনুষ্টানে সেমাই জর্দা, অন্য মিষ্টি জিনিসে ব্যবহার করা হয়.

মুশফিকুর রহমান :::  আমি অনেক চিন্তিত ...........

জ্ঞানী

আসলে ভাই কাচা বাদাম শরীরের জন্য বেশ উপকারী.এটা মানি তবে সাদারনত আমাদের বাদাম যকন তকনতো আর খাইনা,হইতো আড্ডা ,বা রাস্তার পাসে যকন পাই তকন বাদাম খাই,সেইকানেত আর কাচা বাদাম বিক্রি হইনা ......

শাহানাজ সুলতানা  খুব সাধারণ

পন্ডিত

কাচা বাদাম খেলে উপকার পাওয়া যায় । ভাজা বাদাম মুখোরচক কিন্তু ক্ষরিকর। ভাজা বাদামে গ্যাস হয়।

মেঘের নীল  অস্থির পাবলিক

গুণী

কাচা বাদাম শরীরের জন্য বেশি উপকারী।।

ফাতেমা তুজ জোহরা  গল্পকলি

পন্ডিত

কাচা বাদাম বেশি উপকারী । তবে অবশ্যই অল্প পরিমানে খেতে হবে।ভাজা বাদাম অ্যাসিডিটি  বৃদ্ধি করে।বাদামের আর একটি দারুন গুন হল এতে কিছু পরিমানে অ্যান্টি এজিং উপাদান রয়েছে যা ত্বকে লাবন্য ধরে রাখতে সাহায্য করে । 


অথবা,